আর্থার হিল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
আর্থার হিল
Arthur Hill Cricketer.jpg
১৮৯৬ সালের গৃহীত স্থিরচিত্রে আর্থার হিল
ক্রিকেট তথ্য
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি আন্ডারআর্ম
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ৯৮)
১৩ ফেব্রুয়ারি ১৮৯৬ বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা
শেষ টেস্ট২৩ মার্চ ১৮৯৬ বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ২২১
রানের সংখ্যা ২৫১ ১০,৩৫৩
ব্যাটিং গড় ৬২.৭৫ ২৭.৯৮
১০০/৫০ ১/১ ১৯/৪৪
সর্বোচ্চ রান ১২৪ ১৯৯
বল করেছে ৪০ ১৬,৯১৮
উইকেট ৩০৫
বোলিং গড় ২.০০ ২৭.৯৯
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ৪/৮ ৭/৩৬
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ১/০ ১৪৩/০
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ১৯ এপ্রিল ২০১৯

আর্থার জেমস লেজার হিল (ইংরেজি: Arthur Hill; জন্ম: ২৬ জুলাই, ১৮৭১ - মৃত্যু: ৬ সেপ্টেম্বর, ১৯৫০) হ্যাম্পশায়ারের ব্যাসেট এলাকায় জন্মগ্রহণকারী প্রথিতযশা ইংরেজ আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার ছিলেন। ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৮৯৬ সময়কালে সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্যে ইংল্যান্ডের পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছিলেন তিনি। ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ইংরেজ কাউন্টি ক্রিকেটে হ্যাম্পশায়ার দলের প্রতিনিধিত্ব করেছেন লেজার হিল নামে পরিচিত আর্থার হিল। দলে তিনি মূলতঃ ডানহাতি ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলতেন। এছাড়াও, ডানহাতে আন্ডারআর্ম বোলিংয়ে পারদর্শী ছিলেন।

শৈশবকাল[সম্পাদনা]

মার্লবোরা কলেজে অধ্যয়নের পর কেমব্রিজের জেসাস কলেজে পড়াশোনা করেছিলেন আর্থার হিল।[১] মার্লবোরা কলেজ, উইল্টশায়ার, কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয় ও হ্যাম্পশায়ারের পক্ষে খেলে চমৎকার অল-রাউন্ডার হিসেবে যথেষ্ট সুনাম কুড়িয়েছিলেন।

১৮৮৭ সালে নিজস্ব ষোড়শ জন্মদিনের একদিন পর লর্ডসে প্রথমবারের মতো খেলায় অংশ নেন। এ সময়ে তিনি মার্লবোরা একাদশের পক্ষে তিন মৌসুম খেলেছিলেন। এরপর ১৮৮৮ সালে উইল্টশায়ারে চলে যান। কেমব্রিজে অবস্থানকালে ১৮৯০ থেকে ১৮৯৩ সাল পর্যন্ত চারবার অক্সফোর্ডের মুখোমুখি হন। মে, ১৯৯১ সালে বিশ্ববিদ্যালয়ের সদস্যরূপে নেক্সট সিক্সটিনের বিপক্ষে হ্যাট্রিক করেন। এর পরের বছরই লর্ড হক একাদশের সদস্যরূপে মাদ্রাজে মাদ্রাজ প্রেসিডেন্সির বিপক্ষে একই কৃতিত্ব গড়েন।

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট[সম্পাদনা]

১৮৯২-৯৩ মৌসুমে লর্ড হকের নেতৃত্বাধীন এমসিসি দলের সদস্যরূপে ভারত, ১৮৯৪ সালে আমেরিকা ও ১৮৯৫-৯৬ মৌসুমে দক্ষিণ আফ্রিকা গমন করেন। এছাড়াও, ১৯১১-১২ মৌসুমে এমসিসি দলের সাথে আর্জেন্টিনা যান। ১৮৯৫ থেকে ১৯২১ সাল পর্যন্ত হ্যাম্পশায়ারের পক্ষে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেন। ভারতীয় একাদশের বিপক্ষে ক্রিকেটের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো প্রথম-শ্রেণীর সেঞ্চুরি করেন তিনি।

