সাফাভীয় সাম্রাজ্য

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সাফাভীয় সাম্রাজ্য
شاهنشاهی صفوی

  • ملک وسیع‌الفضای ایران[ক]
    সুবিস্তীর্ণ ইরান দেশ[১]
  • مملکت ایران[খ]
    মামলুকাত-এ-ইরান[২]
১৫০১–১৭৩৬
শাহ প্রথম আব্বাসের শাসনামলে সাফাভীয় সাম্রাজ্য
শাহ প্রথম আব্বাসের শাসনামলে সাফাভীয় সাম্রাজ্য
অবস্থাসাম্রাজ্য
রাজধানী
প্রচলিত ভাষা
ধর্ম
শিয়া ইসলাম (রাষ্ট্রধর্ম)[২১]
সরকাররাজতন্ত্র
শাহেনশাহ 
• ১৫০১–১৫২৪
প্রথম ইসমাইল (প্রথম)
• ১৭৩২–১৭৩৬
তৃতীয় আব্বাস (সর্বশেষ)
উজির-এ-আজম 
• ১৫০১–?
আমীর জাকারিয়া (প্রথম)
• ১৭২৯–১৭৩৬
নাদের কুলী বেগ (সর্বশেষ)
আইন-সভারাষ্ট্রসভা
ঐতিহাসিক যুগপ্রারম্ভিক আধুনিক যুগ
• সফিউদ্দীন আর্দাবিলী কর্তৃক সফবিয়া তরিকার প্রতিষ্ঠা
১৩০১
• প্রতিষ্ঠা
২২ ডিসেম্বর[২২] ১৫০১
১৭২২
• নাদের শাহের নেতৃত্বে পুনর্বিজয়
১৭২৬–১৭২৯
• বিলুপ্ত
৮ মার্চ ১৭৩৬
• নাদের শাহের অভিষেক
৮ মার্চ ১৭৩৬[২৩]
মুদ্রাতুমান, আব্বাসি (জর্জীয় আবাজিসহ), শাহী[২৪]
  • ১ তুমান = ৫০ আব্বাসি
  • ১ তুমান = ৫০ ফরাসি লিব্র
  • ১ তুমান = £৩ ৬s ৮d.
পূর্বসূরী
উত্তরসূরী
তৈমুরি সাম্রাজ্য
Aq Qoyunlu
Shirvanshah
Marashiyan
Paduspanids
Mihrabanids
Afrasiab dynasty
Karkiya dynasty
Kingdom of Ormus
হুতাক রাজবংশ
Afsharid dynasty
রুশ সাম্রাজ্য
উসমানীয় সাম্রাজ্য
বর্তমানে যার অংশ

সাফাভীয় সাম্রাজ্য, সাফাভীয় পারস্য বা সাফাভীয় ইরান (ফার্সি: شاهنشاهی صفوی‎‎ শহানশহিয়ে সাফাভী) ছিল ৭ম শতাব্দীর মুসলিমদের পারস্য বিজয়ের পরবর্তী অন্যতম বৃহৎ পারসিক সাম্রাজ্য যা ১৫০১ থেকে ১৭৩৬ খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত সাফাভীয় রাজবংশের দ্বারা শাসিত হয়েছিল।[২৫][২৬][২৭][২৮] এটিকে প্রায়শ আধুনিক ইরানের ইতিহাসের শুরু[২৯] এবং অন্যতম বারুদীয় সাম্রাজ্য হিসেবে বিবেচনা করা হয়।[৩০] সাফাভীয় শাহগণ শিয়া ইসলামের ইসনা আশারিয়া মতবাদকে সাম্রাজ্যের রাষ্ট্রধর্ম হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছিল[৩১] যা ছিল ইসলামের ইতিহাসের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ মোড়।

