২০২০ ভারতে করোনাভাইরাসের বৈশ্বিক মহামারীজনিত লকডাউন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
২০২০ ভারতে করোনাভাইরাসের বৈশ্বিক মহামারীজনিত অবরুদ্ধকরণ (লকডাউন)
২০১৯–২০ করোনাভাইরাসের বৈশ্বিক মহামারী-এর অংশ
তারিখ২৫ মার্চ ২০২০ (2020-03-25) – ১৪ এপ্রিল ২০২০ (2020-04-14) (২১ দিন)
অবস্থান
কারণ২০২০ ভারতে করোনাভাইরাসের বৈশ্বিক মহামারী
লক্ষ্যসমূহভারতে করোনভাইরাস প্রাদুর্ভাব দমন করা
প্রক্রিয়াসমূহ
  • লোকদের নিজের ঘর থেকে বের হওয়া নিষিদ্ধ।
  • বাণিজ্যিক এবং বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের বন্ধকরণ (কেবলমাত্র ঘরে বসে কাজ করার অনুমতি রয়েছে)
  • সকল শিক্ষামূলক, প্রশিক্ষণ, গবেষণা প্রতিষ্ঠানের স্থগিতাদেশ।
  • সমস্ত উপাসনালয় বন্ধ।
  • সমস্ত অ-অপরিহার্য সরকারী এবং ব্যক্তিগত পরিবহণ বন্ধ।
  • সমস্ত সামাজিক, রাজনৈতিক, খেলাধুলা, বিনোদন, একাডেমিক, সাংস্কৃতিক, ধর্মীয় ক্রিয়াকলাপ নিষিদ্ধ।
অবস্থাপ্রয়োগ
(১৪ এপ্রিল অব্ধি লাগু)

২৪ মার্চ, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বে ভারত সরকার ২১ দিনের জন্য দেশব্যাপী লকডাউনের নির্দেশ দিয়েছিল, ভারতের ২০২০-এর করোনাভাইরাসের বৈশ্বিক মহামারীর প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা হিসাবে ভারতের সমগ্র ১৩০ কোটি জনসংখ্যার চলাচলকে সীমাবদ্ধ রেখেছিল। [১] এটি ১৪ঘন্টা স্বেচ্ছাসেবী জনতা কার্ফু, তারপরে দেশের কোভিড-১৯ আক্রান্ত অঞ্চলে বিভিন্ন ধরণের বিধিনিষেধ প্রয়োগের পর লাগু করা হয়েছে।[২][৩]যখন ভারতে নিশ্চিত করোনভাইরাস সংক্রমণের সংখ্যা প্রায় ৫০০ ছিল, লকডাউনটি তখন শুরু করা হয়েছিল।[১]

পটভূমি[সম্পাদনা]

উহান থেকে আসা বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন শিক্ষার্থী যখন কেরালা রাজ্যে ফিরে এসেছিল, তখন ভারত সরকার ৩০ জানুয়ারি ২০২০ তারিখে ভারতের করোনাভাইরাস২০১৯ রোগের প্রথম ঘটনাটি নিশ্চিত করেছে। [৪] কোভিড-১৯ এর নিশ্চিত ইতিবাচক ঘটনার সংখ্যা ৫০০-র কাছাকাছি হবার পরে, ১৯ মার্চ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী সকল নাগরিককে ২২ মার্চ রোববার সকাল ৭টা থেকে রাত ৯ টা অবধি 'জনতা কার্ফু' পালন করতে বলেছিলেন। [৫]কার্ফু শেষে মোদী বলেছিলেন: "জনতা কার্ফু কোভিড-১৯ এর বিরুদ্ধে দীর্ঘ লড়াইয়ের মাত্র শুরু"। ২৪ মার্চ, দ্বিতীয়বারের মতো জাতিকে সম্বোধন করার সময়, তিনি এই দিনের মধ্যরাত থেকে ২১ দিনের জন্য দেশব্যাপী অবরুদ্ধ অবস্থা (লকডাউন) ঘোষণা করেছিলেন। [৬] তিনি বলেছিলেন যে করোনাভাইরাসের বিস্তার নিয়ন্ত্রণের একমাত্র সমাধান হ'ল সামাজিক দূরত্ব দ্বারা সংক্রমণ চক্রকে ভেঙে দেওয়া [৭] তিনি আরও যোগ করেছেন যে অবরুদ্ধকরণ বা লকডাউন জনতা কার্ফিউয়ের চেয়ে আরও কঠোরভাবে প্রয়োগ করা হবে।[৮]

অবরুদ্ধকরণ (লকডাউন)[সম্পাদনা]

