ব্যবহারকারী আলাপ:সিতাংশু কর

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

বাংলা উইকিপিডিয়ায় আপনাকে স্বাগতম[সম্পাদনা]

কঠিন ধ্বনি ও কোমল ধ্বনি[সম্পাদনা]

ধ্বনিতত্ত্ব


কম্পিউটারে ইংরেজি শব্দ preview বহুল প্রচলিত। এর বাংলা পরিভাষা লেখা হয় 'প্রাক্দর্শন'। শুদ্ধ বানান হবে--'প্রাগদর্শন'। 'ক' এর স্থলে কেন 'গ' হবে, তার ব্যাখ্যাসহ এ সংক্রান্ত ধ্বনিতাত্ত্বিক বিধিটি বিশদ আলোচনা করছি।

উচ্চারণ অনুযায়ী ক, খ, চ, ছ, ট, ঠ, ত, থ, প, ফ--এই ধ্বনিগুলো hard বা কঠিন। এদের পরে কোনও কোমল ধ্বনি বা soft sound, যেমন, গ, জ, ড, দ, ব থাকলে পূর্ববর্তী hard sound বা কঠিন ধ্বনি একই বর্গের (ক বর্গ, চ বর্গ, ট বর্গ ইত্যাদি) soft sound বা কোমল ধ্বনিতে পরিণত হয়।

এ বিধি অনুযায়ী 'ক' পরিণত হয় 'গ'য়ে; 'ট' পরিণত হয় 'ড'য়ে; 'ত' পরিণত হয় 'দ'য়ে; 'প' পরিণত হয় 'ব'য়ে।

সংগত কারণে 'প্রাক্' এর বানান পরিবর্তিত হয়ে 'প্রাগ্' হবে, কারণ 'ক' এর পর রয়েছে 'দর্শন' শব্দের 'দ'। অনুরূপভাবে, এতৎ+দর্শন=এতদ্দর্শন;এতদ্ দর্শন এতৎ+দ্বারা=এতদ্দ্বারা/এতদ্ দ্বারা দিক্+ নির্ণয়=দিগ্নির্ণয়/দিগ্ নির্ণয় সৎ+ভাব=সদ্ভাব/সদ্ ভাব

বিবেচনা-> ৎ/ত+দ=দ্দ/দ্ দ

        ক+ন=গ্ন/গ্ ন
        ৎ+ভ=দ্ভ/দ্ ভ
          (সমাপ্ত)
         সিতাংশু কর 
        ১২/০৩/২০২১ সিতাংশু কর (আলাপ) ০৬:২৬, ১২ মার্চ ২০২১ (ইউটিসি)

মার্চ 2021[সম্পাদনা]

উইকিপিডিয়ায় স্বাগতম, আমি Safi Mahfouz। যদিও উইকিপিডিয়ায় যে কেউই সম্পাদনা করতে পারে, কিন্তু আমি আব্দুল আহাদ মোহমান্দ-এ আপনার এক বা একাধিক সাম্প্রতিক অবদান বাতিল করেছি। কারণ এই সম্পাদনাগুলো গঠনমূলক ছিল না বরং ধ্বংসপ্রবণতা হিসেবে বিবেচিত হয়েছে। অনুগ্রহপূর্বক যেকোনো প্রকারের পরীক্ষামূলক সম্পাদনার জন্য খেলাঘর ব্যবহার করুন। সেই সাথে বিশ্বকোষীয় ও গঠনমূলক সম্পাদনার জন্য আমাদের স্বাগত পাতাটি পড়ে নিন। আপনি যদি মনে করেন যে সম্পাদনা বাতিলের কাজটি সঠিক হয়নি, অথবা এই বিষয়ে যদি কোনো প্রশ্ন থাকে তবে অনুগ্রহ করে আমার আলাপ পাতার মাধ্যমে যোগাযোগ করুন। ধন্যবাদ • — সাফী মাহফূজ 《ডাকঘর》 ০৭:২২, ২০ মার্চ ২০২১ (ইউটিসি)

পর্যবেক্ষণ[সম্পাদনা]

উইকিপিডিয়ায় ঈর্ষান্বিতদের নানান ছুঁতোয় নিজেদের জাহির করবার প্রবণতা প্রচণ্ডভাবে দৃশ্যমান। এছাড়া অতি সক্রিয়দের দমিয়ে রাখার জন্য মনগড়া অভিযোগ উত্থাপন করতেও দেখা যায়। এ শ্রেণির ব্যবহারকারী সম্পাদকদের ওপর নজরদারি করা প্রয়োজন।সিতাংশু কর (আলাপ) ১০:১৩, ২০ মার্চ ২০২১ (ইউটিসি)

