গ্রিনল্যান্ডীয় ভাষা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
গ্রিনল্যান্ডীয়
Greenlandic: Kalaallisut, ডেনীয়: Grønlandsk
Kalaallisut-noentry-sign-home-rule.jpg
গ্রিনল্যান্ডীয় ও ডেনীয় ভাষায় লিখিত একটি সাইন
দেশোদ্ভবগ্রিনল্যান্ড
অঞ্চলগ্রিনল্যান্ড, ডেনমার্ক
জাতিতত্ত্বগ্রিনল্যান্ডীয় ইনুইত
মাতৃভাষী
৫৬০০০[১]
এস্কিমো–আলেউত
উপভাষাসমূহ
লাতিন (গ্রিনল্যান্ডীয় বর্ণমালা)
স্ক্যান্ডিনেভীয় ব্রেইল
সরকারি অবস্থা
সরকারি ভাষা
 গ্রিনল্যান্ড[২]
সংখ্যালঘু ভাষায় স্বীকৃত
নিয়ন্ত্রক সংস্থাওকাসিলেভ্ভিক
The Language Secretariat of Greenland
ভাষা কোডসমূহ
আইএসও ৬৩৯-১kl
আইএসও ৬৩৯-২kal
আইএসও ৬৩৯-৩kal
গ্লোটোলগNone
kala1399[৩]
Idioma groenlandés.png
এই নিবন্ধটিতে আইপিএ ফনেটিক চিহ্নসমূহ রয়েছে। সঠিক পরিবেশনার সমর্থন ছাড়া, আপনি প্রশ্ন বোধক চিহ্ন, বক্স, অথবা অন্যান্য চিহ্ন ইউনিকোড অক্ষরের পরিবর্তে দেখতে পারেন।

গ্রিনল্যান্ডীয় ভাষা (Greenlandic: Kalaallisut, কালাল্লিসুত) একটি এস্কিমো–আলেউত ভাষাসমূহের ইনুইত শাখার একটি ভাষা। এটি গ্রিনল্যান্ডের রাষ্ট্রভাষা ও সংখ্যাগরিষ্ঠ গ্রিনল্যান্ডীয় ইনুইত সম্প্রদায়ের মাতৃভাষা। ভাষাটির প্রমিত রূপটি এখন স্কুলের সকল গ্রিনল্যান্ডবাসীকে শেখানো হয়। ভাষাটি ইনুকতিতুত ভাষার সাথে সম্পর্কিত। ভাষাটি গ্রিনল্যান্ডের পশ্চিম ও দক্ষিণাঞ্চলে প্রচলিত। গ্রিনল্যান্ডীয় ভাষা ডেনীয় থেকে প্রচুর শব্দভাণ্ডার ধার করেছে, অন্যদিকে কানাডীয় এবং আলাস্কান ইনুইত ভাষাসমূহ ইংরেজি বা কখনও কখনও ফরাসিরুশ থেকে শব্দভাণ্ডার গ্রহণ করেছে। ভাষাটি রোমান বর্ণমালা ব্যবহার করে লেখা হয়। উত্তর-পশ্চিম গ্রীনল্যান্ডের আপারনাভিক এলাকার উপভাষার শব্দভাণ্ডার প্রমিত উপভাষা থেকে কিছুটা আলাদা।

ভৌগোলিক বণ্টন[সম্পাদনা]

গ্রিনল্যান্ড দ্বীপের উত্তর-পশ্চিম, পশ্চিম ও পুর্ব অংশেই শুধু মানুষ বসবাস করে। মূল দ্বীপের মধ্যভাগে কোনো মানববসতি নেই। গ্রিনল্যান্ডীয় ভাষা মূলত এই মানববসতিপূর্ণ অঞ্চলেই প্রচলিত। গ্রিনল্যান্ডের জনসংখ্যার ৯০ শতাংশ মানুষ মাতৃভাষা হিসাবে এই ভাষাটি ব্যবহার করে।

উপভাষা[সম্পাদনা]

