আলফ্রেড মার

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
আলফ্রেড মার
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামআলফ্রেড পার্সি মার
জন্ম(১৮৬২-০৩-২৮)২৮ মার্চ ১৮৬২
পিরমন্ট, সিডনি, অস্ট্রেলিয়া
মৃত্যু১৫ মার্চ ১৯৪০(1940-03-15) (বয়স ৭৭)
আর্নক্লিফ, নিউ সাউথ ওয়েলস, অস্ট্রেলিয়া
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি মিডিয়াম
ভূমিকাবোলার
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
একমাত্র টেস্ট
(ক্যাপ ৩৪)
১ জানুয়ারি ১৮৮৫ বনাম ইংল্যান্ড
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ১৪
রানের সংখ্যা ৩০৪
ব্যাটিং গড় ২.৫০ ১১.২৫
১০০/৫০ ০/০ ০/১
সর্বোচ্চ রান ৬৯
বল করেছে ৪৮ ১২৭২
উইকেট ১৪
বোলিং গড় ৩২.৪২
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ৩/৫০
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ০/০ ৮/০
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ২৯ আগস্ট ২০১৯

আলফ্রেড পার্সি মার (ইংরেজি: Alfred Marr; জন্ম: ২৮ মার্চ, ১৮৬২ - মৃত্যু: ১৫ মার্চ, ১৯৪০) সিডনির পিরমন্ট এলাকায় জন্মগ্রহণকারী প্রথিতযশা অস্ট্রেলীয় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার ছিলেন।[১] অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৮৮৫ সালে সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্যে অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন।

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটে নিউ সাউথ ওয়েলস দলের প্রতিনিধিত্ব করেন।[২] দলে তিনি মূলতঃ ডানহাতি মিডিয়াম বোলার হিসেবে খেলতেন। এছাড়াও, নিচেরসারিতে ডানহাতে কার্যকরী ব্যাটিংশৈলী প্রদর্শন করেছেন আলফ্রেড মার

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

১৮৮২-৮৩ মৌসুম থেকে ১৮৯০-৯১ মৌসুম পর্যন্ত আলফ্রেড মারের প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন চলমান ছিল। নিউ সাউথ ওয়েলসের কার্যকরী ব্যাটসম্যান ও বোলার ছিলেন। তিনবার ইংল্যান্ড গমন করার জন্যে মনোনীত হয়েছিলেন। কিন্তু কোনবারই আমন্ত্রণ বার্তা গ্রহণ করেননি। ১৮৮৫ সালে আর্থার শ্রিউসবারির নেতৃত্বাধীন দলের বিপক্ষে অস্ট্রেলিয়ার সম্মিলিত একাদশের সদস্যরূপে চার খেলার একটিতে অংশ নিয়েছিলেন।

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে একটিমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণ করেছেন আলফ্রেড মার। ১ জানুয়ারি, ১৮৮৫ তারিখে সফরকারী ইংল্যান্ড দলের বিপক্ষে উইলিয়াম ব্রুস, জন ট্রাম্বল, এফি জার্ভিস, রোল্যান্ড পোপ, আলফ্রেড মার, হ্যারি মাসগ্রোভ, জ্যাক ওর‍েল, স্যাম মরিসডিগার রবার্টসনের একযোগে টেস্ট অভিষেক ঘটেছিল।[৩] এটিই তার সর্বশেষ টেস্টে অংশগ্রহণ ছিল। খেলায় তিনি ০ ও ৫ রান তুলেন এবং বল হাতে নিয়ে কোন উইকেটের সন্ধান পাননি। ঐ খেলায় তার দল ১০ উইকেটের ব্যবধানে পরাজিত হয়। এরপর আর তাকে কোন টেস্টে অংশগ্রহণ করতে দেখা যায়নি।

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

৬৭ বছর বয়সেও নিজ শারীরিক সক্ষমতা বজায় রেখেছিলেন। এ সময়ে সিডনিতে অনুষ্ঠিত গ্রেড প্রতিযোগিতায় ১০১ রানের মনোরম ইনিংস উপহার দিয়েছিলেন। ১৫ মার্চ, ১৯৪০ তারিখে ৭৭ বছর বয়সে নিউ সাউথ ওয়েলসের আর্নক্লিফ এলাকায় আলফ্রেড মারের দেহাবসান ঘটে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Australia – Test Batting Averages"। ESPNCricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৯ আগস্ট ২০১৯ 
  2. "List of Players who have played for New South Wales"। www.cricketarchive.com। সংগ্রহের তারিখ ২৯ আগস্ট ২০১৯ 
  3. "England in Australia (1884 – 1885): Scorecard of second Test"। Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ২৯, ২০১৯ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]