ভারতের জাতীয় পুরস্কার ও সম্মাননার তালিকা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

ভারতে প্রদান করা বিভিন্ন জাতীয় পুরস্কার ও সম্মাননার একটি তালিকা নিচে প্রদান করা হল।

অসামরিক পুরস্কার[সম্পাদনা]

ভারতরত্ন[সম্পাদনা]

ভারতরত্ন ভারতে প্রদান করা সর্বোচ্চ অসামরিক সম্মান। সাহিত্য, কলা, বিজ্ঞান, সমাজসেবা ইত্যাদি ক্ষেত্রত বিশিষ্ট সেবাদানকারী ব্যক্তিকে এই সম্মাননা প্রদান করা হয়। কেবল ভারতের ব্যক্তিকে নয়, বিদেশী ব্যক্তি যেমন: খান আব্দুল গফর খান (পাকিস্তান), নেলসন ম্যান্ডেলা (দক্ষিণ আফ্রিকা) ইত্যাদিকে এই সম্মানে বিভূষিত করা হয়েছে। ১৯৫৪ সালে প্রথমবার ভারত রত্ন প্রদান করা হয়। সেই বছর চক্রবতী রাজা গোপালাচারী, সর্বপল্লী রাধাকৃষ্ণণচন্দ্রশেখর ভেঙ্কট রমনকে এই সম্মাননা দেওয়া হয়েছিল।[১]

পদ্ম সম্মাননা[সম্পাদনা]

সাহিত্য, সংস্কৃতি, বিজ্ঞান, ক্রীড়া, মানবসেবা ইত্যাদি দিকে খ্যাতি অর্জন করা ও বিশিষ্ট সেবা প্রদানকারী ব্যক্তিকে ভারত সরকার পদ্ম সম্মাননা প্রদান করে। তিনধরনের পদ্ম সম্মাননা প্রদান করা হয়। সেগুলি হল --

  1. পদ্ম বিভূষণ- পদ্ম সম্মাননা সমূহের মধ্যে এই সম্মাননা শীর্ষ স্থানীয়। এই সম্মাননা প্রাপকদের যে স্মারকটি দেয়া হয়, সেইটি ঘোরানো একটা ট্রফি। এর মধ্যভাগে সোনার বড় পাত বসানো, চারটি পাপড়ি সাথে একটি পদ্ম ফুলের প্রতীক খোদিত করা হয়। অন্য দিকে জাতীয় প্রতীকটি অঙ্কিত করা থাকে।
  2. পদ্মভূষণ-পদ্ম সম্মাননা সমূহের মধ্যে এই সম্মাননা দ্বিতীয় স্থানে। এর স্মারকটিও পদ্ম বিভূষণের মতোই, কেবল এর পদ্ম ফুলটির প্রতীকটিত তিনটি পাপড়ি আছে।
  3. পদ্মশ্রী- পদ্ম সম্মাননাসমূহের মধ্যে এই সম্মাননা তৃতীয় স্থানে আছে। এর স্মারকটিতে পদ্ম ফুলএর যে প্রতীকটি আছে, তার পাপড়ি পাঁচটা।

এই তিন প্রকারের স্মারক গোলাপী রিবনর সাথে প্রাপ্যজনকে দেয়া হয়। ১৯৫৪ সাল থেকে পদ্ম সম্মাননা প্রদান করে আসা হচ্ছে। অবশ্য কেন্দ্র সরকারের পরিবর্তনের জন্য ১৯৭৭ সালের আগস্ট মাস থেকে ১৯৮০ সালের জানুয়ারী পর্যন্ত ও ন্যায়ালয়র একটি নির্দেশের জন্য ১৯৯৩ সাল থেকে ১৯৯৭ সাল পর্যন্ত এই সম্মাননা প্রদান করা হয়নি৷ এক বিশেষ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ভারত-এর রাষ্ট্রপতি এই সম্মাননা সমূহ প্রদান করেন ।[১]


সামরিক পুরস্কার[সম্পাদনা]

যুদ্ধকালীন বীরত্বের পুরস্কার[সম্পাদনা]

