টোঙ্গা জাতীয় ফুটবল দল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
টোঙ্গা
দলের লোগো
ডাকনামটিমি ফাকাফোমুয়া
অ্যাসোসিয়েশনটোঙ্গা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন
কনফেডারেশনওএফসি (ওশেনিয়া)
প্রধান কোচতিমোতে মোলেনি
অধিনায়কসিওনে উহাতাহি
সর্বাধিক ম্যাচকিলিফি উয়েলে (২৪)
শীর্ষ গোলদাতাউনালোলো ফেয়াও (৭)
মাঠলটো-টোঙ্গা সোকা সেন্টার
ফিফা কোডTGA
ওয়েবসাইটwww.tongafootball.to
প্রথম জার্সি
দ্বিতীয় জার্সি
ফিফা র‌্যাঙ্কিং
বর্তমান ১৯৯ অপরিবর্তিত (৩১ মার্চ ২০২২)[১]
সর্বোচ্চ১৬৩ (অক্টোবর ১৯৯৮)
সর্বনিম্ন২০৭ (এপ্রিল ২০১৮, জুলাই ২০১৯)
এলো র‌্যাঙ্কিং
বর্তমান ২৩৫ অপরিবর্তিত (৩০ এপ্রিল ২০২২)[২]
সর্বোচ্চ১৮০ (আগস্ট ১৯৭৯)
সর্বনিম্ন২৩৫ (সেপ্টেম্বর ২০১৯)
প্রথম আন্তর্জাতিক খেলা
ফ্রান্স তাহিতি ৮–০ টোঙ্গা 
(সুভা, ফিজি; ২৯ আগস্ট ১৯৭৯)
বৃহত্তম জয়
 টোঙ্গা ৭–০ মাইক্রোনেশিয়া যুক্তরাজ্য 
(নাওসরি, ফিজি; ৫ জুলাই ২০০৩)
বৃহত্তম পরাজয়
 অস্ট্রেলিয়া ২২–০ টোঙ্গা 
(কফস হার্বার, অস্ট্রেলিয়া; ৯ এপ্রিল ২০০১)

টোঙ্গা জাতীয় ফুটবল দল (ইংরেজি: Tonga national football team) হচ্ছে আন্তর্জাতিক ফুটবলে টোঙ্গার প্রতিনিধিত্বকারী পুরুষদের জাতীয় দল, যার সকল কার্যক্রম টোঙ্গার ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা টোঙ্গা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয়। এই দলটি ১৯৯৪ সাল হতে ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা ফিফার এবং একই বছর হতে তাদের আঞ্চলিক সংস্থা ওশেনিয়া ফুটবল কনফেডারেশনের সদস্য হিসেবে রয়েছে। ১৯৭৯ সালের ২৯শে আগস্ট তারিখে, টোঙ্গা প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক খেলায় অংশগ্রহণ করেছে; ফিজির সুভায় অনুষ্ঠিত উক্ত ম্যাচে টোঙ্গা তাহিতির কাছে ৮–০ গোলের ব্যবধানে পরাজিত হয়েছে।

১,৫০০ ধারণক্ষমতাবিশিষ্ট লটো-টোঙ্গা সোকা সেন্টারে টিমি ফাকাফোমুয়া নামে পরিচিত এই দলটি তাদের সকল হোম ম্যাচ আয়োজন করে থাকে। এই দলের প্রধান কার্যালয় টোঙ্গার রাজধানী নুকু'আলোফায় অবস্থিত। বর্তমানে এই দলের ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করছেন তিমোতে মোলেনি এবং অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করছেন ভেইটঙ্গোর রক্ষণভাগের খেলোয়াড় সিওনে উহাতাহি

টোঙ্গা এপর্যন্ত একবারও ফিফা বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করতে পারেনি। অন্যদিকে, ওএফসি নেশন্স কাপেও টোঙ্গা এপর্যন্ত একবারও অংশগ্রহণ করতে সক্ষম হয়নি।

