দুলকাদির বেয়লিক

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
দুলকাদির জাতি/ দুলকাদিরোয়ুল্লারি

১৩৩৭–১৫২২
১৩৩০ সালের দিককার আনাতোলীয় বেয়লিকের মানচিত্র। দুলকাদির এর অবস্থান ছিলো দক্ষিণ পূর্ব আনাতোলিয়ায়।
১৩৩০ সালের দিককার আনাতোলীয় বেয়লিকের মানচিত্র। দুলকাদির এর অবস্থান ছিলো দক্ষিণ পূর্ব আনাতোলিয়ায়।
রাজধানীএলবিস্তান
মারাশ
প্রচলিত ভাষাউসমানীয় তুর্কি
ধর্ম
সুন্নি ইসলাম
সরকারবেয়লিক
বে 
• ১৩৩৭
জেয়নেদ্দিন কারাজা বে
• ১৫২২
দুলকাদির আলি বে
ঐতিহাসিক যুগশেষ মধ্যযুগ
• প্রতিষ্ঠা
১৩৩৭
• বিলুপ্ত
১৫২২
পূর্বসূরী
উত্তরসূরী
ইলখানাত
উসমানীয় সাম্রাজ্য

দুলকাদির বেয়লিক (তুর্কী: দুলকাদিরোয়ুল্লারি বেয়লিগি), ছিলো সেলজুক রুম সালতানাতের পতনের পরবর্তী সময়ে বায়াত, আফশার এবং বেগদিলি নামক ওঘুয তুর্কী জাতিগোষ্ঠী কর্তৃক স্থাপিত সীমান্তবর্তী রাজ্যগুলির মধ্যে একটি।

রাজধানী[সম্পাদনা]

দুলকাদির বেয়লিকের রাজধানী বিভিন্ন যুগে তুরস্কের কাহরামানমারাশ প্রদেশের এলবিস্তান শহরের আশেপাশে অবস্থিত ছিলো।

সংঘর্ষনিবারক প্রাবর-রাষ্ট্র হিসেবে[সম্পাদনা]

কিছু সময়ব্যাপী কিরশেহির থেকে মসুল পর্যন্ত দুলকাদিরোয়ুল্লারি বেয়লিকের প্রভাব বিস্তৃত ছিল, কিন্তু উসমানীয়দের উত্থানের সাথে পর্যায়ক্রমে দুলকাদিরোয়ুল্লারি বা দুলকাদির বেয়লিক মিশরের কায়রোর মামলুক সালতানাত এবং উসমানীয়দের মধ্যে সংঘর্ষনিবারক প্রাবর-রাষ্ট্রে পরিণত হয়। ষষ্ঠদশ শতাব্দীর শুরুতে এটি উসমানীয় সাম্রাজ্যের অংশীভূত হয়। মধ্য ঊনবিংশ শতাব্দী পর্যন্ত উসমানীয় নথিপত্রসমূহে তুরস্কের কাহরামানমারাশ প্রদেশের এলবিস্তান শহরে কেন্দ্রীভূত এ অঞ্চলকে প্রায়শই দুলকাদিরোয়ুল্লারি (বা জুলকাদরিইয়ে) রাজ্য হিসেবে উল্লেখ করা হতো।

দুলকাদির রাজবংশের অনেক নারী উসমানীয় রাজবংশের রাজবধূ হয়েছে। দুলকাদিরোয়ুল্লারি রাজ্যের পঞ্চম শাসক নাসরেদ্দিন মেহমেদ পাশার কন্যা এমিনে হাতুন উসমানীয় সুলতান প্রথম মেহমেদের তৃতীয় স্ত্রী এবং সুলতান দ্বিতীয় মুরাদের মা ছিলেন। তাদের বিয়ে উসমানীয় এবং এই সংঘর্ষনিবারক প্রাবর-রাষ্ট্রের মধ্যে একটি মৈত্রীচুক্তি হিসেবে কাজ করেছে। তাদের পুত্র দ্বিতীয় মুরাদ হলেন সমস্ত উত্তরসূরি সুলতানদের পূর্বপুরুষ। একইভাবে, দুলকাদিরোয়ুল্লারি রাজ্যের ষষ্ঠ শাসক সুলেয়মান বে'র কন্যা মুকরিমে হাতুন ছিলেন উসমানীয় সুলতান দ্বিতীয় মেহমেদের তৃতীয় স্ত্রী। উপরন্তু, দুলকাদির রাজ্যের একাদশতম শাসক আলাউদ্দেভলে বযকুরত বে'র কন্যা আয়শে হাতুন উসমানীয় সুলতান দ্বিতীয় বায়েজীদের স্ত্রী, অতএব প্রথম সেলিমের সৎ মা ছিলেন।

শাসকগণের তালিকা[সম্পাদনা]

  1. জেয়নেদ্দিন কারাজা বে (১৩৩৭-১৩৫৩)[১]
  2. গারসেদ্দিন হালিল বে (১৩৫৩-১৩৮৬)
  3. শাবান সুলি বে (সেভলি বে) ১৩৮৬-১৩৯৮)
  4. সাদাকা বে (১৩৯৮-১৩৯৯)
  5. নাসিরেদ্দিন মেহমেদ বে (১৩৯৯-১৪৪২)
  6. দুলকাদিরোয়লু সুলেয়মান বে (১৪৪২-১৪৫৪)
  7. মেলিক আরসলান বে (১৪৫৪-১৪৬৫)
  8. শাহ বুদাক বে (প্রথম শাসনকাল) (১৪৬৫-১৪৬৭)
  9. শেহসুভার বে (১৪৬৭-১৪৭২)
  10. শাহ বুদাক বে (দ্বিতীয় শাসনকাল) (১৪৭২-১৪৮০)
  11. আলাউদ্দেভলে বযকুরত বে (১৪৮০-১৫১৫)
  12. দুলকাদিরোয়লু আলী বে (১৫১৫-১৫২২)

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Yeni Rehber Ansiklopedisi, Türkiye Gazetesi, 1993 (in Turkish)