রণবীর সিং

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(রনবীর সিং থেকে পুনর্নির্দেশিত)
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
রণবীর সিং
Ranveer Singh promoting Bajirao Mastani.jpg
২০১৫ সালে রণবীর সিং
জন্ম
রণবীর সিং ভবনানী

(1985-07-06) ৬ জুলাই ১৯৮৫ (বয়স ৩৪)
যেখানের শিক্ষার্থীইন্ডিয়ানা ইউনিভার্সিটি ব্লুমিংটন
পেশাঅভিনেতা
কার্যকাল২০১০-বর্তমান

রণবীর সিং ভবনানী (জন্ম: ৬ জুলাই, ১৯৮৫) হলেন একজন ভারতীয় চলচ্চিত্র অভিনেতা। তিনি হিন্দি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন। ইন্ডিয়ানা ইউনিভার্সিটি ব্লুমিংটন থেকে স্নাতক ডিগ্রি অর্জনের পর রণবীর চলচ্চিত্র শিল্পে যোগদান করার জন্য ভারতে ফিরে আসেন। ২০১০ সালে যশ রাজ ফিল্মসের রোম্যান্টিক কমেডি ব্যান্ড বাজা বারাত ছবিতে একটি প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেন। এটিই ছিল তাঁর অভিনীত প্রথম ছবি। ছবিটি সমালোচকদের প্রশংসা অর্জন করেছিল এবং বাণিজ্যিকভাবেও সাফল্য অর্জন করতে সক্ষম হয়েছিল। এই ছবিতে অভিনয় করে রণবীর শ্রেষ্ঠ নবাগত অভিনেতা বিভাগে একটি ফিল্মফেয়ার পুরস্কার অর্জন করেন।

এরপর রণবীর অভিনয় করেন রোম্যান্টিক ড্রামা লুটেরা (২০১৩), সঞ্জয় লীলা ভংসালী পরিচালিত ট্র্যাজিক রোম্যান্স গোলিয়োঁ কী রাসলীলা রাম-লীলা (২০১৩) এবং অ্যাকশন-ড্রামা গুন্ডে (২০১৪) ছবিতে। গোলিয়োঁ কী রাসলীলা রাম-লীলা ছবিটি ছিল তাঁর অভিনীত বাণিজ্যিকভাবে সফল ছবিগুলির মধ্যে সর্বাগ্রগণ্য। ২০১৫ সালে তিনি অভিনয় করেন কমেডি-ড্রামা দিল ধড়কনে দো ছবিতে। এই বছরই বাজীরাও মস্তানী ছবিতে তিনি প্রথম বাজিরাওয়ের চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন। এই ছবিটি ছিল বলিউডের সর্বাধিক বাণিজ্যসফল ছবিগুলির অন্যতম। ছবিটি সমালোচকদের প্রশংসাও অর্জন করে এবং এই ছবিতে অভিনয় করে তিনি শ্রেষ্ঠ অভিনেতা বিভাগে ফিল্মফেয়ার পুরস্কার লাভ করেন।

পারিবারিক প্রেক্ষাপট ও প্রথম জীবন[সম্পাদনা]

১৯৮৫ সালের ৬ জুলাই[১] মুম্বই শহরে এক সিন্ধি পরিবারে রণবীর সিং-এর জন্ম হয়েছিল। তাঁর বাবার নাম জগজিৎ সিং ভবনানী এবং মায়ের নাম অঞ্জু ভবনানী।[২][৩][৪] ভারত বিভাজনের সময় সিন্ধু প্রদেশের করাচি থেকে রণবীরের ঠাকুরদা সুন্দর সিং ভবনানী ও ঠাকুরমা চাঁদ বার্ক মুম্বইতে চলে আসেন।[৫][৬] রণবীর তাঁর বাবা-মায়ের দ্বিতীয় সন্তান। তাঁর দিদির নাম রীতিকা ভবনানী।[১][৭][৮][৯] রণবীর সিং অভিনেতা অনিল কপূর ও তাঁর স্ত্রী সুনীতা কপূরের (প্রাক-বিবাহ নাম সুনীতা ভবনানী) কন্যা অভিনেত্রী সোনম কপূর ও প্রযোজক রিয়া কপূর মামাতো বোন।[১০] নিজের "ভবনানী" পদবিটি বাদ দেওয়া প্রসঙ্গে রণবীর বলেছিলেন যে, তাঁর মনে হয়েছিল নামটি "অত্যধিক দীর্ঘ ও অত্যধিক অক্ষরযুক্ত"। এই কারণে "বিক্রয়যোগ্য পণ্য" হিসেবে তাঁর ব্র্যান্ডের মূল্য কমে যায়।[১১]