সাফাভীয় রাজবংশের সূচনা হয়েছিল সুফিবাদের সফবিয়া তরিকা থেকে, যা আজারবাইজান অঞ্চলের আর্দাবিল শহরে প্রতিষ্ঠিত হয়। তারা কুর্দি বংশোদ্ভূত ইরানি রাজবংশ ছিল[৩২] তবে তাদের শাসনকালে তারা তুর্কমেন,[৩৩] জর্জীয়,[৩৪] সির্কাসীয়,[৩৫][৩৬] এবং পন্তীয় গ্রীকদের[৩৭] বিশিষ্ট ব্যক্তিদের সাথে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়। আর্দাবিলের তাদের ঘাঁটি থেকে সাফাভীয়রা বৃহত্তর ইরানের কয়েকটি অংশের উপর নিজেদের নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করে এবং এতদঞ্চলের ইরানি আত্মপরিচয় পুনরুদ্ধার করে।[৩৮] এভাবে সাফাভীয়রা সাসানীয় সাম্রাজ্যের পর প্রথম দেশীয় রাজবংশ হয়ে ওঠে যারা সরকারিভাবে ইরান নামের একটি জাতিরাষ্ট্র কায়েম করে।[৩৯]

সাফাভীয়রা ১৫০১ থেকে ১৭২২ সাল পর্যন্ত শাসন করেছিল (১৭২৯ থেকে ১৭৩৬ সাল পর্যন্ত সংক্ষিপ্ত পুনর্জয়ের অভিজ্ঞতা হয়েছিল) এবং ক্ষমতার সর্বোচ্চ সীমায় তারা অধুনা ইরান, আজারবাইজান প্রজাতন্ত্র, বাহরাইন, আর্মেনিয়া, পূর্ব জর্জিয়া, রাশিয়াসহ উত্তর ককেশাসের কিছু অংশ, ইরাক, কুয়েত এবং আফগানিস্তানের পাশাপাশি তুরস্ক, সিরিয়া, পাকিস্তান, তুর্কমেনিস্তান এবং উজবেকিস্তানের কিছু অংশ নিয়ন্ত্রণ করেছিল। ১৭৩৬ সালে পতন সত্ত্বেও তারা যে উত্তরাধিকার রেখে গিয়েছিল তা ছিল প্রাচ্য ও পাশ্চাত্যের মধ্যে একটি অর্থনৈতিক দুর্গ হিসাবে ইরানের পুনরুত্থান, চেক এবং ব্যালেন্সের ভিত্তিতে একটি দক্ষ রাষ্ট্র ও আমলাতন্ত্র প্রতিষ্ঠা, স্থাপত্য উদ্ভাবন এবং সাফাভীয় শিল্পের পৃষ্ঠপোষকতা। সাফাভীয়রা ইরানের পাশাপাশি ককেসাস, আনাতোলিয়া এবং মেসোপটেমিয়ার প্রধান অংশ জুড়ে শিয়া ইসলাম ছড়িয়ে দিয়েছিল যার ছাপ আজও টিকে আছে।

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

পাদটীকা[সম্পাদনা]

