আর্নল্ড ফদারগিল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
আর্নল্ড ফদারগিল
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামআর্নল্ড জেমস ফদারগিল
জন্ম(১৮৫৪-০৮-২৬)২৬ আগস্ট ১৮৫৪
নিউক্যাসল আপোন টাইন, নর্দাম্বারল্যান্ড, ইংল্যান্ড
মৃত্যু১ আগস্ট ১৯৩২(1932-08-01) (বয়স ৭৭)
সান্ডারল্যান্ড, কাউন্টি ডারহাম, ইংল্যান্ড
ব্যাটিংয়ের ধরনবামহাতি
বোলিংয়ের ধরনবামহাতি মিডিয়াম-ফাস্ট
ভূমিকাবোলার
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ৬৩)
১২ মার্চ ১৮৮৯ বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা
শেষ টেস্ট২৫ মার্চ ১৮৮৯ বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
১৮৮০–১৮৮৯সমারসেট
১৮৮২–১৮৯২এমসিসি
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ৪০
রানের সংখ্যা ৩৩ ৮৪৩
ব্যাটিং গড় ১৬.৫০ ১৪.০৫
১০০/৫০ ০/০ ০/১
সর্বোচ্চ রান ৩২ ৭৪
বল করেছে ৩২১ ৫,৩৮৩
উইকেট ১১৯
বোলিং গড় ১১.২৫ ১৮.১৮
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ৪/১৯ ৬/৪৩
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ০/– ১৫/–
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ২৯ জানুয়ারি ২০১৯

আর্নল্ড জেমস ফদারগিল (ইংরেজি: Arnold Fothergill; জন্ম: ২৬ আগস্ট, ১৮৫৪ - মৃত্যু: ১ আগস্ট, ১৯৩২) নর্দাম্বারল্যান্ডের নিউক্যাসল আপোন টাইন এলাকায় জন্মগ্রহণকারী প্রথিতযশা ইংরেজ পেশাদার আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার ছিলেন। ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৮৮৯ সময়কালে সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্যে ইংল্যান্ডের পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছিলেন।

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ইংরেজ কাউন্টি ক্রিকেটে সমারসেট ও এমসিসি দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। দলে তিনি মূলতঃ বামহাতি মিডিয়াম-ফাস্ট বোলার হিসেবে খেলতেন। এছাড়াও, নিচেরসারিতে বামহাতে কার্যকরী ব্যাটিংশৈলী উপস্থাপন করতেন আর্নল্ড ফদারগিল

১৮৮০ থেকে ১৮৮৯ সময়কাল পর্যন্ত ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ইংরেজ কাউন্টি ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছিলেন আর্নল্ড ফদারগিল। সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে তিনি মাত্র দুই টেস্টে অংশগ্রহণ করার সুযোগ পেয়েছিলেন। ১২ মার্চ, ১৮৮৯ তারিখে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে আর্নল্ড ফদারগিলের।

ইংল্যান্ডের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় একটি ক্লাবে পেশাদার ক্রিকেটার হিসেবে খেলোয়াড়ী জীবন শুরু করেন আর্নল্ড ফদারগিল। ১৮৮০ সালে সমারসেটের অন্যতম প্রথম পেশাদার খেলোয়াড় হিসেবে যোগদান করেন। তবে, কাউন্টি দলে খেলার যোগ্যতা লাভ করলেও ১৮৮১ সালের অধিকাংশ সময় খেলায় তাকে মাঠে নামানো হয়নি। প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটের প্রথম দুই বছর দলের সর্বাপেক্ষা গুরুত্বপূর্ণ বোলারের মর্যাদা পান। কিন্তু, ই. ডব্লিউ. বাস্টার্ড ও পরবর্তীতে টেড টাইলার এবং স্যামি উডসের ন্যায় উদীয়মান বোলারদের আগমনে ক্লাবে খেলার সুযোগ স্তিমিত হতে থাকে তার। ১৮৮২ সালে লর্ডস ক্রিকেট গ্রাউন্ডের মাঠকর্মী হিসেবে যোগ দেন। ১৮৯২ সাল পর্যন্ত এমসিসি দলের পক্ষে খেলেন। এছাড়াও, লর্ডসে প্রতিনিধিত্বকারী দলের সদস্যরূপে খেলতেন আর্নল্ড ফদারগিল।

