জন সেলবি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
জন সেলবি
জন সেলবি.jpg
১৮৮২ সালের সংগৃহীত অঙ্কিত প্রতিকৃতিতে জন সেলবি
ব্যক্তিগত তথ্য
জন্ম(১৮৪৯-০৭-০১)১ জুলাই ১৮৪৯
নটিংহাম, ইংল্যান্ড
মৃত্যু১১ মার্চ ১৮৯৪(1894-03-11) (বয়স ৪৪)
নটিংহ্যাম, ইংল্যান্ড
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি মিডিয়াম
ভূমিকাব্যাটসম্যান, উইকেট-রক্ষক
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ )
১৫ মার্চ ১৮৭৭ বনাম অস্ট্রেলিয়া
শেষ টেস্ট১৪ মার্চ ১৮৮২ বনাম অস্ট্রেলিয়া
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ২২২
রানের সংখ্যা ২৫৬ ৬,২১৫
ব্যাটিং গড় ২৩.২৭ ১৮.৮৩
১০০/৫০ ০/২ ৪/২৭
সর্বোচ্চ রান ৭০ ১২৮*
বল করেছে ৪৩৬
উইকেট
বোলিং গড় - ৩৭.৬০
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং - ২/২৭
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ১/০ ২২৮/৪
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ২০ নভেম্বর ২০১৭

জন সেলবি (ইংরেজি: John Selby; জন্ম: ১ জুলাই, ১৮৪৯ - মৃত্যু: ১১ মার্চ, ১৮৯৪) নটিংহামে জন্মগ্রহণকারী প্রথিতযশা ইংরেজ আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার ছিলেন। ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৮৭০ থেকে ১৮৮৭ সাল পর্যন্ত নটিংহ্যামশায়ার কাউন্টি ক্রিকেট ক্লাবে পেশাদারী পর্যায়ে খেলেছেন।[১] ১৮৭৮ সালে ৩১.৮২ গড়ে ৯৩৮ রান তুলে ইংরেজ ক্রিকেটে শীর্ষস্থান অধিকার করেছিলেন। জন্মকালীন তিনি জন বারোজ নামে পরিচিত ছিলেন।

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

১৮৭৬-৭৭ ও ১৮৮১-৮২ মৌসুমে অস্ট্রেলিয়া সফরে যান। সফরগুলোয় ছয় টেস্টে অংশগ্রহণ করেন তিনি। এছাড়াও, ১৮৭৯ সালে উত্তর আমেরিকা গমন করেন।

টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে সর্বপ্রথম টেস্ট খেলায় অংশগ্রহণের সৌভাগ্য হয় তার। ১৫ মার্চ, ১৮৭৭ তারিখে মেলবোর্নে অনুষ্ঠিত ঐ টেস্টে দুই নম্বর অবস্থানে থেকে ব্যাটিং করেন। এছাড়াও উইকেট-রক্ষকের চলতি দায়িত্ব পালন করেছিলেন জন সেলবি। মূল উইকেট-রক্ষক নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে তখন কারাভোগ করছিলেন। টেস্টটিতে অস্ট্রেলিয়া টসে জয়লাভ করে ব্যাটিংয়ে নামায় তিনি উইকেট-রক্ষক হিসেবে অভিষিক্ত হন। প্রায় দেড়দিন কোনরূপ সফলতা লাভ ছাড়াই সময় কাটান। পরবর্তীতে ইংল্যান্ডের ইনিংস শুরু হলে হ্যারি জাপের সাথে ব্যাটিং উদ্বোধনে নামেন। তবে, ৭ রান করেই তাকে বিদায় নিতে হয়।

চতুর্থ দিন ইংল্যান্ডের জয়ের জন্য ১৫৪ রানের দরকার পড়লে অধিনায়ক জেমস লিলিহোয়াইট সেলবিকে পাঁচ নম্বরে ব্যাটিংয়ে নামান। এরফলে জন ৩৮ রান তুলে খেলার তৃতীয় সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত ইনিংস খেলেন। তবে, ইংল্যান্ড ১০৮ রানে অল-আউট হলে ৪৫ রানে হেরে যায়।

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

অ্যানি নাম্নী এক রমণীর পাণিগ্রহণ করেন তিনি। স্ট্রোকে আক্রান্ত হবার পর নটিংহাম জেনারেল হাসপাতালে নেয়া হলে ১১ মার্চ, ১৮৯৪ তারিখে ৪৪ বছর বয়সে তার দেহাবসান ঘটে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]