  1. Molke Vasi’ al-Fazâye Irân
  2. Mamlekate Irân

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Matthee* Matthee, Rudi (১ সেপ্টেম্বর ২০০৯)। "Was Safavid Iran an Empire?"Journal of the Economic and Social History of the Orient53 (1): 241। এসটুসিআইডি 55237025ডিওআই:10.1163/002249910X12573963244449The term 'Iran', which after an absence of some six centuries had re-entered usage with the Ilkhanid branch of the Mongols, conveyed a shared self-awareness among the political and cultural elite of a geographical entity with distinct territorial and political implications. A core element of the Safavid achievement was the notion that the dynasty had united the eastern and western halves of Iran, Khurasan and Herat, the lands of the Timurids, in the East, and the territory of the Aq-Quyunlu in the West. The term mulk-i vasi' al-faza-yi Iran, 'the expansive realm of Iran', found in the seventeenth-century chronicle, Khuld-i barin, and again, in near identical terms, in the travelogue of Muhammad Rabi Shah Sulayman's envoy to Siam in the 1680s, similarly conveys the authors pride and self-consciousness with regard to the territory they inhabited or hailed from. 
  2. Savory, Roger (২ জানুয়ারি ২০০৭)। "The Safavid state and polity"। Iranian Studies7 (1–2): 206। ডিওআই:10.1080/00210867408701463The somewhat vague phrase used during the early Safavid period, mamalik-i mahrusa, had assumed more concrete forms: mamālik-i īrān; mamālik-i 'ajam; mamlikat-i īrān; mulk-i īrān; or simply īrān. The royal throne was variously described as sarīr-i saltanat-i īrān; takht-i īrān; and takht-i sultān (sic)-i īrān. The inhabitants of the Safavid empire are referred to as ahl-i īrān, and Iskandar Beg describes himself as writing the history of the Iranians (sharh-i ahvāl-i īrān va īrāniān). Shah Abbas I is described as farmānravā-yi īrān and shahryār-i īrān; his seat is pāyitakht-i pādishāhān-i īrān, takhtgāh-i salātin-i īrān, or dār al-mulk-i īrān. His sovereign power is referred to as farmāndahi-yi mulk-i īrān, saltanat va pādishāhi-yi īrān, pādishāhi-yi īrān. The cities of Iran (bilād-i īrān) are thought of as belonging to a positive entity orstate: Herat is referred to as a'zam-i bilād-i īrān (the greatest of the cities of Iran) and Isfahan as khulāsa-yi mulk-i īrān (the choicest part of the realm of Iran). ... The sense of geographical continuity referred to earlier is preserved by a phrase like kull-i vilāyat-i īrānzamīn. ... Affairs of state are referred to as muhimmāt-i īrān. To my mind however, one of the clearest indications that the Safavid state had become a state in the full sense of the word is provided by the revival of the ancient title of sipahsālār-i īrān or "commander-in-chief of the armed forces of Iran". 
  3. Flaskerud, Ingvild (২০১০)। Visualizing Belief and Piety in Iranian Shiism। A&C Black। পৃষ্ঠা 182–3। আইএসবিএন 978-1-4411-4907-7 
  4. "... the Order of the Lion and the Sun, a device which, since the 17 century at least, appeared on the national flag of the Safavids the lion representing 'Ali and the sun the glory of the Shiʻi faith", Mikhail Borisovich Piotrovskiĭ, J. M. Rogers, Hermitage Rooms at Somerset House, Courtauld Institute of Art, Heaven on earth: Art from Islamic Lands: Works from the State Hermitage Museum and theKhalili Collection, Prestel, 2004, p. 178.
  5. উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ বৈধ নয়; Roemer 189 নামের সূত্রটির জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  6. Rudi Matthee, "Safavids" in Encyclopædia Iranica, accessed on April 4, 2010. "The Persian focus is also reflected in the fact that theological works also began to be composed in the Persian language and in that Persian verses replaced Arabic on the coins." "The political system that emerged under them had overlapping political and religious boundaries and a core language, Persian, which served as the literary tongue, and even began to replace Arabic as the vehicle for theological discourse".
