হারারে স্পোর্টস ক্লাব

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(Harare Sports Club থেকে পুনর্নির্দেশিত)
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

স্থানাঙ্ক: ১৭°৪৮′৫০.৬৭″ দক্ষিণ ৩১°৩′২.০৮″ পূর্ব / ১৭.৮১৪০৭৫০° দক্ষিণ ৩১.০৫০৫৭৭৮° পূর্ব / -17.8140750; 31.0505778

হারারে স্পোর্টস ক্লাব
অবস্থানহারারে, জিম্বাবুয়ে
মালিকজিম্বাবুয়ে ক্রিকেট
ধারণক্ষমতা১০,০০০
মাঠের আয়তন৩০০মি X ২৫০মি
উপরিভাগঘাস
ভাড়াটিয়া
জিম্বাবুয়ে জাতীয় ক্রিকেট দল
মাশোনাল্যান্ড ঈগলস

হারারে স্পোর্টস ক্লাব (ইংরেজি: Harare Sports Club) জিম্বাবুয়ের হারারে এলাকায় অবস্থিত একটি ক্রিকেট খেলার মাঠ। সূচনালগ্ন থেকেই এটি রোডেশিয়া ও জিম্বাবুয়ের প্রধান ক্রিকেট মাঠের মর্যাদা পেয়ে আসছে। সচরাচর মাঠটি সলসবারি স্পোর্টস ক্লাব নামে পরিচিত। অক্টোবর, ১৯৯২ সালে টেস্ট মাঠের পরিচিতি পায়। জিম্বাবুয়ের উদ্বোধনী টেস্টে প্রতিপক্ষ ভারতীয় দল এ মাঠে নেমেছিল। কিছুদিন পরই এ মাঠে প্রথমবারের মতো একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলা অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়াও, জিম্বাবুয়ে প্রথমবারের মতো টেস্টে বিজয় লাভ করেছিল।[১]

বিবরণ[সম্পাদনা]

স্টেডিয়ামের চতুর্দিকে জাকারান্দা গাছের আচ্ছাদন রয়েছে। ভিতরে রয়েছে সুন্দর প্যাভিলিয়ন। হারারে স্টেডিয়ামটি নগরের কেন্দ্রস্থলে অবস্থিত। এর একপাশে রয়েছে প্রেসিডেন্সিয়াল প্যালেস ও অন্য পার্শ্বে রয়্যাল হারারে গলফ ক্লাব। অক্টোবর, ১৯৯২ থেকে টেস্ট ক্রিকেট খেলা উদ্বোধনের পর টেস্ট ও একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলার জন্য দেশের প্রধান মাঠের মর্যাদা পেয়ে আসছে। মাঠে দর্শক ধারণ সংখ্যা দশ হাজার হলেও প্রয়োজনে অস্থায়ীভাবে আসন সংখ্যা বাড়ানো যায়। ১৯৫৬ সালে এ মাঠে সর্বোচ্চ ছাব্বিশ হাজার দর্শক এসেছিলেন রোডেশিয়া বনাম এমসিসি’র মধ্যকার খেলা দেখতে।

এ মাঠটি স্থানীয় ম্যাশোনাল্যান্ড ঈগলস ক্লাবটি ব্যবহার করে থাকে। এছাড়াও, হারারে স্পোর্টস ক্লাব দেশের ক্রিকেট বোর্ড জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট ইউনিয়ন কর্তৃক ব্যবহৃত হয়।

পরিকল্পনা[সম্পাদনা]

অক্টোবর, ২০১০ সালে জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট ঘোষণা করে যে, নভেম্বরে অনুষ্ঠিতব্য ঘরোয়া টুয়েন্টি২০ প্রতিযোগিতা আয়োজনের লক্ষ্যে হারারে স্পোর্ট ক্লাব এবং মুতারে স্পোর্টস ক্লাবের উন্নয়ন করা হবে। এরফলে আসন সংখ্যা বৃদ্ধি, দর্শকদের সুযোগ-সুবিধা, প্রশিক্ষণের সুযোগ এবং মাঠের সুবিধা বৃদ্ধিসহ দিন/রাত ক্রিকেট আয়োজনের লক্ষ্যে ফ্লাডলাইটের ব্যবস্থা করা হবে। এরফলে টেস্ট ক্রিকেটে জিম্বাবুয়ের পুণরায় অংশগ্রহণে ব্যাপক সুবিধা প্রদান করবে।[২]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

পাদটীকা[সম্পাদনা]

আরও পড়ুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]