বিষাদগ্রস্থতা (মেজাজ)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

বিষাদগ্রস্থতা হল নিম্ন মেজাজ এবং বিভিন্ন ক্রিয়াকলাপ থেকে বিরত থাকার একটি মানসিক অবস্থা। এটি কোনো ব্যক্তির চিন্তাভাবনা, আচরণ, অনুপ্রেরণা, অনুভূতি এবং সুস্থতার বোধকে প্রভাবিত করতে পারে। এর লক্ষন হতে পারে বিষন্নতা, চিন্তা ও মনোযোগে অসুবিধা এবং খাদ্যাভ্যাস ও বিশ্রামের হ্রাস-বৃদ্ধি। বিষাদে ভুগছেন এমন লোকদের মধ্যে হতাশা, আশাহীনতা এবং কখনও কখনও আত্মঘাতী চিন্তাভাবনা থাকতে পারে। এটি স্বল্প মেয়াদী বা দীর্ঘমেয়াদী হতে পারে।[১] বিষাদের মূল লক্ষণগুলোকে অ্যানহেডোনিয়া বলা হয়, যা সাধারণত মানুষের মধ্যে আমোদ উপস্থাপন করে এমন কিছু ক্রিয়াকলাপে আগ্রহ বা অনুভূতি হ্রাসকে বোঝায়।[২][৩] বিষাদগ্রস্থ মেজাজ হল কিছু মুড ডিসঅর্ডারের লক্ষণ, যেমনঃ মেজর ডিপ্রেশনাল ডিসঅর্ডার বা ডিস্থাইমিয়া; এটি জীবনের ঘটনাগুলোর একটি সাধারণ অস্থায়ী প্রতিক্রিয়া, উদাহরণ স্বরূপ প্রিয়জনকে হারানো; এবং এটি কিছু শারীরিক রোগের লক্ষণ এবং কিছু ঔষধ ও চিকিৎসার একটি পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া।

কারণ[সম্পাদনা]

জীবনের ঘটনাবলী[সম্পাদনা]

শৈশবকালে বিভিন্ন প্রতিকূলতা যেমনঃ শোক, অবহেলা, মানসিক নির্যাতন, শারীরিক নির্যাতন, যৌন নির্যাতন, বা ভাইবোনদের সাথে পিতামাতার অসম আচরণ যৌবনে বিষাদগ্রস্থতায় অবদান রাখতে পারে।[৪] শৈশবে শারীরিক বা যৌন নিপীড়ন বিশেষত ভুক্তভোগীর জীবদ্দশায় বিষাদের অভিজ্ঞতার সাথে উল্লেখযোগ্যভাবে সম্পর্কযুক্ত।[৫]

জীবনের ঘটনা এবং পরিবর্তনগুলো যা বিষাদগ্রস্থ মেজাজকে প্রভাবিত করতে পারে(তবে এটি সীমাবদ্ধ নয়) তার মধ্যে রয়েছে : প্রসব, মেনোপজ, আর্থিক অসুবিধা, বেকারত্ব, মানসিক চাপ(যেমনঃ কাজ থেকে শুরু করে শিক্ষা, পরিবার, জীবনযাপন ইত্যাদি), কোনো রোগ নির্ণয়(ক্যান্সার, এইচআইভি ইত্যাদি), ধর্ষণ, প্রিয়জনকে হারানো, প্রাকৃতিক দুর্যোগ, সামাজিক বিচ্ছিন্নতা, সম্পর্কের ঝামেলা, হিংসা, বিচ্ছেদ বা বিপর্যয়জনিত আঘাত। কিশোর-কিশোরীরা বিশেষত সামাজিক প্রত্যাখ্যান, সঙ্গীর পীড়ন, বা তর্জনের পরে বিষাদগ্রস্থ মেজাজ অনুভব করতে পারে।

ব্যক্তিগত ভাব[সম্পাদনা]