সৃষ্টি[সম্পাদনা]

সৃষ্টি[সম্পাদনা]

"সৃষ্টি" শব্দটি শুনতে চমৎকার। কিন্তু সৃষ্টিশীল হওয়া, স্রষ্টা হওয়া প্রচণ্ড কঠিন। কবি-লেখক-শিল্পীরা সৃষ্টির সাধনায় ব্যাপৃত। বিজ্ঞানীরা তো আপাদমস্তক সৃষ্টিশীল; যদিও কখনও কখনও তাঁরা ধ্বংসের জন্যে সৃষ্টি করেন। পরমাণু বোমা কি বিজ্ঞানীর সৃষ্টি নয়? ধ্বংসাত্মক সৃষ্টি। পরমাণু শক্তি নিয়ে খেলতে খেলতে এ বোমা বানিয়েছিলেন বিজ্ঞানী। ধ্বংসের উদ্দেশ্য হয়তো তাঁর ছিল না। কিন্তু তিনি নিশ্চিতভাবেই জানতেন, তাঁর এ সৃষ্টি মহাপ্রলয় ঘটাতে পারে। তাঁর মারণাস্ত্রটি ব্যবহৃত হয়েছিল এমন একজনের প্ররোচনায়, যিনি সৃষ্টির কোনো রকম খেলাই জানতেন না। অবশ্য যদি যন্ত্রণা-মৃত্যু-ধ্বংস ইত্যাদি ডেকে আনার ক্ষমতাকে সৃষ্টি বলা যায়, তবে পারমাণবিক হন্তারকও এক ধরনের স্রষ্টাই। এভাবে ভাবলে সমাজ অগণিত স্রষ্টা বা সৃষ্টিশীল মানুষে পরিপূর্ণ। সাধু-চোর-ভণ্ড এরা সবাই একেক রকমের সৃষ্টিশীল মানুষ। যদি আমি নেতিবাচক সৃষ্টির কথা বাদ দেই, তবে তো সৃষ্টি এক ধরনের সুখ। কবি নজরুলের মতো সবাই যদি বলতে পারতো 'আজ সৃষ্টি-সুখের উল্লাসে--/মোর মুখ হাসে মোর চোখ হাসে...।' তবে তো কথাই ছিলো না। সৃষ্টি এক ধরনের সুখ, এটা বুঝতে পারি না বলেই আমাদের কর্মক্ষেত্রেও স্বার্থ-সম্পর্কের নানান বিবাদ-বিসংবাদ। এটা সৃষ্টিশীলতার সঙ্গে সৃষ্টিহীনতার দ্বন্দ্ব। এ দ্বন্দ্ব মানুষের চিরন্তন স্বভাব। কেউ কাজ চায় তো--কেউ চায় ধর্মঘট, কর্মহীনতা। এভাবে কাজ ও অকাজের দ্বন্দ্বে কাজের মানুষও বেশি আগাতে পারে না। যে ছুটতে পারে, তাকে হাঁটতে হয়; যে হাঁটতে চায়, তাকে বসে পড়তে হয়। সিতাংশু কর (আলাপ) ১৮:৪২, ৩১ মার্চ ২০২১ (ইউটিসি)সিতাংশু কর ৩১/০৩/২০২১

উধার কি জিন্দেগি[সম্পাদনা]

"'উধার কি জিন্দেগি"'(বাংলা অর্থঃ ঋণের জীবন) ..... , তখন মা আর সইতে পারলেন না।

সিতাংশু কর (আলাপ) ১৮:০৭, ৪ এপ্রিল ২০২১ (ইউটিসি)

এখানের লেখাগুলি উধার কি জিন্দেগি নিবন্ধে নেওয়া হয়েছে। --আফতাবুজ্জামান (আলাপ) ২০:৩০, ৬ এপ্রিল ২০২১ (ইউটিসি)

পত্র[সম্পাদনা]

প্রিয় আফতাব ভাই, আপনার ইমেইলের জন্য ধন্যবাদ। শুভ কামনা! Sitangshu Kar (আলাপ) ১৭:০৫, ১১ এপ্রিল ২০২১ (ইউটিসি)Sitangshu Kar