কিলিফি উয়েলে, উনালোলো ফেয়াও, লাফায়েলা মোয়ালা, সিওনে উহাতাহি এবং লকোয়া তাওফাহেমার মতো খেলোয়াড়গণ টোঙ্গার জার্সি গায়ে মাঠ কাঁপিয়েছেন।

র‌্যাঙ্কিং[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ে, ১৯৯৮ সালের অক্টোবর মাসে প্রকাশিত র‌্যাঙ্কিংয়ে টোঙ্গা তাদের ইতিহাসে সর্বোচ্চ অবস্থান (১৬৩তম) অর্জন করে এবং ২০১৮ সালের এপ্রিল মাসে প্রকাশিত র‌্যাঙ্কিংয়ে তারা ২০৭তম স্থান অধিকার করে, যা তাদের ইতিহাসে সর্বনিম্ন। অন্যদিকে, বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিংয়ে টোঙ্গার সর্বোচ্চ অবস্থান হচ্ছে ১৮০তম (যা তারা ১৯৭৯ সালে অর্জন করেছিল) এবং সর্বনিম্ন অবস্থান হচ্ছে ২৩৫। নিম্নে বর্তমানে ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং এবং বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিংয়ে অবস্থান উল্লেখ করা হলো:

ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং
৩১ মার্চ ২০২২ অনুযায়ী ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং[১]
অবস্থান পরিবর্তন দল পয়েন্ট
১৯৭ অপরিবর্তিত  পাকিস্তান ৮৬৬.৮১
১৯৮ অপরিবর্তিত  পূর্ব তিমুর ৮৬৫.৪৭
১৯৯ অপরিবর্তিত  টোঙ্গা ৮৬১.৮১
২০০ অপরিবর্তিত  আরুবা ৮৫৯.৯৭
২০১ অপরিবর্তিত  বাহামা দ্বীপপুঞ্জ ৮৫৮.৫
বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং
৩০ এপ্রিল ২০২২ অনুযায়ী বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং[২]
অবস্থান পরিবর্তন দল পয়েন্ট
২৩৩ হ্রাস  ভুটান ৫৬৩
২৩৪ অপরিবর্তিত  কিরিবাস ৫৪৫
২৩৫ অপরিবর্তিত  টোঙ্গা ৫২৯
২৩৬ অপরিবর্তিত  নিউয়ে ৪৯৬
২৩৭ অপরিবর্তিত  মার্কিন সামোয়া ৪৭৩

প্রতিযোগিতামূলক তথ্য[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্বকাপ[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব
সাল পর্ব অবস্থান ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো
উরুগুয়ে ১৯৩০ অংশগ্রহণ করেনি অংশগ্রহণ করেনি
ইতালি ১৯৩৪
ফ্রান্স ১৯৩৮
ব্রাজিল ১৯৫০
সুইজারল্যান্ড ১৯৫৪
সুইডেন ১৯৫৮
চিলি ১৯৬২
ইংল্যান্ড ১৯৬৬
মেক্সিকো ১৯৭০
পশ্চিম জার্মানি ১৯৭৪
আর্জেন্টিনা ১৯৭৮
স্পেন ১৯৮২
মেক্সিকো ১৯৮৬
ইতালি ১৯৯০
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ১৯৯৪
ফ্রান্স ১৯৯৮ উত্তীর্ণ হয়নি ১৩
দক্ষিণ কোরিয়া জাপান ২০০২ ৩০
জার্মানি ২০০৬ ১৭
দক্ষিণ আফ্রিকা ২০১০ ১০
ব্রাজিল ২০১৪
রাশিয়া ২০১৮
কাতার ২০২২ অনির্ধারিত অনির্ধারিত
মোট ০/২১ ২২ ১৪ ২৩ ৮২

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "ফিফা/কোকা-কোলা বিশ্ব র‍্যাঙ্কিং"ফিফা। ৩১ মার্চ ২০২২। সংগ্রহের তারিখ ৩১ মার্চ ২০২২ 
  2. গত এক বছরে এলো রেটিং পরিবর্তন "বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং"eloratings.net। ৩০ এপ্রিল ২০২২। সংগ্রহের তারিখ ৩০ এপ্রিল ২০২২ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]