বাংলাদেশ স্থপতি ইনস্টিটিউট

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
বাংলাদেশ স্থপতি ইনস্টিটিউট
Institute of Architects Bangladesh Logo.jpg
বাংলাদেশ স্থপতি ইন্‌স্‌টিটিউট
সংক্ষেপেআইএবি
গঠিত১৯৭২
ধরণপেশাদারী প্রতিষ্ঠান
সদর দপ্তরধানমন্ডি, ঢাকা
স্থানাঙ্ক২৩°৪৬′৪১″ উত্তর ৯০°২২′৩৩″ পূর্ব / ২৩.৭৭৭৯৫৫° উত্তর ৯০.৩৭৫৮৫০° পূর্ব / 23.777955; 90.375850স্থানাঙ্ক: ২৩°৪৬′৪১″ উত্তর ৯০°২২′৩৩″ পূর্ব / ২৩.৭৭৭৯৫৫° উত্তর ৯০.৩৭৫৮৫০° পূর্ব / 23.777955; 90.375850
যে অঞ্চলে কাজ করে
বাংলাদেশ
সদস্যপদ
১,৭০০+
ওয়েবসাইটiab.com.bd

বাংলাদেশ স্থপতি ইনস্টিটিউট (ইংরেজি: Institute of Architects Bangladesh), বাংলাদেশে কর্মরত স্থপতিদের পেশাদারী সংগঠন। স্থপতি মাজহারুল ইসলাম এর প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ছিলেন। স্থাপত্য বিষয়ে স্নাতক ডিগ্রীধারী যে কোন ব্যক্তি এই সংগঠেন সদস্য পদের জন্য আবেদন করতে পারেন। সংগঠনটি বাংলাদেশে স্থাপত্য পেশার মান উন্নত করতে বাংলাদেশ সরকারের বিভিন্ন সংস্থা ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সাথে কাজ করে থাকে।

রাজউক এবং সিডিএ এর অন্তর্ভুক্ত এলাকাতে কোন নতুন বিল্ডং বা ইমারত তৈরি করতে হলে তা অবশ্যই এই সংগঠনের সদস্য স্থপতিদের দ্বারা নকশা করা হতে হয়।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

ঢাকার শেরেবাংলা নগরে বাংলাদেশ স্থপতি ইনস্টিটিউটের প্রধান কার্যালয়

বাংলাদেশ স্থপতি ইনস্টিটিউট ১৯৭২ সালের ২৫শে ফেব্রুয়ারি ঢাকায় প্রতিষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশে স্বাধীনতা পূর্ব সময়কালে স্থাপত্যচর্চা খুবই সীমিত ছিলো। ৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে বিভিন্ন ভবন ও স্থাপনার ক্ষতি সাধন হয় পাশাপাশি যুদ্ধোত্তর নতুন রাস্ট্রের বহুমুখী উন্নয়নে স্থাপত্য পেশার গুরুত্ব বাড়তে থাকে। তাই বিজয় অর্জনের ৩ মাসের মধ্যে যুদ্ধ বিদ্ধস্ত দেশের অবকাঠামো উন্নয়নে সত্রিয় ভূমিকা পালন এবং নতুন প্রজন্মের জন্য স্থাপত্য চর্চার সহায়ক পরিবেশ তৈরীর উদ্দেশ্যে সমসাময়িক জৈষ্ঠ স্থপতিদের উদ্যোগে স্থপতি ইন্সটিটিউট প্রতিষ্ঠা করা হয়। স্থপতি মাজহারুল ইসলাম এই সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি হিসেবে দ্বায়িত্ব পালন করেন।

সংস্থা[সম্পাদনা]

বাংলাদেশের বিভিন্ন সরকারীওে বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাশ করা স্নাতক স্থপতিরা এই সংগঠনের সদস্য হতে পারেন। বর্তমানে প্রায় তিন হাজার স্থপতি সদস্য রয়েছেন। বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক ইস্যুতে এই সংস্থার মাধ্যমে স্থপতিদের অংশগ্রহন বেড়ে চলছে। দেমের বাইরেও বিভিন্ন উপলক্ষে এই সংগঠনের প্রতিনিধি হিসেবে সদস্যরা অংশগ্রহন করে থাকে।