১৮৯৮ সালে সারের বিপক্ষে নিজস্ব সেরা ১৯৯ রান তুলেন। ১৯০৪ সালে ওরচেস্টারে হ্যাম্পশায়ার বনাম সমারসেটের মধ্যকার খেলায় অপরাজিত ৯৮ ও ১১৭ রান করেন এবং ১৯০৫ সালে সাউদাম্পটনে ১২৪ ও অপরাজিত ১১৮ রান তুলেন। তন্মধ্যে, দ্বিতীয় ইনিংসে মেজর ই. জি. ওয়েনিয়ার্ডের সাথে স্মরণীয় ১৫০ রানের জুটি গড়েন। হিল খোঁড়া ও বৃদ্ধাঙ্গুলি ভাঙ্গা অবস্থায় এবং ওয়েনিয়ার্ড কেবলমাত্র একহাতে ব্যাটিং করেছিলেন। তাসত্ত্বেও, দুই ঘন্টায় সংগৃহীত ঐ ইনিংসে একটি ছক্কা, একটি পাঁচ ও বাইশটি চারের মার মারেন। তিনি যখন ৮০ রানে ছিলেন, তখন অপর সঙ্গী মাত্র ৭ রানে ব্যাটিং করছিলেন। এছাড়াও, মেজর ওয়েনিয়ার্ড এক ঘন্টারও অধিক সময় নিয়ে প্রথম দুই রান তুলেছিলেন।

সমগ্র প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবনে ২০ শতক সহযোগে ২৭.৯১ গড়ে ৯,৯৯৫ রান তুলেছেন। এছাড়াও, ২৯.৬০ গড়ে ২৭৮ উইকেট পেয়েছিলেন।

টেস্ট ক্রিকেট[সম্পাদনা]

দীর্ঘদেহী আর্থার হিল ধ্রুপদী ঘরানার ব্যাটসম্যান হিসেবে স্বাধীনভাবে সহজাত ভঙ্গীমায় খেলতে নামতেন। কার্যকরী ফাস্ট বোলার হিসেবেও দলে ভূমিকা রেখে গেছেন। পাশাপাশি, শর্ট স্লিপ অঞ্চলে বিশ্বস্ত ফিল্ডারের ভূমিকায় অবতীর্ণ হতেন।

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে তিনটিমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণ করেছিলেন। ১৮৯৫-৯৬ মৌসুমে এমসিসি দলের সদস্যরূপে দক্ষিণ আফ্রিকা গমন করেন। ঐ সফরেই টেস্ট তিনটি খেলেছিলেন আর্থার হিল। ১৩ ফেব্রুয়ারি, ১৮৯৬ তারিখে পোর্ট এলিজাবেথে অনুষ্ঠিত খেলায় দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। এর কিছুদিন পর ২১ মার্চ, ১৮৯৬ তারিখে কেপ টাউন টেস্টে সর্বশেষবারের মতো অংশ নিয়েছিলেন। এই টেস্টে ১২৪ রানের মনোরম সেঞ্চুরি করেছিলেন তিনি।

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

পেশাগত জীবনে তিনি ব্যাংকার ছিলেন। এছাড়াও, আরও অনেক ধরনের ক্রীড়ায় সপ্রতিভ পদচারণ ছিল তার। সর্বমোট ত্রিশ বছরব্যাপী তার ক্রিকেট খেলায় সম্পৃক্ততা ছিল। শেষদিকে স্বীয় সন্তানের সাথে হ্যাম্পশায়ারের পক্ষে একত্রে খেলেছিলেন। হ্যাম্পশায়ার দলে অবস্থানকালে রাগবি ফুটবল ও হকি খেলায় অধিনায়কত্ব করেছেন। এছাড়াও, র‍্যাকেট ও মুষ্টিযুদ্ধেও তিনি তার দক্ষতা প্রদর্শন করেছিলেন।

৬ সেপ্টেম্বর, ১৯৫০ তারিখে ৭৯ বছর বয়সে হ্যাম্পশায়ারের স্পারশোল্ট হাউজে আর্থার হিলের দেহাবসান ঘটে। তার সন্তান এইএল হিল ও ভাইপো আরকে পেজ প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Hill, Arthur [James] Ledger (HL889AJ)"A Cambridge Alumni Databaseকেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয় 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]