পরমবীর চক্র ভারতের সর্বোচ্চ সামরিক সম্মাননা পুরস্কার। যুদ্ধক্ষেত্রে শক্রুর সম্মুখীন হয়ে অতুলনীয় সাহস ও আত্মত্যাগ প্রদর্শনের স্বীকৃতস্বরূপ এই পদক দেওয়া হয়। আজ পর্যন্ত এই বীরত্বের পুরস্কার ২১ জনকে প্রদান করা হয়েছে। পদকপ্রাপকের মধ্যে ১৪ জনকে মরণোত্তর পদক প্রদান করা হয়েছে। পরমবীর চক্রের প্রথম প্রাপক ছিলেন ভারতীয় সেনাবাহিনীর কুমায়ুন রেজিমেন্টের বীর সৈনিক মেজর সোমনাথ শর্মা। পরমবীর চক্র মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মেডেল অফ অনার এবং যুক্তরাজ্যের ভিক্টোরিয়া ক্রসের সমতুল্য।

শান্তিকালীন পুরষ্কার[সম্পাদনা]

অশোক চক্র হল বীরত্বের জন্য দেওয়া সর্ব্বোচ্চ শান্তিকালীন সামরিক পদক। এই বীরত্বের পুরস্কার শান্তির সময়ে পরমবীর চক্রের সমতুল্য। অতি বিক্রম, সাহসিকতায় নিজের জীবন বলিদান দিয়ে হলেও শত্রুর বিরুদ্ধে লড়াই করা ব্যক্তিকে এই সম্মাননা প্রদান করা হয়। অশোক চক্রের প্রথম প্রাপক ছিলেন ভারতীয় সেনাবাহিনীর নায়েক নরবাহাদুর থাপা, হাবিলদার বচিত্তর সিং এবং ভারতীয় বিমানবাহিনীর ফ্লাইট লেফটেন্যান্ট সুহাস বিশ্বাস। ভারতের অন্যান্য সম্মাননা ছাড়াও সৈন্য বাহিনীতে বিশিষ্ট সেবা ও নাগরিকদের জীবন রক্ষা করার জন্য পরম বিশিষ্ট সেবা পদক, অতি বিশিষ্ট সেবা পদক, বিশিষ্ট সেবা পদক, জীবন রক্ষা পদক, সর্বোত্তম জীবন রক্ষা পদক, উত্তম জীবন রক্ষা পদক ইত্যাদি পুরস্কার দেওয়া হয়।।[১]

যুদ্ধকালীন বিশিষ্ট সেবা[সম্পাদনা]

শান্তিকালীন বিশিষ্ট সেবা[সম্পাদনা]

অন্যান্য জাতীয় পুরস্কার[সম্পাদনা]

  • ভারতীয় সরকারি কর্মচারীদের দ্বারা করা অসাধারণ ও উদ্ভাবনী কাজকে স্বীকৃতি, স্বীকৃতি এবং পুরস্কৃত করার জন্য জনপ্রশাসনে শ্রেষ্ঠত্বের জন্য প্রধানমন্ত্রীর পুরষ্কার প্রদান করা হয়।
  • সর্দার প্যাটেল জাতীয় ঐক্য পুরষ্কার দেওয়া হয় সেই ব্যক্তিদের যারা জাতীয় ঐক্য ও অখণ্ডতা প্রচারে অবদান রাখেন।[২]
  • স্বচ্ছ ভারত মিশন এবং নীতি আয়োগ দ্বারা চ্যাম্পিয়ন অফ চেঞ্জ পুরষ্কার প্রদান করা হয়।

মহিলা[সম্পাদনা]

শিশু[সম্পাদনা]

ঔষধ[সম্পাদনা]

সাহিত্য পুরস্কার[সম্পাদনা]

