আলাপ:ভারত

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
Featured article ভারত একটি নির্বাচিত নিবন্ধ; অর্থাৎ, এটি (অথবা এর প্রাক্তন সংস্করণটি) উইকিপিডিয়ানদের সৃষ্ট অন্যতম শ্রেষ্ঠ একটি নিবন্ধরূপে চিহ্নিত। তারপরও আপনি যদি মনে করেন যে, নিবন্ধটির আরো উন্নতি বা হালনাগাদ করা সম্ভব, অনুগ্রহপূর্বক তা করুন

নির্বাচিত নিবন্ধ মনোনয়ন প্রসঙ্গে[সম্পাদনা]

ভারত নিবন্ধটির সম্পূর্ণকরণের কাজ শেষ হয়েছে। এটিকে কি এবারে নির্বাচিত নিবন্ধ স্তরে উন্নীত করার মনোনয়ন দেওয়া যেতে পারে? উল্লেখ্য, ইংরেজি ও জার্মান উইকিপিডিয়ায় ভারত নির্বাচিত নিবন্ধ। বাংলা উইকিপিডিয়ার নিবন্ধটি মুখ্যত ইংরেজি ও গৌণত জার্মান উইকিপিডিয়ায় অনুবাদ। তাই নিবন্ধটি পর্যালোচনা করতে বা এর সম্পর্কে কোনো গঠনমূলক মন্তব্য বা পরামর্শ পেলে উপকৃত হব। --অর্ণব দত্ত ১৬:০৪, ১ জুলাই ২০০৯ (UTC)

ভারত নামের উৎপত্তি[সম্পাদনা]

আম্রা সবাই এই কাহিনী শুনে আসছি,কিন্তু তথ্যসূত্র কেউ যোগাড় করতে পারলে ভাল হয়। ভরতকে কে বর্ষ দান করেছিল,কবে? মহাভারতে আছে? কোন পর্বের কোন শ্লোকে? --সপ্তর্ষি(আলাপ | অবদান) ২২:১২, ১৩ জুলাই ২০০৯ (UTC)

গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন। তবে কিনা আমার কাছে মূল মহাভারতখানা নেই। রাজশেখর বসুর (পরশুরাম) সারানুবাদটি আছে। সে বইয়ের ৩৮ পৃষ্ঠায় লেখা – “দুষ্মন্ত-শকুন্তলার পুত্র ভরত বহু দেশ জয় এবং বহুশত অশ্বমেধ যজ্ঞের অনুষ্ঠান ক’রে সার্বভৌম রাজচক্রবর্তী হয়েছিলেন।” ভরত সম্পর্কে বিশেষ কথা খরচ করেননি ভদ্রলোক। কাশীরাম দাস লিখছেন,
পৃথিবীতে মহারাজ হইল ভরত।
অশ্বমেধ যজ্ঞ আদি করে শত শত।।
সসাগরা পৃথিবী শাসিল ভূজবলে।
অদ্যাপি ভারতভূমি ঘোষে ভূমণ্ডলে।।
কাশীরামে যেহেতু শ্লোকসংখ্যা বলে কিছু নেই, তাই তা দেওয়া গেল না। তবে এটা আদিপর্ব থেকে নেওয়া। মূল মহাভারতের ইংরেজি অনুবাদে এইখানে ভরতের কথা পাবেন। এখানে দেখা যাচ্ছে ভরত তাঁর জাতিকে ভারত নামে ভূষিত করছেন। আর একটি গুরুত্বপূর্ণ তথ্যসূত্র এখানে দেওয়া আছে। অর্ণব দত্ত ০৩:৩১, ১৪ জুলাই ২০০৯ (UTC)
ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর রচনা সমগ্র বা কালীপ্রসন্ন সিংহ রচনা সমগ্র যদি কারো কাছে বা পাঠাগারে পাওয়া যায় তাতে পুরো মহাভারতের বাংলা অনুবাদ থাকবে। কিন্তু তাতে তো টেক্স্ট সার্চ থাকবে না, কাজেই এই ভাবেই (যেমন উপরে করা হয়েেছে) প্রথমে ইংরাজি অনলাইন আনুবাদে সার্চ ক্রে তারপর তাতে পাওয়া সূত্রগুলিরর বাংলা বা স্ংস্কৃত স্ংস্ক্রণ দেখতে হবে।--সপ্তর্ষি(আলাপ | অবদান) ০৯:৩৭, ২০ জুলাই ২০০৯ (UTC)
en:Names_of_India#India- এখানে বিষ্ণু পুরানের উদ্ধৃতি আছে। --user:Dr.saptarshi ২২:৩২, ২০ জুলাই ২০০৯ (UTC)

জরথুষ্ট্রীয় না জরাথুষ্ট্রীয় না জরাথ্রুষ্টীয়?[সম্পাদনা]

সঠিক কোনটা? জরথুষ্ট্রীয় না জরাথুষ্ট্রীয় না জরাথ্রুষ্টীয়়?--সপ্তর্ষি(আলাপ | অবদান) ০৮:৫২, ৮ আগস্ট ২০০৯ (UTC)

ভারতের জাতীয় ভাষা[সম্পাদনা]

সম্প্রতি কেউ একজন এই নিবন্ধের একটি তালিকা থেকে বাংলা ভাষা কথাটা বাদ দিয়ে লিখেছেন – Bangla is not the national language of India। সংবিধান অনুসারে ভারতে কোনো জাতীয় ভাষা নেই। সংবিধানের অষ্টম তফসিলে ২২টি ভাষাকে সরকারি ভাষার স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে। সেগুলিই রাষ্ট্রবিজ্ঞানের পরিভাষা অনুযায়ী রাষ্ট্রভাষা (ভারতের কোনো কোনো রাজ্যের পরিভাষায় রাজভাষা)। উক্ত তালিকাতে বাংলাকেও সেই রকম সরকারি ভাষার তালিকা ভুক্ত করা হয়েছিল। এটিতে কোনো ভুল নেই। তাই ভ্রান্ত অভিযোগের ভিত্তিতে সংশোধনটি বাতিল করছি। --অর্ণব দত্ত ১৫:৫৫, ১০ আগস্ট ২০০৯ (UTC)

মূল্যায়ন[সম্পাদনা]

  • "গড়ে উঠে" / "গড়ে ওঠে" -- দুইটাই ব্যবহার করা হচ্ছে। হয় উঠে, নয় ওঠে ব্যবহার করুন।
  • রেফারেন্স গুলো দাড়ির আগে হবে না পরে হবে? আমার মনে হয় যেকোনো বাক্যের শেষের রেফারেন্সটি দাড়ির ঠিক আগে হবে, এবং এর ও দাড়ির মধ্যে স্পেস হবে না। অবশ্য দাড়ির ঠিক পরে রেফারেন্স দেয়ার স্টাইলটিও ব্যবহারকরা যেতে পারে, সেক্ষেত্রে এর আগে স্পেস হবেনা, পরে একটি স্পেস হবে।
  • দাড়ির আগে স্পেস হবে না। পরে ১টি স্পেস হবে। অনেক খানেই তা ঠিক থাকেনি।
  • সংখ্যা যেমন ৭৫,০০,০০,০০০ কে ৭৫ কোটি লেখাই উত্তম।
  • "জনসংখ্যা আনুমানিক একশো তেরো কোটি", -- কত সালের হিসাবে?
  • অনেকগুলো বাক্যের রেফারেন্স নেই। যেমন "ভারতীয় গণিতজ্ঞ শ্রীনিবাস রামানুজন সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ গণিতবিদদের অন্যতম বলে বিবেচিত হন।" , "কোপারনিকাসের সূর্যকেন্দ্রিকতাবাদ প্রস্তাবনার ১০০০ বছর আগেই ভারতীয় গণিতবিদ তথা জ্যোতির্বিদ আর্যভট্ট প্রাচীন বিশ্বধারণার ভ্রান্ততা প্রমাণ করেছিলেন", "প্রাচীন বিশ্বে একমাত্র ভারতেই গড়ে উঠেছিল হিরের খনি।"
  • "লো-আর্থ, মেরু ও জিওস্টেশনারি" -- ইংরেজি বাংলার জগাখিচুড়ি হয়ে গেলো না একটু?। নিম্ন-কক্ষিপথ, মেরু, "ভূ-স্থিতিশীল" বা এই জাতীয় কিছু ব্যবহার করুন। জিওস্টেশনারির বাংলা কি হবে?
  • "২০০৩ সালে সেন্টার ফর ডেভেলপমেন্ট অফ অ্যাডভান্সড কম্পিউটিং তৈরি করে ভারতের প্রথম সুপারকম্পিউটার পরম পদ্ম। এটি পৃথিবীর দ্রুততম সুপারকম্পিউটারগুলির অন্যতম" --- পদ্ম এখন আর দ্রুততম তালিকাতে আসে না, এর চাইতে অনেক দ্রুত মেশিন ৬ বছরে এসেছে, গিয়েছে।
  • "{{{2}}} ভ্রমণ নির্দেশিকা, উইকিট্রাভেল থেকে", এটার টেম্পলেট কি নষ্ট হয়ে গেছে?
  • বহিঃসংযোগ খুব বেশি। প্রথম ৫টি বাদে বাকিগুলো রাখার দরকার দেখি না।