১৮৮৮-৮৯ মৌসুমের শীতকালে এমসিসি দলের সদস্যরূপে দক্ষিণ আফ্রিকা গমনের জন্য তাকে দলে অন্তর্ভূক্ত করা হয়। পরবর্তীকালে মর্যাদাপ্রাপ্ত দুইটি টেস্ট খেলায় আর্নল্ড ফদারগিলের অংশগ্রহণ ছিল। তবে, উইজডেন ক্রিকেটার্স অ্যালমেনাকের অভিমত, কোনক্রমেই খেলাগুলো প্রথম-শ্রেণীর সমমানের ছিল না।[১] সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে ১১৯টি প্রথম-শ্রেণীর উইকেট লাভ করেন তিনি। তন্মধ্যে, দুই টেস্টে অংশ নিয়ে আটটি উইকেট পান।

শৈশবকাল[সম্পাদনা]

২৬ আগস্ট, ১৮৫৪ তারিখে নর্দাম্বারল্যান্ডের নিউক্যাসল আপোন টাইন এলাকায় আর্নল্ড জেমস ফদারগিলের জন্ম।[২] কাউন্টি দলের পূর্বসূরী ও ব্যক্তি মালিকানাধীন নর্দাম্বারল্যান্ড ক্রিকেট ক্লাবের মাধ্যমে ক্রিকেট খেলোয়াড়ী জীবন শুরু করেন আর্নল্ড ফদারগিল।[৩] ১৮৭০ থেকে ১৮৭৯ সাল পর্যন্ত পেশাদারী পর্যায়ে দলের পক্ষে খেলায় অংশ নিতেন। এছাড়াও, এ সময়ে ১৮৭০ থেকে ১৮৭১ সাল পর্যন্ত বেনওয়েল হাই ক্রস ক্রিকেট ক্লাব ও ১৮৭৯ সালে ম্যানচেস্টার ক্রিকেট ক্লাবে কাজ করতেন তিনি।[৪] এরপর ১৮৮০ সালে সমারসেট ক্লাবে স্থানান্তরিত হন।[৫]

দ্বিতীয় একাদশ[সম্পাদনা]

১৮৭৫ সালে সমারসেট কাউন্টি ক্রিকেট ক্লাব প্রতিষ্ঠিত হয়। শুরুরদিকে ক্লাবটি আর্থিক সঙ্কটে ভুগতে থাকে। তাসত্ত্বেও, আর্নল্ড ফদারগিল ও আলফ্রেড ব্রুকসকে ১৮৮০ সালে ক্লাবের প্রথম পেশাদার ক্রিকেটার হিসেবে নিয়োগ দেয়।[৬] ঐ বছরের জুলাইয়ে কাউন্টি দলের পক্ষে তিনি তার প্রথম খেলায় অংশ নেন। ওয়েস্টন-সুপার-মেয়ার থেকে আগত ষোলজনের দলের বিপক্ষে অংশ নিয়ে খেলায় তেরো উইকেট পান।[৭] ১৮৮০ সালে সমারসেটের পক্ষে নিয়মিতভাবে সকল খেলায় অংশ নেন ও শীর্ষস্থানীয় উইকেট শিকারীতে পরিণত হন। দুইবার মেরিলেবোন ক্রিকেট ক্লাব,[৮] হার্টফোর্ডশায়ার,[৯]লিচেস্টারশায়ারের বিপক্ষে একবার ইনিংসে পাঁচ উইকেট পান তিনি।[১০]