লকডাউনটি লোকদের ঘর থেকে বেরোতে বাধা দেয়। [৮] প্রয়োজনীয় পণ্য, অগ্নি নির্বাপক, পুলিশ এবং জরুরী পরিষেবা পরিবহনের ব্যতিক্রম সহ সমস্ত পরিবহন পরিষেবা - রাস্তা, বিমান এবং রেল স্থগিত করা হয়েছিল । [৯] শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, শিল্প সংস্থা এবং আতিথেয়তা পরিষেবাগুলিও স্থগিত করা হয়েছিল। [৯]খাবারের দোকান, ব্যাংক এবং এটিএম, পেট্রোল পাম্প, অন্যান্য প্রয়োজনীয় জিনিসের পরিষেবাগুলি এবং তাদের উত্পাদন অব্যাহতিপ্রাপ্ত ।[১০] স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক বলেছে যে, যে কেউ এই নিষেধাজ্ঞাগুলি মানতে ব্যর্থ হবে সে এক বছর পর্যন্ত জেল খাটতে পারে।[৯]

প্রভাব[সম্পাদনা]

অবরুদ্ধকরণ বা লকডাউন ঘোষণার সাথে সাথেই প্রধানমন্ত্রীর জনগণকে প্রয়োজনীয় সরবরাহের আশ্বাস সত্ত্বেও[৬][১১] সারা দেশে লোকেরা আতঙ্কিত হয়ে জিনিসপত্র কেনা শুরু করেছিল। [১২] অ্যামাজন ইন্ডিয়া এবং ফ্লিপকার্ট লকডাউনের পরে অস্থায়ীভাবে তাদের পরিষেবাগুলি স্থগিত রেখেছে।[১৩]লকডাউনের পরে ভিন্ন রাজ্যে বসবাসকারী হাজার হাজার মানুষ ভারতের বড় বড় শহরগুলিতে চলে এসেছেন বেকার হয়ে পড়ে।[১৪]কেন্দ্রীয় সরকারের অনুমোদন থাকা সত্ত্বেও বেশ কয়েকটি রাজ্য সরকার অনলাইন খাদ্য সরবরাহ পরিষেবা নিষিদ্ধ করেছিল।[১৫] লকডাউনের পরে, ২৮ মার্চ ভারতের বিদ্যুতের চাহিদা পাঁচ মাসের নীচে নেমে আসে।[১৬]

কার্যকারিতা[সম্পাদনা]

লোকেরা লকডাউনটি লঙ্ঘন করছে এবং কিছু জায়গায় সবজির বাজারে ভিড় করে সামাজিক দূরত্ব অনুসরণ করছে না।[১৭][১৮][১৯]২৯ মার্চ, মোদী এরকম না করতে পরামর্শ দিয়েছিলেন এবং লোকদের তাঁর মন কি বাত রেডিও অনুষ্ঠানে ঘরে থাকার আহ্বান জানান।[২০]

জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয় এবং সেন্টার ফর ডিসিস ডায়নামিক্স, ইকোনমিক্স অ্যান্ড পলিসি (সিসিডিইপি) ভবিষ্যদ্বাণী করেছে যে লকডাউনটি ছড়িয়ে পড়া বন্ধ করতে অকার্যকর হতে পারে। তাদের প্রতিবেদনে পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে যে এপ্রিল-মে-জুনের মধ্যে, ভারতে ১২-২৫কোটিরও বেশি সংক্রমণ হতে পারে।[২১]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

লকডাউনের প্রথম দিন, প্রায় সমস্ত পরিষেবা এবং কারখানাগুলি বন্ধ রাখা হয়েছিল।[২২] লোকেরা কিছু অংশে প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র সংগ্রহ করতে হুড়োহুড়ি করেছিল।[২৩] জরুরি অবস্থা ছাড়াই বাইরে বেরিয়ে আসা, অতি প্রয়োজনীয় নয় এমন দোকান বাজার খোলা, বাড়িতে সঙ্গরোধ/কোয়ারেন্টিনের মতো লকডাউনের নিয়ম লঙ্ঘনের জন্য রাজ্যগুলি জুড়ে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল।[২৪] লকডাউন সময়কালে দেশজুড়ে প্রয়োজনীয় পণ্যগুলির নির্বিঘ্নে সরবরাহ নিশ্চিত করতে সরকার ই-কমার্স ওয়েবসাইট এবং বিক্রেতাদের সাথে বৈঠক করেছে।[২৪] বেশ কয়েকটি রাজ্য দরিদ্র ও ক্ষতিগ্রস্থদের জন্য ত্রাণ তহবিল ঘোষণা করেছে,[২৪] এবং কেন্দ্রীয় সরকার একটি উতসাহব্যঞ্জক প্যাকেজ চূড়ান্ত করছে।[২৫]