ভারতীয় জ্ঞানপীঠ পুরস্কার ভারতের সর্ব্বোচ্চ সাহিত্য-সম্মাননা। ইংরাজীকে ধরে ভারতের সংবিধানের অষ্টম অনুসূচীতে থাকা আধুনিক ভাষাসমূহের যেকোনো ভাষার সাহিত্য-ক্ষেত্রে বিশিষ্ট সৃষ্টিশীল কর্মের জন্য প্রতি বছর ভারতীয় জ্ঞানপীঠ পুরস্কার প্রদান করা হয়। ১৯৬৫ সাল থেকে এই পুরস্কার প্রদান চালু হয়েছে। এই পুরস্কারে আছে নগদ পাঁচ লাখ টাকা, একটি মানপত্র ও সরস্বতীর একটি ব্রোঞ্জের মূর্তি। শুরুতে, কোনো একটি নিদিষ্ট গ্রন্থর জন্যি লেখককে জ্ঞানপীঠ পুরস্কার প্রদান করা হত যদিও ১৯৮২ সাল থেকে লেখকের সামগ্রিক সাহিত্যকীর্তির মূল্যায়ন করে এই পুরস্কার প্রদানের নিয়ম প্রচলিত হয়।।[১]

ভারতের আঞ্চলিক ভাষাসমূহের উত্কর্ষ ও বিকাশের জন্য সাহিত্য আকাদেমি প্রতিবছর এই পুরস্কার প্রদান করে আসছে। আকাদেমি তারলোকের দ্বারা স্বীকৃত ২২ টা ভাষার একাডেমী পুরস্কার দেয়। ১৯৯৫ সাল থেকে এই পুরস্কার প্রদান করে আসা হচ্ছে। । এই পুরস্কারের অর্থমূল্য ৪০ হাজার টাকা ও একটি তাম্রপত্র। মূল ভাষার উপরে অনূদিত গ্রন্থের জন্যও সাহিত্য আকাদেমি পুরস্কার প্রদান করা হয়।[১]


ক্রীড়া এবং অ্যাডভেঞ্চার পুরষ্কার[সম্পাদনা]

এই পুরস্কার ১৯৯১-৯২ সাল থেকে প্রদান করে আসা হচ্ছে। ক্রীড়া ক্ষেত্রে বিশিষ্ট অবদান রাখা ব্যক্তিকে এই পুরস্কার প্রদান করা হয়। এই পুরস্কারে আছে নগদ তিন লাখ টাকা, একটি মেডেল ও একটি প্রশস্তি পত্র। এটি বর্তমানে মেজর ধ্যানচাঁদ পুরস্কার নামে পরিবর্তন করা হয়েছে ।

চলচ্চিত্র ও কলা[সম্পাদনা]

সর্বভারতীয় ও আঞ্চলিক ভাষার শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্রের বিভিন্ন দিকে প্রতি বছর বিভিন্ন পুরস্কার প্রদান করা হয়। সর্বভারতীয় ভিত্তিতে নির্বাচিত শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্রের জন্য স্বর্ণকমল ও অন্য আঞ্চলিক ভাষার চলচ্চিত্রের জন্য রজতকমল পুরস্কার প্রদান করা হয়।


ভারতীয় চলচ্চিত্রের জনকরূপে অভিহিত দাদাসাহেব ফালকের স্মৃতি রক্ষার্থে প্রতিবছর এই পুরস্কার প্রদান করা হয়। ভারতীয় চলচ্চিত্রর উত্কর্ষ ও বিকাশের জন্য উল্লেখনীয় কার্যাবলীর স্বীকৃতিস্বরূপ এই পুরস্কার দেওয়া হয়। ভারতীয় চলচ্চিত্রের সর্ব্বোচ্চ পুরস্কাররূপে স্বীকৃত এই পুরস্কারের অর্থমূল্য দুই লাখ টাকা। এর সাথে বিজয়ীকে একটি প্রশস্তি পত্র ও একটি আলোয়ান প্রদান করা হয়। ১৯৬৯ সাল থেকে এই পুরস্কার প্রদান করে আসা হচ্ছে।[১]

বিশেষ পুরষ্কার[সম্পাদনা]

পুলিশ পুরষ্কার[সম্পাদনা]