সামাজিক পরিবেশের পরিবর্তনগুলো কারো বিষাদের স্তরকে প্রভাবিত করতে পারে।[৬] ব্যক্তিগত ভাবের অন্যান্য সূচকগুলো হলঃ অস্থায়ী তবে দ্রুত মেজাজ পরিবর্তন, স্বল্পমেয়াদী হতাশাবোধ, কারও জীবনের অংশ হিসাবে ব্যবহৃত ক্রিয়াকলাপগুলোর আগ্রহ হারিয়ে যাওয়া, ঘুমে ব্যাঘাত হওয়া, পূর্ববর্তী সামাজিক জীবন থেকে সরে আসা, ক্ষুধা পরিবর্তন এবং মনোনিবেশে অসুবিধা।[৭]

চিকিৎসা[সম্পাদনা]

বিষাদগ্রস্থতা স্বাস্থ্যসেবার ফলাফলও হতে পারে, যেমনঃ বিষাদের সাথে প্ররোচিত ঔষধ। বিষাদের সাথে সম্পর্কিত চিকিৎসাগুলোর মধ্যে রয়েছে ইন্টারফেরন থেরাপি, বিটা-ব্লকারস, আইসোট্রেটিনিন, গর্ভনিরোধক, কার্ডিয়াক এজেন্ট, অ্যান্টিকনভুল্যান্টস, অ্যান্টিমাইগ্রেন ড্রাগস, অ্যান্টিসাইকোটিকস এবং অ্যাজনিস্টের মতো হরমোন এজেন্ট যেমনঃ গোনাডোট্রপিন-রিলিজিং হরমোন।

মাত্রাতিরিক্ত মাদকের প্রভাব[সম্পাদনা]

বেশ কয়েকটি ঔষধের অপব্যবহার বা নেশা, প্রত্যাহার এবং দীর্ঘস্থায়ী ব্যবহার বিষাদের কারণ বা বিষাদগ্রস্থতা বাড়িয়ে তোলে। এর মধ্যে অ্যালকোহল, সিডেটিভস(প্রেসক্রিপশন বেঞ্জোডিয়াজেপাইনস সহ), ওপিওয়েডস(প্রেসক্রিপশন ব্যথা নিরসনকারী এবং হেরোইনের মতো অবৈধ ওষুধ সহ), উত্তেজক (যেমনঃ কোকেইন এবং অ্যাম্ফিটামিনস), হ্যালুসিনোজেনস এবং ইনহ্যালেন্টস অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

শারীরিক অসুস্থতা[সম্পাদনা]

বিষাদগ্রস্থ মেজাজ কিছু শারীরবৃত্তীয় সমস্যার ফলে হতে পারে; যেমনঃ হাইপোইন্ড্রোজেনিজম(পুরুষদের মধ্যে) সহ অ্যাডিসনের রোগ, কুশিং সিনড্রোম, হাইপোথাইরয়েডিজম, হাইপারপ্যারাথাইরয়েডিজম, লাইক ডিজিজ, একাধিক স্ক্লেরোসিস, পার্কিনসন ডিজিজ, দীর্ঘস্থায়ী সহ বিভিন্ন সংক্রামক রোগ, পুষ্টির ঘাটতি, দীর্ঘস্থায়ী ব্যথা, স্ট্রোক, ডায়াবেটিস এবং ক্যান্সার।

সাইকিয়াট্রিক সিন্ড্রোমস[সম্পাদনা]

বেশ কয়েকটি মানসিক রোগ বিষাদগ্রস্থ মেজাজের প্রধান লক্ষণ হিসাবে প্রকাশ পায়। মুড ডিসঅর্ডার হচ্ছে মানুষের মেজাজের প্রাথমিক ব্যাঘাত হিসাবে বিবেচিত একধরণের ব্যাধি। এর মধ্যে রয়েছে মেজর ডিপ্রেশনাল ডিসঅর্ডার(এমডিডি; সাধারণত মেজর ডিপ্রেশন বা ক্লিনিকাল ডিপ্রেশন বলা হয়) যেখানে কোনও ব্যক্তির কমপক্ষে দুই সপ্তাহের বিষাদগ্রস্থ মেজাজ থাকে বা প্রায় সমস্ত কার্যক্রমে আগ্রহ বা আনন্দ হ্রাস পায়; ডিস্থাইমিয়া, দীর্ঘস্থায়ী বিষাদগ্রস্থ মেজাজের একটি অবস্থা, এর লক্ষণগুলো একটি বড় বিষাদের পর্বের তীব্রতার সাথে সামঞ্জস্যপুর্ণ নয়।[৮] অন্য একটি মুড ডিসঅর্ডার, বাইপোলার ডিসঅর্ডারে অস্বাভাবিক উত্থিত মেজাজ, জ্ঞান এবং শক্তির স্তরগুলোর এক বা একাধিক পর্বের বৈশিষ্ট্যযুক্ত, তবে বিষাদের এক বা একাধিক পর্ব জড়িত থাকতে পারে। বিষাদমূলক পর্বগুলোর কার্যধারা যখন একটি কালোচিত নকশা অনুসরণ করে, তখন ডিসঅর্ডার(বড় ধরনের ডিপ্রেশনাল ডিসঅর্ডার, বাইপোলার ডিসঅর্ডার ইত্যাদি) সিজোনাল এফেক্টিভ ডিসঅর্ডার হিসাবে বর্ণনা করা যেতে পারে। মেজাজের ব্যাধিগুলোর বাইরে বর্ডারলাইন পার্সোনালিটি ডিজঅর্ডারটি প্রায়শই একটি অত্যন্ত তীব্র বিষাদগ্রস্থ মেজাজের সৃষ্টি করে।