১৮৮১ সালে সমারসেটের বাথে কেন্টের বিপক্ষে খেলার জন্যে মনোনীত হন। তবে, কেন্ট অধিনায়ক রিচার্ড থর্নটন প্রয়োজনীয় যোগ্যতা না থাকার প্রশ্নে ফদারগিলের অংশগ্রহণের বিষয়ে আপত্তি তোলেন। ফলশ্রুতিতে, দলের বাইরে আর্নল্ড ফদারগিলকে অবস্থান করতে হয়। ঐ মৌসুমে তাকে কোন কাউন্টি ক্রিকেট খেলায় দেখা যায়নি। এমসিসি’র বিপক্ষে একবার খেলে প্রথম ইনিংসে চার উইকেট পান ও উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান হিসেবে ৪৭ রান তুলেন।[১১]

কাউন্টি ক্রিকেট[সম্পাদনা]

১৮৮২ সালে লর্ডস ক্রিকেট গ্রাউন্ডের মাঠ কর্মকর্তা হিসেবে আর্নল ফদারগিল যোগদান করেন। মে মাসে এমসিসির সদস্যরূপে ডার্বিশায়ারের বিপক্ষে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। প্রথম ইনিংসে একাধারে বোলিং করে ৫/৩১ পান। এরপর ৭৪ রান তুলেন। এটিই তার খেলোয়াড়ী জীবনের সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত সংগ্রহ ছিল। খেলায় তার দল বিরাট ব্যবধানে জয় তুলে নেয়।[১২] পরের মাসেই সমারসেটের পক্ষে খেলেন। ল্যাঙ্কাশায়ারের বিপক্ষে অনুষ্ঠিত খেলাটি সমারসেটের প্রথমবারের মতো প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট খেলা ছিল। অবশ্য সমারসেট দল বিরাট ব্যবধানে পরাভূত হয়েছিল। খেলায় ফদারগিল তিন উইকেট তুলে নেন ও তিন রান তুলতে সক্ষম হয়েছিলেন।[১৩] ঐ গ্রীষ্মে লর্ডসে অনুষ্ঠিত মর্যাদাপূর্ণ বার্ষিক খেলায় পেশাদার প্লেয়ার্সের সদস্যরূপে খেলার জন্যে মনোনীত হন। খেলায় তিনি খুব কমই প্রভাব ফেলতে সক্ষম হন ও জেন্টলম্যান দল আট উইকেটে জয়ী হয়েছিল।[১৪]

৮৮২ সালে সর্বমোট চৌদ্দটি প্রথম-শ্রেণীর খেলায় অংশ নিয়েছিলেন আর্নল্ড ফদারগিল। ২২.০২ গড়ে ৪৪ উইকেট পান। দুইবার ইনিংসে পাঁচ উইকেট পেয়েছিলেন। ঐ মৌসুমে সমারসেটের সর্বোচ্চ উইকেট সংগ্রাহক হন। পরবর্তী সফলতম বোলার চার্লস উইন্টারের চেয়ে দ্বিগুণেরও অধিক উইকেট পান তিনি।[১৫]

১৮৮৩ সালে আর্নল্ড ফদারগিল প্রতিনিধিত্বমূলক প্রথম খেলায় অংশগ্রহণ করেন।[ক] নর্থ বনাম সাউথের খেলায় সাউথের পক্ষাবলম্বন করেন তিনি।[খ][১৬] সাউথের পক্ষে ফদারগিল একমাত্র ব্যাটসম্যান হিসেবে উভয় ইনিংসে দুই অঙ্কের কোটা স্পর্শ করতে পেরেছিলেন। খেলায় তার দল পরাজিত হয়েছিল।[১৭] এরপর জুলাইয়ের শেষদিকে সমারসেটের খেলায় অংশগ্রহণের পূর্ব-পর্যন্ত তিনি এমসিসি’র পক্ষে খেলতে থাকেন। এ পর্যায়ে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের বিপক্ষে এমসিসি’র সদস্যরূপে পাঁচ উইকেট পান।[১৮] ঐ মৌসুমে দুইবার এ ঘটনার পুণরাবৃত্তি ঘটান। গ্লুচেস্টারশায়ারের বিপক্ষে ৫/২৩[১৯] ও তারপর হ্যাম্পশায়ারের বিপক্ষে ৬/৪৩ পান। এটিই তার খেলোয়াড়ী জীবনের সেরা বোলিং পরিসংখ্যান ছিল। শেষ খেলাটিতে দ্বিতীয় ইনিংসে তিনি আরও চার উইকেট নিয়ে খেলায় দশ উইকেট পান। এটিই তার প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবনের একমাত্র দশ উইকেট প্রাপ্তির ঘটনা ছিল।[২০]

