আফ্রিকায় জৈনধর্ম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

আফ্রিকায় জৈনধর্ম উক্ত মহাদেশে ইহুদি ধর্ম, খ্রিস্টধর্মইসলামের অনেক পরে এসেছে। সেই কারণে আফ্রিকায় এই ধর্মের ইতিহাসও সংক্ষিপ্ত সময়ের। আফ্রিকায় প্রায় ১ লক্ষ জৈন[১] এবং ১০টি জৈন সংগঠন রয়েছে।[২]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৯শ শতাব্দীর শেষভাগে যখন জৈনরা প্রথম ভারত থেকে কেনিয়া, ও পরে উগান্ডা, সুদানতানজানিয়ায় বসতি স্থাপন করে, তখনই আফ্রিকায় প্রথম জৈনধর্ম প্রবেশ করেছিল।[৩]

১৯৭২ সালে ইদি আমিনের নীতির পরিপ্রেক্ষিতে জৈনরা বিপুল সংখ্যায় উগান্ডা পরিত্যাগ করেছিলেন। তাঁরা অন্যত্র চলে যেতে বাধ্য হন। কেউ কেউ অস্ট্রেলিয়া,[৩] উত্তর আমেরিকা ও ইউরোপে চলে যান।[৪]

কেনিয়ায় জৈনধর্ম[সম্পাদনা]

কেনিয়ায় প্রায় ১০০ বছর ধরে জৈনধর্মের অস্তিত্ব রয়েছে।[৫] একটি ছোটো গোষ্ঠী নিয়মিত জৈন সম্মেলন,[৬] চলচ্চিত্র উৎসব[৭] ও অন্যান্য সাঙ্গাঠনিক অনুষ্ঠান পালন করে।

নাইরোবিমোম্বাসায় জৈন মন্দির আছে।[৮] নাইরোবি ও অন্যান্য বড়ো শহরে জৈনরা সর্বাধিক সফল ও সমৃদ্ধ ব্যবসায়ীদের মধ্যে অন্যতম।[৯]

দক্ষিণ আফ্রিকায় জৈনধর্ম[সম্পাদনা]

ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকায় ব্রিটিশ শাসনকালে জৈনরা দক্ষিণ আফ্রিকায় বসতি স্থাপন করে এবং ব্যবসা ও বাণিজ্যে উন্নতি লাভ করে।[১০] এই দেশে প্রচুর জৈন পর্যটক আসেন এবং প্রচুর জৈন বাস করেন। তাই অনেক দক্ষিণ আফ্রিকান রেস্তোরাঁয় জৈন খাদ্য পরিবেশন করা হয়।[১১]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

টীকা[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

টেমপ্লেট:Africa in topic টেমপ্লেট:Africa religion