ঐতিহাসিক উত্তরাধিকার[সম্পাদনা]

গবেষকরা বর্ণবাদ এবং ঔপনিবেশবাদের ঐতিহাসিক উত্তরাধিকারগুলো বিষাদগ্রস্থতা তৈরি করতে পারে এমন ধারণা করতে শুরু করেছেন।

নিয়ন্ত্রন[সম্পাদনা]

রোগীর স্বাস্থ্য প্রশ্নপত্রে বিষাদগ্রস্থতা নিয়ন্ত্রনের জন্য বেক ডিপ্রেশন ইনভেন্টরি-১১ এবং ৯-আইটেম ডিপ্রেশন স্কেল রয়েছে(তা শুধু এখানেই সীমাবদ্ধ নয়)। এই উভয় ব্যবস্থাই মনস্তাত্ত্বিক পরীক্ষা যা অংশগ্রহণকারীদের ব্যক্তিগত প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করে এবং বেশিরভাগ প্রশ্ন বিষাদের তীব্রতা পরিমাপ করতে ব্যবহৃত হয়। বেক ডিপ্রেশন ইনভেন্টরি(বিডিআই) একটি স্ব-প্রতিবেদন স্কেল যা কোনো চিকিৎসককে হতাশার লক্ষণগুলো সনাক্ত করতে এবং এর পুনরুদ্ধার পর্যবেক্ষণ করতে সহায়তা করে। বেশ কয়েকটি গবেষণায়, স্বাস্থ্যসম্মত ব্যক্তিরা যারা মানসিক ব্যাধি হিসাবে বিষাদগ্রস্থতায় ভুগছেন না, তবে মাঝে মাঝে মেজাজের ব্যাধি হিসাবেও এই ব্যবস্থাগুলো ব্যবহার করেছেন। এ বিষয়টি দ্বারা প্রমাণিত হয় যে, মানসিক ব্যাধি হিসাবে এটি হালকা বিষাদ এবং নিম্ন স্তরের মানসিক ব্যাধির মতো একই ধরনের লক্ষণ দেখায় যেমনঃ বড় অবসাদগ্রস্থ ব্যাধি; অতএব, গবেষকরা একই পরিমাপের বিনিময়ে তা ব্যবহার করতে সক্ষম হন। স্কেলের ক্ষেত্রে, অংশগ্রহণকারীরা যথাক্রমে ০-১৩ এবং ০-৪ এর মধ্যে সাফল্যাঙ্ক করা ব্যক্তি স্বাস্থ্যকর ব্যক্তি হিসাবে বিবেচিত হয়।[৯]

বিষাদগ্রস্থ মেজাজ নিয়ন্ত্রনের আর একটি উপায় হল আইডাব্লিউপি মাল্টি-ইফেক্ট ইন্ডিকেটর। এটি একটি মনস্তাত্ত্বিক পরীক্ষা যা উৎসাহ এবং হতাশার মতো বিভিন্ন আবেগকে নির্দেশ করে এবং অংশগ্রহণকারীরা গত সপ্তাহে যে অনুভূতিগুলো অনুভব করেছিল তার মাত্রা জানতে চায়। এমন অধ্যয়ন রয়েছে যেগুলো আইডাব্লিউপি মাল্টি-ইফেক্ট ইন্ডিকেটর থেকে কম বস্তু ব্যবহার করে যা সাপ্তাহিক অনুভুতির মাত্রা থেকে কমিয়ে দৈনিক অনুভুতির মাত্রার হিসাব করে।[১০]

