কালো সোনার দেশে

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
কালো সোনার দেশে
(Tintin au pays de l'or noir)
তারিখ
  • ১৯৫০
  • ১৯৭১ (পুনঃতৈরি)
সিরিজ দুঃসাহসী টিনটিন
প্রকাশক ক্যাস্টারম্যান
সৃজনশীল দল
উদ্ভাবকরা এর্জে
মূল প্রকাশনা
প্রকাশিত হয়েছিল
প্রকাশনার তারিখ ২৮শে সেপ্টেম্বর, ১৯৩৯ - ৮ই মে, ১৯৪০ / ১৬ই সেপ্টেম্বর, ১৯৪৮ - ২৩শে ফেব্রুয়ারি, ১৯৫০
ভাষা ফরাসি
আইএসবিএন 2-203-00114-3
অনুবাদ
প্রকাশক আনন্দ পাবলিশার্স
তারিখ ১৯৯৫
অনুবাদক নীরেন্দ্রনাথ চক্রবর্তী
কালপঞ্জি
পূর্ববর্তী সূর্যদেবের বন্দি, ১৯৫০
পরবর্তী চন্দ্রলোকে অভিযান, ১৯৫৩

কালো সোনার দেশে (ফরাসি ভাষায়: Tintin au pays de l'or noir তাঁতাঁ ও পেই দ্য লর নোয়ার) দুঃসাহসী টিনটিন কমিক সিরিজের পঞ্চদশ বই।

এই কাহিনীর অর্ধসমাপ্ত আকারে ১৯৩৯-১৯৪০ সালে ল্য প্যতি ভাঁতিয়েম ক্রোড়পত্রিকায় ছাপা হয়েছিল। পরবর্তীতে ১৯৪৮ থেকে ১৯৫০ সালে টিনটিন ম্যাগাজিনে ধারাবাহিকভাবে ও পরে বই আকারে প্রকাশ পায়। বইটির কাহিনীর পটভূমি ব্রিটিশ অধিকৃত ফিলিস্তিন। ১৯৭২ সালে এর নাম বদলে কাল্পনিক রাজ্যনাম খেমেদ দেওয়া হয়।

কাহিনী[সম্পাদনা]

জ্বালানী তেলে বিস্ফোরণ ঘটছে, বৃহত্তর রাষ্ট্র গুলি চিন্তিত। যুদ্ধের সম্ভাবনা দেখা দেওয়ায় টিনটিন গেল খবর সংগ্রহে। জড়িয়ে পড়লো খেমেদের 'বাবেল আর' এবং আমিরের রেষারেষির মধ্যে। মরুভূমি অধ্যুষিত এলাকায় তেলে বিস্ফোরণের কারন অনুসন্ধান করতে থাকে। সে আরো খোঁজ নিতে ড. মূলারের বাড়িতে গোপনে হানা দেয় এবং ধরা পড়ার মুহুর্তেই নাটকীয় ভাবে তাকে উদ্ধার করতে আসেন ক্যাপ্টেন হ্যাডক। ড মূলার আসল অপরাধী জানার পর টিনটিন ও ক্যাপ্টেন গাড়িতে করে তাকে ধাওয়া করে। মূলারের হাত থেকে আমিরের বিচ্ছু ছেলে আবদুল্লাকে উদ্ধার করতে যায় টিনটিন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]