জওহরলাল নেহেরু স্টেডিয়াম (কোচি)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
জওহরলাল নেহেরু স্টেডিয়াম, কোচি
কালুর স্টেডিয়াম
Kaloor.jpg
অবস্থানকোচি, ভারত
গণপরিবহনজওহরলাল নেহেরু স্টেডিয়াম মেট্রো স্টেশন
মালিকবৃহত্তর কোচিন উন্নয়ন সংস্থা
ধারণক্ষমতা৮০,০০০[১]
উপস্থিতির রেকর্ড১০০,০০০ (ভারত ব ইরাক ১৯৯৭)[২]
উপরিভাগঘাস
নির্মাণ
উদ্বোধন১৯৯৬
পুনঃসংস্কার২০০০
ভাড়াটে
ভারত জাতীয় ফুটবল দল (১৯৯৭-)
ভারত জাতীয় ক্রিকেট দল (১৯৯৭-)
কেরালা ফুটবল দল (১৯৯৭–)
কেরালা ক্রিকেট দল (১৯৯৮–)
কেরল ব্লাস্টার্স এফসি (২০১৪–)

জওহরলাল নেহেরু স্টেডিয়াম বা কালুর স্টেডিয়াম শহরের প্রধান বহুবিধ আন্তর্জাতিক স্টেডিয়াম। মূলত ফুটবল খেলার জন্য ব্যবহৃত হয়। এই স্টেডিয়ামের ৮০,০০০ দর্শকাশন থাকলেও আইএসএলে ৩৯,০০০ দর্শক প্রবেশের অনুমতি রয়েছে।[৩][৪][৫] ১৯৯৬ সালে বৃহত্তর কোচিন উন্নয়ন সংস্থার অধীনে ভি. জোসেফ থমাস এর নেতৃত্বে এই স্টেডিয়ামের কাজ সম্পূর্ণ হয়।[৬][৭] এটি ভারতের অন্যতম প্রধান ফুটবল স্টেডিয়াম ও অন্যতম দর্শকের কোলাহলে পরিপূর্ণ স্টেডিয়াম।[৮]এটি ক্রিকেট ম্যাচের জন্য ও সমান ব্যবহৃত হয়ে থাকে। ২০১৭ পর্যন্ত এখানে ১০টি ওডিআই ক্রিকেট ম্যাচ খেলা হয়েছে। কেরালা ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন এই স্টেডিয়ামে হওয়া ক্রিকেট ম্যাচগুলি পর্যবেক্ষণ করে থাকে।

বর্তমানে এটি আইএসএল ক্লাব কেরল ব্লাস্টার্স এফসির ঘরের মাঠ ও বিশ্বের পঞ্চম উচ্চস্বরে উচ্ছ্বসিত মাঠ (১২৮ ডেসিবেল)।[৯] এটি ২০১৭ ফিফা অনূর্ধ্ব-১৭ বিশ্বকাপ আয়োজন করে।[১০]

২০১৬ ইন্ডিয়ান সুপার লিগ ফাইনাল

ইতিহাস[সম্পাদনা]

কালুর স্টেডিয়ামকে মূলত ক্রিকেট স্টেডিয়াম হিসেবেই গড়ে তোলা হয়েছিল। তবে কেরলে বর্ধিত ফুটবল-প্রীতির জন্য এই মাঠে ফুটবল ম্যাচ আয়োজন করা হয়। ১৯৯৭ সালে এই মাঠে অনুষ্ঠিত ভারত  বনাম  ইরাক ম্যাচে প্রায় ১ লাখ দর্শক খেলা দেখতে আসে। এরপর ১৯৯৭ সালে নেহেরু কাপ আন্তর্জাতিক ফুটবল প্রতিযোগিতা শুরু হলে জনপ্রিয়তা বৃদ্ধি পেতে থাকে।

ক্রিকেট[সম্পাদনা]

আন্তর্জাতিক ওডিআই শতরান[সম্পাদনা]

নং রান খেলোয়াড় দল বল ইনিংস প্রতিপক্ষ তারিখ ফলাফল
১০৫* অজয় জাদেজা  ভারত ১০৯  অস্ট্রেলিয়া ১ এপ্রিল ১৯৯৮ বিজয়ী[১১]
১১৫ গ্যারি কার্স্টেন  দক্ষিণ আফ্রিকা ১২৩  ভারত ৯ মার্চ ২০০০ বিজয়ী[১২]
১১১ হার্শেল গিবস  দক্ষিণ আফ্রিকা ১২৭  ভারত ৯ মার্চ ২০০০ বিজয়ী[১২]
১০৮ বীরেন্দ্র সেহবাগ  ভারত ৯৫  পাকিস্তান ২ এপ্রিল ২০০৫ বিজয়ী[১৩]
১০৪ রাহুল দ্রাবিড়  ভারত ১৩৯  পাকিস্তান ২ এপ্রিল ২০০৫ বিজয়ী[১৩]
১২৬* মারলন স্যামুয়েলস  ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১০৬  ভারত ৮ অক্টোবর ২০১৪ পরাজিত[১৪]

আন্তর্জাতিক ওডিআই পাঁচ উইকেট শিকার[সম্পাদনা]

