ভূবিজ্ঞান

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
A volcanic eruption is the release of stored energy from below the surface of Earth, originating from radioactive decay and gravitational sorting in the Earth's core and mantle, and residual energy gained during the Earth's formation[১]

ভূবিজ্ঞান হল পৃথিবী ও এর ভূতাত্ত্বিক পদ্ধতিসমুহের বৈজ্ঞানিক আলোচনা।[২] ভূবিজ্ঞানকে গ্রহ বিজ্ঞানের শাখা বিবেচনা করা হয় কিন্তু এর ইতিহাস আরো প্রাচীন। ভূবিজ্ঞানের অন্তর্গত বিষয়সমূহ হল ভূগোল, স্থলমণ্ডল, ও ভূ-পৃষ্ঠে অবস্থিত বৃহৎ নির্মাণাদি এবং বায়ুমণ্ডল, জলমণ্ডল, ও জীবমণ্ডল। সাধারণত ভূবিজ্ঞানীগণ ভূগোল, কালনিরূপণবিদ্যা, পদার্থ বিজ্ঞান, রসায়ন, জীববিজ্ঞানগণিতের উপাদান ব্যবহার করে পৃথিবী কিভাবে বিবর্তিত হয়েছে এবং হচ্ছে তা নিরুপন করেন।

গবেষণার ক্ষেত্র[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Encyclopedia of Volcanoes, Academic Press, London, 2000
  2. "earth science"Memidex/WordNet Dictionary। সংগৃহীত ২০১২-০৬-১১ 
  3. Pidwirny, M. (2006)। "Elements of Geography" 2nd Edition. physicalgeography.net.
  4. "Duane Gardiner, Lecture: Why Study Soils? excerpted from Miller, R.W. & D.T. Gardiner, 1998. Soils in our Environment, 8th Edition". nau.edu.