আপাতত এগুলো ঠিক করুন, আর লাল লিংক ঠিক করুন। এসব বাদে নিবন্ধটি বেশ ভালো অবস্থায় আছে। --রাগিব (আলাপ | অবদান) ২০:১৯, ২৮ অক্টোবর ২০০৯ (UTC)

রাগিব ভাই ঠিকই বলেছেন। ভূতাত্ত্বিক পরিভাষাগুলি একটু জগাখিচুড়ি লাগছে। ভূতত্ত্ব আমার বিষয় নয়। তাই কেউ যদি ওগুলি শুধরে দিতে সাহায্য করেন তাহলে উপকৃত হব। --অর্ণব দত্ত (talk) ০৪:৩৯, ২৯ অক্টোবর ২০০৯ (UTC)
জনসংখ্যার পরিসংখ্যানটি হবে আনুমানিক ১১৯ কোটি। তথ্যছকে জাতিসংঘের একটি সূত্র দিয়ে উল্লেখ করা হয়েছে। সঙ্গে সঙ্গে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির বিষয়টি পুনর্মুল্যায়ণ প্রয়োজন। প্রাচীন ভারতের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির বিষয়ে যে তথ্যগুলি দেওয়া আছে তার সূত্র ওই সংক্রান্ত ইংরেজি নিবন্ধে পাওয়া যাবে। একটু খুঁজে বের করে নিতে হবে। রাগিব ভাইয়ের অন্যান্য বক্তব্যগুলিও আমি যুক্তিযুক্ত মনে করছি। --অর্ণব দত্ত (talk) ০৪:৪৭, ২৯ অক্টোবর ২০০৯ (UTC)

প্রথম বাক্যে হিন্দি ভাষায় ভারতের নামটি দেয়ার কারণ কি? হিন্দি ভারতের একমাত্র সরকারী ভাষা নয় বলে নিবন্ধে রয়েছে, সেই ক্ষেত্রে শুরুতে অন্য ২২টি ভাষার বদলে হিন্দি দেয়ার কারণ কি? তদুপরি, দাপ্তরিক ভাষাও যদি ধরা হয়, তাহলে ইংরেজি ও হিন্দি দুইটিই একই মর্যাদার বলে শুনেছি। এই ব্যাপারটি একটু পরিস্কার করা প্রয়োজন। --রাগিব (আলাপ | অবদান) ০৫:০৬, ২৯ অক্টোবর ২০০৯ (UTC)

ঠিকই - আলাদা করে হিন্দি নামটি দেওয়ার প্রয়োজন নেই। হিন্দি ও ইংরেজি কেন্দ্রীয় সরকারের দাপ্তরিক ভাষা মাত্র। অবশ্য ইংরেজির একটি অন্য প্রয়োগ আছে; সেটি বিভিন্ন রাজ্যের মধ্যে সংযোগরক্ষাকারী ভাষা হিসেবে। তবু দেশের সরকারি ভাষা হিসেবে ২২টি ভাষার মর্যাদা সমান। এই কারণে প্রথম বাক্যে কেবল ২২টি সরকারি ভাষায় নামের তালিকাটির লিঙ্ক রাখলেই চলে। --অর্ণব দত্ত (talk) ০৭:৪৩, ২৯ অক্টোবর ২০০৯ (UTC)

তথ্যসূত্র ও গ্রন্থপঞ্জি[সম্পাদনা]

আমার মনে হয়, তথ্যসূত্র অংশটি থেকে কিছু বাদ না দেওয়াই ভাল। তবে গ্রন্থপঞ্জি বিভাগে জার্মান ও ফরাসি তালিকাদুটি বাদ দেওয়া যায়। আমি বরং একটা বাংলা গ্রন্থতালিকা তৈরির চেষ্টা করছি। --অর্ণব দত্ত (talk) ০৪:৩৭, ২৯ অক্টোবর ২০০৯ (UTC)

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

উইকিপিডিয়ায় বহুল ব্যবহৃত "বহিঃসংযোগ"-এর বদলে বহির্সংযোগ লেখা হয়েছে। এটা কী কোনো ভুল? ভুল না হলেও সবচেয়ে প্রচলিতটি লেখা যায় কী না, তা দেখার অনুরোধ। তাছাড়া বহিঃসংযোগ স্থানটি পরিচ্ছন্ন করার দরকার আছে। সরাসরি ইউআরএল তুলে দেওয়া হয়েছে, তা না করে ইউআরএল-এর বর্ণনা দেওয়া প্রয়োজন। তাহলে বোঝা যাবে এই ইউআরএল এ কী তথ্য আছে, সেই সাথে ইউআরএলটি কোন প্রতিষ্ঠানের তাও। এছাড়া তথ্যসূত্র অংশটিও বাংলা করা যায় কী কিছু কিছু? — তানভির আলাপ অবদান ১৪:৫৭, ১ নভেম্বর ২০০৯ (UTC)

উইকিপিডিয়ায় বহির্সংযোগ কথাটা কি ভুল? এই রে! তবে তো আমি সেই গত বছর অগস্ট মাস থেকে ভুল লিখে আসছি! ইউআরএল-এর তথ্যযোগের ব্যাপারটি দেখছি। তবে বাংলা-ইংরেজির খিচুড়ি করতে চাইছি না। পুরো ব্যাপারটা যে কোনো একটা ভাষায় থাকলে ভাল লাগে দেখতে। --অর্ণব দত্ত (talk) ১৫:১৭, ১ নভেম্বর ২০০৯ (UTC)