সম্পৃক্তি[সম্পাদনা]

মদ্যাশক্তি[সম্পাদনা]

অ্যালকোহল উপশমকারী হতে পারে যা মস্তিষ্কের কিছু অঞ্চলকে(প্রিফ্রন্টাল এবং টেম্পোরাল কর্টেক্সকে) ধীর করে দেয়, যা মানুষের যুক্তিবাদী চিন্তা এবং স্মৃতিশক্তিকে প্রভাবিত করে। এটি মানুষের মস্তিস্কে সেরোটোনিনের পরিমান হ্রাস করে, যা বিষাদগ্রস্থ মেজাজের উচ্চতর সম্ভাবনা তৈরি করতে পারে।[১১]

অ্যালকোহল গ্রহণের পরিমাণ, বিষাদগ্রস্থ মেজাজের মাত্রা এবং এটি মদ্যপানের ফলে পরিণতিগুলোর ঝুঁকিগুলোকে কীভাবে প্রভাবিত করে তা নিয়ে কলেজ শিক্ষার্থীদের উপর একটি গবেষণা করা হয়েছিল। গবেষণায় ৪ টি সুপ্ত, পৃথক পৃথক অ্যালকোহল গ্রহণ এবং ডিপ্রেশন স্তরের স্বতন্ত্র পার্শ্বচিত্র ব্যবহৃত হয়েছিল। সামাজিক কারণ এবং স্বতন্ত্র আচরণের সমন্বিত অন্যান্য সূচকগুলোও গবেষণায় বিবেচনায় নেওয়া হয়েছিল। ফলাফলগুলো দেখায় যে, মদ্যপান এর ফলে আবেগ হিসাবে মানসিক চাপের পরিমাণ, ঝুঁকিপূর্ণ আচরণের পরিমাণ এবং পরিণতিকে নেতিবাচকভাবে প্রভাবিত করে, যেখানে প্রতিরক্ষামূলক আচরণগত কৌশলগুলোর সাথে একটি বিপরীত সম্পর্ক থাকে, যা অ্যালকোহল গ্রহণের ক্ষতির হাত থেকে রক্ষার জন্য নিজের দ্বারা নেওয়া আচরণগত পদক্ষেপ। বিষাদগ্রস্থ মেজাজের একটি উচ্চ স্তর থাকা মদ্যপানের বৃহত্তর পরিণতির দিকে পরিচালিত করে।

হুমকি বা ভীতিপ্রদর্শন[সম্পাদনা]

সামাজিক নির্যাতন, যেমনঃ হুমকির মাধ্যমে দুর্বল ব্যক্তিদের একাকী এবং ক্ষতি করার কারণ হিসাবে সংজ্ঞায়িত করা হয়। সামাজিক নির্যাতনের ক্ষতিকর প্রভাব, ভুক্তভোগীর মানসিক স্বাস্থ্য এবং বিষাদগ্রস্ত মেজাজের মধ্যে সম্পর্কের বিষয়ে প্রতিদিন পর্যবেক্ষণ করার জন্য, প্রতিদিনের ক্রিয়াকলাপের সংস্পর্শে আসার সময় ব্যক্তিরা বিষাদগ্রস্থ মেজাজের উচ্চ স্তরের নেতিবাচক আচরন হবে কিনা তা নিয়ে একটি গবেষণা চালানো হয়েছিল। ফলাফলটি এই উপসংহারে এসেছিল যে, হুমকি বা সামাজিক নির্যাতন বিষাদগ্রস্থতার কারণের সাথে সম্পৃক্ত।

সৃজনশীল চিন্তা[সম্পাদনা]