১৮৮৩ মৌসুমের শেষদিকে ঐ মৌসুমের চ্যাম্পিয়ন কাউন্টি দল নটিংহ্যামশায়ারের বিপক্ষে আরও একটি খেলায় অংশ নিয়েছিলেন আর্নল্ড ফদারগিল। এমসিসি দল ১২১ রানে জয় পায়। প্রথম ইনিংসে তিনি বোলিং করেননি। নটিংহ্যামশায়ার মাত্র ২৩ রানে অল-আউট হয়। ছয়জন খেলোয়াড়ই শূন্য রানে বিদায় নিয়েছিলেন। দ্বিতীয় ইনিংসে ৫/৩০ পান।[২১]

১৮৮৩ সালে ফদারগিল আরও একবার সমারসেটের শীর্ষস্থানীয় উইকেট সংগ্রহকারীর মর্যাদা পান। ঐ বছরে প্রাপ্ত ৩৭টি প্রথম-শ্রেণীর উইকেটের মধ্যে ২৭টি সমারসেটের পক্ষে ছিল। ১৪.৭২ গড়ে উইকেট লাভ করা ইংরেজ মৌসুমে সেরার মর্যাদা পায়।[২২] পরের মৌসুমে সমারসেটের পক্ষে তিনি মাত্র একটি খেলায় অংশ নিয়েছিলেন। মৌসুমের শুরুতে কেন্টের বিপক্ষে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় অবতীর্ণ হয়েছিলেন তিনি। খেলায় তিনি ৮৭ রান খরচায় চার উইকেট পান। এটিই কাউন্টি দলটির পক্ষে সর্বশেষ খেলায় অংশগ্রহণ ছিল তার।[১৬][২৩] আর্নল্ড ফদারগিল আবারও সাউথের সদস্যরূপে নর্থের বিপক্ষে খেলার জন্যে মনোনীত হন। কিন্তু খেলায় তিনি মাত্র তিন ওভার বোলিং করেছিলেন ও কোন উইকেট পাননি।[২৪] মৌসুমের বাদ-বাকী সময় এমসিসি’র পক্ষে অংশ নিয়েছিলেন। তবে, এর কয়েকটি প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট খেলা ছিল। উইল্টশায়ার ও লিচেস্টারশায়ারের বিপক্ষে বেশ ভালো খেলেন। উভয় খেলাতেই এগারো উইকেট পান তিনি। তন্মধ্যে, লিচেস্টারশায়ারের বিপক্ষে দ্বিতীয় ইনিংসে ৭/৬২ পান। তবে, কোন খেলাই প্রথম-শ্রেণীর মর্যাদা পায়নি।[২৫][২৬]

