হিমলকুচি (প্রজাপতি)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে


হিমলকুচি
(Blue Tiger)
Blue tiger (Tirumala limniace).jpg
বৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ/রাজ্য: Animalia
পর্ব: Arthropoda
শ্রেণী: Insecta
বর্গ: Lepidoptera
পরিবার: Nymphalidae
গণ: Tirumala
প্রজাতি: T. limniace
দ্বিপদী নাম
Tirumala limniace
(Cramer, [1775])
Subspecies

See text

Tirumala limniace - Distribution.png
প্রতিশব্দ
  • Papilio limniace Cramer, [1775]
  • Danais limniace fruhstorferi van Eecke, 1915
  • Danaida limniace kuchingana Moulton, 1915

হিমলকুচি (বৈজ্ঞানিক নাম: Tirumala limniace exuticus) যা নীল ডোরা বা নীল বাঘ হিসেবেও পরিচিত, এক প্রজাতির মাঝারি আকারের প্রজাপতি। এরা ‘নিমফ্যালিডি’ পরিবারের সদস্য এবং 'ডানায়িনি' উপগোত্রের অন্তর্ভুক্ত।[১] এদের ভারতে দেখতে পাওয়া যায় এবং এরা যূথচর পরিযায়ী আচরণ করে থাকে।

উপপ্রজাতি[সম্পাদনা]

ক্রমানুযায়ী এর উপপ্রজাতিগুলো হলোঃ[২]

  • T. l. bentenga (Martin, 1910) – Selajar
  • T. l. conjuncta Moore, 1883 – জাভা, বালি, Kangean, Bawean, Lesser Sunda Is.
  • T. l. exotica (Gmelin, 1790)
  • T. l. ino (Butler, 1871) – সুলা
  • T. l. leopardus (Butler, 1866) – Ceylon, ভারত - S.Burma
  • T. l. limniace (Cramer, [1775]) – S.China, Indo-China, Hainan, Taiwan
  • T. l. makassara (Martin, 1910) – S.Sulawesi
  • T. l. orestilla (Fruhstorfer, 1910) – Philippines (Luzon)
  • T. l. vaneeckeni <small:(Bryk, 1937) – Timor, Wetar

আকার[সম্পাদনা]

প্রসারিত অবস্থায় হিমলকুচির ডানার আকার ৯০-১০০ মিলিমিটার দৈর্ঘের হয়।

বিস্তার[সম্পাদনা]

সাধারণত এই জাতীয় প্রজাপতিটি মরু অঞ্চল ও হিমালয়ের অত্যাধিক উচ্চতা ছাড়া প্রায় সর্বত্র দেখা যায়, বিশেষত সমভূমিতে। হিমলকুচিরা সচরাচর হাল্কা জঞ্জল ও অনুচ্চ ঝোপঝাড় এবং এরা ছাওয়া পরিবেশ পছন্দ করে। এছাড়া শ্রীলঙ্কা, নেপাল, বাংলাদেশ মায়ানমার এবং হংকং এও এদের দেখা পাওয়া যায়। [৩]

বৈশিষ্ট্য[সম্পাদনা]

Imago on Indian Turnsole (হাতিশুঁড়) Heliotropium indicum at Pocharam Lake, Andhra Pradesh,India
  • হিমলকুচির ডিম চকচকে রূপালি সাদা বর্নের আবার কখনও কখনও হলদেটে বর্নের হয়। দেখতে গম্বুজাকৃতি এবং অল্প লম্বাটে, গায়ে ওপর-নীচে শির টানা।
  • শূককীট গুলি লম্বাটে আকারের এবং এদের গায়ে পর পর নীলচে সাদা, কালো ও সবজেটে হলুদ রঙের বেড় দেখা যায়। দেহের তৃতীয় এবং দ্বাদশ খন্ডে দুই জোড়া মাংসল শুঁড় দেখা যায়, যেটি অরা ইচ্ছামত নাড়াতে পারে।এই শূককীট হাতিশুঁড় Heliotropium indicum, অতসী, আকন্দ Calotropis gigantea, অন্তমূল Tylophora গোত্রের উদ্ভিদ Tylophora asthmatica এবং Asclepiadacea গোত্রের বিভিন্ন উদ্ভিদ যেমন ইপিকাক বা মরিচা ফুল Asclepias curassavica গাছের পাতার রসালো অংশ আহার করে।
  • মূককীট এর রঙ উজ্জ্বল সবুজ হয় এবং গায়ে সোনালি বিন্দু বিন্দু থাকে। দেহখন্ডের মাঝামাঝি একটা সোনালি বিন্দুর রেখা দেখা যায়।

চিত্রশালা[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. সুন্দরবনের নীল বাঘ, আ ন ম আমিনুর রহমান, দৈনিক প্রথম আলো। ঢাকা থেকে প্রকাশের তারিখ: আগস্ট ১৫, ২০১৩ খ্রিস্টাব্দ।
  2. Tirumala limniace. funet.fi
  3. Dāśagupta, Yudhājit̲̲̲̲̲̲a (২০০৬)। Paścimabaṅgera prajāpati (1. saṃskaraṇa. সংস্করণ)। Kalakātā: Ānanda। পৃ: 112। আইএসবিএন 81-7756-558-3 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]