গ্রিনল্যান্ডীয় ভাষার তিনটি উপভাষা রয়েছে। এর মধ্যে দ্বীপের রাজধানী নুক-এর আশেপাশে কথিত কালাল্লিসুত (Kalaallisut) উপভাষাটিই প্রমিত ভাষা হিসাবে স্কুল-কলেজে, অফিস, আদালতসহ সকল প্রকার সরকারি কাজে ব্যবহার করা হয়। গ্রিনল্যান্ডের সর্বাধিক ৫০,০০০-এর অধিক মানুষ এই উপভাষা তাদের দৈনন্দিন জীবনে ব্যবহার করে থাকে। অন্যান্য উপভাষা গুলো হলো:

তুনুমিসুত (Tunumiisut) হলো পূর্ব গ্রিনল্যান্ডের উপভাষা। এটি অন্যান্য ইনুইত ভাষার রূপ থেকে তীব্রভাবে পৃথক এবং প্রায় ৩০০০ মানুষ এই উপভাষায় কথা বলে।

ইনুকতুন (Inuktun) হলো উত্তর গ্রিনল্যান্ডের কানাকের আশেপাশের এলাকার উপভাষা। একে কখনও কখনও থুলি উপভাষা বা উত্তর গ্রীনল্যান্ডীয় বলা হয়। এই এলাকাটি ইনুইতের উত্তরাঞ্চলীয় বসতি এলাকা এবং এই উপভাষাটির অপেক্ষাকৃত কম সংখ্যক বক্তা বিদ্যমান। এটি উত্তর বাফিন উপভাষার মোটামুটি কাছাকাছি বলে পরিচিত, যেহেতু বাফিন দ্বীপের ইনুইতের একটি দল উনবিংশ এবং বিংশ শতকের প্রথম দিকে এই অঞ্চলে বসতি স্থাপন করেছিল। এর বক্তা সংখ্যা ১০০০ এর নিচে।

শ্রেণীকরণ[সম্পাদনা]

গ্রিনল্যান্ডীয় ভাষা এস্কিমো–আলেউত ভাষাপরিবারের অন্তর্ভুক্ত ইনুইত শাখার একটি ভাষা। ইনুইত ভাষাগুলো উত্তর কানাডাআলাস্কা অঞ্চলে অধিক প্রচলিত। এ কারণে গ্রিনল্যান্ডীয় ভাষা এস্কিমোইনুইত সম্প্রদায়ের ভাষার সঙ্গে অনেক বেশি সম্পর্ক যুক্ত। গ্রিনল্যান্ডীয় ভাষার উপভাষাগুলোর মধ্যকার সম্পর্ক:

তিনটি প্রধান উপভাষার মধ্যকার সম্পর্কের উদাহরণ
বাংলা কালাল্লিসুত ইনুকতুন তুনুমিসুত
মানুষ (Human) inuit inughuit[৪] iivit[৫]

গ্রিনল্যান্ডীয় হচ্ছে বর্তমানে সবচেয়ে অধিক প্রচলিত এস্কিমো–আলেউত ভাষা।

ধ্বনিতত্ত্ব[সম্পাদনা]

গ্রিনল্যান্ডীয় ভাষার ধ্বনিতত্ত্ব খুবই সাধারণ ও কম সমৃদ্ধ। কারণ দীর্ঘকাল যাবত ডেনীয় ব্যতীত অন্য কোনো সমৃদ্ধ ভাষার সংস্পর্শে না আসায় এর ধ্বনিততত্ত্বে নতুন ধ্বনি খুব কম সংযোজন হয়েছে।

স্বরধ্বনি[সম্পাদনা]

গ্রিনল্যান্ডীয় স্বরধ্বনিতে শুধু /a/, /i/, /u/ -এই তিনটি ধ্বনি পরিলক্ষিত হয়। এগুলোর প্রত্যেকটির হ্রস্ব ও দীর্ঘ -এই দুটি রূপ আছে। কিছু উপভাষায় /e/ ও /o/ এর ব্যবহার লক্ষ্য করা যায়, যেগুলো যথাক্রমে /i/ ও /u/ থেকে উৎপন্ন।