ঠিক পয়েন্টআউট করেছেন। বাংলা-ইংরেজি জগাখিচুড়ি নিষ্প্রয়োজন। আর বহির্সংযোগ ভুল কিনা আমি নিজেও জানি না; তাই ভুল বলি কী করে? তবে বেশিরভাগ স্থানে "বহিঃসংযোগ" লেখা হয়, তা দেখেছি। আমি প্রথমে "বহির্সূত্র" লিখতাম। পরে সব এক করার স্বার্থে বাদ দিয়েছি। — তানভির আলাপ অবদান ১৫:৩০, ১ নভেম্বর ২০০৯ (UTC)
ইংরেজি এক্সটার্ণাল লিংক এর পরিভাষা হিসেবে বাংলা উইকিতে "বহিঃসংযোগ" ব্যবহার করার রীতি প্রচলিত আছে, খুব সম্ভবত সমতা বজায় রাখার জন্যই। এ নিয়ে কোথায় যেন আলোচনা পড়েছিলাম, মনে হয় প্রশাসকদের আলোচনাসভার আর্কাইভে। --ফয়সল (আলাপ | অবদান) ১৬:০৮, ১ নভেম্বর ২০০৯ (UTC)
এই ভুলটা আমি করছি দীর্ঘদিন। কেউ শুধরে দেননি। আমার ৭০০০ সম্পাদনা পূর্ণ হতে চলেছে। কয়েকশো নিবন্ধে বহির্সংযোগ লিখে ফেলেছি। এখন কিভাবে শোধরাবো জানি না। সত্যিই দুঃখিত। --অর্ণব দত্ত (talk) ১৬:২৩, ১ নভেম্বর ২০০৯ (UTC)
অর্ণবদা, আপনি "কেউ শুধরে দেননি" কথাটা বলায় অন্য কারো কথা জানি না। আমার কিন্তু বেশ খারাপ লাগছে। এখন কথাটি পাড়ায় আমি-ই দুঃখিত। যদিও আমি আপনার অনেক পরে উইকিপিডিয়াতে এসেছি। তবে একটা উপায় হতে পারে। আপনি তো আপনার নিবন্ধের তালিকা আপনার ব্যবহারকারী পাতায় সংরক্ষণ করেন যতোদূর জানি। একটু চেষ্টা করলেই আমার মনে হয় সেখান থেকে রিভিউ দিলে হবে। তাছাড়া এটাতো ঠিক ভুলও নয়। বহিঃ = বাহির; বর্হি = বাহির। এই অভিধান বলে। তবে কিনা কথা হচ্ছে ঐকমত্য। — তানভির আলাপ অবদান ১৬:৩২, ১ নভেম্বর ২০০৯ (UTC)
দুটো বানানই সঠিক তবে, আমি, অর্ণব ভাই আর রাগিব ভাই মিলে সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম বহির্সংযোগের বদলে সব জায়গায় বহিঃসংযোগ করতে। অর্ণব আগে থেকেই এটি করে ফেলেছে তাতে কোনো সমস্যা নেই। পরবর্তীতে কখনও কোনো নিবন্ধ রিভিউ করার সময় বহির্সংযোগ বানানটি দেখলে বহিঃসংযোগ করে দিলেই হবে। শুধু এ বানানের জন্য আলাদা করে নজর তালিকা থেকে একটি একটি করে ঠিক করার দরকার নেই। এই সময় এবং শ্রম অন্য কোনো কাজে ব্যয় করলে অনেক ভাল কাজ হবে। আর বহিঃসংযোগের কথাটি মনে রাখলেই হবে। :)--বেলায়েত (আলাপ | অবদান) ১৬:৫০, ১ নভেম্বর ২০০৯ (UTC)

যা হোক, তানভিরের খারাপ লাগার কোনো কারণ নেই। বরং আমার ভুলটা ধরিয়ে দিয়ে সে আমার উপকারই করেছে। আমার কাছে তার ধন্যবাদ প্রাপ্য। আর বেলায়েত ভাই যেমন লিখেছেন, পরবর্তীকালে রিভিউ-এর সময় আগের ভুলগুলো শুধরে দেওয়ার চেষ্টা করব। --অর্ণব দত্ত (talk) ১৬:৫৭, ১ নভেম্বর ২০০৯ (UTC)

শুধু আপনি কেন আমাদের হাতে পরলে আমরাও করে দিবো।--বেলায়েত (আলাপ | অবদান) ১৭:২৪, ১ নভেম্বর ২০০৯ (UTC)

সেক্ষেত্রে বেলায়েত ভাইকেও ধন্যবাদ। --অর্ণব দত্ত (talk) ০৭:১১, ২ নভেম্বর ২০০৯ (UTC)

নির্বাচিত নিবন্ধ প্রক্রিয়া সংক্রান্ত আবেদন[সম্পাদনা]

নির্বাচিত নিবন্ধ করার প্রক্রিয়ায় রিভিউ করার কাজ শেষ করলাম। ভাষা, পরিভাষা বা বানান সংক্রান্ত কোনো সমস্যা নেই। ডেড লিঙ্কগুলিও ফিক্স করে দেওয়া হয়েছে। অন্যান্য অবদানকারী সদস্যদের কাছে অনুরোধ, তাঁরা যেন নিবন্ধটি পড়ে মতামত দেন এবং এরপর কী করনীয় তা জানান। --অর্ণব দত্ত (talk) ১০:১৬, ২৫ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)

মিলিয়ন, বিলিয়ন, ট্রিলিয়ন -এগুলো পাঠকের বিবেচনায় প্রচলিত ইউনিট, অর্থাৎ লক্ষ বা কোটিতে প্রকাশ করার অনুরোধ করছি। ১,০০,০০০-এর মতো সংখ্যা "এক লক্ষ" বা "১ লক্ষ" হিসেবে লেখা যায়। অডিও-এর বাংলা শ্রাব্য করায় প্রাঞ্জলতা নষ্ট হয়েছে বলে মনে হচ্ছে। একেবারে প্রচলিত ইংরেজি শব্দ আমি ব্যক্তিগতভাবে বাংলা না করে প্রতিবর্ণীকরণ করার পক্ষে। আর শ্রাব্য-এর অন্তর্গত অংশটুকু বহিঃসংযোগে রাখা যায় কী? গ্রন্থপঞ্জিতে রাখা ফরাসি ও জার্মান ভাষার বইয়ের তালিকা পাঠক বিবেচনায় কার্যকরী মনে হচ্ছে না খুব একটা। ওগুলো মনে হয় বাদ দেওয়া যায়। — তানভির আলাপ অবদান ১০:৪৪, ২৫ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)
ভারতীয় অর্থনীতির পরিভাষায় লক্ষ/কোটি ইউনিট শব্দদুটি ভারতীয় টাকার পরিপ্রেক্ষিতে এবং মিলিয়ন/বিলিয়ন/ট্রিলিয়ন ইউনিট শব্দগুলি মার্কিন ডলারের পরিপ্রেক্ষিতে ব্যবহৃত হয়। তাই আমার মনে হয় পরিভাষাগত ত্রুটি এড়াতে মিলিয়ন/বিলিয়ন/ট্রিলিয়ন ইউনিট লক্ষ/কোটিতে প্রকাশ না করাই ভাল। তবে জনপরিসংখ্যান বা বছর গণনার ক্ষেত্রে তা করাই যায়। তবে অন্যান্য প্রস্তাবগুলি গ্রহণ করেছি। --অর্ণব দত্ত (talk) ১১:২৪, ২৫ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)

জনপরিসংখ্যান বার[সম্পাদনা]

জনপরিসংখ্যান অনুচ্ছেদে ব্যবহৃত ভারতের ধর্ম শিরোনামে বারে পরিসংখ্যান ঠিক মত প্রদর্শন করছে না। সম্ভবত ডাটা বাংলা ভাষায় দেওয়াতে এই সমস্যা হচ্ছে। অনুগ্রহ করে তা ঠিক করে নিন।--বেলায়েত (আলাপ | অবদান) ১৭:৫০, ২৮ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)

কালার বারটা ঠিকমতো কাজ করছে না। আমার ধারণা টেকনিক্যাল সমস্যা। আমি ঠিক করার চেষ্টা করেছিলাম, কিন্তু পারিনি।
পরিসংখ্যানের বারটা বাদ দেওয়াই শ্রেয় মনে করছি। তথ্যগুলি মূল নিবন্ধে সন্নিবেশিত আছে। এই বারটি না থাকলেও ক্ষতি বৃদ্ধি নেই। বাদ দেওয়ার ব্যাপারে পরামর্শ প্রার্থনা করছি। --অর্ণব দত্ত (talk) ১৭:৫৫, ২৮ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)
কালার বার এখান থেকে বাদ দিয়ে ভারতের ধর্ম নিবন্ধে যোগ করা যায়। — তানভির আলাপ অবদান ১৮:০০, ২৮ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)

ভারতের জলবায়ু[সম্পাদনা]

ভারত#রাজনৈতিক বিভাগ অনুচ্ছেদে রাজ্য এবং কেন্দ্রীয় শাসিত অঞ্চল পাশা পাশি এনে মানচিত্রটি আরও একটু ছোট করা যায়। যা নিবন্ধে অন্য ছবিগুলোর সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ হবে। আর উপরে ভূগোলের পূর্বে ভারতের জলবায়ূ সম্পর্কিত একটি অনুচ্ছেদ যোগ করার পরামর্শ দিচ্ছি।--বেলায়েত (আলাপ | অবদান) ১৮:৪৬, ২৮ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)