সদস্যপদ[সম্পাদনা]

পেশাদারী অভিজ্ঞতার উপর ভিত্তি করে এই সংগঠনের তিন ধাপের সদস্যপদ রয়েছে,

  • প্রার্থী সদস্য
  • সদস্য
  • সদস্য কমপক্ষে ৮ বছরের অভিজ্ঞতা।
  • ফেলো সদস্য কমপক্ষে ৩০ বছরের অভিজ্ঞতা

অধ্যয়নরতদের জন্যও রয়েছে ছাত্র সদস্য নামে একটি বিষয়শ্রেণী।

বাংলাদেশ স্থপতি ইনস্টিটিউট-এর সভাপতিগণ[সম্পাদনা]

২৩ তম কার্যনির্বাহী পরিষদ (২০১৯-২০২০)[সম্পাদনা]

বাংলাদেশ স্থপতি ইনস্টিটিউট-এর ২৩তম নির্বাহী পরিষদ

1. স্থপতি জালাল আহমেদ[৬]

2. স্থপতি মামনুন মোরশেদ চৌধুরী (সহ-সভাপতি)

3. স্থপতি এহসান খান (সহ-সভাপতি)

4. স্থপতি নওয়াজিশ মাহবুব (সাধারন সম্পাদক)

5. স্থপতি নবী নেওয়াজ খান (সহ-সাধারন সম্পাদক)

6. স্থপতি এম, মাসুদ উর রশিদ (কোষাধ্যক্ষ)

7. স্থপতি মোহাম্মদ আরেফিন ইবরাহিম (শিক্ষা সম্পাদক)

8. স্থপতি বায়েজিদ মাহমুদ খন্দকার (পেশা বিষয়ক সম্পাদক)

9. স্থপতি তোফায়েল মো. সরোয়ার (সদস্যপদ সম্পাদক)

10. স্থপতি শেখ ইতমাম সউদ (প্রকাশনা ও প্রচার সম্পাদক)

11. স্থপতি মো. তাওফিকুর রহমান খান (সেমিনার ও অনুস্ঠান সম্পাদক)

12. স্থপতি মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসাইন (ঐতিহ্য ও সংস্কৃতি সম্পাদক )A

13. স্থপতি ড. ফরিদা নিলুফার (পরিবেশ ও নগরায়ন সম্পাদক)

14. স্থপতি নাজমুল লতিফ (সভাপতি চট্রগ্রাম চ্যাপ্টার)

15. স্থপতি কাজী গোরাম নাসির (সদ্য সাবেক সভাপতি)

আন্তর্জাতিক অন্তর্ভুক্তি[সম্পাদনা]

  • ইউআইএ : আন্তর্জাতিক স্থপতি ইউনিয়ন
  • সিএএ : কমনওয়েলথ স্থপতি অ্যাসোসিয়েশন
  • এআরসি এশিয়া: এশিয়ার স্থপতিদের আঞ্চলিক পরিষদ
  • এসএএআরসিএইস : স্থপতিদের আঞ্চলিক সহযোগিতার জন্য সাউথ এশিয়ান এসোসিয়েশন

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Past Executive Committee, IAB. http://www.iab.com.bd/index.php?option=com_content&view=category&layout=blog&id=73&Itemid=222 ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ৬ ডিসেম্বর ২০১৩ তারিখে
  2. Executive Committee, IAB. http://www.iab.com.bd/index.php?option=com_content&view=category&layout=blog&id=68&Itemid=101 ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ১৩ ডিসেম্বর ২০১৩ তারিখে
  3. "Tannery shift faces treatment plant dilemma"Dhaka Tribune। ২০১৬-১০-০২। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-১০-০৩ 
  4. Executive Committee, IAB. http://www.iab.com.bd/index.php?option=com_content&view=category&layout=blog&id=68&Itemid=101
  5. "Architecture reflects national taste"The Daily Star। ২০১৪-১২-২৯। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-১০-০৩ 
  6. "Architecture reflects national taste"The Daily Star। ২০১৪-১২-২৯। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-১০-০৩