ডোরেমন: দ্য রেকর্ড অব নোবিতা'স প্যারালাল ভিজিট টু দ্য ওয়েস্ট

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ডোরেমন: দ্য রেকর্ড অফ নোবিতা'স পারালেল ভিজিট টু দ্য ওয়েষ্ট
পরিচালকতসুতোমু শিবাইয়ামা
শ্রেষ্ঠাংশেনোবুইয়্যো ওইয়ামা, নোরিকো ওহারা
পরিবেশক তোহো কোম্পানী
মুক্তি
  • ১২ মার্চ ১৯৮৮ (1988-03-12) (জাপান)
দৈর্ঘ্য৯১ মিনিট
দেশজাপান
ভাষাজাপানি
নির্মাণব্যয়$১২.১ মিলিয়ন

ডোরেমন: দ্য রেকর্ড অফ দ্য নোবিতা'স পারালেল ওয়েস্ট টু ভিজিট (দোরা এ মন্ নোবিতা নো পারারএরুইয়কি) হল ১৯৮৮ সালের অ্যানিমেটেড চলচ্চিত্র। যেটি জাপানের জনপ্রিয় মাঙ্গাআনিমে সিরিজ ডোরেমনের উপর ভিত্তি করে। এটা ১৯৮৮ সালে মুক্তি লাভ করে। নবিতা ও তার সাথীরা ইতিহাসকে আবার আগের মতো করার জন্য অতীতে হিউয়েন সাং কে দানব এর হাত থেকে বাঁচায়।

কাহিনী[সম্পাদনা]

নোবিতা, গিয়ানো, শিজুকা এবং সুনিও বিদ্যালয়ের "পশ্চিমে যাত্রা" নাটকের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিল। তারা নাটকে বানর রাজা ভূমিকা কার পালন কতা উচিত সেই সম্পর্কে তর্ক করছিল, তখন নবিতা প্রস্তাব দেয় যে বাস্তব বানর রাজাকে ভূমিকা পালন করতে হবে। যেহেতু বানর রাজা ছিল শুধুমাত্র একটি কিংবদন্তি, নোবিতা ও ডোরেমত সিদ্ধান্ত নেয় তাঁরা টাইম মেশিনে যেয়ে একটি নকল তৈরি করবে ও জিয়ান, শিজুকা এবং সুনিয়োকে প্রমাণ করবে যে তারা সঠিক। দুর্ভাগ্যবশত, ডরেমনের মেশিন কাল্পনিক দানবদের বাস্তব জগতে আসার সুযোগ দেয় ও কাল্পনিক দানব সমগ্র মানবজাতিকে পরাজিত করে, দানব শাসিত ভবিষ্যত বিশ্ব তৈরি করে। পরিবর্তন বিপরীত জন্য, ডোরেমনঃ ও তাঁর বন্ধুরা অতীতে ফিরে যায় ও দানবদের মেশিনে বন্দি করে। ফিরে আসার পথে, তাঁদের প্রকৃত বানর রাজা ও রিনেইর সাথে দেখা হয়। শেষ পর্যন্ত, তাঁরা দানবদের মেশিনে ফেরত পাঠায় বা ডোরামির সাহায্য নিয়ে তাদের ধ্বংস করে দেয় এবং ভবিষ্যৎ স্বাভাবিকে নিয়ে আসে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]