ঈদ কাহ মসজিদ

স্থানাঙ্ক: ৩৯°২৮′২০″ উত্তর ৭৫°৫৯′০৩″ পূর্ব / ৩৯.৪৭২২৭° উত্তর ৭৫.৯৮৪১০৬° পূর্ব / 39.47227; 75.984106
উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
مسجد عيدگاه
ঈদ কাহ মসজিদ
艾提尕尔清真寺
Ài Tí Gǎ Ěr Qīng Zhēn Sì
Id Kah Mosque (39712811190).jpg
২০১৭ সালে ঈদগাহ মসজিদ
ধর্ম
অন্তর্ভুক্তিইসলাম
প্রদেশজিনজিয়াং
অবস্থান
অবস্থানকাশগর, জিনজিয়াং, চীন
লুয়া ত্রুটি মডিউল:অবস্থান_মানচিত্ এর 480 নং লাইনে: নির্দিষ্ট অবস্থান মানচিত্রের সংজ্ঞা খুঁজে পাওয়া যায়নি। "মডিউল:অবস্থান মানচিত্র/উপাত্ত/জিনজিয়াং" বা "টেমপ্লেট:অবস্থান মানচিত্র জিনজিয়াং" দুটির একটিও বিদ্যমান নয়।
ভৌগোলিক স্থানাঙ্ক৩৯°২৮′২০″ উত্তর ৭৫°৫৯′০৩″ পূর্ব / ৩৯.৪৭২২৭° উত্তর ৭৫.৯৮৪১০৬° পূর্ব / 39.47227; 75.984106
স্থাপত্য
স্থপতিশাকসিজ মির্জা
ধরনমসজিদ
সম্পূর্ণ হয়১৪৪২
নির্দিষ্টকরণ
ধারণ ক্ষমতা২০,০০০
মিনারসমূহ
ঈদ কাহ মসজিদ
চীনা নাম
সরলীকৃত চীনা 艾提尕尔清真寺
ঐতিহ্যবাহী চীনা 艾提尕爾清真寺
উইগুর নাম
উইগুর
ھېيتگاھ مەسچىتى

ঈদ কাহ মসজিদ (উইগুর ভাষায়: ھېيتگاھ مەسچىتى‎, Хейтгах Месчити; সরলীকৃত চীনা: 艾提尕尔清真寺; প্রথাগত চীনা: 艾提尕爾清真寺; ফিনিন: Àitígǎěr Qīngzhēnsì; ফার্সি: عیدگاه, Eidgāh, অর্থ "উৎসবের স্থান") চীনের জিনজিয়াং প্রদেশের কাশগরে অবস্থিত একটি ঐতিহাসিক মসজিদ এবং পর্যটন স্থান।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

ঈদ কাহ ছিল জিনজিয়াং এবং চীনের বৃহত্তম মসজিদ (২০০৯ সালের হিসাবে)।[১][২]প্রতি শুক্রবার, এটিতে প্রায় ১০,০০০ জন প্রার্থনাকারী থাকে এবং ২০,০০০ জনের পর্যন্ত স্থান সংকুলান হয়। [৩][৪] সপ্তাহের অন্য দিনগুলোতে প্রায় দুই হাজার মুসল্লি নামাজ পড়তে মসজিদে আসেন।[১]

মসজিদটি আমির সাইয়্যেদ আলীর দুই ছেলের মধ্যে বড় ছেলে সাকসিজ মির্জা তার পূর্বপুরুষদের স্মরণে ১৪৪২ সালে নির্মাণ করেছিলেন।[৫](যদিও এটি ৯৯৫ সালের পুরনো স্থাপনাগুলিকে অন্তর্ভুক্ত করেছিল) মসজিদটি প্রায় ১৬,০০০ বর্গ মিটার এলাকা জুড়ে।[৬]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "All Quiet on the Western Front -- Beijing Review"www.bjreview.com। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৫-০৫ 
  2. China Report: Political, Sociological and Military Affairs (ইংরেজি ভাষায়)। Foreign Broadcast Information Service। ১৯৮৫। 
  3. Peter Neville-Hadley. Frommer's China. Frommer's, 2003. আইএসবিএন ৯৭৮-০-৭৬৪৫-৬৭৫৫-১. Page 302.
  4. "Id Kah Mosque in Kashgar of Xinjiang: History & Opening Hours"www.topchinatravel.com। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৮-১২ 
  5. 旅游词典 (১৯৯২)। 旅游辭典 (চীনা ভাষায়)। 陕西旅游出版社। 
  6. Qi, Xiaoshan (অক্টোবর ১৯৯৪)। Ancient art in Xinjiang, China (ইংরেজি ভাষায়)। 新疆美術攝影出版社। 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]