আ-ধ্ব-ব লিখিত রূপ নিকটতম বাংলা উচ্চারণ
ও লিখিত রূপ
/a/ a (হ্রস্ব)
/aː/ aa (দীর্ঘ)
/e/ e (হ্রস্ব)
/eː/ ee (দীর্ঘ)
/i/ i (হ্রস্ব)
/iː/ ii (দীর্ঘ)
/o/ o (হ্রস্ব)
/oː/ oo (দীর্ঘ)
/u/ u (হ্রস্ব)
/uː/ uu (দীর্ঘ)

ব্যঞ্জনধ্বনি[সম্পাদনা]

কালাল্লিসুত ভাষার ব্যঞ্জনধ্বনি
ওষ্ঠ্য দন্তমূলীয় তালব্য পশ্চাত্তালব্য অলিজিহ্ব্য
নাসিক্য m ⟨m⟩ n ⟨n⟩ ŋ ⟨ng⟩ ɴ ⟨rn⟩[ক]
অঘোষ p ⟨p⟩ t ⟨t⟩ k ⟨k⟩ q ⟨q⟩
উষ্ম v ⟨v⟩[খ] s ⟨s⟩ (ʃ)[গ] ɣ ⟨g⟩ ʁ ⟨r⟩
পার্শ্বিক l ⟨l⟩ ⁓ ɬ ⟨ll⟩
অর্ধস্বর j ⟨j⟩

বিঃদ্রঃ এখানে চতুর্থ বন্ধনী ‘⟨ ⟩’ দ্বারা উচ্চারণভেদে গ্রিনল্যান্ডীয় বর্ণমালার অক্ষরগুলোকে নির্দেশ করা হয়েছে।

টীকা[সম্পাদনা]

  1. অলিজিহ্ব্য নাসিক্য ধ্বনি [ɴ] সকল উপভাষায় পাওয়া যায় না এবং উপভাষাভেদে এর উচ্চারণে ভিন্নতা রয়েছে। (রিসচেল ১৯৭৪:১৭৮–১৮১)
  2. /vv/ দ্বিধ্বনি উচ্চারণ করতে ⟨ff⟩ লেখা হয়; অন্যথায়, ⟨f⟩ বর্ণটি শুধু কৃতঋণ শব্দের ক্ষেত্রেই দেখা যায়।
  3. /ʃ/ ধ্বনিটি কয়েকটি উপভাষায় দেখা যায়, কিন্তু প্রমিত গ্রিনল্যান্ডীয় ভাষায় এটা দেখা যায় না।

লিখন পদ্ধতি[সম্পাদনা]

গ্রিনল্যান্ডীয় ভাষা গ্রিনল্যান্ডীয় লাতিন লিপিতে লিখা হয়। এর বর্ণগুলো হলো:

ইংরেজি ও ডেনীয় ভাষা হতে প্রাপ্ত কৃতঋণ শব্দগুলো উচ্চারণের জন্য B, C, D, H, W, X, Y, Z, Æ, ØÅ - বর্ণগুলো ব্যবহার করা হয়।[৬][৭] "..." ও »...« চিহ্নগুলো গ্রিনল্যান্ডীয় ভাষায় উদ্ধৃতি চিহ্ন হিসাবে ব্যবহার করা হয়।

বর্ণসমূহের উচ্চারণ ও বাংলা প্রতিবর্ণীকরণ[সম্পাদনা]

বর্ণ/দ্বিবর্ণ আ-ধ্ব-ব সহজ বাংলা প্রতিবর্ণীকরণ
a /a/
aa /aː/
e /e/
ee /eː/
ff /vv/ ভ্ভ
g /ɣ/
i /i/
ii /iː/
j /j/ য়/ইয়্
k /k/
l /l/
ll /ɬ/ ল্ল
m /m/
n /n/
o /o/
oo /oː/
p /p/
q /q/
r /ʁ/
rn /ɴ/ র্ন
s /s/, /ʃ/
u /u/
uu /uː/
v /v/