রাজনৈতিক বিভাগ সংক্রান্ত প্রস্তাবটি ঠিক আছে। তবে আমার মনে হয়, জলবায়ু নিয়ে পৃথক অনুচ্ছেদ না করলেও চলবে। আরও দেখুন অংশে ভারতের জলবায়ুর লিঙ্ক দেওয়া আছে, আর মৌলিক তথ্যগুলি সবই সন্নিবেশিত হয়েছে। --অর্ণব দত্ত (talk) ১৮:৫৮, ২৮ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)
রাজনৈতিক বিভাগ সংক্রান্ত প্রস্তাবটি রূপায়ণে সাহায্য প্রার্থনা করছি। সিনট্যাক্সটা আমার ঠিক জানা নেই। --অর্ণব দত্ত (talk) ১৯:০০, ২৮ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)
অর্ণবদা, করে দিলাম। দেখুন ঠিক আছে কী না....। বাংলা সাংখ্যিক লিস্টে অ্যালাইন ঠিক রাখা যায় না, আর ইংরেজি নিউমেরিকাল দিতে চাইলাম না, দুই দিক ঠিক রাখতে গিয়ে বুলেট লিস্ট দিলাম। কোনো আপত্তি আছে? থাকলে, ১,২,৩,.... করে দিতে হবে। — তানভির আলাপ অবদান ১৯:২৯, ২৮ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)
১, ২, ৩... করেই দাও। নইলে সমস্যা হবে। ম্যাপটি দ্যাখো। ওখানে প্রত্যেকটি রাজ্যের উপর একটি সংখ্যা দেওয়া আছে, পাশের তালিকায় নির্দিষ্ট রাজ্যের উপরের সংখ্যায় অন্তর্ভুক্ত হয়েছে রাজ্যের নাম। বুলেট দিলে ম্যাপটি অর্থহীন হয়ে যাবে। আমার আমার অনুরোধ, টেমপ্লেট:ভারতের রাজ্য-এ এই সংশোধনটা করো। টেমপ্লেটটা এই নিবন্ধের জন্যই সৃষ্ট। আর ২৮ টি রাজ্যের নামের তালিকা ১৪+১৪ হিসেবে দুটি স্তম্ভে ভেঙে দাও। --অর্ণব দত্ত (talk) ২০:০২, ২৮ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)
টেমপ্লেট:ভারতের রাজ্য টেমপ্লেটে শুধু কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের তালিকাটা রাজ্য তালিকার পাশে এনে দাও। আর ছবিটার আকার সেই অনুযায়ী কমাও। তাহলেই হবে। আর কিছু করতে লাগবে না। --অর্ণব দত্ত (talk) ২০:০৪, ২৮ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)
করে দিলাম। এবার দেখুন তো অর্ণবদা। — তানভির আলাপ অবদান ০৩:৩৬, ২৯ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)
ভারতের জলবায়ু নিবন্ধের লিঙ্ক দেওয়া আর ভারত নিবন্ধটা সম্পূর্ণ করা তো আর এক কথা হল না। ভারতের জলবায়ূ নামের একটি পাতা থাকলেই যে এর থেকে বিষয়বস্তু মূল নিবন্ধে আসবে না তাও না। এ বিষয়টি সম্পর্কে বিষয়বস্তু বেশী হবে বলেই না আরও একটি পাতা খুলতে হয়েছে। ঐ পাতার একটি সারাংশ অন্তত মূল ভারতের পাতায় যুক্ত করা যায়। সব বিষয়ই রয়েছে কিন্তু আমার মনে হয়েছে "ভারতের আবহাওয়া ও জলবায়ূ" সম্পর্কিত কোনো তথ্য এখানে থাকা উচিত। আর ভারত নিবন্ধটিতো ভারত সম্পর্কিত অন্য পাতাগুলোর পোর্টাল হিসেবেও কাজ করবে।--বেলায়েত (আলাপ | অবদান) ০৩:৪২, ২৯ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)
@বেলায়েত ভাই, আমার মনে হয়, জলবায়ু সংক্রান্ত তথ্য ইতিমধ্যেই ভূগোল অংশে দেওয়া হয়েছে (শেষ প্যারাগ্রাফটি দ্রষ্টব্য)। যদি মনে হয়, তথ্য কম আছে, তাহলে অন্যান্য প্যারাগ্রাফের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে বাড়িয়ে দেওয়া যায়। আমি জলবায়ু পৃথক পরিচ্ছেদ করার বিপক্ষে; এটিকে ভূগোলের উপবিভাগ করে দেখানোই ভাল। কি বলেন? --অর্ণব দত্ত (talk) ০৫:৩৭, ২৯ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)
হ্যা, তাহলে ভূগোল অনুচ্ছেদের মধ্যেই আরও কিছু কন্টেন্ট যোগ করে একটি উপবিভাগ (লেভেল ৩) অনুচ্ছেদ করে দেন। তাতে জলবায়ু টা ফোকাস হবে।--বেলায়েত (আলাপ | অবদান) ০৬:০১, ২৯ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)
সেটাই করা ভাল মনে করছি। --অর্ণব দত্ত (talk) ০৭:১৬, ২৯ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)
@তানভির, মোটামুটি ঠিকই আছে, তবে বেলায়েত ভাই মনে হয়, পাশের সাদা জায়গাটা কমানোর কথা বলেছেন। রাজ্যের তালিকাটি কি ১৪+১৪ হিসেবে ভেঙে দেওয়া যায়। --অর্ণব দত্ত (talk) ০৫:৩৯, ২৯ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)
অর্ণবদা, রাজ্যের তালিকা তো দুই কলামে ১৪+১৪ করেই দেওয়া, আপনার কথা বুঝি নি। দুঃখিত। — তানভির আলাপ অবদান ০৫:৪৪, ২৯ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)
কোথায় টেমপ্লেট বা মূল নিবন্ধে তো দেখা যাচ্ছে না। দুটি কলাম আছে বটে - তবে একটি কলামে রাজ্য, অপর কলামে কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল দেওয়া হয়েছে। আমি বলতে চাইছি। ২৮টি রাজের নাম দুটি কলামে ভেঙে দেখাতে। তাতে মোট কলাম হবে ৩ (রাজ্য কলাম ২ + কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল কলাম ১)। --অর্ণব দত্ত (talk) ০৬:০২, ২৯ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)
আমি তো তিন কলামেই দেখছি, অর্ণবদা? আপনি ক্যাশ ক্লিয়ার করে একবার দেখুন তো। আরো কারো কী এমন সমস্যা হচ্ছে? — তানভির আলাপ অবদান ০৬:০৪, ২৯ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)
Never mind. Done it. :-D --অর্ণব দত্ত (talk) ০৬:০৬, ২৯ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)
আমার মনে হয় ঠিক হয় নি, আপনি দেখুন তো, লেখাগুলো একটা ওপরটার গায়ে পড়ে গেছে কী না? আমি দেখছি কলাম হয়েছে ৪টা। ২য় কলাম ৩য় কলামের গায়ে লেগে গেছে। ভুল বলে থাকলে সরি। — তানভির আলাপ অবদান ০৬:০৯, ২৯ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)
নাতো আমি তো দেখছি ঠিকই আছে। --অর্ণব দত্ত (talk) ০৬:১৪, ২৯ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)
অর্ণব তানভীরের সংস্করণটিই ঠিক ছিল। ওটাতেই তিন কলাম দেখাচ্ছিল। এখন চার কলাম দেখাচ্ছে আর ২ আর ৩ কলাম একটি আরেকটির পিঠে চড়ে গেছে।--বেলায়েত (আলাপ | অবদান) ০৬:২০, ২৯ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)
অর্ণবদা, আপনি ক্যাশ ক্লিয়ার করে দেখুন। এরকম মাঝে মাঝে আমারও হয়। — তানভির আলাপ অবদান ০৬:২২, ২৯ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)
অর্ণবদা, আপনার ঠিক দেখার কথা নয়, কারণ প্রথম কলামে <div style="-moz-column-count:2; লেখা আছে যা ঐ কলামের কন্টেন্টকে ২ কলামে ভাগ করে দেবে। এখন প্রথম কলামে আছে ১৪টা রাজ্য। আর আপনি ১৪টি রাজ্যের পর "|" সাইন দেওয়ায় তা আবার দুভাগ হয়েছে, অর্থাৎ (৭+৭+১৪+১) হওয়ার কথা, এবং তাই হয়েছিলো। আপনি ক্যাশটা একটু ক্লিয়ার করে দেখুন। আমার মনে হয় ঠিক আছে। — তানভির আলাপ অবদান ০৬:২৯, ২৯ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)
ক্যাশ ক্লিয়ার করেও আমি রাজ্যের একটি মাত্র কলাম দেখছি। সম্ভবত আমার কম্পিউটার বা ইন্টারনেট এক্সপ্লোরারের টেকনিক্যাল ত্রুটি। যাই হোক, বেলায়েত কনফার্ম করছেন, তানভির ঠিক কাজ করেছে। তাই আমি আর টেমপ্লেটে হাত দিচ্ছি না। পরে ত্রুটির কারণটা খুঁজে দেখব। --অর্ণব দত্ত (talk) ০৭:২৫, ২৯ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)

