বাকলিয়া সরকারি কলেজ, চট্টগ্রাম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
BKALIA GOVERNMENT COLLEGE, CHATTOGRAM বাকলিয়া সরকারি কলেজ, চট্টগ্রাম
বাকলিয়া কলেজের লগো.jpeg
নীতিবাক্যশিক্ষাই প্রগতি
ধরনসরকারি কলেজ
স্থাপিত১৯৬৬
অধ্যক্ষপ্রফেসর জসিম খান
শিক্ষার্থী২৪০০+
ঠিকানা
A G Road, Chattogram 4203; রাহাত্তারপুল,বাকলিয়া, চট্টগ্রাম।
, ,
শিক্ষাঙ্গনবাকলিয়া, চট্টগ্রাম
রঙসমূহকালো এবং সাদা
ওয়েবসাইটhttps://www.bakoliagovcollege.edu.bd

বাকলিয়া সরকারি কলেজ, চট্টগ্রাম (পূর্বনাম: গভঃ কমার্শিয়াল ইনস্টিটিউট, চট্টগ্রাম) বাংলাদেশের একটি উচ্চমাধ্যমিক স্তরের অন্যতম শীর্ষস্থানীয় প্রতিষ্ঠান, যেটি চট্টগ্রাম বিভাগীয় সদরে অবস্থিত।[১] ব্যবসায় শিক্ষার পাশাপাশি বিজ্ঞান,মানবিক বিষয়ে পাঠদান করানো বৃহত্তর চট্টগ্রাম অঞ্চলে সরকারি পর্যায়ে পরিচালিত একমাত্র দ্রুত বর্ধনশীল এই প্রতিষ্ঠানটি ১৯৬৬ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় এবং ১৯৮৪ সাল থেকে বর্তমান নামে পরিচিতি লাভ করে।এটি ২০১৬ সালে সরকারি প্রতিষ্ঠানে রূপ নেয়।

প্রতিষ্ঠার ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৯৫৯ সালের জাতীয় শিক্ষা কমিশনের[২] নির্দেশনা অনুসারে তৎকালীন সরকার পূর্ব পাকিস্তানের ১৬টি[৩] জেলা সদরে 'গভ. কমার্শিয়াল ইনস্টিটিউট' স্থাপন করা সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে[১] এবং ফলশ্রুতিতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সাহায্য সংস্থা 'এউএসএইড'-এর আর্থিক ও কারিগরী সহায়তায় ঢাকা, ময়মনসিংহ, ফরিদপুর, চট্টগ্রাম, ফেনী, কুমিল্লা, খুলনা, যশোর, কুষ্টিয়া, রাজশাহী, দিনাজপুর, রংপুর, বগুড়া, পাবনা, বরিশাল এবং সিলেট জেলা শহরে ১৯৬৫ হতে ১৯৬৭ সালের মধ্যে এই কমার্র্শিয়াল ইনস্টিটিউটসমূহ স্থাপিত হয়।[২] পরে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার সকল কমার্শিয়াল ইনস্টিটিউটকে উন্মুক্ত করে সকল বিষয়ে পাঠদানের সুযোগ করে দেন। সেই সুবাদে ২০১৬ এর মে মাসে গভঃ কমার্শিয়াল ইনস্টিটিউট, চট্টগ্রাম বাকলিয়া সরকারি কলেজ, চট্টগ্রাম-এ রূপান্তরিত হয়।

শিক্ষা কার্যক্রম[সম্পাদনা]

এই প্রতিষ্ঠানটিতে চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ড এর অধীনে উচ্চমাধ্যমিক স্তরে বিজ্ঞান, মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগে দুই বছর মেয়াদী এইচ.এস.সি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়া যায়।

আসন সংখ্যা:[সম্পাদনা]

বিজ্ঞান বিভাগ : +/-৪২৫

ব্যবসায় বিভাগ :+/-৫২৫

মানবিক বিভাগ : +/-৩৮০

প্রতি বছর এই প্রতিষ্ঠান থেকে বিজ্ঞান বিভাগে বেশিরভাগই ৫ সহ বিভিন্ন স্বনামধন্য বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির সুযোগ পায়।

অবকাঠামো[সম্পাদনা]

বৃহৎ খেলার মাঠসহ চার তলার একটি ভবন এবং কলেজ মসজিদ আছে।

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহি:সংযোগ[সম্পাদনা]