গাস ম্যাকে

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
গাস ম্যাকে
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামঅ্যাঙ্গাস জেমস ম্যাকে
জন্ম (1967-06-13) ১৩ জুন ১৯৬৭ (বয়স ৫৩)
সলসবারি, রোডেশিয়া
(বর্তমানে: হারারে, জিম্বাবুয়ে)
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি ফাস্ট-মিডিয়াম
ভূমিকাঅল-রাউন্ডার, প্রশাসক
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
ওডিআই অভিষেক
(ক্যাপ ৬২)
৪ জানুয়ারি ২০০১ বনাম নিউজিল্যান্ড
শেষ ওডিআই৪ ফেব্রুয়ারি ২০০১ বনাম অস্ট্রেলিয়া
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
১৯৯৮–১৯৯৯ম্যাশোনাল্যান্ড এ
১৯৯৯–২০০৩ম্যাশোনাল্যান্ড
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা ওডিআই এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ২৭ ১৭
রানের সংখ্যা - ৭১৯ ৯৭
ব্যাটিং গড় - ২৩.৯৬ ৯.৭০
১০০/৫০ -/- ১/৩ -/-
সর্বোচ্চ রান - ১০৮ ২৭
বল করেছে ১৩২ ৩৬১০ ৭২৬
উইকেট - ৭৫ ১৪
বোলিং গড় - ২২.৬১ ৪২.২৮
ইনিংসে ৫ উইকেট -
ম্যাচে ১০ উইকেট - -
সেরা বোলিং - ৬/১৬ ৩/২২
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ১/- ১৫/– ৬/–
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ২২ মার্চ ২০২০

অ্যাঙ্গাস জেমস ম্যাকে (ইংরেজি: Gus Mackay; জন্ম: ১৩ জুন, ১৯৬৭) সলসবারি এলাকায় জন্মগ্রহণকারী সাবেক জিম্বাবুয়ীয় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার ও প্রশাসক। জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। বর্তমানে তিনি ক্রিকেট স্কটল্যান্ডের প্রধান নির্বাহীর দায়িত্ব পালন করছেন। ২০০১ সালে সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্যে জিম্বাবুয়ের পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন।

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর জিম্বাবুয়ীয় ক্রিকেটে ম্যাশোনাল্যান্ড দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। দলে তিনি মূলতঃ অল-রাউন্ডার হিসেবে খেলতেন। ডানহাতে ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি ডানহাতে ফাস্ট-মিডিয়াম বোলিং করতেন গাস ম্যাকে

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট[সম্পাদনা]

মার্লবোরা হাই স্কুলে অধ্যয়নের পর প্লামট্রি হাই স্কুলে পড়াশুনো করেন। কিশোর অবস্থায় ১৯৮৪ সালে জিম্বাবুয়ে কোল্টস দলের সদস্যরূপে ইংল্যান্ড গমন করেছিলেন। এরপর, জিম্বাবুয়ের বিদ্যালয় দলের সদস্যরূপেও প্রতিনিধিত্ব করেন।

১৯৯৮-৯৯ মৌসুম থেকে ২০০২-০৩ মৌসুম পর্যন্ত গাস ম্যাকে’র প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন চলমান ছিল। ১৯৯৮-৯৯ মৌসুমে ৩১ বছর বয়সে ১৯৯৮-৯৯ মৌসুমে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। তবে, প্রথম-শ্রেণীর প্রতিযোগিতা হিসেবে মর্যাদা লাভের পূর্বেই লোগান কাপে ম্যাশোনাল্যান্ড দলের পক্ষে খেলেছিলেন।

১৯৮৬ সালে এসেক্সের সদস্যরূপে এক বছর খেলেন। তবে, পায়ের গোড়ালির আঘাতে তাকে মাঠের বাইরে অবস্থান করতে হয়েছিল। পরবর্তীতে ইংলিশ মিডল্যান্ডসের ক্লাব দল বার্ন্ট গ্রীন ও ওয়েস্ট ব্রোমউইচ খেলেন। ইংল্যান্ড থেকে নিজ দেশে প্রত্যাবর্তন করেন। উদ্দেশ্য ছিল, ১৯৯৯ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপে জিম্বাবুয়ে দলের প্রতিনিধিত্ব করা। তবে, তিনি এ উদ্দেশ্য পূরণে সফল হননি।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে তিনটিমাত্র ওডিআইয়ে অংশগ্রহণ করেছেন গাস ম্যাকে। ৪ জানুয়ারি, ২০০১ তারিখে ওয়েলিংটনে স্বাগতিক নিউজিল্যান্ড দলের বিপক্ষে একদিনের আন্তর্জাতিকে অভিষেক ঘটে তার। ৪ ফেব্রুয়ারি, ২০০১ তারিখে পার্থে স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়া দলের বিপক্ষে সর্বশেষ ওডিআইয়ে অংশ নেন তিনি। তাকে কোন টেস্টে অংশগ্রহণ করার সুযোগ দেয়া হয়নি।

২০০০-০১ মৌসুমে অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড গমনার্থে জিম্বাবুয়ের একদিনের দলের সদস্যরূপে আমন্ত্রিত হন। ২০০১ সালে জিম্বাবুয়ের পক্ষে সিম বোলার হিসেবে তিনটি ওডিআইয়ে অংশ নেন।[১]

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

পেশাগত পর্যায়ে ব্যাংকার তিনি। পাশাপাশি ম্যাশোনাল্যান্ডের পক্ষে সাধারণ ব্যবস্থাপকের দায়িত্ব পালন করেছেন। ২০০৬ সালে সাসেক্সের প্রধান নির্বাহী হিসেবে নিযুক্ত হয়েছেন। ২০০৮ সাল শেষে সারে দলের দিকে ধাবিত হন ও ২০১০ সাল পর্যন্ত ক্রিকেট ব্যবস্থাপনা পরিচালকের দায়িত্ব পালন করেছেন। লিচেস্টারশায়ারের অপারেশন্স ম্যানেজার ছিলেন।

২০১১ সালে হার্লেকুইন্স আরএলের সিইও ছিলেন।[১] ২০১৭ থেকে ২০১৯ সময়কালে প্রিমিয়ারশীপ রাগবি দল ওরচেস্টার ওয়ারিয়র্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালকের দায়িত্ব পালন করেন। ৩ অক্টোবর, ২০১৯ তারিখে ক্রিকেট স্কটল্যান্ডের প্রধান নির্বাহী হিসেবে তার নতুন দায়িত্ব পালনের কথা ঘোষণা করা হয়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Harlequins announce former Zimbabwe Cricketer Gus Mackay as CEO আর্কাইভইজে আর্কাইভকৃত ১ ফেব্রুয়ারি ২০১৩ তারিখে rleague.com, 15 January 2011

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]