১৮৮৫ সালে সাউথের পক্ষে সেরা খেলা খেলেন। নর্থের বিপক্ষে উভয় ইনিংসে চারটি করে উইকেট দখল করেছিলেন। ঐ খেলায় নর্থ নয় উইকেটে পরাজয়বরণ করেছিল।[২৭] ১৮৮৪ থেকে ১৮৮৬ সাল পর্যন্ত অধিকাংশ সময়ই এমসিসি’র প্রতিনিধিত্ব করেছেন। এরই মাঝে ১৮৮৬ সালে সমারসেটের পক্ষে চারটি খেলায় অংশ নিয়েছিলেন তিনি। এগুলো অবশ্য প্রথম-শ্রেণীর মর্যাদাপ্রাপ্ত ছিল।[২৮] অন্যদিকে, ১৮৮৭ ও ১৮৮৮ সালে কাউন্টি দলের পক্ষে ব্যাপকভাবে খেলেন। এ পর্যায়ে, এমসিসি’র পক্ষে মাত্র তিনটি খেলায় অংশগ্রহণ ছিল তাঁর।[৫] ১৮৮০-এর দশকে ফদারগিলের বোলিংয়ের উপর পূর্ণমাত্রায় নির্ভরশীল ছিল সমারসেট দল। তবে, ১৮৮০-এর দশকের শেষার্ধ্বে এসে দলটিত ই. ডব্লিউ. বাস্টার্ড, টেড টাইলর ও স্যামি উডসের উত্থানের ফলে ফদারগিলকে খুব কমই অধিকসংখ্যক ওভার করতে দেখা যায়। তাসত্ত্বেও, ১৮৮৮ সালে সেঞ্চুরি করার কারণে ক্রিকেট ব্যাট পুরস্কার হিসেবে পান তিনি।[২৯]

টেস্ট ক্রিকেট[সম্পাদনা]

১৮৮৮-৮৯ মৌসুমের শীতকালে এমসিসি কর্তৃপক্ষ দক্ষিণ আফ্রিকা গমনে ইংরেজ দল প্রেরণ করে। মেজর গার্ডনার ওয়ারটনের ব্যবস্থাপনায় বেশ কয়েকটি বৈসাদৃশ্যপূর্ণ খেলায় এমসিসি দল প্রতিদ্বন্দ্বিতায় অবতীর্ণ হয়। ১১-খেলোয়াড় নিয়ে গড়া এমসিসি দল ১৫, ১৮ কিংবা ২২জন নিয়ে গঠিত সীমিত শক্তিমত্তার অধিকারী প্রতিপক্ষীয় দলের বিপক্ষে খেলে। হ্যারি অ্যাল্থাম তাঁর ‘এ হিস্ট্রি অব ক্রিকেট’ শিরোনামীয় গ্রন্থে সফরকারী দলটিকে দূর্বল কাউন্টি ক্লাবের সাথে তুলনা করেছিলেন।[৩০]

মে, ১৮৮৭ সাল থেকে কোনরূপ প্রথম-শ্রেণীর খেলার সাথে সম্পর্ক না থাকলেও দলের সদস্যরূপে অন্তর্ভূক্ত করা হয় আর্নল্ড ফদারগিলকে।[১৬] এ সফরে অধিকাংশ উইকেটই ল্যাঙ্কাশায়ারীয় স্পিনার জনি ব্রিগস লাভ করেছিলেন। তার প্রাপ্ত উইকেটের সংখ্যা প্রায় ৩০০ ছিল।[৩০] বোলার হিসেবেই ফদারগিল নিজেকে পরিচিত ঘটিয়েছিলেন। ৬.৮৯ গড়ে ১১৯ উইকেট পান তিনি।[৩১] হ্যারি অ্যাল্থামের মতে, তুলনামূলকভাবে দূর্বল দলের বিপক্ষে দল নির্বাচন করার ফলেই খুব সহজেই অনায়াসে সফরকারী দল জয়ের আস্বাদন লাভ করেছিল।[৩০] সফর চলাকালে শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বিতার কথা উল্লেখ করা হয়। এ পর্যায়ে ইংরেজ দল ১১-খেলোয়াড়বিশিষ্ট দক্ষিণ আফ্রিকা দলের মুখোমুখি হয়। এ ধরনের দুইটি খেলা অনুষ্ঠিত হয়। তবে, সফরের অন্যান্য খেলার ন্যায় এগুলোয় তেমন ভিন্নতা পরিলক্ষিত হয়নি। ঐ খেলা দু’টো মেজর ওয়ারটন একাদশ বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা একাদশরূপে বিজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়। পরবর্তীকালে খেলাগুলো টেস্ট খেলার মর্যাদা পায়। তবে, উইজডেন ক্রিকেটার্স অ্যালমেনাকে মন্তব্য করা হয় যে, কেপে প্রথম সফরে প্রতিনিধিত্বকারী ইংরেজ দলকে ঘিরে এগুলোর তেমন প্রয়োজন ছিল না।[৩২]

