কাশ বাজরাল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

কাশ বাজরাল
Indian Purple Emperor
Partially open wing position of Mimathyma ambica Kollar, 1844 – Indian Purple Emperor WLB IMG 9284 39.jpg
ডানা বন্ধ অবস্থায়
Open wing position of Mimathyma ambica Kollar, 1844 – Indian Purple Emperor.jpg
ডানা খোলা অবস্থায়
বৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ: Animalia
পর্ব: Arthropoda
শ্রেণী: Insecta
বর্গ: Lepidoptera
পরিবার: Nymphalidae
গণ: Mimathyma
প্রজাতি: M. ambica
দ্বিপদী নাম
Mimathyma ambica
(Kollar, 1844)
প্রতিশব্দ

Apatura ambica

কাশ বাজরাল[১](বৈজ্ঞানিক নাম: Mimathyma ambica (Kollar)) এক মাঝারী আকারের প্রজাপতি। এরা নিমফ্যালিডি পরিবার এবং আপাটুরিনি উপগোত্রের সদস্য।

আকার[সম্পাদনা]

কাশ বাজরাল এর প্রসারিত অবস্থায় ডানার আকার ৬৫-৭৫মিলিমিটার দৈর্ঘ্যের হয়। [২]

উপপ্রজাতি[সম্পাদনা]

ভারতে প্রাপ্ত কাশ বাজরাল এর উপপ্রজাতিসমূহ হল-[৩]

  • Mimathyma ambica chitralensis Evans, 1912 – West Himalayan Purple Emperor
  • Mimathyma ambica ambica Kollar, 1844 – East Himalayan Purple Emperor

বিস্তার[সম্পাদনা]

পশ্চিমবঙ্গে উপস্থিতি[সম্পাদনা]

কলকাতা এবং পার্শব্ব্ররতী অঞ্চল উত্তরবঙ্গ এবং পার্শব্ব্ররতী অঞ্চল
দেখা মেলে না অতি দুর্লভ

বর্ণনা[সম্পাদনা]

প্রজাপতির দেহাংশের পরিচয় বিষদ জানার জন্য প্রজাপতির দেহ এবং ডানার অংশের নির্দেশিকা দেখুন:-

পুরুষ[সম্পাদনা]

ডানার উপরিপৃষ্ঠর মূল রঙ বাদামী কালো একটি সাদা চওড়া ভিতরের দিকে তেরচা ডিসকাল বন্ধনী সামনের ডানার ৩নং শিরা থেকে শুরু হয়ে পিছনের ডানার ১নং শিরা অবধি বিস্তৃত রয়েছে। এই শ্বেত বন্ধনীটির উভয় প্বার্শে চমতকার উজ্জবল ঝলমলে নীল রঙের চওড়া বর্ডার চোখে পড়ে। সামনের ডানার ৩, ৪ এবং ৫ নং ইন্টারস্পেসে বাইরের দিকে তেরচা ভাবে অবস্থিত ৩টি সাদা ছোপ বিদ্যমান যেগুলির সাথে উপরিলিখিত শ্বেত বন্ধনীটি যুক্ত হয়েছে। সামনের ডানায় ৩টি ক্ষুদ্র প্রি-এপিকাল ছোপ এবং একসারি সাব-টার্মিনাল অস্পষ্ট বন্দু লক্ষ করা যায়। পিছনের ডানার সাব-টার্মিনাল সাদা দাগের ৯ সামান্য বাঁকা) সারি তুলনামূলকভাবে অধিক স্পষ্ট। পিছনের ডানায় একটি এপিকাল এবং একটি টার্নাল ইষদ হলদে ছোপ রয়েছে।

