ভারতীয় জাতি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

ভারতীয় জনগণ অথবা ভারতীয় জনজাতি , পৃথিবীর ২য় বৃহত্তম জনজাতি যা পৃথিবীর মোট জনসংখ্যার ১৭.৫০%। "ইন্ডিয়ান" বলতে জাতি বোঝায়, উপজাতি অথবা কোন বিশেষ ভাষা ব্যাবহারকারি বোঝায় না। "ইন্ডিয়ান" বা "ভারতীয়" জাতি বহু উপজাতি এবং ভাষাভাষীতে বিভক্ত থাকায় তা ভারতের সমৃদ্ধ বৈচিত্র্যকে প্রকাশ করে। ভারত, ভারতীয় ভূখণ্ডের মধ্যে সমস্ত এথিনিক গোষ্ঠীগুলিকে নিজের আশ্রয়ে রেখেছে।আরব, ইউনাইটেড কিংডম, উত্তর আমেরিকা, অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা, ক্যরিবিয়ান, ক্যরিবিয়ান ও দক্ষিণ ইউরোপ থেকে প্রবাসের কারনে ভারতীয় পূর্বপুরুষ গোষ্ঠী বৈচিত্র্যে সমৃদ্ধ। প্রায় বারো লাখ জনজাতিতে ভারত সমৃদ্ধ।

নামতত্ত্ব[সম্পাদনা]

ভারত নামটি ভারতীয় ভুখণ্ডের ও ভারতীয় যুক্তরাজ্যের অধিবাসীদের দ্বারা ব্যবহৃত হয়ে আসছে। সংস্কৃত নাম 'ভারত গনরাজ্য' থেকে অফিসিয়াল ভারত নামটি গৃহীত। ভারতীয় বেদ ও পুরানের থেকে ভারত নামটি এসেছে যেখানে নামটি অন্যান্য জনজাতি থেকে ভারত জনজাতিকে আলাদাভাবে দেখাবার জন্য ব্যবহৃত হয়েছে। ঋগ্বেদে বর্ণিত ভারত জাতি 'দশ রাজার যুদ্ধ' তে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করেছিল। এই ভারত জাতি ছিল কুরু বংশীয় ভারত রাজার অন্তর্গত যিনি ভারতীয় ভূখণ্ডের সমস্ত জাতিকে নিজের রাজত্বের অন্তর্গত করেছিলেন। उत्तरं यत्समुद्रस्य हिमाद्रेश्चैव दक्षिणम् । वर्षं तद् भारतं नाम भारती यत्र संततिः ।। "উত্তরে যার সমুদ্র, দক্ষিনে হিমালয়, (সেই ভূখণ্ডই) ভারত (এবং সেখানকার অধিবাসীগণই) ভারতী(য়)। প্রাচীন বৈদিক সাহিত্যে 'ভারত' নামকরনের আগে পর্যন্ত, আর্যাবর্ত(Sanskrit: आर्यावर्त) নামই প্রচলিত ছিল।মনুসংহিতায় আর্যাবর্ত বলতে হিমালয় থেকে বিন্ধ্য পর্বত পর্যন্ত এবং পূর্ব (বঙ্গোপসাগর) থেকে পশ্চিম (আরব সাগর) পর্যন্ত বোঝান হয়েছে। অন্যদিকে ইন্ডিয়া নামটি গ্রিক শব্দ Ἰνδία(India) থেকে, ল্যাটিন মারফত আগত।কোএন গ্রিকে ইন্ডিয়া বলতে সিন্ধু (Ἰνδός/indus) নদীর তীরবর্তী অঞ্চল।