অ্যান্ডি মোলস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
অ্যান্ডি মোলস
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামঅ্যান্ড্রু জেমস মোলস
জন্ম (1961-02-12) ১২ ফেব্রুয়ারি ১৯৬১ (বয়স ৫৮)
সোলিহাল, ওয়ারউইকশায়ার
ডাকনামমোলার
উচ্চতা৫ ফুট ১০ ইঞ্চি (১.৭৮ মিটার)
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি ফাস্ট-মিডিয়াম
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
১৯৮৬-১৯৮৯গ্রিকুয়াল্যান্ড ওয়েস্ট
১৯৮৬-১৯৯৭ওয়ারউইকশায়ার
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ২৩০ ১৮৫
রানের সংখ্যা ১৫,৩০৫ ৪,৭৩৩
ব্যাটিং গড় ৪০.৭০ ২৮.০০
১০০/৫০ ২৯/৮৯ ২/১৫
সর্বোচ্চ রান ২৩০* ১২৭
বল করেছে ১,৮৮২ ৮২৪
উইকেট ৪০ ১২
বোলিং গড় ৪৭.০৫ ৬৯.৫০
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট -
সেরা বোলিং ৩/২১ ২/২৪
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ১৪৬/– ৫০/–
উৎস: ক্রিকেটআর্কাইভ, ১ মার্চ ২০১৭

অ্যান্ড্রু জেমস মোলস (ইংরেজি: Andy Moles; জন্ম: ১২ ফেব্রুয়ারি, ১৯৬১) ওয়ারউইকশায়ারের সোলিহাল এলাকায় জন্মগ্রহণকারী সাবেক ইংরেজ ক্রিকেটার। প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে ওয়ারউইকশায়ার এবং গ্রিকুয়াল্যান্ড ওয়েস্ট দলের পক্ষে খেলেছেন অ্যান্ডি মোলস। খেলোয়াড়ী জীবন শেষে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট দল ও পরবর্তীতে আফগানিস্তান দলে কোচের দায়িত্ব পালন করেছেন।[১]

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

ডানহাতি উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান হিসেবে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট খেলেন। ১৯৮৬ থেকে ওয়ারউইকশায়ার দলের পক্ষে ক্রিকেট খেলেন। ৩৮.৫৯ গড়ে তিনি ১৩,৩১৬ রান সংগ্রহ করেন। ১৯৮০-এর দশকের শেষদিকে দক্ষিণ আফ্রিকার ঘরোয়া ক্রিকেটে গ্রিকুয়াল্যান্ড ওয়েস্টের পক্ষে তিন মৌসুম খেলেন ও ৬৪.১৬ গড়ে ১,৯৮৯ রান তোলেন। ১৯৯৭ সালে ওয়ারউইকশায়ার দলে খেলে অবসর নেন।

কোচের দায়িত্ব পালন[সম্পাদনা]

খেলোয়াড়ী জীবন থেকে অবসর নেয়ার পর গ্রিকুয়াল্যান্ড ওয়েস্ট দলে পাঁচ বছর কোচের দায়িত্ব পালন করেন। ২০০৩ সালে কেনিয়ার কোচের দায়িত্ব পেলেও কেনিয়ান ক্রিকেট বোর্ড ও কেনিয়ার ক্রিকেটারদের মধ্যে ক্রমবর্ধমান উত্তেজনাপূর্ণ সময়কাল অতিবাহিত করেন। এরই জের ধরে ২০০৪ সালের শেষদিকে কোচের দায়িত্ব পালন থেকে পদত্যাগ করতে বাধ্য হন তিনি।

জানুয়ারি, ২০০৫ সালে স্কটল্যান্ড দলের কোচের দায়িত্ব পান। কিন্তু জ্যেষ্ঠ খেলোয়াড়দের সাথে মতানৈক্য হওয়ায় একবছরেরও কম সময়ের মধ্যে দায়িত্ব ছেড়ে দেন।

২০০৬-০৭ মৌসুমে নিউজিল্যান্ডীয় ঘরোয়া ক্রিকেটে নর্দার্ন ডিস্ট্রিক্টসের কোচের দায়িত্বভার গ্রহণ করেন। প্রথম মৌসুমেই তিনি দলকে রাজ্য চ্যাম্পিয়নশীপের শিরোপা জয়ে সহায়তা করেন।

নভেম্বর, ২০০৮ সালে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট কর্তৃপক্ষ অ্যান্ডি মোলসকে নিউজিল্যান্ড দল পরিচালনার জন্য জন ব্রেসওয়েলের স্থলাভিষিক্ত করে।[২] কিন্তু অক্টোবর, ২০০৯ সালে দলের জ্যেষ্ঠ খেলোয়াড়দের সাথে পুণরায় মতানৈক্য সৃষ্টি হওয়ায় এ পদ থেকে চলে আসেন।[৩] এরপর নর্দাম্পটনশায়ারের ওয়েলিংবোরা স্কুলের কোচের দায়িত্ব পান।

জুন, ২০১৪ সালে ২০১৫ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপে আফগানিস্তান ক্রিকেট দলকে সহায়তার জন্য ব্যাটিং কোচের দায়িত্ব প্রদান করা হয়।[৪][৫] পরবর্তীতে ৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৪ তারিখে প্রধান কোচ হিসেবে কবির খানের স্থলাভিষিক্ত হয়েছিলেন তিনি।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Afghanistan coach Andy Moles on the 'most dangerous job in sport'". BBC Sport. 17 February 2015. Retrieved 18 February 2015.
  2. "Black Caps install Moles as coach"। ২৫ নভেম্বর ২০০৮। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-১১-২৬ 
  3. "Moles quits as New Zealand coach"BBC Sport। ২৪ অক্টোবর ২০০৯। ২০০৯-১০-২৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-১০-২৪ 
  4. Afghanistan appoint Moles as batting coach
  5. Moles named new Afghanistan coach

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]


পূর্বসূরী
কবির খান
আফগানিস্তান জাতীয় ক্রিকেট দলের কোচ
২০১৪-২০১৫
উত্তরসূরী
ইনজামাম-উল-হক