  • সাহসিকতার জন্য রাষ্ট্রপতির পুলিশ পদক
  • সাহসিকতার জন্য রাষ্ট্রপতির ফায়ার সার্ভিস পদক
  • সাহসিকতার জন্য রাষ্ট্রপতির সংশোধনমূলক পরিষেবা পদক
  • সাহসিকতার জন্য রাষ্ট্রপতির হোম গার্ড এবং সিভিল ডিফেন্স মেডেল
  • সাহসিকতার জন্য পুলিশ মেডেল
  • সাহসিকতার জন্য ফায়ার সার্ভিস মেডেল
  • সাহসিকতার জন্য সংশোধনমূলক পরিষেবা পদক
  • সাহসিকতার জন্য হোম গার্ড এবং সিভিল ডিফেন্স মেডেল
  • বিশিষ্ট সেবার জন্য রাষ্ট্রপতির পুলিশ পদক
  • বিশিষ্ট সেবার জন্য রাষ্ট্রপতির ফায়ার সার্ভিস মেডেল
  • বিশিষ্ট পরিষেবার জন্য রাষ্ট্রপতির সংশোধনমূলক পরিষেবা পদক
  • রাষ্ট্রপতির হোম গার্ড এবং ডিস্টিংগুইশড সার্ভিসের জন্য সিভিল ডিফেন্স
  • মেধাবী সেবার জন্য পুলিশ মেডেল
  • ফায়ার সার্ভিস মেডেল ফর মেরিটোরিয়াস সার্ভিস
  • মেধাবী সেবার জন্য সংশোধন সেবা পদক
  • হোম গার্ড এবং সিভিল ডিফেন্স মেডেল ফর মেরিটোরিয়াস সার্ভিস
  • রাষ্ট্রপতির তট্রক্ষক পদক

সাহসিকতা[সম্পাদনা]

মহাত্মা গান্ধী শান্তি পুরস্কার[সম্পাদনা]

মহাত্মা গান্ধীর অহিংস নীতিতে বিশ্বাস রেখে বিশ্বশান্তি তথা সামাজিক, অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক সংস্কার সাধনের উদ্দেশ্যে প্রয়াস করা ব্যক্তি বা সংগঠনকে এই পুরস্কার প্রদান করা হয়। মহাত্মা গান্ধীর ১২৫ বছরের জন্ম দিবস উপলক্ষে ১৯৯৫ সাল থেকে প্রতিবছর এই পুরস্কার প্রদান করে আসা হচ্ছে। এই পুরস্কারের অর্থমূল্য এক কোটি টকা

রাজীব গান্ধী জাতীয় সদভাবনা পুরস্কার[সম্পাদনা]

শান্তি, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি ও সন্ত্রাসবাদ বিরোধিতার জন্য কাজ করা ব্যক্তি বা সংন্থাকে এই পুরস্কার প্রদান করা হয়। ১৯৯২ সাল থেকে এই পুরস্কার প্রদান করে আসা হচ্ছে। ভারতের জাতীয় কংগ্রেসর দ্বারা প্রদত্ত এই পুরস্কারে আছে একটি প্রশস্তি পত্র ও ২.৫ লাখ টাকা।[১]

ভারতেন্দু পুরস্কার[সম্পাদনা]

১৯৮৩ সাল থেকে ভারত সরকার সাংবাদিকতা, প্রকাশন, প্রচার ইত্যাদি ক্ষেত্রে দেওয়া বিশিষ্ট সেবার জন্য ভারতেন্দু পুরস্কার শুরু করেছে। প্রথম অবস্থায় এই পুরস্কার হিন্দী ভাষার লেখনির ক্ষেত্রেই দেওয়া হয়েছিল।


কমল কুমারী জাতীয় পুরস্কার[সম্পাদনা]

১৯৯০ সালে স্থাপিত কমল কুমারী ফাউণ্ডেসন সংস্কৃতি (সাহিত্য, শিক্ষা, চারুকলা ও পরিবেশনা কলা) ও বিজ্ঞান-প্রযুক্তির দিকে বিশিষ্ট অবদান রাখা ব্যক্তিকে এই পুরস্কার প্রদান করে। এই পুরস্কারে আছে এক লাখ টাকা, একটা ট্রফি ও একটি প্রশস্তি পত্র।


