গুজরাত

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(গুজরাট থেকে ঘুরে এসেছে)
গুজরাত
ગુજરાત
রাজ্য

Seal
ভারতের মানচিত্রে গুজরাতের অবস্থান
গুজরাতের মানচিত্র
স্থানাঙ্ক (গান্ধীনগর): ২৩°১৩′ উত্তর ৭২°৪১′ পূর্ব / ২৩.২১৭° উত্তর ৭২.৬৮৩° পূর্ব / 23.217; 72.683স্থানাঙ্ক: ২৩°১৩′ উত্তর ৭২°৪১′ পূর্ব / ২৩.২১৭° উত্তর ৭২.৬৮৩° পূর্ব / 23.217; 72.683
দেশ  ভারত
গঠন ১ মে, ১৯৬০
রাজধানী গান্ধীনগর
বৃহত্তম শহর আমেদাবাদ
জেলা ৩৩
সরকার
 • রাজ্যপাল কমলা বেনিওয়াল
 • মুখ্যমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (বিজেপি)
 • বিধানসভা এককক্ষীয় (১৮২ আসন)
 • লোকসভা কেন্দ্র ৩৩
 • হাইকোর্ট গুজরাত হাইকোর্ট
আয়তন
 • মোট
এলাকার ক্রম ৭ম
জনসংখ্যা (২০১১)
 • স্থান ১০ম
ভাষা
 • সরকারি গুজরাতি
 • কথ্য ভাষা
সময় অঞ্চল ভারতীয় সময় (ইউটিসি+০৫:৩০)
আইএসও ৩১৬৬ কোড IN-GJ
এইচডিআই বৃদ্ধি ০.৫২৭[২] (medium)
এইচডিআই র‌্যাঙ্ক ১১তম (২০১১)
সাক্ষরতা ৮০.১৮%
ওয়েবসাইট gujaratindia.com

গুজরাত (গুজরাটি: ગુજરાત গুজ্‌রাত্‌, আ-ধ্ব-ব: [gʊdʒraːt̪]) ভারতের সর্বপশ্চিমে অবস্থিত রাজ্য। এই রাজ্যের অধিবাসীরা প্রধানত গুজরাতিলোথালধোলাবীরার মতো প্রাচীন সিন্ধু সভ্যতার কয়েকটি কেন্দ্র এই রাজ্যে অবস্থিত। প্রাচীন কাল থেকেই ভারতের অর্থনৈতিক ইতিহাসে গুজরাত এক গুরুত্বপূর্ণ স্থানের অধিকারী।[৩] প্রাচীন ও বর্তমান ভারতের কয়েকটি প্রধান বন্দর এই রাজ্যে অবস্থিত। এই কারণে গুজরাত প্রাচীন কাল থেকেই ভারতের একটি গুরুত্বপূর্ণ বাণিজ্যকেন্দ্রও বটে। বিশ্বের অন্যতম প্রাচীন বন্দর লোথালও এই রাজ্যে অবস্থিত ছিল। ভারতের স্বাধীনতা আন্দোলনের পুরোধা ব্যক্তিত্ব মহাত্মা গান্ধী [৪] এবং পাকিস্তান রাষ্ট্রের স্থপতি মহম্মদ আলি জিন্নাহ ছিলেন গুজরাতি। বর্তমানে গুজরাটের অর্থব্যবস্থা ভারতের দ্রুত বর্ধনশীল অর্থব্যবস্থাগুলির অন্যতম।[৫]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

poly

ভূগোল ও জলবায়ু[সম্পাদনা]

জীবজগৎ[সম্পাদনা]

সরকার ব্যবস্থা ও রাজনীতি[সম্পাদনা]

প্রশাসনিক বিভাগ[সম্পাদনা]

অর্থনীতি[সম্পাদনা]

পরিবহন ব্যবস্থা[সম্পাদনা]

জনপরিসংখ্যান[সম্পাদনা]

সংস্কৃতি[সম্পাদনা]

শিক্ষা[সম্পাদনা]

গণমাধ্যম[সম্পাদনা]

খেলাধূলা[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]