বিবিধ চিন্তাভাবনা এমন একটি চিন্তার প্রক্রিয়া হিসাবে সংজ্ঞায়িত করা হয় যা অনেকগুলো সম্ভাব্য সমাধান অন্বেষণ করে ধারণাগুলোতে সৃজনশীলতা তৈরি করে। বিষাদগ্রস্থ মেজাজ এর ফলে বিবিধ চিন্তার সম্ভাবনা উল্লেখযোগ্যভাবে হ্রাস পায়, কারণ এটি ধারণাগুলোর সাবলীলতা, বৈচিত্র্য এবং মৌলিকতার সীমা হ্রাস করে।[১২]

যাইহোক, কিছু বিষাদগ্রস্থ মেজাজ ব্যাধি সৃজনশীলতার জন্য ইতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে। সর্বাধিক স্তরের সৃজনশীল ব্যক্তিদের সাথে সম্পর্কিত বিভিন্ন গবেষণা এবং তথ্য বিশ্লেষণ করার পরে, ক্রিস্টা টেইলর এই সিদ্ধান্তে উপনীত হয়েছিলেন যে, সৃজনশীলতা এবং বিষাদগ্রস্থ মেজাজের মধ্যে একটি স্পষ্ট ইতিবাচক সম্পর্ক রয়েছে। একটি সম্ভাব্য কারণ হল নিম্ন মেজাজ থাকার কারণে আশেপাশের পরিবেশ থেকে উপলব্ধি এবং শেখার নতুন উপায় হতে পারে, তবে এটি কিছু ডিপ্রেশনাল ডিসঅর্ডারের সাথে অসামঞ্জস্যপুর্ণ। সৃজনশীলতা এবং বিষাদগ্রস্থতার মধ্যে সরাসরি সম্পর্ক অস্পষ্ট রয়ে গেছে, তবে এই পারস্পরিক সম্পর্কের উপর পরিচালিত গবেষণাটি আলোকপাত করেছে যে, যে ব্যক্তিরা হতাশাব্যঞ্জক ব্যাধি নিয়ে লড়াই করছেন তাদের নিয়ন্ত্রণ দলের চেয়ে সৃজনশীলতার উচ্চতর স্তর থাকতে পারে এবং এটি নিরীক্ষণের জন্য একটি নিকটতম বিষয় হতে পারে সৃজনশীলতা কীভাবে উপলব্ধি করা হবে এবং দাবি করা হবে তা তার ভবিষ্যতের অবস্থার উপর নির্ভর করে।

মানসিক চাপ ব্যবস্থাপনা কৌশল[সম্পাদনা]

মানসিক চাপ ব্যবস্থাপনা কৌশলগুলোর প্রকার এবং দৈনিক বিষাদগ্রস্থ মেজাজের স্তরের মধ্যে সংযোগের অভিজ্ঞতাগত প্রমাণ রয়েছে।

সমস্যা-কেন্দ্রিক মোকাবেলা নিম্ন স্তরের বিষাদকে বাড়িয়ে তুলে। সমস্যার উপর দৃষ্টি নিবদ্ধ করা পরিস্থিতিকে উদ্দেশ্যহীন উপায়ে দেখার সুযোগ দেয়, পক্ষপাতহীন উপায়ে হুমকির তীব্রতা মূল্যায়ন করে, ফলে এটি বিষাদজনক প্রতিক্রিয়া হওয়ার সম্ভাবনা হ্রাস করে। অন্যদিকে, আবেগ-কেন্দ্রিক মোকাবিলা মানসিক চাপের পরিস্থিতিতে বিষাদগ্রস্থ মেজাজকে উৎসাহ দেয়। কোনো ব্যক্তি অত্যধিক অপ্রাসঙ্গিক তথ্যের ফলে মানসিকভাবে ক্লান্ত হয়ে পড়ে এবং সমস্যার সমাধানের জন্য মনোযোগ হারিয়ে ফেলে। ফলে সম্ভাব্য পরিণতিগুলো বিবেচনা করতে পারে না এবং বিকল্পটি চয়ন করে যা মানসিক চাপ হ্রাস করে এবং সুস্থ চিন্তাভাবনা সর্বাধিকতর করে তোলে।[১৩]

ব্যবস্থাপনা[সম্পাদনা]

