বাদশাহ ফয়সাল মসজিদ, শারজাহ

স্থানাঙ্ক: ২৫°২০′৫৮″ উত্তর ৫৫°২৩′১৫″ পূর্ব / ২৫.৩৪৯৪৪° উত্তর ৫৫.৩৮৭৫০° পূর্ব / 25.34944; 55.38750
উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
বাদশাহ ফয়সাল মসজিদ, শারজাহ
مَسْجِد ٱلْمَلِك فَيْصَل
ধর্ম
অন্তর্ভুক্তিইসলাম
মালিকানাসরকার
অবস্থান
অবস্থানসংযুক্ত আরব আমিরাত শারজাহ, সংযুক্ত আরব আমিরাত
বাদশাহ ফয়সাল মসজিদ, শারজাহ সংযুক্ত আরব আমিরাত-এ অবস্থিত
বাদশাহ ফয়সাল মসজিদ, শারজাহ
সংযুক্ত আরব আমিরাতে অবস্থান
স্থানাঙ্ক২৫°২০′৫৮″ উত্তর ৫৫°২৩′১৫″ পূর্ব / ২৫.৩৪৯৪৪° উত্তর ৫৫.৩৮৭৫০° পূর্ব / 25.34944; 55.38750
স্থাপত্য
স্থপতিআবদুল রহমান আবদুল-হাফিদ আল-জুনায়েদী[ক]
ধরনমসজিদ
ভূমি খনন১৯৮৪[২]
সম্পূর্ণ হয়শুক্রবার, ২৩শে জানুয়ারী,[১][৩] ১৯৮৭[৪]
নির্দিষ্টকরণ
ধারণক্ষমতা১৬,৬৭০[১]
গম্বুজসমূহ
মিনার
মিনারের উচ্চতা৭০ মি (২৩০ ফু)[১]
স্থানের এলাকা১০,০০০–১২,০০০ মি (১,১০,০০০–১,৩০,০০০ ফু)[৩]

বাদশাহ ফয়সাল মসজিদ (আরবি: مَسْجِد ٱلْمَلِك فَيْصَل‎‎) সংযুক্ত আরব আমিরাতের শারজাহে অবস্থিত একটি মসজিদ।[৪][৫][৬]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৯৮৪ সালে মসজিদটির নির্মাণ কাজ শুরু হয়, এবং ১৯৮৭[৪] সালের ২৩শে জানুয়ারী[১][৩] নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হয় এবং জনসাধারণের জন্য উন্মুক্ত করা হয়। সৌদি আরবের বাদশাহ ফয়সালের নামে নামকরণ করা হয়েছে, এটি শারজাহ আমিরাতের[২] ও দেশের বৃহত্তম মসজিদ ছিল। বর্তমানে তায়ে এলাকার[৭] শারজাহ মসজিদ আমিরাতের বৃহত্তম মসজিদ[৮][৯] এবং শেখ জায়েদ মসজিদটি দেশের বৃহত্তম মসজিদ।

ভূগোল[সম্পাদনা]

মসজিদটি শাহজাহের প্রাণকেন্দ্র বাদশাহ ফয়সাল সড়ক এবং আল অরবাবা সড়কে অবস্থিত। যা শারজার দুবাই ইসলামিক ব্যাংকের সদর দফতর, আল ইত্তেহাদ (ইউনিয়ন) উদ্যান, কেন্দ্রীয় বাস স্টেশন এবং আল যুবাইল সওকের নিকটে অবস্থিত।[১][২][৩]

গঠন[সম্পাদনা]

মসজিদে ৭০ মিটার (২৩০ ফুট)[১] উচ্চতা বিশিষ্ট দুটি মিনার রয়েছে। এর আয়তন ১০,০০০-১২,০০০ বর্গমিটার (১১০,০০০ - ১৩০,০০০ বর্গফুট)[৩]। এর ধারণক্ষমতা ১৬,৬৭০ জন, যার মধ্যে ১২,০০০ জন একসাথে নামাজ পড়তে পারে। মসজিদে পুরুষ ও মহিলাদের নামাজ পড়ার ব্যবস্থা রয়েছে। মসজিদের তিনতলাতে একটি সাধারণ গ্রন্থাগারসহ শারজাহের ইসলামিক বিষয়ক ও আওকাফ বিভাগের অফিস রয়েছে। গ্রন্থাগারটিতে ইসলামী চিন্তা ও ইতিহাস, ইসলামী শরিয়া সম্পর্কিত বিষয়ক ছাড়াও সংস্কৃতি, সাহিত্যিক এবং বৈজ্ঞানিক বিষয়ক প্রায় ৭,০০০ বই রয়েছে। প্রথম তলা এবং দোতলায় পুরুষদের নামাজের জন্য এবং ভবনের ভূগর্ভস্থ অংশে মহিলাদের নামাজ পড়ার ব্যবস্থা রয়েছে। মহিলাদের প্রার্থনা হলের নিকটে শারজাহ দাতব্য সংস্থার তত্ত্বাবধানে একটি বিশাল জায়গা রয়েছে যেখানে লোকেরা দরিদ্রদের জন্য পোশাক দান করতে পারে। [২] ভবনে শারজাহ দাতব্য সংস্থার কার্যালয় রয়েছে।

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

মন্তব্য[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Al Qassemi, Sultan Sooud (২০১৭-১১-১৬)। "Demystifying Sharjah's iconic King Faisal Mosque"Gulf News। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৮-১৫ 
  2. "A look at the magnificent mosques of the UAE"Khaleej Times। ২০১৫-০৭-০১। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৮-১৫ 
  3. Kakande, Yasin (২০১১-০৮-১১)। "Sharjah's mosque where the faithful can listen and learn"Sharjah: The National। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৮-১৫ 
  4. Rizvi, Kishwar (২০১৫-১০-০৮)। "4: Grand Mosques in the United Arab Emirates"। The Transnational Mosque: Architecture and Historical Memory in the Contemporary Middle EastUNC Press Books। পৃষ্ঠা 187–189। আইএসবিএন 978-1-4696-2117-3 
  5. Bloom, Jonathan M.; Blair, Sheila S., সম্পাদকগণ (২০০৯-০৫-১৪)। Grove Encyclopedia of Islamic Art & Architecture: Three-Volume Set। I, II & III। New York: OUP USA। পৃষ্ঠা 374। আইএসবিএন 978-0-1953-0991-1 
  6. The Rough Guide to DubaiRough Guides UK। ২০১৬-১১-০১। আইএসবিএন 0-2412-9864-4 
  7. "New Sharjah mosque can accommodate 25,000 worshippers"Gulf News। ২০১৯-০৫-১১। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৫-১২ 
  8. سلطان القاسمي يفتتح مسجد الشارقة (আরবি ভাষায়)। Sharjah: Al-Bayan। ২০১৯-০৫-১১। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৫-৩০ 
  9. سلطان القاسمي يفتتح مسجد الشارقة بتكلفة 300 مليون درهم (আরবি ভাষায়)। Sharjah: Al-Ittihad। ২০১৯-০৫-১১। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৫-৩০ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]