বুরকেরি রমন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
বুরকেরি রমন
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামবুরকেরি ভেঙ্কট রমন
জন্ম (1965-05-23) ২৩ মে ১৯৬৫ (বয়স ৫৪)
মাদ্রাজ, মাদ্রাজ রাজ্য, ভারত
ব্যাটিংয়ের ধরনবামহাতি
বোলিংয়ের ধরনস্লো লেফট-আর্ম অর্থোডক্স
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ১১ ২৭ ১৩২ ৮৭
রানের সংখ্যা ৪৪৮ ৬১৭ ৭৯৩৯ ২৮৯২
ব্যাটিং গড় ২৪.৮৮ ২৩.৭৩ ৪৫.৬২ ৩৫.২৬
১০০/৫০ -/৪ ১/৩ ১৯/৩৬ ৪/১৮
সর্বোচ্চ রান ৯৬ ১১৪ ৩১৩ ১১৭*
বল করেছে ৩৪৮ ১৬২ ৬৪৬০ ৭০৭
উইকেট ৮৫ ১৮
বোলিং গড় ৬৪.৫০ ৮৫.০০ ৩৭.৩৬ ৩৩.৬১
ইনিংসে ৫ উইকেট - - -
ম্যাচে ১০ উইকেট - - -
সেরা বোলিং ১/৭ ১/২৩ ৬/২৯ ২/১২
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৬/- ২/- ৯১/- ২২/-
উৎস: ক্রিকইনফো, ১ নভেম্বর ২০১৮

বুরকেরি ভেঙ্কট রমন (তামিল: வூர்கேறி வெங்கட் ராமன்); এই শব্দ সম্পর্কেpronunciation ; জন্ম: ২৩ মে, ১৯৬৫) মাদ্রাজে জন্মগ্রহণকারী প্রথিতযশা ও সাবেক ভারতীয় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার। বর্তমানে কোচের দায়িত্বে রয়েছেন তিনি। ভারত ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন। ১৯৮৭ থেকে ১৯৯৩ সময়কালে ভারত দলের পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেন। ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে তামিলনাড়ু দলের প্রতিনিধিত্ব করেছেন। দলে তিনি মূলতঃ বামহাতি ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলতেন। এছাড়াও, মাঝে-মধ্যে স্লো লেফট-আর্ম অর্থোডক্স বোলিংয়ে পারদর্শী ছিলেন বুরকেরি রমন

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট[সম্পাদনা]

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে খেলোয়াড়ী জীবন শুরু করেন তিনি বামহাতি স্পিনার হিসেবে। তবে, পরবর্তীতে ব্যাটসম্যানের দিকে ধাবিত হন বুরকেরি রমন। ঘরোয়া ক্রিকেটে বেশ সফলতম ব্যাটসম্যান ছিলেন। তিনটি দ্বি-শতকের ইনিংস খেলেন। তন্মধ্যে, ১৯৮৮-৮৯ মৌসুমে রঞ্জি ট্রফির খেলায় গোয়ার বিপক্ষে ৩১৩ রানে ত্রি-শতক ছিল। এক মৌসুমে ১০১৮ রান তুলে রুসি মোদির ৪৪ বছর পূর্বেকার গড়া ১৯৪৪-৪৫ মৌসুমের রেকর্ডটি ভেঙ্গে নিজের করে নেন। ১৯৯৯ সালে সকল স্তরের ক্রিকেট থেকে অবসর গ্রহণ করেন তিনি।[১]

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

১৯৮৭-৮৮ মৌসুমে নিজ শহর চেন্নাইয়ে সফরকারী ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে বুরকেরি রমনের। ঐ টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে ৮৩ রান তুলে দলের শীর্ষস্থানীয় রান সংগ্রাহক হন। প্রথম ওভারেই তিনি উইকেট লাভ করেছিলেন। ঐ টেস্টে নরেন্দ্র হিরওয়ানির ১৬ উইকেট লাভের ন্যায় (৮/৬১ ও ৮/৭৫) অসামান্য ক্রীড়াশৈলীর কারণে ভারত দল জয়লাভ করেছিল। এরপর ১৯৯৭ সাল পর্যন্ত তিনি আরও ১০টি টেস্টে অংশগ্রহণ করেছিলেন। একই সময়ে ২৭টি একদিনের আন্তর্জাতিকে অংশ নিয়েছিলেন বুরকেরি রমন। তবে, তুলনামূলকভাবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট অঙ্গনে অসফল ছিলেন তিনি। ১৯৯২-৯৩ মৌসুমে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ১১৩ রান করে একমাত্র সেঞ্চুরিটি করেন।

অবসর[সম্পাদনা]

ক্রিকেট খেলা থেকে অবসরগ্রহণের পর বুরকেরি রমন কোচিংয়ের দিকে ধাবিত হন।[২] তামিলনাড়ু ও বাংলা ক্রিকেট দলকে কোচিং করার পাশাপাশি ভারতীয় অনূর্ধ্ব-১৯ দলকেও প্রশিক্ষণ দিয়েছেন।[৩][৪][৫] ২০০৯ সালে আইপিএলের দল কলকাতা নাইট রাইডার্সকে প্রশিক্ষণ দেন।[৬] বর্তমানে তিনি বাংলা রঞ্জি দলের কোচ হিসেবে নিযুক্ত রয়েছেন।[৭] ২০১৩ সালে কিংস ইলাভেন পাঞ্জাবের সহকারী কোচের দায়িত্বে ছিলেন। চলতি আইপিএলে কলকাতা নাইট রাইডার্সের ব্যাটিং কোচের দায়িত্ব পালন করছেন তিনি।

কোচিংয়ের পাশাপাশি বিভিন্ন ক্রীড়া ওয়েবসাইট বিশেষতঃ উইজডেন, স্পোর্টসস্টার ও ক্রিকইনফোয় প্রতিবেদন লিখছেন।[৩]

পরিসংখ্যান[সম্পাদনা]

ওডিআই সেঞ্চুরি[সম্পাদনা]

বুরকেরি রমনের ওডিআই সেঞ্চুরি
ক্রমিক রান খেলা প্রতিপক্ষ শহর/দেশ মাঠ তারিখ ফলাফল
[১] ১১৪ ২০  দক্ষিণ আফ্রিকা দক্ষিণ আফ্রিকা সেঞ্চরিয়ন, দক্ষিণ আফ্রিকা সুপারস্পোর্ট পার্ক ১১ ডিসেম্বর, ১৯৯২ জয়

ওডিআই ম্যান অব দ্য ম্যাচ[সম্পাদনা]

ক্রমিক প্রতিপক্ষ মাঠ তারিখ খেলায় অবদান ফলাফল
দক্ষিণ আফ্রিকা সুপারস্পোর্ট পার্ক, সেঞ্চরিয়ন ১১ ডিসেম্বর, ১৯৯২ ১১৪ (১৪৮ বল: ৬x৪, ১x৬)  ভারত ৪ উইকেটে বিজয়ী[৮]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]