বিষাদগ্রস্থ মেজাজের জন্য বৃত্তিমূলক চিকিৎসার প্রয়োজন হয় না, এবং এটি জীবনের ঘটনাগুলোর জন্য একটি সাধারণ অস্থায়ী প্রতিক্রিয়া, কিছু মানসিক অবস্থার লক্ষণ, বা কিছু ঔষধ বা চিকিৎসার পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া হতে পারে। কোনো দীর্ঘস্থায়ী বিষাদগ্রস্থ মেজাজ, বিশেষত অন্যান্য উপসর্গগুলোর সাথে, মানসিক চিকিৎসার দিকে পরিচালিত করতে পারে যে, চিকিৎসার ফলে রোগী উপকৃত হতে পারে। ইউকে ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট ফর হেলথ অ্যান্ড কেয়ার এক্সিলেন্স(এনআইসিস) ২০০৯ এর নির্দেশিকায় জানায় যে, এন্টিডিপ্রেসেন্টগুলোকে হালকা বিষাদের প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য নিয়মিত ব্যবহার করা উচিত নয়, কারণ এর ঝুঁকি-উপকারিতা অনুপাতটি খুব কম। শারীরিক ক্রিয়াকলাপ বিষাদ উত্থানের বিরুদ্ধে প্রতিরক্ষামূলক প্রভাব ফেলতে পারে।[১৪]

শারীরিক ক্রিয়াকলাপের ফলে মস্তিষ্কে নিউরোট্রফিক প্রোটিনগলো প্রকাশের কারণে বিষাদের লক্ষণগুলো হ্রাস করতে পারে যা বিষাদের কারণে হ্রাসপ্রাপ্ত হিপ্পোক্যাম্পাসকে পুনর্নির্মানে সহায়তা করে। এছাড়াও যোগব্যায়াম বিষাদগ্রস্থ রোগীদের জন্য একটি সহায়ক চিকিৎসার বিকল্প হিসাবে বিবেচনা করা যেতে পারে।

বিষাদের চিকিৎসার আরও একটি বিকল্প রূপ হচ্ছে পুরানো এবং শৌখিন স্মৃতিগুলোকে স্মরণ করিয়ে দেওয়া, বিশেষত প্রবীণদের যারা দীর্ঘকাল বেঁচে আছেন এবং জীবনে অনেক অভিজ্ঞতা অর্জন করেছেন। এটি এমন একটি পদ্ধতি যা কোনো ব্যক্তিকে তার জীবনের স্মৃতিগুলো স্মরণ করতে বাধ্য করে, যা স্ব-স্বীকৃতি এবং নিজস্ব উদ্দীপনা সনাক্তকরণের প্রক্রিয়া তৈরি করে। নিজের অতীত এবং পরিচয় বজায় রেখে, এটি এমন একটি পদ্ধতি যা তাদের জীবনকে আরও উদ্দেশ্যমূলক এবং সুষম দৃষ্টিভঙ্গিতে দেখতে উৎসাহিত করে, যার ফলে তাদের জীবনের গল্পগুলোতে ইতিবাচক তথ্যের প্রতি মনোযোগ দিতে পারে, যা বিষাদগ্রস্থ মেজাজের স্তরগুলোকে সাফল্যের সাথে হ্রাস করতে পারে।[১৫]

পরিসংখ্যান[সম্পাদনা]

বিষাদ বিশ্বব্যাপী প্রতিবন্ধকতার অন্যতম প্রধান কারণ, জাতিসংঘের(ইউএন) স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে যে, এটি বিশ্বব্যাপী ৩০০ মিলিয়নেরও বেশি লোককে প্রভাবিত করে; তাদের বেশিরভাগই নারী, তরুণ এবং প্রবীণ। ইউএন ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশন(ডব্লিউএইচও) দ্বারা প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনে বলা হয়েছে যে, বিশ্বব্যাপী আনুমানিক প্রায় ৪.৪ শতাংশ মানুষ বিষাদে ভুগছে, যা ২০০৫ থেকে ২০১৫ সালের মধ্যে বিষাদে আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা থেকে ১৮ শতাংশ বেশী।[১৬]

বিশ্ব স্বাস্থ্য প্রসঙ্গে[সম্পাদনা]