ছেলেবেলা থেকেই রণবীর অভিনেতা হতে চাইতেন। স্কুলের একাধিক নাটক ও বিতর্কে অংশও নিতেন।[১২] একবার জন্মদিনের এক পার্টিতে ঠাকুরমার অনুরোধে শিশু রণবীর নেচে দেখিয়েছিলেন।[১৩] রণবীরের স্মৃতিচারণ থেকে জানা যায়, তিনি হঠাৎ এক লাফে লনে নেমে পড়েন এবং ১৯৯১ সালের অ্যাকশন চলচ্চিত্র হাম-এর "চুম্মা চুম্মা" গানটির সঙ্গে নেচে দেখান।[১২] এই ঘটনায় তিনি রোমাঞ্চিত হন এবং অভিনয় ও নৃত্যে আগ্রহী হয়ে ওঠেন।[১২] যদিও মুম্বইতে এইচ. আর. কলেজ অফ কমার্স অ্যান্ড ইকোনমিকসে ভর্তি হওয়ার পর রণবীর উপলব্ধি করেন চলচ্চিত্রে সুযোগ পাওয়া অতটা সহজ নয়। চলচ্চিত্র শিল্পের সঙ্গে যুক্ত পরিবারের ছেলেমেয়েরাই এই ধরনের সুযোগ পান। তাই অভিনয়ের বাসনাকে "দূরাকাঙ্ক্ষা" মনে করে তিনি সৃজনশীল লেখালিখিতে মন দেন।[১২] এরপর তিনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে চলে যান এবং ইন্ডিয়ানা ইউনিভার্সিটি থেকে ব্যাচেলর অফ আর্টস ডিগ্রি অর্জন করেন।[৮]

বিশ্ববিদ্যালয়ে তিনি অভিনয়ের ক্লাস করার সিদ্ধান্ত নেন এবং থিয়েটারকে মাইনর হিসেবে গ্রহণ করেন।[১২] পড়াশোনা শেষ করে ২০০৭ সালে রণবীর ফিরে আসেন মুম্বইতে। এরপর কয়েক বছর ওঅ্যান্ডএমজে. ওয়াল্টার টমসনের মতো কয়েকটি এজেন্সির সঙ্গে কপিরাইটার হিসেবে বিজ্ঞাপনের কাজ করেন।[৮][১৩] এরপর কিছুদিন তিনি সহকারী পরিচালকের কাজও করেন। কিন্তু অভিনয়কেই জীবনের লক্ষ্য হিসেবে বেছে নিয়ে তিনি সেই কাজ ছেড়ে দেন। স্থির করেন পরিচালকদের কাছে নিজের পোর্টফোলিও পাঠাবেন।[১৩] সব ধরনের অডিশনে যান। কিন্তু কোথাও কোনও ভালো সুযোগ পাননি রণবীর। শুধু গৌণ চরিত্রে অভিনয়ের ডাক পেতে শুরু করেন: "সবকিছুই এত হতাশাব্যঞ্জক ছিল যে আমি খুব অবসাদগ্রস্থ হয়ে পড়েছিলাম। এক এক সময় আমি ভাবতাম আমি ঠিক করছি না ভুল করছি।"[ক]

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

চলচ্চিত্র[সম্পাদনা]

সূত্র[সম্পাদনা]

পাদটীকা[সম্পাদনা]

  1. "Everything was so bleak. It was very frustrating. There were times I would think whether I was doing the right thing or not."[১৩]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Ranveer Singh: Celeb Bio"Hindustan Times। HT Media Ltd। ১৮ মার্চ ২০১৩। ২৪ ডিসেম্বর ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৯ ডিসেম্বর ২০১৩ 
  2. "Filmfare Awards: Ranveer's sweet whispers for Deepika"Times of India। ১৮ জানুয়ারি ২০১৬। ২৩ জানুয়ারি ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৪ মে ২০১৬ 
  3. Dandriyal, Sameeksha (৬ জুলাই ২০১৫)। "Quirky, cool, high on life: Why Ranveer Singh is the face of young India"International Business Times। ৯ জুলাই ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১১ অক্টোবর ২০১৫ 
  4. KBR, Upala (৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৪)। "Buddy bonding for Arjun Kapoor and Ranveer Singh"Daily News and Analysis। ১১ ডিসেম্বর ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১১ অক্টোবর ২০১৫ 
  5. "Archived copy"। ১৫ নভেম্বর ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৫-১৩ 
  6. Lodhi, Adnan (৯ ডিসেম্বর ২০১৫)। "I wish to visit Karachi once again: Ranveer Singh"The Express Tribune। ১ এপ্রিল ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৮ মার্চ ২০১৬ 
  7. Singh, Harneet (১২ মার্চ ২০১১)। "Ranveer Singh: The new heart-throb"The Indian ExpressIndian Express Group। সংগ্রহের তারিখ ৪ জুলাই ২০১১ 
  8. Ramsubramaniam, Nikhil (১১ নভেম্বর ২০১০)। "Introducing: Ranveer Singh"Bollywood Hungama। পৃষ্ঠা 1–6। ২৩ অক্টোবর ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০ নভেম্বর ২০১০ 
  9. "It's Ranveer Bhavnani and not Singh"Mid Day। MiD Day Infomedia Ltd। ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১১। ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১১ মার্চ ২০১১ 
  10. "Band Baaja Baraat hero distant cousin of Sonam?"Mid Day। ১৪ ডিসেম্বর ২০১০। ১৭ ডিসেম্বর ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৪ ডিসেম্বর ২০১০ 
  11. Vyavahare, Renuka (২ জানুয়ারি ২০১৪)। "Why did Ranveer Singh drop his sur name?"The Times of India। ১৬ নভেম্বর ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২ জানুয়ারি ২০১৪ 
  12. "Interview: Ranveer Singh"। Glamsham.com. Fifth Quarter Infomedia Pvt. Ltd। ৯ ডিসেম্বর ২০১০। ১২ ডিসেম্বর ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৯ জানুয়ারি ২০১১ 
  13. Varde, Ashwin (২৪ ডিসেম্বর ২০১০)। "Ranveer Singh – A Star Is Born"Starweek Magazine। Mumbai, India: Magna Publication Co. Ltd: 23–27। ২৯ ডিসেম্বর ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩১ ডিসেম্বর ২০১০ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]