ভারত#রাজনৈতিক বিভাগ অনুচ্ছেদে রাজ্যতালিকায় ২৬ এবং ২৭ নম্বরে যথাক্রমে উত্তরাখণ্ড এবং উত্তর প্রদেশ উল্লিখিত ; কিন্তু পাশের মানচিত্রটিতে ২৬ এবং ২৭ এ যথাক্রমে উত্তর প্রদেশ এবং উত্তরাখণ্ডের রেখাচিত্র দেখা যাচ্ছে। ত্রুটিটি শুধরে নিলে খুশি হব। Sharbatc (আলাপ) ০৯:৩২, ৮ অক্টোবর ২০১৩ (ইউটিসি)

আর কী কী করণীয়[সম্পাদনা]

ভূগোল অংশে জলবায়ু উপবিভাগ করা ছাড়া নিবন্ধটিতে আর কী কী পরিবর্তন বা সংস্কার করা প্রয়োজন? --অর্ণব দত্ত (talk) ০৭:৩০, ২৯ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)

ভারতীয় সংসদের ছবিটি বামে দেওয়াতে ঐ অনুচ্ছেদের শেষ লাইনটি এর ডান পাশে রাখা টেম্পলেটের ঘাড়ে চেপে বসে, এ কারণেই ছবিটি ডানে দেওয়া হয়েছিল।--বেলায়েত (আলাপ | অবদান) ০৮:০৮, ২৯ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)

ছবিটা ডানদিকে থাকলে তথ্যছকটির দৈর্ঘ্যের জন্য বাঁদিকের অনেকটা জায়গা সাদা দেখাচ্ছে। জাতীয় প্রতীকসমূহের টেমপ্লেটটি কী সংস্কৃতির মধ্যে দেওয়া যায়? --অর্ণব দত্ত (talk) ০৮:২১, ২৯ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)
মনে হয় দেওয়া যায়। বাংলাদেশ নিবন্ধে তাই আছে। --অর্ণব দত্ত (talk) ০৮:২২, ২৯ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)

পাদটীকা স্ক্রোলবক্সে দেয়া হয়েছে কেনো? সমস্যাটা হলো, প্রিন্ট করলে সম্ভবত স্ক্রোলবক্স পুরোটা আসবে না। কাজেই পাদটিকার div ট্যাগ সরিয়ে নেয়া যেতে পারে। --রাগিব (আলাপ | অবদান) ০৮:৩০, ২৯ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)

সংসদের ছবি, জাতীয় প্রতীকের টেমপ্লেট ও স্ক্রোলবক্স সংক্রান্ত সমস্যা সমাধান হয়েছে। ঠিক আছে কিনা দেখতে অনুরোধ করা হচ্ছে। --অর্ণব দত্ত (talk) ০৮:৩৪, ২৯ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)
আর কী বিশেষ কিছু করণীয় আছে? --অর্ণব দত্ত (talk) ১১:২৭, ২৯ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)

অর্থনীতি[সম্পাদনা]

এই অনুচ্ছেদে কিছু করার সুযোগ আছে। উদাহরণ দিচ্ছি। (ক) তথ্য হালনাগাদকরণ: যেমন আমদানী-রপ্তানীর ক্ষেত্রে ২০০৭-এর তথ্য আছে। ২০০৮-এর তথ্য পাওয়া কি সম্ভব? একইভাবে লক্ষ্য করুন: "‍২০০৪-২০০৫ সালে ভারতের ২৭.৫% মানুষ দারিদ্যসীমার নিচে অবস্থানকারী।" এ বিষয়ে ২০০৮-০৯, নিদেনপক্ষে ২০০৭-০৮, অর্থবছরের তথ্য পাওয়া কি সম্ভব নয়? (খ) তথ্য উপস্থাপনার ক্রম: প্রখম অনুচ্ছেদে জিডিপির পূর্বেই বৈদেশিক মুদ্রা সঞ্চয়ের তথ্য দেয়া হয়েছে। এর পশ্চাতে যুক্তি থাকতে পারে। কিন্তু প্রথমেই জিডিপি, মাথাপিছু জিডিপি, এবং ২০০৮ অর্থবছরে আগের বছরের তুলনায় জিডিপি প্রবৃদ্ধির হার দিলে পাঠকের জন্য সুবিধা হবে। একই কারণে জিডিপির কম্পোজিশন প্রথমে দিয়ে তারপর লেবারফোর্সের বিভাজন দিলে ভাল হয়। (গ) তথ্যের কাল: "ভারতের মোট অভ্যন্তরীণ উৎপাদন বা জিডিপি মার্কিন ডলারের বিনিময়-হার অনুযায়ী ১.০৮৯ ট্রিলিয়ন মার্কিন ডলার।" এই তথ্যটি কোন্‌ বছর সংশ্লিষ্ট তা বোঝা যায় না। (ঘ) অর্থ নির্মলতার অভাব: যেমন "ভারতে আর্থিক বৈষম্য অপেক্ষাকৃত কমই (জিনি সহগ অনুসারে ২০০৪ সালে ৩৬.৮)। এই হার অবশ্য পরে বৃদ্ধি পেয়েছে।" এর শেষাংশ অর্থাৎ "এই হার অবশ্য পরে বৃদ্ধি পেয়েছে" কথাটির তাৎপর্য কি, তা স্বত:স্ফুট নয় ; এবং যারা অর্থনীতির ছাত্র নন তাদের জন্য বোধগম্য হবে না। (ঙ) পরিভাষা: আগের উদ্ধৃতি দেখুন। জিনি সহগের ক্ষেত্রে "আর্থিক বৈষম্য" কথাটি ঠিক লাগসই নয়। ইনকাম ডিসপ্যারিটির পরিভাষা হিসাবে "আয়বৈষম্য" বা "আয়বণ্টনবৈষম্য" অধিকতর মূলানুগ। ইত্যাদি, ইত্যাদি। (বলাবাহুল্য, পরামর্শ দেয়া সহজ, কাজ সতত দুরূহ।) -- Faizul Latif Chowdhury (talk) ১২:৫৯, ২৯ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)

(ক) সাম্প্রতিকতম তথ্য প্রকাশিত হয়েছে কিনা আমার জানা নেই। তবে তথ্যগুলি অধিক পুরনো নয়। সুতরাং দিতে অসুবিধা নেই। যখন সাম্প্রতিক তথ্য হাতে আসবে, তখন হালনাগাদ করে দিলেই হবে। (খ) অংশে আপনি যে প্রস্তাবগুলি রেখেছেন সেগুলি বিশেষজ্ঞদের দ্বারা সাধিত হলেই ভাল হয়। (গ) ২০০৫ সালে হিসাব, ২০০৭ সালে প্রকাশিত; তথ্যসূত্রে স্পষ্টতই দেওয়া আছে। (ঘ) এবং (ঙ) আপনি যদি এই বিষয়ে বিশেষজ্ঞ হন, তাহলে বিষয়টি সংশোধনের অনুরোধ করছি। --অর্ণব দত্ত (talk) ১৪:০৩, ২৯ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)

