ইব্রাহিম মাকা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ইব্রাহিম মাকা
ইব্রাহিম মাকা.jpg
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামইব্রাহিম সুলেমান মাকা
জন্ম(১৯২২-০৩-০৫)৫ মার্চ ১৯২২
দামান, ব্রিটিশ ভারত
মৃত্যু৭ নভেম্বর ১৯৯৪(1994-11-07) (বয়স ৭২)
দামান, গুজরাত, ভারত
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
ভূমিকাউইকেট-রক্ষক
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ৬৭)
২৮ নভেম্বর ১৯৫২ বনাম পাকিস্তান
শেষ টেস্ট১৯ ফেব্রুয়ারি ১৯৫৩ বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ৩৪
রানের সংখ্যা ৬০৭
ব্যাটিং গড় - ১৫.৫৬
১০০/৫০ ০/০ ০/২
সর্বোচ্চ রান ২* ৬৬*
বল করেছে - -
উইকেট - -
বোলিং গড় - -
ইনিংসে ৫ উইকেট - -
ম্যাচে ১০ উইকেট - -
সেরা বোলিং - -
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ২/১ ৫৮/২৭

ইব্রাহিম সুলেমান মাকা (এই শব্দ সম্পর্কেউচ্চারণ ; মারাঠি: इब्राहीम माका; জন্ম: ৫ মার্চ, ১৯২২ - মৃত্যু: ৭ নভেম্বর, ১৯৯৪) তৎকালীন ব্রিটিশ ভারতের বলসাদের কাছাকাছি দামান এলাকায় জন্মগ্রহণকারী ভারতীয় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার ছিলেন। ভারত ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৯৫২ থেকে ১৯৫৩ সময়কালে সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্যে ভারতের পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন।

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ভারতীয় ক্রিকেটে গুজরাতমুম্বই দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। দলে তিনি মূলতঃ উইকেট-রক্ষক হিসেবে খেলতেন। এছাড়াও, ডানহাতে নিচেরসারিতে ব্যাটিং করতেন ইব্রাহিম মাকা

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট[সম্পাদনা]

দরিদ্র পরিবারের সন্তান ছিলেন তিনি। তার পিতা কার্গো জাহাজের সারেং ছিলেন ও মাসিক र১৫০ রূপি আয় করতেন। বোম্বের ক্রফোর্ড মার্কেটের কাছাকাছি এলাকায় দশ সদস্যের পরিবারটি থাকতো।[১]

১৯৪১-৪২ মৌসুম থেকে ১৯৬২-৬৩ মৌসুম পর্যন্ত ইব্রাহিম মাকা’র প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন চলমান ছিল। দুই দশকের অধিক সময় প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অংশ নিয়েছেন তিনি। এ পর্যায়ে ৮৫টি ডিসমিসালের মধ্যে কটের সংখ্যা ছিল ৫৯টি।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে দুইটিমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণ করেছেন ইব্রাহিম মাকা। ২৮ নভেম্বর, ১৯৫২ তারিখে চেন্নাইয়ে সফরকারী পাকিস্তান দলের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। এরপর, ১৯ ফেব্রুয়ারি, ১৯৫৩ তারিখে পোর্ট অব স্পেনে স্বাগতিক ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের বিপক্ষে সর্বশেষ টেস্টে অংশ নেন তিনি।

ইব্রাহিম মাকা এমন এক সময়ে ভারতীয় ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছিলেন যখন তার মানের অনেক উইকেট-রক্ষকের প্রাচুর্যতা ছিল। ১৯৫২-৫৩ মৌসুমে পাকিস্তান দল ভারত গমন করে। পাকিস্তানের ইতিহাসের অভিষেক সিরিজের চতুর্থ টেস্টে তিনি প্রথম টেস্ট খেলতে নামেন। দল নির্বাচকমণ্ডলী পূর্ববর্তী টেস্টগুলোয় প্রবীর সেন, নানা জোশীবিজয় রাজিন্দারনাথকে খেলিয়েছিল। প্রথমবারের মতো খেলতে নামা বৃষ্টিবিঘ্নিত মাদ্রাজ টেস্টে দুইটি কট ও একটি স্ট্যাম্পিংসহ মোট তিনটি ডিসমিসালের সাথে স্বীয় নামকে জড়িয়ে রাখেন।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ গমন[সম্পাদনা]

১৯৫২-৫৩ মৌসুমে ভারত দলের সাথে ওয়েস্ট ইন্ডিজ গমন করেন। তিনি নানা জোশী’র সহকারী হিসেবে যান। ব্যাটিংকালে ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান ফাস্ট বোলার ফ্রাঙ্ক কিংয়ের বলে তার ডানহাতের দুইটি হাড় ভেঙে যায়। এ পর্যায়ে তিনি দুই রান সংগ্রহ করেছিলেন। পরবর্তীকালে এটিই তার টেস্টে সর্বোচ্চ সংগ্রহ হিসেবে চিত্রিত হয়ে যায়। ফলশ্রুতিতে, তার পরিবর্তে বিজয় মাঞ্জরেকারকে উইকেট-রক্ষণের দায়িত্ব দেয়া হলে তিনি একটি স্ট্যাম্পিং করেন।

এরপর তিনি আর ঐ সফরের কোন খেলায় অংশ নিতে পারেননি। পাশাপাশি, তার টেস্ট খেলোয়াড়ী জীবনেরও সমাপণ ঘটে। ৭ নভেম্বর, ১৯৯৪ তারিখে ৭২ বছর বয়সে দামান এলাকায় ইব্রাহিম মাকা’র দেহাবসান ঘটে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  • ^ Richard Cashman, Patrons, Players and the Crowd (1979), p. 93

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]