নং বোলার তারিখ দল প্রতিপক্ষ ইনিংস ওভার রান উইকেট ইকোনমি ব্যাটসম্যান ফলাফল
শচীন তেন্ডুলকর ১ এপ্রিল ১৯৯৮  ভারত  অস্ট্রেলিয়া ১০ ৩২ ৩.২ বিজয়ী
২ এপ্রিল ২০০৫  ভারত  পাকিস্তান ১০ ৫০ বিজয়ী

কেরল ব্লাস্টার্স ফুটবল ক্লাব[সম্পাদনা]

২০১৪ থেকে ইন্ডিয়ান সুপার লিগ শুরু হবার পর কেরল ব্লাস্টার্স এফসির ঘরের মাঠ এটি। এই মাঠে অনুষ্ঠিত প্রথম আইএসএল ম্যাচে কেরল ব্লাস্টার্স এফসি গোয়াকে ১–০ গোলে পরাজিত করে।

৩০ নভেম্বর ২০১৪ সালে চেন্নাইয়িনের বিরুদ্ধে কেরলের ম্যাচে ৫৯,৩২৩ জন দর্শক আসে। ইউরোপের বাইরে কোনো ঘরোয়া লিগের ক্লাবের মধ্যে কেরল ব্লাস্টার্সের সর্বোচ্চ গড় দর্শক সংখ্যা (৪৭,৪২৭)।[১৫]

জওহরলাল নেহেরু স্টেডিয়াম (কেরল ব্লাস্টার্সের ম্যাচ চলছে)

২০১৭ ফিফা অনূর্ধ্ব-১৭ বিশ্বকাপ[সম্পাদনা]

২০১৩ সালের ৫ ডিসেম্বরে ফিফা এক্সিকিউটিভ কমিটির চেয়ারম্যান ও ফিফার প্রেসিডেন্ট জোসেফ সেপ ব্ল্যাটার ভারতকে ২০১৭ ফিফা অনূর্ধ্ব-১৭ বিশ্বকাপ আয়োজনের দায়িত্ব দেন।[১৬] তখন সর্বভারতীয় ফুটবল ফেডারেশন কোচিকে আয়োজক রূপে স্বীকৃতি দেয়।[১৭] ফিফার নির্দেশ অনুসারে কেরল সরকার আইএএস অফিসার মহম্মদ হানিসকে ২০১৭ ফিফা অনূর্ধ্ব-১৭ বিশ্বকাপের নোডাল অফিসার বানায়।[১৮]

১১ ডিসেম্বর ২০১৪ সালে ফিফা কালুর স্টেডিয়াম পরীক্ষা করতে আসে ও স্টেডিয়াম পরীক্ষায় পাশ করে। ২০১৫ সালে সর্বভারতীয় ফুটবল ফেডারেশন কোচিকে পরিপূর্ণ আয়োজকের মর্যাদা দেয়।[১৯]

কেরালা স্ট্রাইকার্স[সম্পাদনা]

সেলিব্রিটি ক্রিকেট লিগ শুরু হলে কেরালার প্রতিনিধিত্বকারী দল কেরালা স্ট্রাইকার্সের ঘরের মাঠ হিসেবে ২০১২ থেকে এটি কার্যকর ছিল।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Jawaharlal Nehru Stadium-Kaloor-Kochi"Kerala Cricket Association। সংগ্রহের তারিখ ২৮ মে ২০২০ 
  2. "STADIUM"waytokickoff.com। সংগ্রহের তারিখ ২৪ জানুয়ারি ২০২১ 
  3. "'FIFA never compromised on the safety of people at the JNI Stadium. But ISL does' - the New Indian Express" 
  4. "FIFA U-17 World Cup: Kochi stadium capacity reduced to 29,000 from 41,000"। ৪ অক্টোবর ২০১৭। 
  5. "Contingency plans if Kochi can't host U-17 World Cup"The Times of India। সংগ্রহের তারিখ ৯ এপ্রিল ২০১৭ 
  6. "VIP Football Pavilion at Kaloor Stadium Named after K Karunakaran"The New Indian Express। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-২৪ 
  7. "Pavilion to be named after Karunakaran"The Times of India (ইংরেজি ভাষায়)। জুলাই ১৪, ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-২৪ 
  8. "Kerala's football fans set high goals"। সংগ্রহের তারিখ ১৬ জুলাই ২০১৭ 
  9. "Loudest record"fanport.in 
  10. "Kochi to host U-17 FIFA World Cup matches"। Manoramaonline। ৮ এপ্রিল ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  11. "1st Match, Pepsi Triangular Series at Kochi, Apr 1 1998"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৪ আগস্ট ২০১৯ 
  12. "1st Match, Pepsi Triangular Series at Kochi, Apr 1 1998"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৪ আগস্ট ২০১৯ 
  13. "1st ODI, Pakistan tour of India at Kochi, Apr 2 2005"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৪ আগস্ট ২০১৯ 
  14. "1st ODI (D/N), West Indies tour of India at Kochi, Oct 8 2014"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৪ আগস্ট ২০১৯ 
  15. "Kerala Blasters has the highest average attendance"। ২০১৪-১২-১৫। 
  16. "FIFA launches 2014 FIFA World Cup Legacy Trust"FIFA.com। ১৫ এপ্রিল ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  17. "Official: India to host U-17 World Cup in 2017"। Goal.com। 
  18. "Hanish appointed Nodal Officer for 2017 Fifa U-17 World Cup"The Times of India। PTI। 
  19. "Manorama Online" 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]