এই লিংকে ২০০৭-২০০৮ অর্থবছরের ভারতের অর্থনীতির বিভিন্ন উপাত্ত রয়েছে। খুঁজতে হবে। কিছু পাওয়া যাওয়ার সম্ভাবনা আছে। — তানভির আলাপ অবদান ১৪:০৭, ২৯ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)

তা আছে। তবে এই ৪৩ পাতার রিপোর্ট থেকে সঠিক তথ্যটি সঠিক ভাবে খুঁজে বের করতে বিশেষজ্ঞের সাহায্য লাগবে। --অর্ণব দত্ত (talk) ১৪:১২, ২৯ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)
এই মাত্র চোখে পড়ল রিপোর্টটি জানুয়ারি, ২০০৮-এ প্রকাশিত। অতএব ২০০৭ অবধি তথ্যই এখানে থাকবে। তার পরের তথ্য পাওয়া যাবে না। --অর্ণব দত্ত (talk) ১৪:২০, ২৯ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)
ঐটা বাদ দেন অর্ণবদা। আরেকটা পাইছি। জিডিপি (পিপিপি) (২০০৯ আনুমানিক) ৩,৫২৮.৬১৪ ট্রিলিয়ন $; আর জিডিপি (নামমাত্র) (২০০৯ আনুমানিক) ১,২৪২.৬৪১ ট্রিলিয়ন $। আপনি আপডেট দ্যান। রেফারেন্স http://www.imf.org/external/pubs/ft/weo/2009/02/weodata/weorept.aspx?sy=2006&ey=2009&scsm=1&ssd=1&sort=country&ds=.&br=1&c=534&s=NGDPD%2CNGDPDPC%2CPPPGDP%2CPPPPC%2CLP&grp=0&a=&pr1.x=40&pr1.y=15 । আমি খুঁজছি পেলে আরো জানাচ্ছি। — তানভির আলাপ অবদান ১৪:২৩, ২৯ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)
দিচ্ছি, তথ্যসূত্রটা একটু ফরম্যাট করে দাও। নইলে নগ্ন ইউআরএল-এর ট্যাগ পড়ে যাবে। --অর্ণব দত্ত (talk) ১৪:২৬, ২৯ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)
সঙ্গে বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংটা পাওয়া যাবে কি? --অর্ণব দত্ত (talk) ১৪:৩০, ২৯ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)
আপডেট করে দিয়েছি। দুঃখিত অর্ণবদা, ঐ লিঙ্কে র‌্যাঙ্কিংয়ের ব্যাপারে কিছু বলা নেই। তবে আমি মোটামুটি ভালই সিওর যে র‌্যাঙ্কিং পরিবর্তন হয় নি। কারণ ভারত এমন এক অবস্থানে যে, র‌্যাঙ্কিং এক ধাপ উপরে বা নিচে যেদিকেই যাক তা পত্রিকার শিরোনাম হয়ে যাবে। — তানভির আলাপ অবদান ১৪:৪০, ২৯ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)

"এই হার অবশ্য পরে বৃদ্ধি পেয়েছে"-কথাটির রেফারেন্স পাওয়া না গেলে বাদ দেওয়া যেতে পারে বলে মনে হচ্ছে। যদিও আমার নিজের ধারণাও হচ্ছে পরে বৃদ্ধি পেয়েছে। তবে নেট সার্চ করে জিনি সহগের ডেটা ২০০৪-এর পর কোথাও পাই নি। — তানভির আলাপ অবদান ১৫:১৩, ২৯ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)

বাদ দেওয়া হয়ে গেছে। ভারতে দারিদ্র্যের উপর প্যারাগ্রাফটি নতুন করে লিখেছি এইমাত্র। --অর্ণব দত্ত (talk) ১৫:২২, ২৯ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)

সকল কাজ সম্পন্ন[সম্পাদনা]

ভারত নিবন্ধটির সকল কাজ সম্পন্ন হয়েছে। একেবারে শেষে এসে অর্থনীতি অনুচ্ছেদে তথ্য আপডেট ও পুনর্বিন্যাসের কিছু কাজ ছিলো যাও সম্পন্ন হয়েছে গতকালই। তাই আশা করছি আর কোনো বাধা না থাকলে প্রস্তাবিত নির্বাচিত নিবন্ধ পাতায় সমর্থন দিয়ে অতি শীঘ্র এটির নির্বাচিত নিবন্ধ স্ট্যাটাস দেওয়ার অনুরোধ, যাতে জানুয়ারি ১, ২০১০-এই এটি প্রথম পাতায় দেওয়া যায়। সেই সাথে আর কোনো সমস্যা থাকলেও জানানোর অনুরোধ, আজকের মাঝেই ঠিক করে ফেলা যাবে, আশা করছি। ধন্যবাদ। — তানভির আলাপ অবদান ১৩:১৯, ৩০ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)

সারাংশের পরিকল্পনা করাই আছে। কেবল এখনও নির্বাচিত নিবন্ধ হয়নি বলেই, দিই নি। রাগিব ভাই বলেছেন, আর একবার বানান ও ভাষারীতি চেক করে নিতে। তানভিরকে অনুরোধ করব কাজটা শেষ করে নিতে। --অর্ণব দত্ত (talk) ১৪:৪৪, ৩০ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)
আমি হাত লাগিয়েছি। — তানভির আলাপ অবদান ১৪:৫৯, ৩০ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)
করে দিয়েছি। প্রয়োজনীয় এডিটিং-ও সেই সাথে সম্পন্ন করেছি। সবকিছু-ই এখন মোটামুটি ঠিক আছে। — তানভির আলাপ অবদান ১৬:০৩, ৩০ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)
খুব ভাল হল। অনেক ধন্যবাদ। নিচের সারাংশটাও একবার দেখে নিও। --অর্ণব দত্ত (talk) ১৬:১১, ৩০ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)
স্বভাবদোষে এক-আধটু দেখার চেষ্টা করছি। -- Faizul Latif Chowdhury (talk) ১৬:৫৭, ৩০ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)

সারাংশ[সম্পাদনা]

ভারতের পতাকা

ভারত দক্ষিণ এশিয়ার একটি রাষ্ট্র। ভৌগোলিক আয়তনের বিচারে এটি দক্ষিণ এশিয়ার বৃহত্তম এবং বিশ্বের সপ্তম বৃহত্তম রাষ্ট্র। অন্যদিকে জনসংখ্যার বিচারে এটি বিশ্বের দ্বিতীয় সর্বাধিক জনবহুল তথা বৃহত্তম গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র। সুপ্রাচীন কাল থেকেই ভারতীয় উপমহাদেশ অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি ও সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের জন্য সুপরিচিত। ঐতিহাসিক সিন্ধু সভ্যতা এই অঞ্চলেই গড়ে উঠেছিল। ইতিহাসের বিভিন্ন পর্বে এখানেই স্থাপিত হয়েছিল একাধিক বিশালাকার সাম্রাজ্য। নানা ইতিহাস-প্রসিদ্ধ বাণিজ্যপথ এই অঞ্চলের সঙ্গে বিশ্বের অন্যান্য সভ্যতার বাণিজ্যিক ও সাংস্কৃতিক সম্পর্ক রক্ষা করত। হিন্দু, বৌদ্ধ, জৈন, ও শিখ—এই চার বিশ্বধর্মের উৎসভূমি ভারত। খ্রিষ্টীয় প্রথম সহস্রাব্দে জরথুষ্ট্রীয় ধর্ম (পারসি ধর্ম), ইহুদি ধর্ম, খ্রিষ্টধর্ম, ও ইসলাম এদেশে প্রবেশ করে ভারতীয় সংস্কৃতিতে বিশেষ প্রভাব বিস্তার করে। অষ্টাদশ শতাব্দীর প্রথমার্ধ থেকে ব্রিটিশ ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি ধীরে ধীরে ভারতীয় ভূখণ্ডের অধিকাংশ অঞ্চল নিজেদের শাসনাধীনে আনতে সক্ষম হয়। ঊনবিংশ শতাব্দীর মধ্যভাগে এই দেশ পুরোদস্তুর একটি ব্রিটিশ উপনিবেশে পরিণত হয়। অতঃপর এক সুদীর্ঘ স্বাধীনতা সংগ্রামের মাধ্যমে ১৯৪৭ সালে ভারত একটি স্বতন্ত্র রাষ্ট্ররূপে আত্মপ্রকাশ করে। ১৯৫০ সালে সংবিধান প্রণয়নের মাধ্যমে ভারত একটি সার্বভৌম গণতান্ত্রিক প্রজাতন্ত্রে পরিণত হয়। বর্তমানে ভারত ২৮টি রাজ্য ও সাতটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল বিশিষ্ট এক সংসদীয় সাধারণতন্ত্র(বাকি অংশ পড়ুন...)