  7. Ronald W Ferrier, The Arts of Persia. Yale University Press. 1989, p. 9.
  8. John R Perry, "Turkic-Iranian contacts", Encyclopædia Iranica, January 24, 2006: "... written Persian, the language of high literature and civil administration, remained virtually unaffected in status and content"
  9. উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ বৈধ নয়; Cyril Glassé 2003, pg 392 নামের সূত্রটির জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  10. উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ বৈধ নয়; Perry নামের সূত্রটির জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  11. Arnold J. Toynbee, A Study of History, V, pp. 514–515. Excerpt: "in the heyday of the Mughal, Safawi, and Ottoman regimes New Persian was being patronized as the language of literae humaniores by the ruling element over the whole of this huge realm, while it was also being employed as the official language of administration in those two-thirds of its realm that lay within the Safawi and the Mughal frontiers"
  12. উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ বৈধ নয়; mazzaoui নামের সূত্রটির জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  13. Ruda Jurdi Abisaab. "Iran andPre-Independence Lebanon" in Houchang Esfandiar Chehabi, Distant Relations: Iran and Lebanon in the Last 500 Years, IB Tauris 2006, p. 76: "Although the Ac language was still the medium for religious scholastic expression, it was precisely under the Safavids that hadith complications and doctrinal works of all sorts were being translated to Persian. The ʻAmili (Lebanese scholars of Shiʻi faith) operating through the Court-based religious posts, were forced to master the Persian language; their students translated their instructions into Persian. Persianization went hand in hand with the popularization of 'mainstream' Shiʻi belief."
  14. Floor, Willem; Javadi, Hasan (২০১৩)। "The Role of Azerbaijani Turkish in Safavid Iran"। Iranian Studies46 (4): 569–581। এসটুসিআইডি 161700244ডিওআই:10.1080/00210862.2013.784516 
  15. Hovannisian, Richard G.; Sabagh, Georges (১৯৯৮)। The Persian Presence in the Islamic World। Cambridge: Cambridge University Press। পৃষ্ঠা 240। আইএসবিএন 978-0521591850 
  16. Axworthy, Michael (২০১০)। The Sword of Persia: Nader Shah, from Tribal Warrior to Conquering Tyrant। I.B.Tauris। পৃষ্ঠা 33। আইএসবিএন 978-0857721938 
  17. Savory, Roger (২০০৭)। Iran Under the Safavids। Cambridge University Press। পৃষ্ঠা 213। আইএসবিএন 978-0-521-04251-2qizilbash normally spoke Azari brand of Turkish at court, as did the Safavid shahs themselves; lack of familiarity with the Persian language may have contributed to the decline from the pure classical standards of former times 
  18. উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ বৈধ নয়; cambridgesafa নামের সূত্রটির জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  19. Price, Massoume (২০০৫)। Iran's Diverse Peoples: A Reference Sourcebook। ABC-CLIO। পৃষ্ঠা 66। আইএসবিএন 978-1-57607-993-5The Shah was a native Turkic speaker and wrote poetry in the Azerbaijani language. 
  20. Blow, David (২০০৯)। Shah Abbas: The Ruthless King Who Became an Iranian Legend। I.B.Tauris। পৃষ্ঠা 165–166। আইএসবিএন 978-0857716767Georgian, Circassian and Armenian were also spoken [at the court], since these were the mother-tongues of many of the ghulams, as well as of a high proportion of the women of the harem. Figueroa heard Abbas speak Georgian, which he had no doubt acquired from his Georgian ghulams and concubines. 
  21. The New Encyclopedia of Islam, Ed. Cyril Glassé, (Rowman & Littlefield Publishers, 2008), 449.
