ভরত অরুণ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ভরত অরুণ
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামভরত অরুণ
জন্ম (1962-12-14) ১৪ ডিসেম্বর ১৯৬২ (বয়স ৫৭)
বিজয়ওয়াড়া, অন্ধ্রপ্রদেশ, ভারত
ডাকনামভর্রু
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি মিডিয়াম পেস
ভূমিকাঅল-রাউন্ডার, কোচ
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ১৭৬)
১৭ ডিসেম্বর ১৯৮৬ বনাম শ্রীলঙ্কা
শেষ টেস্ট৭ জানুয়ারি ১৯৮৭ বনাম শ্রীলঙ্কা
ওডিআই অভিষেক
(ক্যাপ ৬০)
২৪ ডিসেম্বর ১৯৮৬ বনাম শ্রীলঙ্কা
শেষ ওডিআই১০ এপ্রিল ১৯৮৭ বনাম পাকিস্তান
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
১৯৮২/৮৩–১৯৯১/৯২তামিলনাড়ু
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ৪৮ ১৫
রানের সংখ্যা ২১ ১৬৫২ ১৩৭
ব্যাটিং গড় ৪.০০ ১০.৫০ ৩০.৫৯ ১৫.২২
১০০/৫০ ০/০ ০/০ ৪/৪ ০/০
সর্বোচ্চ রান ২* ১৪৯ ২৯
বল করেছে ২৫২ ১০২ ৫৩৯৭ ৫২৬
উইকেট ১১০
বোলিং গড় ২৯.০০ ১০৩.০০ ৩২.৪৪ ৬৩.১২
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট - -
সেরা বোলিং ৩/৭৬ ১/৪৩ ৬/৭৯ ২/৪৩
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ২/– ০/– ২৩/– ২/–
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯

ভরত অরুণ (এই শব্দ সম্পর্কেউচ্চারণ ; মারাঠি: भरत अरुण; জন্ম: ১৪ ডিসেম্বর, ১৯৬২) অন্ধ্রপ্রদেশের বিজয়ওয়াড়া এলাকায় জন্মগ্রহণকারী সাবেক ভারতীয় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার। বর্তমানে ভারতে দলের বোলিং কোচের ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছেন। ভারত ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৯৮৬ থেকে ১৯৮৭ সময়কালে সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্যে ভারতের পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন।

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ভারতীয় ক্রিকেটে তামিলনাড়ু দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। দলে তিনি মূলতঃ অল-রাউন্ডার হিসেবে খেলতেন। ডানহাতে ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি ডানহাতে মিডিয়াম পেস বোলিং করতেন ‘ভর্রু’ ডাকনামে পরিচিত ভরত অরুণ।

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট[সম্পাদনা]

১৯৮২-৮৩ মৌসুম থেকে ১৯৯১-৯২ মৌসুম পর্যন্ত ভরত অরুণের প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন চলমান ছিল। শশ্রুমণ্ডিত ভরত অরুণ মিডিয়াম পেস বোলিং করতেন ও আক্রমণধর্মী নিচেরসারির ব্যাটসম্যান হিসেবে ভারত দলে খেলতেন। ১৯৮৬-৮৭ মৌসুমে দিলীপ ট্রফির সেমি-ফাইনালে ১৪৯ রান তুলেছিলেন। এ পর্যায়ে সপ্তম উইকেটে জুটিতে ডব্লিউ ভি রমনের সাথে ২২১ রান তুলেন। ফলশ্রুতিতে দক্ষিণাঞ্চল, পশ্চিমাঞ্চলের বিপক্ষে প্রথমে ইনিংসে ৫১৬ রানের লক্ষ্যমাত্রা ধার্য্য করে।

সফরকারী শ্রীলঙ্কা একাদশের বিপক্ষে ভারতে অনূর্ধ্ব-২৫ দলের সদস্যরূপে খেলেন। অপরাজিত ১০৭ রানের ইনিংসে খেলার স্বীকৃতিস্বরূপ টেস্ট খেলার জন্যে তাকে মনোনীত করা হয়। ১৯৭৯ সালে রবি শাস্ত্রী’র অধিনায়কত্বে অনূর্ধ্ব-১৯ দলের সদস্যরূপে শ্রীলঙ্কা গমনের জন্যে নির্বাচিত হন।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে দুইটিমাত্র টেস্ট ও চারটিমাত্র একদিনের আন্তর্জাতিকে অংশগ্রহণ করেছেন ভরত অরুণ। ১৭ ডিসেম্বর, ১৯৮৬ তারিখে কানপুরে সফরকারী শ্রীলঙ্কা দলের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। এরপর, ৪ জানুয়ারি, ১৯৮৭ তারিখে কটকে একই দলের বিপক্ষে সর্বশেষ টেস্টে অংশ নেন তিনি।

ঐ সিরিজে দুই টেস্টে অংশে নেন। প্রথম খেলায় ৩/৭৬ পান। প্রথম বলেই তিনি হোচট খেয়ে পড়ে যান। ১৯৮৭ সালে শারজা গমন করেন। তবে, ভারতের তিন খেলার কোনটিতেই সফলতার স্বাক্ষর রাখতে পারেননি।

১৯৮০-এর দশকে বেশ কয়েকজন তরুণ খেলোয়াড়কে বিখ্যাত ক্রিকেটার কপিল দেবের সাথে উদ্বোধনী বোলিং জুটি গড়ার চেষ্টা চালানো হয়। ঘরোয়া ক্রিকেটে বেশ কয়েকটি দূর্দান্ত সফলতা লাভের প্রেক্ষিতে তাকেও ভারতে দলে রাখা হয়। কিন্তু, ১৯৮৬-৮৭ মৌসুমে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দুইটি টেস্টে কেবলমাত্র মাঝারিমানের সফলতা পেয়েছিলেন। ডানহাতি মিডিয়াম পেস বোলার ও মাঝারিমানের আক্রমণধর্মী ব্যাটসম্যান হিসেবে পরিচিত ছিলেন।

অবসর[সম্পাদনা]

১৯৮৭-৮৮ মৌসুমে রঞ্জী ট্রফির শিরোপা বিজয়ী তামিলনাড়ু দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন। নভেম্বর, ১৯৯৩ সালে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট থেকে অবসর গ্রহণের কথা ঘোষণা করেন।[১]

এক সাথে খেলার প্রায় ৪০ বছর পর জাতীয় দলের প্রধান কোচ হিসেবে নিযুক্ত রবি শাস্ত্রী তাকে বোলিং কোচের কথা ঘোষণা করেন। এরপূর্বে বিসিসিআই থেকে জহির খানকে বোলিং কোচ হিসেবে মনোনয়নের কথা ঘোষণা করা হয়েছিল। ১৬ জুলাই, ২০১৭ তারিখে ভারত দলে বোলিং কোচ হিসেবে যোগ দেন তিনি।[২]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Arun calls it a day"The Indian Express। ৩ নভেম্বর ১৯৯৩। পৃষ্ঠা 16। সংগ্রহের তারিখ ২২ জানুয়ারি ২০১৮ 
  2. "Ravi Shastri wants Bharat Arun as bowling coach, prefers Zaheer Khan as consultant - Times of India"The Times of India। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৭-১৪ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]