বর্তমানে বৈশ্বিক মানসিক রোগের প্রধান কারণ বিষাদগ্রস্থতা। মানুষের স্বাস্থ্যের জন্য এর পরিণতি উল্লেখযোগ্য বোঝা নিয়ে আসে, যার মধ্যে ডিমেনশিয়া হওয়ার উচ্চ ঝুঁকি, শারীরিক ব্যাধি থেকে উদ্ভূত অকালমৃত্যু এবং শিশুর বৃদ্ধি ও বিকাশের উপর মাতৃ হতাশার প্রভাব অন্যতম। নিম্ন ও মধ্যম আয়ের দেশগুলোতে বিষাদগ্রস্থ মানুষের প্রায় ৭৬% থেকে ৮৫% চিকিৎসা পাচ্ছে না; চিকিৎসার ক্ষেত্রে বাধাগুলোর মধ্যে রয়েছে: ভুল মূল্যায়ন, প্রশিক্ষিত স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারীদের অভাব, সামাজিক কলঙ্ক এবং সংস্থানের অভাব।[১৭]

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা মানসিক, স্নায়বিক এবং বস্তু ব্যবহারের ব্যাধিগুলোর সাথে মানসিক স্বাস্থ্য গ্যাপ অ্যাকশন প্রোগ্রাম(এমএইচজিএপি) নামে পরিচিত মানুষের জন্য পরিষেবা বাড়ানোর লক্ষ্যে নির্দেশিকা তৈরি করেছে।[১৮] উক্ত কর্মসূচী দ্বারা বিষাদকে অগ্রাধিকার দেওয়া শর্তগুলোর একটি হিসাবে তালিকাভুক্ত করা হয়। কিছু পরীক্ষা পরিচালিত করার মাধ্যমে কর্মসূচীটি বাস্তবায়নের সম্ভাব্যতা দেখা যায়। উক্ত কর্মসূচীতে বিভিন্ন থেরাপির মধ্যে বিষাদকে কেন্দ্র করে পেরিনিটাল বিষাদ মোকাবেলায় জ্ঞানমূলক আচরনগত থেরাপি প্রয়োগ করা হয়। তদতিরিক্ত, চিকিৎসার উপলব্ধির জন্য প্রাথমিক যত্নে ইফেক্টিভ স্ক্রিনিং অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এমএইচজিএপি কর্মসূচী সাধারণ অনুশীলনকারীদের প্রশিক্ষণ দিয়ে বিষাদ সনাক্তকরণের হার উন্নত করার প্রক্রিয়া গ্রহণ করেছে। যাইহোক, এখনও এই প্রশিক্ষণের সমর্থন দুর্বল।[১৯]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Zwart, P. L. de; Jeronimus, B. F.; Jonge, P. de (2019/10)। "Empirical evidence for definitions of episode, remission, recovery, relapse and recurrence in depression: a systematic review"Epidemiology and Psychiatric Sciences (ইংরেজি ভাষায়)। 28 (5): 544–562। আইএসএসএন 2045-7960ডিওআই:10.1017/S2045796018000227  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |তারিখ= (সাহায্য)
  2. Gilbert, Paul; Gilbert, Paul (২০০৭)। Psychotherapy and counselling for depression (English ভাষায়)। Los Angeles: SAGE। আইএসবিএন 978-1-84920-349-4ওসিএলসি 436076587 
  3. "ডিপ্রেশন"বিজ্ঞান - বাংলা ভাষায় বিজ্ঞান জনপ্রিয়করণের এক বৈদ্যুতিন মাধ্যম (An online Bengali Popular Science magazine) (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৬-০৮-১৫। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১০-০৬ 
  4. Heim, Christine; Newport, D. Jeffrey; Mletzko, Tanja; Miller, Andrew H.; Nemeroff, Charles B. (২০০৮-০৭-০১)। "The link between childhood trauma and depression: Insights from HPA axis studies in humans"Psychoneuroendocrinology (ইংরেজি ভাষায়)। 33 (6): 693–710। আইএসএসএন 0306-4530ডিওআই:10.1016/j.psyneuen.2008.03.008 
  5. Lindert, Jutta; von Ehrenstein, Ondine S.; Grashow, Rachel; Gal, Gilad; Braehler, Elmar; Weisskopf, Marc G. (২০১৪-০৪-০১)। "Sexual and physical abuse in childhood is associated with depression and anxiety over the life course: systematic review and meta-analysis"International Journal of Public Health (ইংরেজি ভাষায়)। 59 (2): 359–372। আইএসএসএন 1661-8564ডিওআই:10.1007/s00038-013-0519-5 
  6. "সাইকোলোজিক্যাল মেডিসিন" 
  7. "Mild, Moderate, or Severe Depression? How to Tell the Difference"Healthline (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৭-০৩-২৭। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১০-০৬ 
