ম্যাক্স সোরেনসেন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(Max Sorensen থেকে পুনর্নির্দেশিত)
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ম্যাক্স সোরেনসেন
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামম্যাক্স ক্রিস্টিয়ান সোরেনসেন
জন্ম (1985-11-18) ১৮ নভেম্বর ১৯৮৫ (বয়স ৩৪)
জোহানেসবার্গ, ট্রান্সভাল প্রদেশ, দক্ষিণ আফ্রিকা
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি ফাস্ট-মিডিয়াম
ভূমিকাবোলার
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
ওডিআই অভিষেক
(ক্যাপ ৪০)
৩ সেপ্টেম্বর ২০১৩ বনাম ইংল্যান্ড
শেষ ওডিআই৮ সেপ্টেম্বর ২০১৩ বনাম স্কটল্যান্ড
ওডিআই শার্ট নং২৬
টি২০আই অভিষেক
(ক্যাপ ২৩)
২২ ফেব্রুয়ারি ২০১২ বনাম কেনিয়া
শেষ টি২০আই৩০ নভেম্বর ২০১৩ বনাম আফগানিস্তান
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
২০০৭-বর্তমানদ্য হিলস ক্রিকেট ক্লাব
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা ওডিআই টি২০আই এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ১২
রানের সংখ্যা ৫৫ ১৮ ৩০ ১০০
ব্যাটিং গড় ৫৫.০০ ১০.০০ ৩৩.৩৩
১০০/৫০ ০/০ ০/০ ০/০ ০/০
সর্বোচ্চ রান ৩১ ১২* ১৯* ৩১
বল করেছে ১৪৪ ২০৪ ৮৭২ ৩০৬
উইকেট ১৫ ২৭
বোলিং গড় ১৯.৪০ ১৬.৮৬ ১৬.৪৪ ৩১.০০
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট n/a n/a n/a
সেরা বোলিং ৩/৩৬ ৩/২০ ৫/৩৭ ৩/৩৬
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ১/– ৪/– ৫/– ৩/–
উৎস: CricketArchive, ১ ফেব্রুয়ারি ২০১৪

ম্যাক্স ক্রিস্টিয়ান সোরেনসেন (জন্ম: ১৮ নভেম্বর, ১৯৮৫) ট্রান্সভাল প্রদেশের জোহানেসবার্গে জন্মগ্রহণকারী দক্ষিণ আফ্রিকান বংশোদ্ভূত আইরিশ ক্রিকেটার। আয়ারল্যান্ড ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য তিনি। ম্যাক্স সোরেনসেন ডানহাতি ব্যাটসম্যান হিসেবে দলে ভূমিকা রাখছেন। এছাড়াও ডানহাতে ফাস্ট-মিডিয়াম বোলিংয়ে পারদর্শী তিনি। বর্তমানে তিনি ডাবলিনভিত্তিক দ্য হিলস ক্রিকেট ক্লাবের পক্ষে খেলছেন।

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

ফেব্রুয়ারি, ২০১২ সালে কেনিয়া সফরে আয়ারল্যান্ড দলের সদস্যরূপে দলে অন্তর্ভুক্ত হন। এরপর ২০১২ সালের আইসিসি বিশ্ব টুয়েন্টি২০ বাছাইপর্বে অংশগ্রহণ করেন।[১] কেনিয়ায় অনুষ্ঠিত আন্তঃমহাদেশীয় কাপে কেনিয়ার বিপক্ষে তার প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। স্পিন বোলারদের প্রাধান্যবিস্তারকারী ঐ খেলায় উভয় ইনিংসে যথাক্রমে হিরেন বরাইয়ানেহেমিয়া ওদিয়াম্বো'র শিকারে পরিণত হন তিন। দু'বারই শূন্য রানে প্যাভিলিয়নে রওয়ানা দেন তিনি। চার-দিনের ঐ খেলাটি দু'দিনে শেষ হয় যাতে আয়ারল্যান্ড নাটকীয়ভাবে ১০ রানে জয়লাভ করে।[২]

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

২০১১-১২ মৌসুমে কেনিয়ার বিপক্ষে একদিনের আন্তর্জাতিক সিরিজে তেমন উল্লেখযোগ্য ভূমিকা না রাখা স্বত্ত্বেও টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিকে অভিষিক্ত হন। রাকেপ প্যাটেলঅ্যালেক্স ওবান্দা'র উইকেট লাভ করেন ও ২/১৭ নিয়ে আয়ারল্যান্ডকে জয়ে সহায়তা করেন।[৩] দ্বিতীয় টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিকে রাগিব আগা'র উইকেট পান। এ খেলায়ও তার দল জয়লাভ করে।[৪]

১৮ জানুয়ারি, ২০১৫ তারিখে ক্রিকেট আয়ারল্যান্ড কর্তৃক তাকে আসন্ন বিশ্বকাপে দলের সদস্য করা হয়। আহত টিম মারতাগের স্থলে তিনি ২০১৫ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপে খেলার সুযোগ লাভ করেন।[৫]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "No Niall O'Brien for Kenya tour"। ESPNcricinfo। ২৫ জানুয়ারি ২০১২। সংগ্রহের তারিখ ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১২ 
  2. "Kenya v Ireland, 2011–13 Intercontinental Cup"। ESPNcricinfo। সংগ্রহের তারিখ ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১২ 
  3. "Kenya v Ireland, 1st T20I, 2012"। ESPNcricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১২ 
  4. "Kenya v Ireland, 2nd T20I, 2012"। ESPNcricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১২ 
  5. "Sorensen to replace Murtagh in World Cup Squad"। Cricket Ireland। ১৮ জানুয়ারি ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১৮ জানুয়ারি ২০১৫ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]