ইউসূফ আল-কারযাভী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ইসলামিক পন্ডিত
ইউসুফ আল-কারযাভী
يوسف عبد الله القرضاوي
Qardawi.JPG
উপাধিশাইখ
জন্ম (১৯২৬-০৯-০৯) ৯ সেপ্টেম্বর ১৯২৬ (বয়স ৯২)
সফট তুরাব, মিশর
যুগআধুনিক
অঞ্চলমিশর
লক্ষণীয় কাজফিকহ আল যাকাত, আল হালাল ওয়া আল হারম ফী আল ইসলাম, মাযহাবের আল জিহাদ, মাযহাবের আল আওয়লিয়াক, মাযহাবের আল দৌলার, মাধাকল লি-মা'রিফাহ আল ইসলাম, অন্যান্য

ইউসূফ আল-কারযাভী হলেন একজন মিশরীয় ইসলামি স্কলার । ইসলামিক বিভিন্ন বিষয়ে লেখা তার কয়েকশ গ্রন্থ রয়েছে। সবগুলোই পাঠক মহলে ব্যাপক সমাদৃত হয়েছে। আল জাজিরা টেলিভিশনে শরীয়াহ এবং জীবন নামক তার অনুষ্ঠান তাকে পৃথিবীব্যাপি পরিচিত করে তোলে। তিনি মিশর ভিত্তিক আন্তর্জাতিক সংগঠন মুসলিম ব্রাদারহুড এর পরামর্শক। তাকে ব্রাদারহুড়ের শীর্ষস্থানীয় নেতা মনে করা হয়। তিনি আলেমদের আন্তর্জাতিক সংগঠন ইত্তেহাদুল আলামী লি উলামাইল মুসলিমীন এর সভাপতি ছিলেন।


জন্ম: 9 সেপ্টেম্বর 1926 মিশরের গারবিয়্যা জেলায় জন্মগ্রহন করেন।

শিক্ষাজীবন: দশ বছর বয়স হবার আগেই হিফজ সম্পন্ন করেন। অতপর আল-আজহারের শিক্ষাপদ্ধতিতে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পড়াশোনা করেন। উচ্চ মাধ্যমিকে তিনি সারা মিশরে দ্বিতীয় হন। আল আজহারের উসুলুদ দ্বীন অনুষদ থেকে অনার্সو মাষ্টাস এবং পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেন। তার পিএইচডি বিষয় ছিল “যাকাত এবং সামাজিক সমস্যা সমাধানে তার প্রভাব।”


তার জীবনের কিছু পট পরিবর্তন: দুই বছর বয়সে তার বাবা মারা যান। চাচা তার শিক্ষাদিক্ষার ভার বহন করেন। ইখওয়ানুল মুসলেমিনের সাথে সম্পৃক্ততার কারণে তাকে বেশ কয়েকবার কারাবরণ করতে হয়। প্রথমবার 1949 সালে রাজকীয় আমলে। এরপর প্রেসিডেন্ট জামাল আব্দুন নাসেরের আমলে তিনবার। 1954 সালের জানুয়ারিতে প্রথমবার। একই সালের নভেম্বর মাসে দ্বিতীয়বার। এবার তিনি 20 মাস কারাগারে কাটান। শেষবার 1963 সালে। 1961 সালে তিনি কাতারে প্রথম পাড়ি জমান। 1973 সালে কাতার বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামী স্টাডিজ বিভাগের প্রতিষ্ঠা করেন এবং ডিপার্টমেন্ট প্রধান হিসেবে যোগ দেন।

পুরষ্কার:

  • 1411 হিজরীতে ইসলামী অর্থণীতিতে অবদান রাখায় ব্যাংক ফয়সল পুরষ্কার লাভ করেন।
  • 1413 হিজেরীতে ইসলামী শিক্ষায় অবদানের জন্য আন্তর্জাতিক বাদশাহ ফয়সাল পুরষ্কারের জন্য তাকে সিলেক্ট করা হয়। মুসলিম বিশ্বের নোবেল খ্যাত এ পদকটির পাওয়ার সন্মানটা এ বছর তার ভাগ্যে জোটে।
  • 1997 সালে ব্রুনাই সরকার তাকে হাসান বাকলি পুরষ্কারে সম্মান প্রদান করে।


বাংলায় অনুদিত তার বই সমূহ:

  • সুন্নাহর সান্নিধ্যে
  • ইসলামী পুনর্জাগরণ : সমস্যা ও সম্ভাবনা
  • ইসলামে হালাল হারামের বিধান
  • ঈমান ও সুখ
  • বুদ্ধিদীপ্ত জাগরণের প্রত্যাশায়
  • ইসলামের বিজয় অবশ্যম্ভাবী
  • আধুনিক যুগ ইসলাম কৌশল ও কর্মসূচী
  • ইসলাম ও চরমপন্থা
  • ইসলাম ও শিল্পকলা
  • ইসলামী রাষ্ট্রব্যবস্থাঃ তত্ত্ব ও প্রয়োগ
  • ইসলামে অর্থনৈতিক নিরাপত্তা
  • ইসলামে এবাদতের পরিধি
  • ইসলামে দারিদ্র বিমোচন
  • ইসলামের যাকাতের বিধান ১ম ও ২য় খণ্ড
  • জেরুজালেম বিশ্ব মুসলিম সমস্যা

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]