প্রথম টেস্টে আর্নল্ড ফদারগিল জনি ব্রিগসের সাথে বোলিং আক্রমণকার্য পরিচালনায় অগ্রসর হন। ২৪ বলে ১৫ রান দিয়ে ঐ ইনিংসে একটিমাত্র উইকেটের সন্ধান পান। পরের দিন ব্যাটিংয়ের মাধ্যমে নিজেকে স্মরণীয় করে রাখেন। স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকা মাত্র ৮৪ রানে গুটিয়ে যায়। একপর্যায়ে ইংল্যান্ড দলের সংগ্রহ ১০৩/৯ হলে দশম উইকেট জুটিতে ব্যাসিল গ্রীভের সাথে মূল্যবান ৪৫ রান তুলে যথোচিত ভূমিকা রাখেন। ঐ ইনিংসে ৩২ রান তুলে উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান ববি অ্যাবলের পর দলের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক হন। দক্ষিণ আফ্রিকার দ্বিতীয় ইনিংসে তিনি প্রথম পরিবর্তিত বোলার হিসেবে বল হাতে নেন।[গ] এ পর্যায়ে ৪/১৯ বোলিং পরিসংখ্যান দাঁড় করান। দুই টেস্টে গড়া সিরিজে এটিই তার সেরা বোলিং ছিল। দক্ষিণ আফ্রিকা ১২৯ রানে অল-আউট হয়। মামুলি ৬৭ রানের জয়ের লক্ষ্যমাত্রা একদিন পূর্বেই অর্জন করে।[৩২][৩৪]

দ্বিতীয় টেস্টে ইংল্যান্ড একচ্ছত্র প্রভাব বিস্তার করে। এরজন্যে অবশ্য জনি ব্রিগসের সুন্দর বোলিংই সহযোগিতা করেছিল। প্রথমে ব্যাটিংয়ে নেমে ইংল্যান্ড ২৯২ রান তুলে। ববি অ্যাবলের সংগ্রহ ছিল ১২০ রান। প্রথম দিনের শেষভাগে আলবার্ট রোজ-ইন্সের প্রথম দক্ষিণ আফ্রিকান উইকেট পান। খেলায় তিনি আর মাত্র দুই উইকেট পেয়েছিলেন। অন্যদিকে, দ্বিতীয় দিনে জনি ব্রিগস পনেরো উইকেট শিকার করে সফরকারী ইংরেজ দলকে ইনিংস ও ২০২ রানের বিশাল ব্যবধানের জয়লাভে মূখ্য ভূমিকা পালন করেছিলেন।[৩৫]

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে দুইটিমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণের সুযোগ হয়েছিল আর্নল্ড ফদারগিলের। এগুলোই তার খেলোয়াড়ী জীবনের সর্বশেষ প্রথম-শ্রেণীর খেলায় অংশগ্রহণ ছিল। ১৮.১৮ গড়ে সর্বমোট ১১৯টি উইকেট দখল করেছিলেন তিনি। অভিষেক খেলাতেই ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ৭৪ রান তুলেছিলেন।[২]

অবসর[সম্পাদনা]

দক্ষিণ আফ্রিকা সফর থেকে ফিরে এসে আর্নল্ড ফদারগিল মাঝে-মধ্যে এমসিসি’র পক্ষে খেলতেন। সমারসেটের পক্ষে আরও তিনবার খেললেও খুব কমই সফলতা পেয়েছিলেন তিনি। ১৮৮৯ সালে সমারসেটের সদস্যরূপে স্টাফোর্ডশায়ারের বিপক্ষে সর্বশেষ খেলায় অংশ নেন। কাউন্টি দলটিতে সর্বমোট ১৫৭ উইকেট পেয়েছিলেন।[৩৬] এ সময় তিনি ৫৭ উইকেট দখল করেন।[৩৭] তিন বছর বাদে এমসিসি’র সদস্যরূপে লান্ডাডনো ক্রিকেট ক্লাবের বিপক্ষে খেলেন।[৫] তার স্মরণে উইজডেনে উল্লেখ করা হয় যে, পেশাদার ক্রিকেট খেলোয়াড়ী জীবনের শেষদিকে টাইনসাইডে ফিরে আসেন।

