মুহাম্মদ আবদুল আলিম সিদ্দিকী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
মুহাম্মদ আবদুল আলিম সিদ্দিকী
জন্ম৩ এপ্রিল ১৮৯২
মৃত্যু২২ আগস্ট ১৯৫৪
সন্তানশাহ আহমদ নুরানি

মুহাম্মদ আবদুল আলিম সিদ্দিকী (৩ এপ্রিল ১৮৯২– ২২ আগস্ট ১৯৫৪) একজন ইসলামী পণ্ডিত যিনি ভারতের মিরাটে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি আহমদ রেজা খান বেরলভীর কাছ থেকে শিখেছিলেন।[১]

জীবন[সম্পাদনা]

সিদ্দিকী অবিরাম চল্লিশ বছর ভ্রমণ করেছিলেন। তিনি ১৯৩২ সালে সিঙ্গাপুর পরিদর্শন করেছিলেন যেখানে তিনি অল-মালায়া মুসলিম মিশনারি সোসাইটি প্রবর্তিত করেন, বর্তমানে জামিয়া নামে পরিচিত।[২] তিনি আরো ভ্রমণ করেছিলেন হেজাজ, মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া, থাইল্যান্ড, বার্মা, ভিয়েতনাম, সিলন, চীন, জাপান,ফিলিপাইন,[৩] মরিশাস, মাদাগাস্কার, দক্ষিণ আফ্রিকা, কেনিয়া, তাঞ্জানিয়া, বেলজিয়াম, মিশর, সিরিয়া, ফিলিস্তিন, জর্ডান, ইরাক, ফ্রান্স,ইংল্যান্ড, ওয়েস্ট উইন্ডিজ, গায়ানা, ত্রিনিদাদ ও টোবাগো, সুরিনাম,[৪] যুক্তরাষ্ট্র এবং কানাডা[৫] অল-মালায়া মুসলিম মিশনারি সোসাইটি (বর্তমানে জামিয়া সিঙ্গাপুর) একটি মসজিদ নির্মাণ করেছে তার নামকরণে।[৬]

১৯৩৫ সালে, ব্রিটিশ উপনিবেশ এবং কেনিয়ার আশ্রিত রাজ্য মোম্বাসায় আবদুল আলিম সিদ্দিকীর সাথে আইরিশ নাট্যকার জর্জ বার্নার্ড শ'য়ের সাক্ষাত হয় এবং তারা চিন্তা ভাবনার বিনিময় উপভোগ করেন, শ' আবদুল আলিম সিদ্দিকীকে উদ্দেশ্য করে বলেন "একজন পরম বিজ্ঞ ব্যক্তি"।[৭]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. http://www.aleemsiddique.org.sg/index.php?/Info/maulana-abdul-aleem-siddique.html
  2. MENDAKI: 10 Years Making the Difference। Yayasan Mendaki। ১৯৯২। পৃষ্ঠা 212। 
  3. Lacar, Luis Q.; Moner, Nagamura T. (১৯৮৬)। Madrasah Education in the Philippines and Its Role in National Integration। Coordination Center for Research and Development MSU-IIT। পৃষ্ঠা 123। 
  4. His Eminence Maulana Shah Abdul Aleem Siddiqui (Rahmatullah Alaih). caribbeanmuslims.com
  5. Maulana Shah Muhammad Abdul Aleem Siddiqui (R.A). World Federation of Islamic Missions
  6. Ariff, Mohamed (১৯৯১)। The Islamic Voluntary Sector in Southeast Asia। Institute of Southeast Asian Studies। পৃষ্ঠা 225। আইএসবিএন 9813016078 
  7. George Bernhard Shaw and the Islamic Scholar ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ২৩ জুলাই ২০১৭ তারিখে. Commentary and editing by Imran N. Hosein. December 2000.

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

আরো দেখুন[সম্পাদনা]