  22. Ghereghlou, Kioumars (অক্টোবর–ডিসেম্বর ২০১৭)। "Chronicling a Dynasty on the Make: New Light on the Early Ṣafavids in Ḥayātī Tabrīzī's Tārīkh (961/1554)"Journal of the American Oriental Society137 (4): 827। ডিওআই:10.7817/jameroriesoci.137.4.0805Columbia Academic Commons-এর মাধ্যমে। Shah Ismāʿīl's enthronement took place in Tabrīz immediately after the battle of Sharūr, on 1 Jumādā II 907/22 December 1501. 
  23. Elton L. Daniel, The History of Iran (Greenwood Press, 2001) p. 95
  24. Ferrier, RW, A Journey to Persia: Jean Chardin's Portrait of a Seventeenth-century Empire, p. ix.
  25. Helen Chapin Metz. Iran, a Country study. 1989. University of Michigan, p. 313.
  26. Emory C. Bogle. Islam: Origin and Belief. University of Texas Press. 1989, p. 145.
  27. Stanford Jay Shaw. History of the Ottoman Empire. Cambridge University Press. 1977, p. 77.
  28. Andrew J. Newman, Safavid Iran: Rebirth of a Persian Empire, IB Tauris (March 30, 2006).
  29. "SAFAVID DYNASTY"Encyclopædia Iranica 
  30. Streusand, Douglas E., Islamic Gunpowder Empires: Ottomans, Safavids, and Mughals (Boulder, Col : Westview Press, 2011) ("Streusand"), p. 135.
  31. RM Savory, Safavids, Encyclopedia of Islam, 2nd ed.
    • Matthee, Rudi. (2005). The Pursuit of Pleasure: Drugs and Stimulants in IranianHistory, 1500-1900. Princeton University Press. p. 18; "The Safavids, as Iranians of Kurdish ancestry and of nontribal background (...)".
    • Savory, Roger. (2008). "EBN BAZZĀZ". Encyclopaedia Iranica, Vol. VIII, Fasc. 1. p. 8. "This official version contains textual changes designed to obscure the Kurdish origins of the Safavid family and to vindicate their claim to descent from the Imams."
    • Amoretti, Biancamaria Scarcia; Matthee, Rudi. (2009). "Ṣafavid Dynasty". In Esposito, John L. (ed.) The Oxford Encyclopedia of the Islamic World. Oxford University Press. "Of Kurdish ancestry, the Ṣafavids started as a Sunnī mystical order (...)"
    • Roemer, H.R. (1986). "The Safavid Period" in Jackson, Peter; Lockhart, Laurence. The Cambridge History of Iran, Vol. 6: The Timurid and Safavid Periods. Cambridge University Press. pp. 214, 229*Blow, David (2009). Shah Abbas: The Ruthless King Who Became an Iranian Legend. I.B.Tauris. p. 3
    • Savory, Roger M.; Karamustafa, Ahmet T. (1998) ESMĀʿĪL I ṢAFAWĪ. Encyclopaedia Iranica Vol. VIII, Fasc. 6, pp. 628-636
    • Ghereghlou, Kioumars (2016). ḤAYDAR ṢAFAVI. Encyclopaedia Iranica
  32. Aptin Khanbaghi (2006) The Fire, the Star and the Cross: Minority Religions in Medieval and Early. London & New York. IB Tauris. আইএসবিএন ১-৮৪৫১১-০৫৬-০, pp. 130–1
  33. Yarshater 2001, পৃ. 493।
  34. Khanbaghi 2006, পৃ. 130।
  35. Anthony Bryer. "Greeks and Türkmens: The Pontic Exception", Dumbarton Oaks Papers, Vol. 29 (1975), Appendix II "Genealogy of the Muslim Marriages of the Princesses of Trebizond"
  36. Why is there such confusion about the origins of this important dynasty, which reasserted Iranian identity and established an independent Iranian state after eight and a half centuries of rule by foreign dynasties? RM Savory, Iran under the Safavids (Cambridge University Press, Cambridge, 1980), p. 3.
  37. Alireza Shapur Shahbazi (2005), "The History of the Idea of Iran", in Vesta Curtis ed., Birth of the Persian Empire, IB Tauris, London, p. 108: "Similarly the collapse of Sassanian Eranshahr in AD 650 did not end Iranians' national idea. The name "Iran" disappeared from official records of the Saffarids, Samanids, Buyids, Saljuqs and their successor. But one unofficially used the name Iran, Eranshahr, and similar national designations, particularlyMamalek-e Iran or "Iranian lands", which exactly translated the old Avestan term Ariyanam Daihunam. On the other hand, when the Safavids (not Reza Shah, as is popularly assumed) revived a national state officially known as Iran, bureaucratic usage in the Ottoman empire and even Iran itself could still refer to it by other descriptive and traditional appellations".

গ্রন্থতালিকা[সম্পাদনা]

অধিকতর পাঠ[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]