সিউ শিবনারায়ণ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সিউ শিবনারায়ণ
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামসিউদত্ত শিবনারায়ণ
জন্ম (1952-05-13) ১৩ মে ১৯৫২ (বয়স ৬৯)
অ্যালবিওন, গায়ানা
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনস্লো লেফট-আর্ম অর্থোডক্স
ভূমিকাব্যাটসম্যান, অধিনায়ক
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ১৬৯)
৩১ মার্চ ১৯৭৮ বনাম অস্ট্রেলিয়া
শেষ টেস্ট২ ফেব্রুয়ারি ১৯৭৯ বনাম ভারত
একমাত্র ওডিআই
(ক্যাপ ৩২)
১২ এপ্রিল ১৯৭৮ বনাম অস্ট্রেলিয়া
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
১৯৭০ - ১৯৮১গায়ানা
১৯৭১ - ১৯৮০বারবাইস
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ৪৯ ১৩
রানের সংখ্যা ৩৭৯ ২০ ২,১৮২ ২০৬
ব্যাটিং গড় ২৯.১৫ ৩২.৫৬ ১৮.৭২
১০০/৫০ ০/৪ ০/০ ৩/১৪ ০/০
সর্বোচ্চ রান ৬৩ ২০* ১৩১* ৪৬
বল করেছে ৩৩৬ ১৮ ৫,৬২৮ ৪৪৫
উইকেট ৬৭
বোলিং গড় ১৬৭.০০ ৩৬.৫৫ ৩২.০০
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ১/১৩ ০/১৬ ৪/২৯ ২/২৫
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৬/– ০/– ৩৬/– ৬/–
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ২ সেপ্টেম্বর ২০২০

সিউদত্ত শিবনারায়ণ (ইংরেজি: Sew Shivnarine; জন্ম: ১৩ মে, ১৯৫২) অ্যালবিওন এলাকায় জন্মগ্রহণকারী গায়ানীয় বংশোদ্ভূত সাবেক ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার।[১] ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৯৭০-এর দশকের শেষদিকে সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্যে ওয়েস্ট ইন্ডিজের পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন।

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান ক্রিকেটে গায়ানা ও বারবাইস দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। দলে তিনি মূলতঃ ডানহাতি ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলতেন। এছাড়াও, স্লো লেফট-আর্ম অর্থোডক্স বোলিংয়ে পারদর্শী ছিলেন তিনি।

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

১৯৭০-৭১ মৌসুম থেকে ১৯৮০-৮১ মৌসুম পর্যন্ত সিউ শিবনারায়ণের প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন চলমান ছিল।

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে আটটিমাত্র টেস্ট ও একটিমাত্র একদিনের আন্তর্জাতিকে অংশগ্রহণ করেছেন সিউ শিবনারায়ণ। ৩১ মার্চ, ১৯৭৮ তারিখে জর্জটাউনে সফরকারী অস্ট্রেলিয়া দলের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। ২ ফেব্রুয়ারি, ১৯৭৯ তারিখে কানপুরে স্বাগতিক ভারত দলের বিপক্ষে সর্বশেষ টেস্টে অংশ নেন তিনি। এছাড়াও, ১২ এপ্রিল, ১৯৭৮ তারিখে কাস্ত্রিসে অস্ট্রেলিয়া দলের বিপক্ষে একটিমাত্র একদিনের আন্তর্জাতিকে অভিষেক ঘটে তার।

এরপর তিনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে অভিবাসিত হন। অতঃপর, জাতীয় দলের অধিনায়কের দায়িত্বে ছিলেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "South Africa's bearded wonder"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ৩ এপ্রিল ২০১৯ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]