ক্রিস্টোফার হেসেলটাইন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ক্রিস্টোফার হেসেলটাইন
ক্রিস্টোফার হেসেলটাইন.jpeg
ক্রিকেট তথ্য
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি ফাস্ট
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক২ মার্চ ১৮৯৬ বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা
শেষ টেস্ট২৩ মার্চ ১৮৯৬ বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ৭৯
রানের সংখ্যা ১৮ ১,৩৯০
ব্যাটিং গড় ৯.০০ ১২.৩০
১০০/৫০ ০/০ ০/৩
সর্বোচ্চ রান ১৮ ৭৭
বল করেছে ১৫৭ ৮,২১৮
উইকেট ১৭০
বোলিং গড় ১৬.৮০ ২৪.৫৩
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ৫/৩৮ ৭/১০৬
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৩/০ ৫৪/০
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ৮ অক্টোবর ২০১৮

লেফটেনেন্ট কর্নেল ক্রিস্টোফার হেসেলটাইন, ওবিই (ইংরেজি: Christopher Heseltine; জন্ম: ২৬ নভেম্বর, ১৮৬৯ - মৃত্যু: ১৩ জুন, ১৯৪৪) লন্ডনের সাউথ কেনসিংটনে জন্মগ্রহণকারী প্রথিতযশা ইংরেজ আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার ছিলেন। ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৮৯৬ সময়কালে ইংল্যান্ডের পক্ষে সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্যে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশ নিয়েছেন। ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর কাউন্টি ক্রিকেটে হ্যাম্পশায়ারের প্রতিনিধিত্ব করেছেন। দলে তিনি মূলতঃ ডানহাতে ফাস্ট বোলিং করতেন। এছাড়াও নিচেরসারিতে ডানহাতে ব্যাটিংয়ে পারদর্শিতা দেখিয়েছেন ক্রিস্টোফার হেসেলটাইন

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

এটনে অবস্থানকালে প্রথম একাদশে খেলার সুযোগ পাননি কিংবা কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ব্লু লাভ করতে না পারলেও ১৮৯৫ সাল থেকে ১৯০৪ সাল পর্যন্ত হ্যাম্পশায়ারের পক্ষে প্রথম-শ্রেণীর কাউন্টি ক্রিকেট খেলার সুযোগ পেয়েছিলেন। এছাড়াও ১৮৯২ থেকে ১৯১৪ সময়কালে মেরিলেবোন ক্রিকেট ক্লাবে খেলেছেন।

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে মাত্র দুই টেস্টে অংশগ্রহণের সুযোগ পেয়েছেন। ২ মার্চ, ১৮৯৬ তারিখে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে ক্রিস্টোফার হেসেলটাইনের। ১৮৯৫-৯৬ মৌসুমে লর্ড হকের নেতৃত্বাধীন ইংরেজ দল দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে আসলে দুই টেস্টে অংশ নেন তিনি। জোহেন্সবার্গে অনুষ্ঠিত সিরিজের প্রথম টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে দক্ষিণ আফ্রিকার পাঁচ-উইকেট নিয়ে সবিশেষ কৃতিত্বের দাবীদার হন।[১]

এছাড়াও লর্ড হকের নেতৃত্বে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও ভারত সফরে যান তিনি।

সমরজীবন[সম্পাদনা]

২৭ জুলাই, ১৮৯৮ তারিখে রয়্যাল ফাসিলিয়ার্সের ৭ম মিলিশিয়া ব্যাটালিয়নে মেজর পদে ক্রিস্টোফার হেসেলটাইনকে অধিষ্ঠিত করা হয়। দ্বিতীয় বোর যুদ্ধ শুরু হলে ফেব্রুয়ারি, ১৯০০ সালে লেফটেনেন্ট হিসেবে ইম্পেরিয়াল ইউম্যানরিতে যোগ দেন। একই মাসে দায়িত্ব পালনের উদ্দেশ্যে দক্ষিণ আফ্রিকায় চলে যান।[২] যুদ্ধ শেষ হলে, সেপ্টেম্বর, ১৯০২ সালে আয়ারল্যান্ডের লর্ড লেফটেনেন্ট ডাডলি আর্লের অতিরিক্ত সহায়ক কর্মকর্তারূপে মনোনীত হন।[৩][৪] এরপর তাকে প্রথম বিশ্বযুদ্ধ চলাকালে রয়্যাল ফাসিলিয়ার্সে লেফটেনেন্ট কর্নেল পদবীতে উত্তরণ ঘটানো হয়। এ সময়ে দুইবার তিনি প্রাণে বেঁচে যান। এছাড়াও ওবিই পদবীতে ভূষিত হন তিনি।

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

জীবনের শেষদিকে হ্যাম্পশায়ার কাউন্টি ক্রিকেট ক্লাবের সভাপতির দায়িত্বে ছিলেন। এছাড়াও মেরিলেবোন ক্রিকেট ক্লাবের সদস্য ছিলেন ক্রিস্টোফার হেসেলটাইন। ১৩ জুন, ১৯৪৪ তারিখে হ্যাম্পশায়ারের লিমিংটন এলাকার ওয়ালহ্যাম্পটনে ৭৫ বছর বয়সে ক্রিস্টোফার হেসেলটাইনের দেহাবসান ঘটে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "2nd Test: South Africa v England at Johannesburg, Mar 2-4, 1896"espncricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-১২-১৮ 
  2. "The War - The Auxiliary Forces, Departure of Yeomanry from Southampton" (ইংরেজি ভাষায়) দ্য টাইমস (লন্ডন)। Thursday, 1 February 1900। (36054), পৃ. 10।
  3. "Court News" (ইংরেজি ভাষায়) দ্য টাইমস (লন্ডন)। Saturday, 6 September 1902। (36866), পৃ. 7।
  4. "নং. 27479"দ্যা লন্ডন গেজেট (ইংরেজি ভাষায়)। ৩ অক্টোবর ১৯০২। 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

  • A profile of Christopher Heseltine by Dave Liverman (Note: this reference erroneously claims that Heseltine toured South Africa in 1896-97. In fact it was in 1895-96. The scorecards for Heseltine's Tests are here: [১], [২]. This source also claims Heseltine was awarded the MBE, Cricinfo says it was the OBE.