নাথান ম্যাককুলাম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
নাথান ম্যাককুলাম
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নাম নাথান লেসলি ম্যাককুলাম
জন্ম (১৯৮০-০৯-০১) ১ সেপ্টেম্বর ১৯৮০ (বয়স ৩৪)
ডুনেডিন, ওতাগো, নিউজিল্যান্ড
ব্যাটিংয়ের ধরণ ডানহাতি ব্যাটসম্যান
বোলিংয়ের ধরণ ডানহাতি অফ ব্রেক
সম্পর্ক বিবি ম্যাককুলাম (ভাই)
এসজে ম্যাককুলাম (বাবা)
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
ওডিআই অভিষেক (ক্যাপ ১৫৬) ৮ সেপ্টেম্বর ২০০৯ বনাম শ্রীলঙ্কা
শেষ ওডিআই ৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ বনাম পাকিস্তান
ওডিআই শার্ট নং ১৫
টি২০আই অভিষেক (ক্যাপ ২৬) ১৯ সেপ্টেম্বর ২০০৭ বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা
শেষ টি২০আই ৫ ডিসেম্বর ২০১৪ বনাম পাকিস্তান
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছর দল
১৯৯৯-বর্তমান ওতাগো
২০১০ ল্যাঙ্কাশায়ার
২০১১ পুনে ওয়ারিয়র্স ইন্ডিয়া
২০১২ সিডনি সিক্সার্স
২০১৩ গ্ল্যামারগন
কর্মজীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা ওডিআই টি২০আই এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ৭৮ ৫৭ ৬৪ ১৯৪
রানের সংখ্যা ১০৩০ ২৭৫ ২,২৮৮ ৩,০১৪
ব্যাটিং গড় ২১.০২ ১১.৯৫ ২৫.১৪ ২৩.৫৪
১০০/৫০ ০/৪ -/- ১/১৪ ১/১৬
সর্বোচ্চ রান ৬৫ ৩৬* ১০৬* ১১৯
বল করেছে ২,৬২৮ ৯৯৭ ১১,৩৩৫ ৮,৭৩১
উইকেট ৫৫ ৫২ ১৩৬ ১৫৯
বোলিং গড় ৪৭.৭৮ ২১.৫৫ ৪০.২৫ ৪১.৭২
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ৩/২৪ ৪/১৬ ৬/৯০ ৫/৩৯
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৩৭/– ২১/– ৭০/– ৯০/–
উত্স: ESPNcricinfo, ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৫

নাথান লেসলি ম্যাককুলাম (ইংরেজি: Nathan Leslie McCullum; জন্ম: ১ সেপ্টেম্বর, ১৯৮০) নিউজিল্যান্ডের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার। ডানহাতে ব্যাটিংয়ে অভ্যস্ত নিম্নসারির ব্যাটসম্যান এবং ডানহাতে অফ ব্রেক বোলিং করে থাকেন। নিউজিল্যান্ড দলের হয়ে টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিকএকদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলছেন।

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

১৯৯৯-২০০০ মৌসুমে ওতাগো’র পক্ষে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অভিষিক্ত হন। ২০০৭ সালে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি’র জন্যে ৩০-সদস্যের দলে নিজ ওতাগো দলের খেলোয়াড় ওয়ারেন ম্যাকস্কিমিং এবং ব্র্যাডলি স্কটের সাথে তিনিও মনোনীত হন। কিন্তু চূড়ান্ত দলে মনোনীত হতে পারেননি। ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০০৭ তারিখে দক্ষিণ আফ্রিকায় অনুষ্ঠিত টুয়েন্টি২০ বিশ্বকাপে দক্ষিণ আফ্রিকার দলের বিপক্ষে টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিকে অভিষেক ঘটে ম্যাককুলামের। ৮ সেপ্টেম্বর, ২০০৯ তারিখে কলম্বোয় অনুষ্ঠিত একদিনের আন্তর্জাতিকে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে প্রথমবারের মতো অংশ নেন। অদ্যাবধি তিনি কোন টেস্ট ক্রিকেট খেলেননি। তারপরও উপমহাদেশে অনুষ্ঠিত সংক্ষিপ্ত ধরনের আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপের অন্যতম খেলোয়াড় ছিলেন তিনি।

অন্যান্য[সম্পাদনা]

ক্রিকেটে মনোনিবেশের পূর্বে তিনি ক্যাভারশ্যাম এএফসি দলের স্ট্রাইকার ছিলেন। ১৯৯৯ সালে ১৯ গোল করে ফুটবলসাউথ প্রিমিয়ার লীগের গোল্ডেন বুট পুরস্কার লাভ করেন। ২০০৪ সালে ফুটবল ক্লাব ত্যাগ করে স্বল্পকালীন সময়ের জন্য মসজিয়েল ফুটবল দলের হয়ে খেলেন। এরপর তিনি পুরোপুরি ক্রিকেট জীবনে চলে আসেন।[১]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Meikle, H. (5 August 2010) "Late bloomer has no regret over switching pitches." Otago Daily Times, p.19

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]