উপরের ভারতীয় প্রজাতন্ত্র অংশটি লিংক হিসেবে দিলাম। আমি যতোদূর জানি নির্বাচিত নিবন্ধ সেকশনে নিবন্ধের মূল শিরোনামই দেওয়া হয়, সে হিসেবে প্রথমে অংশটি ভারতীয় প্রজাতন্ত্র না হয়ে ভারত হবার কথা। ও মূল পাতায় কেমন দেখাবে তার এক প্রিভিউ এখানে পাবেন। — তানভির আলাপ অবদান ১৬:২২, ৩০ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)
আমি এ মাসের নির্বাচিত নিবন্ধ বাংলাদেশের সারাংশটা আদর্শ ধরেছিলাম। --অর্ণব দত্ত (talk) ১৬:৩৪, ৩০ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)
অবশ্য ভারত শিরোনামও চলে। তবে শিরোনামটা লিঙ্ক হিসেবে দেওয়ার দরকার আছে কি? --অর্ণব দত্ত (talk) ১৬:৩৬, ৩০ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)
এক্সাক্ট কারণটা আমার জানা নেই, তবে ইংরেজি উইকিতে ও এখানেও আগের নিবন্ধগুলোর ক্ষেত্রে এটা হতে দেখেছি। দেওয়া থাকলে পাঠক চাইলে সরাসরিই মূল নিবন্ধে চলে যেতে পারেন। তাছাড়া এইটা ঐ নিবন্ধের মূল পাতা না, এবং মূল পাতায় যাওয়া ঐটাই একমাত্র ভিসিবল লিংক হিসেবে থাকে। — তানভির আলাপ অবদান ১৬:৪৮, ৩০ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)
Then, I think, its all ok! --অর্ণব দত্ত (talk) ০৪:৫৬, ৩১ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)
মূল নিবন্ধ অনুসারে একটু সংশোধন করলাম, আর শিরোনামটা "ভারত" করে দিলাম। — তানভির আলাপ অবদান ০৫:১২, ৩১ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)
No problem. --অর্ণব দত্ত (talk) ০৫:২১, ৩১ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)
সারাংশটি হালনাগাদ হয়েছে কিনা অনুগ্রহ করে নিশ্চিত করুন। তাহলে একে প্রথম পাতায় দেওয়া যেতে পারে।--বেলায়েত (আলাপ | অবদান) ১৭:৪৬, ২ জানুয়ারি ২০১০ (UTC)

আমার মনে হয় এখন ঠিক আছে। প্রধান পাতায় দেওয়া যেতে পারে। — তানভির আলাপ অবদান ১৭:৫৬, ২ জানুয়ারি ২০১০ (UTC)

নির্বাচিত নিবন্ধ[সম্পাদনা]

বছরের প্রথম দিন; অর্থাৎ আজ রাত বারোটায় নির্বাচিত নিবন্ধ হিসেবে প্রধান পাতায় দেওয়ার জন্য ভারত নিবন্ধটি সম্পূর্ণভাবে তৈরি। তাই আশা করবো এটিকে নির্বাচিত হিসেবে উত্তীর্ণ করতে নিয়মিত অবদানকারীরা উইকিপিডিয়া:প্রস্তাবিত নির্বাচিত নিবন্ধ#ভারত অংশে তাঁদের মূল্যবান সমর্থন প্রদান করবেন (ইতিমধ্যেই তিনটি সমর্থন সেখানে জমা হয়েছে)। অথবা সবার সম্মতিক্রমে আমি এটাকে নির্বাচিত নিবন্ধ হিসেবে উত্তীর্ণ করতে চাই (যদি না এই অধিকার শুধু প্রশাসক দ্বারা সংরক্ষিত থাকে)। ধন্যবাদ। — তানভির আলাপ অবদান ০৮:৪২, ৩১ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)

আমার ধারণা, সম্মতিদানের বিষয়টি উইকিপিডিয়া:প্রস্তাবিত নির্বাচিত নিবন্ধ#ভারত অংশেই নিষ্পন্ন হয়েছে। এখন শুধুই এটিকে নির্বাচিত নিবন্ধ স্তরে উন্নীত করার অপেক্ষা। --অর্ণব দত্ত (talk) ০৯:০২, ৩১ ডিসেম্বর ২০০৯ (UTC)

জনপরিসংখ্যান[সম্পাদনা]

ভারতের জনসংখ্যার তথ্যটি ২০০১-এর অনেক আগের। তথ্যটি আমি ২০০৯ সালের দিয়ে হালনাগাদ করার সুপারিশ করছি। কারণ দেখলাম যে সিআইএ ফ্যাক্টবুকের রেফারেন্স দেওয়া হয়েছে সেটিও হালনাগাতকৃত হয়েছে, এবং নিবন্ধে উল্লেখিত তথ্যের সাথে তার কোনো মিল নেই। সেখানে লেখা হয়েছে 1,166,079,217 (July 2009 est.)। অর্থাৎ জনসংখ্যা হবে ১১৬ কোটি (জুলাই ২০০৯ আনুমানিক)। তাই তথ্যটি আপগ্রেড করা প্রয়োজন। আর "প্রাক্কলন" বা "আনুমানিক" যেকোনো একটি আমার মতে ব্যবহার করতে হবে। কারণ আনুমানিক বা প্রাক্কলন ব্যবহার না করলে ২০০১-এর পরিসংখ্যানের ফলাফল (অর্থাৎ সেই ৮ বছর আগের ফলাফল) হুবহু উল্লেখ করে দিতে হবে, যা সমীচিন নয়, কারণ তথ্য আপডেট হয়েছে অনেক সূত্রে। তাই "প্রাক্কলন" বা "আনুমানিক" শব্দটি ব্যবহার করতে হবে, সূত্রে স্পষ্টভাবেই est. কথাটির উল্লেখ আছে। দ্বিতীয়ত প্রাক্কলন কথাটির চেয়ে "আনুমানিক" শব্দটি বেশি প্রাঞ্জল তাই সেটি ব্যবহার করা উচিত। তৃতীয়ত তথ্যের সূত্রটি সেন্সাস ইন্ডিয়া বা ইন্ডিয়ার কোনো সূত্র থেকে নয়, সম্পূর্ণ বাইরের সূত্র সিআইএ ফ্যাক্টবুক থেকে দেওয়া; আমরা শুধু উল্লেখ করছি মাত্র। বিতর্ক উঠলে তা সিআইএ-এর ওপর বর্তায়। আর আমরাও দায়মুক্ত থাকি; কারণ আমরা নিরপেক্ষ সূত্র ব্যবহারের চর্চা করেছি, যা উইকিপিডিয়ার নীতিরও একটি অংশ। — তানভির আলাপ অবদান ১০:১৪, ১ জানুয়ারি ২০১০ (UTC)