১ আগস্ট, ১৯৩২ তারিখে ৭৮ বছর বয়সে কাউন্টি ডারহামের সান্ডারল্যান্ডে আর্নল্ড ফদারগিলের দেহাবসান ঘটে।[১]

পাদটীকা[সম্পাদনা]

  1. A representative match in cricket means one in which one or both teams are composed of those regarded as representing the best players in a region or group (such as professional cricketers), or one involving national sides.
  2. This was a match in which a team of players from the northern English counties played against a team selected from the southern counties.
  3. A "first-change bowler" is the first bowler to replace one of the two bowlers who were bowling at the start of the innings.[৩৩]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Supplementary Obituaries"ESPNcricinfo। সংগ্রহের তারিখ ১ সেপ্টেম্বর ২০১৩ 
  2. "Player Profile: Arnold Fothergill"। ESPNcricinfo। সংগ্রহের তারিখ ৩১ আগস্ট ২০১৩ 
  3. "Meetings > North East and Durham Branch"। The Cricket Society। ২২ অক্টোবর ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩১ আগস্ট ২০১৩ 
  4. "Player Profile: Arnold Fothergill"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ৩১ আগস্ট ২০১৩(সদস্যতা নেয়া প্রয়োজন (সাহায্য)) 
  5. "Miscellaneous Matches played by Arnold Fothergill (96)"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ৩১ আগস্ট ২০১৩(সদস্যতা নেয়া প্রয়োজন (সাহায্য)) 
  6. Roebuck (1991), p. 23.
  7. "Weston-super-Mare v Somerset: Other matches in England 1880"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ৩১ আগস্ট ২০১৩(সদস্যতা নেয়া প্রয়োজন (সাহায্য)) 
  8. "Marylebone Cricket Club v Somerset: Other matches in England 1880"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ৩১ আগস্ট ২০১৩(সদস্যতা নেয়া প্রয়োজন (সাহায্য)) 
  9. "Hertfordshire v Somerset: Other matches in England 1880"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ৩১ আগস্ট ২০১৩(সদস্যতা নেয়া প্রয়োজন (সাহায্য)) 
  10. "Leicestershire v Somerset: Other matches in England 1880"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ৩১ আগস্ট ২০১৩(সদস্যতা নেয়া প্রয়োজন (সাহায্য)) 
  11. "Somerset v Marylebone Cricket Club: Other matches in England 1881"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ৩১ আগস্ট ২০১৩(সদস্যতা নেয়া প্রয়োজন (সাহায্য)) 
  12. "Marylebone Cricket Club v Derbyshire: Other First-Class matches in England 1882"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ৩১ আগস্ট ২০১৩(সদস্যতা নেয়া প্রয়োজন (সাহায্য)) 
  13. "Lancashire v Somerset: County Match 1882"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ৩১ আগস্ট ২০১৩(সদস্যতা নেয়া প্রয়োজন (সাহায্য)) 
  14. "Gentlemen v Players: Other First-Class matches in England 1882"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ৩১ আগস্ট ২০১৩(সদস্যতা নেয়া প্রয়োজন (সাহায্য)) 
  15. "First-class Bowling in England for 1882 (Ordered by Average)"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ৩১ আগস্ট ২০১৩(সদস্যতা নেয়া প্রয়োজন (সাহায্য)) 
  16. "First-Class Matches played by Arnold Fothergill (40)"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ৩১ আগস্ট ২০১৩(সদস্যতা নেয়া প্রয়োজন (সাহায্য)) 
  17. "South v North: Other First-Class matches in England 1883"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ৩১ আগস্ট ২০১৩(সদস্যতা নেয়া প্রয়োজন (সাহায্য)) 