  8. Vieweg, W. Victor R.; Julius, Demetrios A.; Fernandez, Antony; Beatty-Brooks, Mary; Hettema, John M.; Pandurangi, Anand K. (2006-05)। "Posttraumatic Stress Disorder: Clinical Features, Pathophysiology, and Treatment"The American Journal of Medicine119 (5): 383–390। আইএসএসএন 0002-9343ডিওআই:10.1016/j.amjmed.2005.09.027  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |তারিখ= (সাহায্য)
  9. Geisner, Irene M.; Mallett, Kimberly; Varvil-Weld, Lindsey; Ackerman, Sarah; Trager, Bradley M.; Turrisi, Rob (2018-3)। "An Examination of Heavy Drinking, Depressed Mood, Drinking Related Constructs, and Consequences among High-Risk College Students using a Person-Centered Approach"Addictive behaviors78: 22–29। আইএসএসএন 0306-4603ডিওআই:10.1016/j.addbeh.2017.10.022পিএমআইডি 29121529পিএমসি 5783735অবাধে প্রবেশযোগ্য  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |তারিখ= (সাহায্য)
  10. Hoprekstad, Øystein Løvik; Hetland, Jørn; Bakker, Arnold B.; Olsen, Olav Kjellevold; Espevik, Roar; Wessel, Martin; Einarsen, Ståle (২০১৯)। "How long does it last? Prior victimization from workplace bullying moderates the relationship between daily exposure to negative acts and subsequent depressed mood"1359-432Xআইএসএসএন 1359-432X 
  11. "Your Brain on Alcohol"Psychology Today (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১০-০৬ 
  12. Mélendez, Juan Carlos; Alfonso-Benlliure, Vicente; Mayordomo, Teresa (12 2018)। "Idle minds are the devil's tools? Coping, depressed mood and divergent thinking in older adults"Aging & Mental Health22 (12): 1606–1613। আইএসএসএন 1364-6915ডিওআই:10.1080/13607863.2017.1387765পিএমআইডি 29052429  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |তারিখ= (সাহায্য)
  13. Mélendez, Juan Carlos; Alfonso-Benlliure, Vicente; Mayordomo, Teresa (12 2018)। "Idle minds are the devil's tools? Coping, depressed mood and divergent thinking in older adults"Aging & Mental Health22 (12): 1606–1613। আইএসএসএন 1364-6915ডিওআই:10.1080/13607863.2017.1387765পিএমআইডি 29052429  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |তারিখ= (সাহায্য)
  14. "আমেরিকান জার্নাল ওফ সাইকিয়াট্রি" (PDF) 
  15. Viguer, Paz; Satorres, Encarna; Fortuna, Flor B.; Meléndez, Juan C. (২০১৭-১১-১৭)। "A Follow-Up Study of a Reminiscence Intervention and Its Effects on Depressed Mood, Life Satisfaction, and Well-Being in the Elderly"The Journal of Psychology151 (8): 789–803। আইএসএসএন 1940-1019ডিওআই:10.1080/00223980.2017.1393379পিএমআইডি 29166223 
  16. "UN health agency reports depression now 'leading cause of disability worldwide'"UN News (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৭-০২-২৩। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১০-০৬ 
  17. "Depression"www.who.int (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১০-০৬ 
  18. "Depression"www.who.int (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১০-০৬ 
  19. Reynolds, Charles F.; Patel, Vikram (2017-10)। "Screening for depression: the global mental health context"World Psychiatry16 (3): 316–317। আইএসএসএন 1723-8617ডিওআই:10.1002/wps.20459পিএমআইডি 28941110পিএমসি 5608832অবাধে প্রবেশযোগ্য  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |তারিখ= (সাহায্য)

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

  • উইকিমিডিয়া কমন্সে বিষাদ সম্পর্কিত মিডিয়া দেখুন


শ্রেণীবিন্যাস