ডানার নিম্নপৃষ্ঠর মূল রঙ ইষদ নীলচে এবং সবজে সাদা। উপরিপৃষ্ঠের সাদা ডিসকাল বন্ধনী এবং ছোপগুলি নিম্নপৃষ্ঠ থেকেও দেখা যায় ডানা ইষদ স্বচ্ছ হবার কারনে। সামনের ডানার উজ্জ্বল বাদামী ডিসকাল বন্ধনী এবং ছোপগুলি কালো রঙ দ্বারা সীমায়ীত (বর্ডারড)। সেল এর মধ্যে কিছু কালো দাগ চোখে পড়ে। সামনের ডানার কোস্টা থেকে টর্নাস পর্যন্ত তেরচা ভাবে বিস্তৃত একটি পোস্ট ডিসকাল ইষদ চওড়া বন্ধনী এবং শীর্ষভাগ থেকে শুরু হওয়া টার্মিনাল বন্দনী দেখা যায়-উভয়েরই রঙ উজ্জ্বল বাদামী। প্রথম উল্লিখিত বন্ধনীটির শেষে টর্নাসে অবস্থিত একটি ফিকে হলুদ দাগ অথবা পটি বিদ্যমান যার মধ্যে একটি কালো ছোপ এবং বাইরের দিকে কিছু কালো দাগ লক্ষ্য করা যায়। টার্মিনাল বন্ধনীটির শেষে টর্নাস অংশে সাদা ছোপ রয়েছে।

পিছনের ডানার শীর্ষভাগ থেকে টর্নাস পর্যন্ত একটি ইষদ চওড়া তেরচা অথচ সোজা পোস্টডিসকাল বন্দনী এবং শীর্যভাগ থেকে শুরু করে একটি ইষদ চওড়া টার্মিনাল বন্ধনী বিদ্যমান; উভয়েই সামনের ডানার বন্ধনী দুটির ন্যায় উজ্জ্বল বাদামী বর্নের একটি সাদা সীমা যুক্ত কালো সাব টর্নাল ছোপ এবং ২ নং ইন্টারস্পেসে উজ্জ্বল বাদামী রঙের পোস্টডিসকাল বন্ধনীর উপরে অপর একটি একই রকম ছোপ বিদ্যমান। শুংগ বাদামী বর্ণের, মাথা, থোরাক্স এবং উদরদেশর উপরিপৃষ্ঠ বাদামী এবং নিম্নপৃষ্ঠ সাদা রঙের হয়।[৪]

স্ত্রী[সম্পাদনা]

পুরুষ কাশ বাজরাল নমুনার অনুরূপ এবং একইরকম দাগ, ছোপ এবং বন্ধনীযুক্ত, তবে পার্থক্য বলতে স্ত্রী নমুনাতে ডানার উপরিতলের মূল রঙ ধূসর বাদামী এবং দাগ ছোপগুলি্র রঙ হলদেটে সাদা।[৪]

আচরণ[সম্পাদনা]

পুরুষ কাশ বাজরালের ডানার চকচকে নীল বর্ণের জন্য এদের অন্য প্রজাতির তুলনায় আকর্ষনীয় করে তুলেছে। এরা খুব দ্রুত উড়ান পছন্দ করে। স্ত্রী এবং পুরুষ কাশ বাজরালদের ছোট নালা অথবা ঝরনার ধারে, তাদের ডানা মেলে বসে থাকতে দেখা যায়। এরা জলের আশেপাশে জায়গায় উড়তে ভালোভাসে এবং উড়ানের মাঝে মাঝে পাথরের উপর বসে বিশ্রাম নিতে থাকে। কাশ বাজরালদের উঁচুতে বসে রৌদ্র পোহাতে দেখা যায়।[১]

বৈশিষ্ট্য[সম্পাদনা]

ডিম[সম্পাদনা]

শূককীট[সম্পাদনা]

আহার্য উদ্ভিদ[সম্পাদনা]

এই শূককীট Ulmus wallichiana গাছের কচি পাতার রসালো অংশ আহার করে।[১]

মূককীট[সম্পাদনা]

চিত্রশালা[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. A Pictorial Guide Butterflies of Gorumara National Park (2013 সংস্করণ)। Department of Forests Government of West Bengal। পৃষ্ঠা ২৩৮। 
  2. Kunte, Krushnamegh (২০১৩)। Butterflies of The Garo Hills। Dehradun: Samrakshan Trust, Titli Trust and Indian Foundation of Butterflies। 
  3. "Mimathyma ambica Kollar, 1844 – Indian Purple Emperor"। সংগ্রহের তারিখ ৩ অক্টোবর ২০১৬ 
  4. Isaac, Kehimkar (২০১৬)। BHNS Field Guides Butterflies of India। Mumbai: Bombay Natural History Society। পৃষ্ঠা ৪৪৪। আইএসবিএন 9789384678012 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]