আরেকটি ব্যাপার, সূত্রে বলা হয়নি তারা ২০০১-এর জনগণনাকে সূত্র মেনেছেন, তাই আমার মতে সকল বিতর্কের উর্দ্ধে থাকতে। এভাবে লিখি:
  • ২০০৯ সালের জুলাই পর্যন্ত এক আনুমান অনুসারে প্রায় ১১৬ কোটি জনঅধ্যুষিত ভারত পৃথিবীর দ্বিতীয় বৃহত্তম জনবহুল রাষ্ট্র। অথবা
  • ২০০৯ সালের জুলাই পর্যন্ত ভারতের আনুমানিক জনসংখ্যা ১১৬ কোটি, যা ভারতকে পৃথিবীর দ্বিতীয় বৃহত্তম জনবহুল রাষ্ট্রে পরিণত করেছে।
চাইলে অবশ্য এ বাক্যটিকে আরো সুন্দর করা যায়। পরামর্শের অনুরোধ রইলো। ২০০১ উড়িয়ে দিলে বিতর্ক অনেক কমে যায়। কারণ তখন জনগণনার রেফারেন্স থাকছে না, আনুমানিক ব্যবহারে তাই বাধা নেই। — তানভির আলাপ অবদান ১০:২১, ১ জানুয়ারি ২০১০ (UTC)
২০০৯ সূত্র ব্যবহার করা যেতে পারে, তবে ২০০১ সালের সূত্রটি বাদ না দিলেই ভাল হয়। জনগণনা সব দেশেই প্রাথমিক তথ্যউৎস। আমার আপত্তি ছিল কেবল প্রাককলন শব্দটি নিয়ে। ওটাকে বাদ দিলেও তো শব্দটির বোধগম্যতা ক্ষতিগ্রস্থ হয় না। আমার প্রস্তাব তথ্যছকে ২০০১ সালের তথ্যটা রাখা হোক। সেখানে বাক্যবিন্যাসের প্রয়োজন পড়ে না। অতএব বিষয়টি অবিতর্কিত থাকবে। সিআইএ ফ্যাক্টবুকের তথ্যটি জনপরিসংখ্যানে দেওয়া হোক। তানভির প্রস্তাবিত বাক্যটি ভেঙে লেখার পরামর্শ দিচ্ছি:ভারত পৃথিবীর দ্বিতীয় বৃহত্তম জনবহুল রাষ্ট্র। ২০০৯ সালের জুলাই পর্যন্ত ভারতের আনুমানিক জনসংখ্যা ১১৬ কোটি। তারপর তথ্যসূত্র। মনে হয় কোনো বিতর্ক উঠবে না। সিআইএ ফ্যাক্টবুকের তথ্য নিয়ে, যতদূর জানি, ভারতে কোনো বিরোধ নেই।
আর হ্যাঁ, রাজা ভরতের নামের আগে চন্দ্রবংশীয় কথাটা লাগিয়েই দাও। একটা চার অক্ষরী শব্দ যোগে যদি মনান্তর মিটে যায়, তবে তাই শ্রেয়। --অর্ণব দত্ত (talk) ১০:৪১, ১ জানুয়ারি ২০১০ (UTC)

হ্যাঁ, প্রস্তাবটি ভেঙে লেখা যায়, তাতে বাক্যটিও সরল হয়। অন্যদের মতামতের জন্য ব্যাপারটি আরো কিছুক্ষণ এখানে থাক। এরপর নিবন্ধে দেওয়া যাবে। আপাতত রেফারেন্স সাপেক্ষে আমি তথ্যসূত্রের ২০০৯-এর জনসংখ্যা অংশটি আপডেট করছি। তথ্যছকে ২০০১-এরটা অবশ্যই থাকবে, ওটা পরিবর্তনের কিছু নেই। আর "চন্দ্রবংশীয়"ও যোগ করে দিচ্ছি। — তানভির আলাপ অবদান ১০:৫০, ১ জানুয়ারি ২০১০ (UTC)

সরল বাক্যই ভাল। আমার মনে হয়, সাবলীলতা সংক্রান্ত যে অভিযোগগুলি উঠছে, সেগুলি Compound Sentence বা Complex Sentence ব্যবহারের জন্য। এখানে আর অত বিস্তারিত পরিবর্তন করা যাবে না। তবে ভবিষ্যৎ নিবন্ধগুলিতে খেয়াল রাখব। --অর্ণব দত্ত (talk) ১০:৫৬, ১ জানুয়ারি ২০১০ (UTC)

"চন্দ্রবংশীয়" যোগ করা হয়েছে, আর পরামর্শ অনুযায়ী ভরত নামে একটা লিংক তৈরি হয়েছে। লিঙ্কটি যেহেতু লাল, আশা করছি খুব তাড়াতাড়িই অর্ণবদা নিবন্ধটি উইকিপিডিয়ায় যোগ করবেন। — তানভির আলাপ অবদান ১১:০০, ১ জানুয়ারি ২০১০ (UTC)

"শাসনঋদ্ধ" শব্দটি যথেষ্ট খটমটে, শাসিত বা এরকম সরল কিছু আছে কী? — তানভির আলাপ অবদান ১১:২১, ১ জানুয়ারি ২০১০ (UTC)
শাসিত করা যায়। বাক্যটি ভেঙেও লেখা যায়। প্রয়োজন হলে প্রথম চন্দ্রগুপ্তের রেফারেন্স দেওয়ার প্রয়োজন নেই। সরাসরি সম্রাট অশোক শাসিত মৌর্য সাম্রাজ্য বলা যায়। ভরত রাজা সংক্রান্ত নিবন্ধটি কালকের মধ্যে করে দিতে পারব আশা করছি। --অর্ণব দত্ত (talk) ১১:৩৮, ১ জানুয়ারি ২০১০ (UTC)

ব্যুৎপত্তি[সম্পাদনা]

হিন্দু পৌরাণিক রাজা না বলে শুধু পৌরাণিক রাজা বলাই ভাল। আমি জানতাম না যে ইনি জৈন পুরাণেরও একটি চরিত্র।--অর্ণব দত্ত (talk) ১৩:৫৪, ১ জানুয়ারি ২০১০ (UTC)

করা হয়েছে। — তানভির আলাপ অবদান ১৪:৩৪, ১ জানুয়ারি ২০১০ (UTC)

অবশেষে নির্বাচিত নিবন্ধ — সবাইকে ধন্যবাদ[সম্পাদনা]

অনেক পথ পাড়ি দিয়ে নিবন্ধটি নির্বাচিত হলো। যাঁরা তাঁদের মূল্যবান সময় ও শ্রম দিয়ে নিবন্ধটি সম্পাদনা ও মানোন্নয়নে কাজ করছেন ও পরামর্শ দিয়েছেন, সবাইকে ধন্যবাদ। — তানভির আলাপ অবদান ১৭:৩০, ২ জানুয়ারি ২০১০ (UTC)

Thank a lot to everyone. Apologies for our previous misunderstanding and no hard feelings. Thanks again. --অর্ণব দত্ত (talk) ১৭:৪১, ২ জানুয়ারি ২০১০ (UTC)

ভারতের জাতীয় সঙ্গীত এবং স্তোত্র[সম্পাদনা]

ভারতের জাতীয় স্তোত্র ( National Anthem of India ) জনগণ মন অধিনায়ক ( রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ) এবং জাতীয় সঙ্গীত ( National Song of India ) বন্দেমাতরম ( বঙ্কিমচন্দ্র ) । অনুগ্রহ করে ঠিক করুন । https://www.google.co.in/search?output=search&sclient=psy-ab&q=national+anthem+of+india&btnK=

National anthem i.e. Strotra & song[সম্পাদনা]

Bharat er jatio strotra (national anthem) holo: Jana-gana-mana. Bharat er jatio sangit (national song) holo: Bande mataram. Ei khane ulto thatya deya ache. Thik korun! সুজিৎ রায় (আলাপ) ১৮:৩৩, ২২ নভেম্বর ২০১৭ (ইউটিসি)