তেলেঙ্গানা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
তেলাঙ্গানা
తెలంగాణ
প্রস্তাবিত রাজ্য
ভারতের রাজ্যে তেলাঙ্গানার অবস্থান লাল রং দিয়ে চিহ্নিত করা হয়েছে
স্থানাঙ্ক: ১৮° উত্তর ৭৯° পূর্ব / ১৮° উত্তর ৭৯° পূর্ব / 18; 79স্থানাঙ্ক: ১৮° উত্তর ৭৯° পূর্ব / ১৮° উত্তর ৭৯° পূর্ব / 18; 79
রাজ্য অন্ধ্রপ্রদেশ
আয়তন[১]
 • মোট ১,১৪,৮৪০
জনসংখ্যা (২০১১)
 • মোট ৩,৫২,৮৬,৭৫৭
ভাষা
 • সরকারি তেলুগু
সময় অঞ্চল ভারতীয় সময় (ইউটিসি+৫:৩০)
বৃহত্তম শহর হায়দ্রাবাদ

তেলাঙ্গানা (তেলুগু: తెలంగాణ; উর্দু: تیلنگانا) হল ভারতের অন্ধ্রপ্রদেশ রাজ্যের একটি অঞ্চল এবং একটি প্রস্তাবিত রাজ্য। এই অঞ্চলটি আগে নিজাম-শাসিত হায়দ্রাবাদ রাজ্যের (মেদক ও ওয়ারাঙ্গাল বিভাগ) অঙ্গ ছিল। তেলাঙ্গানার সীমানায় উত্তর ও উত্তর-পশ্চিম দিকে মহারাষ্ট্র রাজ্য, পশ্চিম দিকে কর্ণাটক রাজ্য, উত্তর-পূর্ব দিকে ছত্তীসগঢ় এবং পূর্ব দিকে ওডিশা রাজ্য। অন্ধ্রপ্রদেশ রাজ্য মোট তিনটি সাংস্কৃতিক অঞ্চলে বিভক্ত: তেলাঙ্গানা, উপকূলীয় অন্ধ্ররায়ালসীমা। তেলাঙ্গানা অঞ্চলের আয়তন ১১৪,৮৪০ বর্গকিলোমিটার (৪৪,৩৪০ বর্গমাইল) এবং জনসংখ্যা (২০১১ সালের জনগণনা অনুসারে) ৩৫,২৮৬,৭৫৭ জন, যা অন্ধ্রপ্রদেশের মোট জনসংখ্যার ৪১.৬%।[২][৩][৪]

মোট দশটি জেলা নিয়ে তেলাঙ্গানা অঞ্চলটি গঠিত: হায়দ্রাবাদ, আদিলাবাদ, খাম্মাম, মেহবুবনগর, মেদক, নালগোন্ডা, নিজামাবাদ, রঙ্গরেড্ডিওয়ারাঙ্গলপূর্ব গোদাবরী জেলার (উপকূলীয় অন্ধ্রের অংশ) ভদ্রাচলমভেঙ্কটপুরম তালুক দুটিও ভৌগোলিক নৈকট্য ও প্রশাসনিক কাজের সুবিধার জন্য খাম্মাম জেলার অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। আবার ১৯৫৯ সালে কৃষ্ণা জেলা থেকে মুনাগালা মণ্ডলটি নালগোন্ডা জেলার অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। মুসি, মঞ্জীরা, কৃষ্ণাগোদাবরী নদী এই অঞ্চলের উপর দিয়ে পশ্চিম থেকে পূর্ব দিকে প্রবাহিত হয়। হায়দ্রাবাদ ও ওয়ারাঙ্গাল হল এই অঞ্চলের বৃহত্তম দুটি শহর।

২০০৯ সালের ৯ ডিসেম্বর অন্ধ্রপ্রদেশ বিধানসভায় পৃথক তেলাঙ্গানা রাজ্য গঠন সংক্রান্ত সাংবিধানিক প্রক্রিয়া শুরু হয়।[৫][৬][৭] ভারত সরকার তেলাঙ্গানা রাজ্য গঠনের সম্ভাবনা খতিয়ে দেখার জন্য বিচারপতি বি এন শ্রীকৃষ্ণের নেতৃত্বে একটি পাঁচ সদস্যের কমিটি গঠন করে।[৮] ২০১৩ সালের ৩০ জুলাই কেন্দ্রীয় শাসকদল ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে একটি নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে তেলাঙ্গানা অঞ্চলকে পৃথক রাজ্যে (ভারতীয় প্রজাতন্ত্রের ২৯তম রাজ্য) পরিণত করার জন্য সংবিধান-সম্মত ব্যবস্থা গ্রহণের অনুরোধ জানায়। নতুন রাজ্য গঠনের প্রক্রিয়াটি কমপক্ষে ১২২ দিন বা চার মাসের মধ্যে সম্পন্ন করতে বলা হয়েছে।[৯] হায়দ্রাবাদ শহরটিকে আগামী দশ বছরের জন্য তেলাঙ্গানা ও অন্ধ্রপ্রদেশের যুগ্ম রাজধানী রাখার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।[১০][১১] তবে নতুন রাজ্য গঠন করতে হলে এই প্রস্তাবে ভারতীয় সংসদরাষ্ট্রপতির অনুমোদন প্রয়োজন। ২০১৩ সালের ৩ অক্টোবর, কেন্দ্রীয় ক্যাবিনেট অন্ধ্রপ্রদেশ ভেঙে পৃথক তেলাঙ্গানা রাজ্য গঠনের ব্যাপারে সম্মতি জানিয়েছে।[১২]

চিত্র:Hyderabad state from the Imperial Gazetteer of India, 1909.jpg
১৯০৯ সালে হায়দ্রাবাদ রাজ্য

পাদটীকা[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]