  18. "Marylebone Cricket Club v Oxford University: University Match 1883"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ৩১ আগস্ট ২০১৩(সদস্যতা নেয়া প্রয়োজন (সাহায্য)) 
  19. "Gloucestershire v Somerset: County Match 1883"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ৩১ আগস্ট ২০১৩(সদস্যতা নেয়া প্রয়োজন (সাহায্য)) 
  20. "Somerset v Hampshire: County Match 1883"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ৩১ আগস্ট ২০১৩(সদস্যতা নেয়া প্রয়োজন (সাহায্য)) 
  21. "Nottinghamshire v Marylebone Cricket Club: Other First-Class matches in England 1883"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ৩১ আগস্ট ২০১৩(সদস্যতা নেয়া প্রয়োজন (সাহায্য)) 
  22. "First-class Bowling in Each Season by Arnold Fothergill"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ৩১ আগস্ট ২০১৩(সদস্যতা নেয়া প্রয়োজন (সাহায্য)) 
  23. "Somerset v Kent: County Match 1884"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ৩১ আগস্ট ২০১৩(সদস্যতা নেয়া প্রয়োজন (সাহায্য)) 
  24. "South v North: Other First-Class matches in England 1884"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ৩১ আগস্ট ২০১৩(সদস্যতা নেয়া প্রয়োজন (সাহায্য)) 
  25. "Wiltshire v Marylebone Cricket Club: Other matches in England 1884"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ৩১ আগস্ট ২০১৩(সদস্যতা নেয়া প্রয়োজন (সাহায্য)) 
  26. "Marylebone Cricket Club v Leicestershire: Other matches in England 1884"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ৩১ আগস্ট ২০১৩(সদস্যতা নেয়া প্রয়োজন (সাহায্য)) 
  27. "South v North: Other First-Class matches in England 1885"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ৩১ আগস্ট ২০১৩(সদস্যতা নেয়া প্রয়োজন (সাহায্য)) 
  28. Foot (1986), pp. 23–28.
  29. Roebuck (1991), pp. 43–45.
  30. Altham, H.S.; Swanton, E.W. (১৯৩৮) [1926]। A History of Cricket (Second সংস্করণ)। London: George Allen & Unwin Ltd.। পৃষ্ঠা 310। 
  31. "Player Oracle Reveals Results: AJ Fothergill from 1888/89 to 1888/89"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ১ সেপ্টেম্বর ২০১৩(সদস্যতা নেয়া প্রয়োজন (সাহায্য)) 
  32. Williamson, Martin (২৮ নভেম্বর ২০০৯)। "The ignorant internationals"। ESPNcricinfo। সংগ্রহের তারিখ ১ সেপ্টেম্বর ২০১৩ 
  33. Pervez, M. A. (২০০০)। A Dictionary of Cricket। Hyderabad: Sangam Books (India) Ltd। পৃষ্ঠা 31। আইএসবিএন 81-7370-184-9। সংগ্রহের তারিখ ২২ অক্টোবর ২০১৩ 
  34. "South Africa v England: RG Warton's XI in South Africa 1888/89 (1st Test)"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ১ সেপ্টেম্বর ২০১৩(সদস্যতা নেয়া প্রয়োজন (সাহায্য)) 
  35. "South Africa v England: RG Warton's XI in South Africa 1888/89 (2nd Test)"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ১ সেপ্টেম্বর ২০১৩(সদস্যতা নেয়া প্রয়োজন (সাহায্য)) 
  36. "Player Oracle Reveals Results: AJ Fothergill where team is Somerset"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ১ সেপ্টেম্বর ২০১৩(সদস্যতা নেয়া প্রয়োজন (সাহায্য)) 
  37. "First-class Bowling For Each Team by Arnold Fothergill"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ১ সেপ্টেম্বর ২০১৩(সদস্যতা নেয়া প্রয়োজন (সাহায্য)) 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

গ্রন্থপঞ্জী[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]