মনোয়ারা ইসলাম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
মনোয়ারা ইসলাম
জন্ম১৯৩৬
খুলনা জেলা
জাতীয়তাবাংলাদেশী
জাতিসত্তাবাঙালি
নাগরিকত্ব বাংলাদেশ
পরিচিতির কারণঅধ্যাপনা
পুরস্কারএকুশে পদক[১] (২০১৯)

অধ্যাপক মনোয়ারা ইসলাম (জন্ম: ১৯৩৬)[২] হলেন একজন বাংলাদেশী অধ্যাপক ও সাহিত্যিক। তিনি বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অধ্যাপনা করার পাশাপাশি ভাষা আন্দোলনে সরাসরি যুক্ত ছিলেন।[২] ভাষা আন্দোলনে অনন্য অবদানের জন্য ২০১৯ সালে তিনি একুশে পদক লাভ করেন।[১]

জন্ম ও পারিবারিক পরিচিতি[সম্পাদনা]

মনোয়ারা ১৯৩৬ সালে তদাননীত ব্রিটিশ ভারতের বেঙ্গল প্রেসিডেন্সির (বর্তমানঃ বাংলাদেশ) খুলনার মির্জা পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন।[২] তার পিতা ছিলেন তৎকালীন ব্রিটিশ সরকারের ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট। তার দুই পুত্র ও এক কন্যা সন্তান রয়েছে।[২]

শিক্ষাজীবন[সম্পাদনা]

তিনি ছিলেন ইডেন কলেজের ছাত্রী। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলায় স্নাতকোত্তর ডিগ্রি ছাড়াও তিনি বি.এড ও এম.এড ডিগ্রি অর্জন করেছেন।[২]

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

মনোয়ারার কর্মজীবন শুরু হয় ১৯৫৭ সালে মুন্সীগঞ্জ উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হিসেবে এবং পরবর্তীতে যোগ দেন আজিমপুর উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ে।[২] এরপর তিনি ইডেন কলেজ আর হোম ইকোনমিক্স কলেজেও দীর্ঘকাল অধ্যাপনা করেন।[৩]

গবেষণা ও প্রকাশনা[সম্পাদনা]

২০১৯ সালের ৪ জানুয়ারি অধ্যাপক মনোয়ারা ইসলামের লেখা কবিতা, প্রবন্ধ ও ভ্রমণকাহিনীর সংকলন ‘অপেক্ষমাণ আমি সময়ের দ্বারে’ প্রকাশিত হয় কথাপ্রকাশ প্রকাশনী থেকে।[২][৩]

পুরস্কার ও সম্মননা[সম্পাদনা]

তিনি ভাষা আন্দোলনে[৪] অনন্য অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ ২০১৯ সালে একুশে পদক লাভ করেন।[৫]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "একুশে পদক ২০১৯ প্রদান (সংবাদ বিজ্ঞপ্তি)"সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার। ৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  2. "মনোয়ারা ইসলামের সংকলন 'অপেক্ষমাণ আমি সময়ের দ্বারে'"সারাবাংলা.নেট অনলাইন। ৪ জানুয়ারি ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  3. "'অপেক্ষমাণ আমি সময়ের দ্বারে' গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন"দৈনিক কালের কন্ঠ অনলাইন। ৫ জানুয়ারি ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ 
  4. "একুশে পদক পাচ্ছেন একাডেমির মহাপরিচালক ঋত্বিক নাট্যপ্রাণ লিয়াকত আলী লাকী"বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি, সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার। ৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ 
  5. "২১ গুণীজনকে প্রধানমন্ত্রীর একুশে পদক প্রদান"দৈনিক প্রথম আলো অনলাইন। ২০ ফেব্রুয়ারী ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]