নমুনা পাঠ্য[সম্পাদনা]

সংস্কার-পূর্বে

Inuit tamarmik inúngorput náminêrsínãsuseĸarlutik ásigĩmílu atáĸinásuseĸarlutílu pisínâtitãfeĸarlutik. Silaĸásusermik tarnílu nalúngísusianik pilersugãput, ímínúlu iliorfigeĸatigĩtariaĸaraluarput ĸatángutigĩtut peĸatigĩnerup anersâvani.

সংস্কার-পরবর্তী (১৯৭৩)

Inuit tamarmik inunngorput nammineersinnaassuseqarlutik assigiimmillu ataqqinassuseqarlutillu pisinnaatitaaffeqarlutik. Silaqassusermik tarnillu nalunngissusianik pilersugaapput, imminnullu iliorfigeqatigiittariaqaraluarput qatanngutigiittut peqatigiinnerup anersaavani.

বাংলায়

সমস্ত মানুষ স্বাধীনভাবে সমান মর্যাদা এবং অধিকার নিয়ে জন্মগ্রহণ করে। তাঁদের বিবেক এবং বুদ্ধি আছে, সুতরাং সকলেরই একে অপরের প্রতি ভ্রাতৃত্বসুলভ মনোভাব নিয়ে আচরণ করা উচিত। (মানবাধিকারের সার্বজনীন ঘোষণাপত্রের ধারা ১)

সংখ্যা[৮][সম্পাদনা]

1 2 3 4 5 6
ataaseq marluk pingasut sisamat tallimat arfinillit
7 8 9 10 11 12
arfineq-marluk arfineq-pingasut qulaaluat,
qulingiluat,
arfineq-sisamat
qulit isikkanillit,
aqqanillit
isikkaneq-marluk,
aqqaneq-marluk

স্বীকৃতি ও ব্যবহার[সম্পাদনা]

বিংশ শতাব্দীর মাঝামাঝি পর্যন্ত গ্রিনল্যান্ডীয় ভাষার কোনো স্বীকৃতি ছিল না। গ্রিনল্যান্ডের সরকারি কাজকর্মে সর্বত্র ডেনীয় ভাষার ব্যবহার ছিল। গ্রিনল্যান্ড স্বশাসন অর্জনের পর ভাষাটি গ্রিনল্যান্ডের রাষ্ট্রভাষা হিসাবে স্বীকৃতি পায়। পরবর্তীতে অনেক কম সময়েই ভাষাটির প্রভূত উন্নতি সাধিত হয়। বর্তমানে গ্রিনল্যান্ডের ৫৬,০০০ অধিবাসী গ্রিনল্যান্ডীয়কে তাদের মাতৃভাষা হিসাবে ব্যবহার করছে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. এথ্‌নোলগে গ্রিনল্যান্ডীয় (২২তম সংস্করণ, ২০১৯)
  2. Law of Greenlandic Selfrule (see chapter 7)[১] (ডেনীয় ভাষায়)
  3. হ্যামারস্ট্রোম, হারাল্ড; ফোরকেল, রবার্ট; হাস্পেলম্যাথ, মার্টিন, সম্পাদকগণ (২০১৭)। "Kalaallisut"গ্লোটোলগ ৩.০ (ইংরেজি ভাষায়)। জেনা, জার্মানি: মানব ইতিহাস বিজ্ঞানের জন্য ম্যাক্স প্লাংক ইনস্টিটিউট। 
  4. Fortescue (1991) passim
  5. Mennecier(1995) p 102
  6. Grønlands sprognævn (1992)
  7. Petersen (1990)
  8. Dorais, Louis-Jacques (২০১০)। The Language of the Inuit: Syntax, semantics, and society in the Arcticআইএসবিএন 9780773536463