চিত্র পুরস্কার ও সম্মাননা শুরু (বছর) বিভাগ বর্ণনা
পরম বীর চক্র পদক.gif পরমবীর চক্র ১৯৫০ সামরিক
Mahavir-chakra.png মহাবীর চক্র ১৯৫০ সামরিক
Vir-chakra.png বীর চক্র ১৯৫০ সামরিক
Kirti-chakra-medal.png কীর্তি চক্র ১৯৫০ সামরিক
Ashoka-chakra.png অশোক চক্র ১৯৫২ সামরিক
Shaurya Chakra India.jpg শৌর্য চক্র ১৯৫২ সামরিক
[[File:|100px]] সংগীত নাটক একাডেমী পুরস্কার ১৯৫২ সাহিত্য
Bharat Ratna.jpg ভারত রত্ন ১৯৫৪ অসামরিক
Medal, order (AM 2014.7.12-17).jpg পদ্ম বিভূষণ ১৯৫৪ অসামরিক
Padma Bhushan India IIe Klasse.jpg পদ্মভূষণ ১৯৫৪ অসামরিক
Padma Shri India IIIe Klasse.jpg পদ্মশ্রী ১৯৫৪ অসামরিক
Sahitya Akademi Award - Surjit Patar.JPG সাহিত্য আকাদেমি পুরস্কার ১৯৫৪ সাহিত্য
[[File:|100px]] জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ১৯৫৮ চলচ্চিত্র
শান্তিস্বরূপ ভাটনাগর পুরস্কার ১৯৫৮ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি
জ্ঞানপীঠ পুরস্কার ১৯৬১ সাহিত্য
অর্জুন পুরস্কারের লোগো.jpg অর্জুন পুরস্কার ১৯৬১ ক্রীড়া
সর্বোত্তম জীবন রক্ষা পদক ১৯৬১ অসামরিক
উত্তম জীবন রক্ষা পদক ১৯৬১ অসামরিক
জীবন রক্ষা পদক ১৯৬১ অসামরিক
দাদাসাহেব ফালকে পুরস্কার ১৯৬৯ চলচ্চিত্র
দ্রোণাচার্য পুরস্কার ১৯৮৫ ক্রীড়া
মেজর ধ্যান চাঁদ খেলরত্ন পুরস্কার (২০২২)
(পূর্বে রাজীব গান্ধী খেল রত্ন পুরস্কার)
১৯৯১ ক্রীড়া
সরস্বতী সম্মাননা ১৯৯১ সাহিত্য
ব্যাস সম্মাননা ১৯৯১ সাহিত্য
রাজীব গান্ধী জাতীয় সদ্ভাবনা পুরস্কার ১৯৯২
আন্তর্জাতিক গান্ধী শান্তি পুরস্কার ১৯৯৫ শান্তি
ললিত কলা একাডেমী পুরস্কার
শান্তিস্বরূপ ভাটনাগর পুরস্কার
ভারততেন্দু পুরস্কার
ইন্দিরা গান্ধী শান্তি পুরস্কার
ইন্দিরা গান্ধী জাতীয় সংহতি পুরস্কার
যনুমালাল বাজাজ পুরস্কার
গোবিন্দ বল্লভ পন্ত পুরস্কার
নেহেরু রচনা প্রতিযোগিতা পুরস্কার
মূর্তি দেবী পুরস্কার
হাফিজ আলি খান পুরস্কার
বিরসা মুণ্ডা পুরস্কার
দয়াবতী মোদী পুরস্কার
গোয়েংকা পুরস্কার
গুজরমল মোদী পুরস্কার
শিক্ষকদের জাতীয় পুরস্কার
কবির সম্মাননা
লতা মংগেশকার পুরস্কার
শিবপ্রসাদ বরুবা জাতীয় পুরস্কার
জবাহরলাল নেহেরু পুরস্কার
জি ডি বিরলা পুরস্কার


অন্যান্য[সম্পাদনা]


আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. শান্তনু কৌশিক বরুয়া। জানানে (নতুন সংস্করণ)। ইলা শর্মা, জ্যোতি প্রকাশণ। পৃষ্ঠা ১৭৮, ১৭৯, ১৮০,১৮১। 
  2. "সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি"। ১৯ জুন ২০২২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২২ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

টেমপ্লেট:ভারতের জাতীয় পুরস্কার ও সম্মান