২৬ মার্চ, অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন লকডাউনে ক্ষতিগ্রস্থদের সহায়তা করার জন্য ₹১৭০,০০০ কোটি ডলার (২৪ বিলিয়ন মার্কিন ডলার) উদ্দীপনা প্যাকেজ ঘোষণা করেছিলেন।[২৬] তিন মাসের জন্য সরাসরি নগদ স্থানান্তর, বিনামূল্যে খাদ্যশস্য এবং রান্নার গ্যাস প্রদানের মাধ্যমে দরিদ্র পরিবারের খাদ্য সুরক্ষা ব্যবস্থা সরবরাহ করা এই প্যাকেজ প্রদানের উদ্দেশ্য।[২৭] এটি চিকিত্সা কর্মীদের জন্য বীমা সুবিধা প্রদান করে।[২৬]

২৭ মার্চ, ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাংক লকডাউনটির অর্থনৈতিক প্রভাবগুলি হ্রাস করার জন্য বিভিন্ন পদক্ষেপের ঘোষণা করে।[২৮]

ভারত[সম্পাদনা]

ভারতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রতিনিধি ডঃ হেনক বেকেডাম এই পদক্ষেপটিকে "সময়োপযোগী, সর্বাঙ্গীণ এবং বলিষ্ঠ" হিসাবে বর্ণনা করে প্রতিক্রিয়ার প্রশংসা করেছেন।[২]

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Gettleman, Jeffrey; Schultz, Kai (২৪ মার্চ ২০২০)। "Modi Orders 3-Week Total Lockdown for All 1.3 Billion Indians"The New York Times (ইংরেজি ভাষায়)। আইএসএসএন 0362-4331। সংগ্রহের তারিখ ২৫ মার্চ ২০২০ 
  2. "COVID-19: Lockdown across India, in line with WHO guidance"UN News (ইংরেজি ভাষায়)। ২০২০-০৩-২৪। সংগ্রহের তারিখ ২৫ মার্চ ২০২০ 
  3. Helen Regan; Esha Mitra; Swati Gupta। "India places millions under lockdown to fight coronavirus"CNN। সংগ্রহের তারিখ ২৫ মার্চ ২০২০ 
  4. Ward, Alex (২০২০-০৩-২৪)। "India's coronavirus lockdown and its looming crisis, explained"Vox (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-২৫ 
  5. Bureau, Our। "PM Modi calls for 'Janata curfew' on March 22 from 7 AM-9 PM"@businessline (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৫ মার্চ ২০২০ 
  6. "India's 1.3bn population told to stay at home"BBC News (ইংরেজি ভাষায়)। ২০২০-০৩-২৫। সংগ্রহের তারিখ ২৫ মার্চ ২০২০ 
  7. "21-day lockdown in entire India to fight coronavirus, announces PM Narendra Modi"India Today (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৫ মার্চ ২০২০ 
  8. "PM calls for complete lockdown of entire nation for 21 days"Press Information Bureau। সংগ্রহের তারিখ ২৫ মার্চ ২০২০ 
  9. "Guidelines.pdf" (PDF)Ministry of Home Affairs। সংগ্রহের তারিখ ২৫ মার্চ ২০২০ 
  10. Tripathi, Rahul (২৫ মার্চ ২০২০)। "India 21 day Lockdown: What is exempted, what is not"The Economic Times। সংগ্রহের তারিখ ২৫ মার্চ ২০২০ 
  11. "'Essentials Will be Available': PM Modi Wants You to Stop Panic Buying During 21-Day Curfew"News18। ২০২০-০৩-২৫। সংগ্রহের তারিখ ২৫ মার্চ ২০২০ 
  12. "Panic buying seen at shops after PM Modi's national lockdown announcement"India Today (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৫ মার্চ ২০২০ 
  13. Dwarakanath, Nagarjun। "Amazon stops taking new orders, Flipkart suspends services amid coronavirus lockdown"India Today (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৫ মার্চ ২০২০ 
  14. CNN, Priyali Sur and Ben Westcott। "Indian migrant workers face tough choice amid world's largest lockdown"CNN। সংগ্রহের তারিখ ২৮ মার্চ ২০২০ 
  15. www.ETtech.com। "Zomato, Swiggy ordered to shut down in several states - ETtech"ETtech.com (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-২৭ 
  16. "Coronavirus effect: India's electricity demand falls to 5-month low after lockdown"India Today (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৮ মার্চ ২০২০ 
  17. "People throng vegetable market despite lockdown"The Hindu (ইংরেজি ভাষায়)। Special Correspondent। ২০২০-০৩-২৫। আইএসএসএন 0971-751X। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-২৯ 
  18. AuthorTelanganaToday। "Karimnagar: Minister unhappy over people not following social distancing norms"Telangana Today (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-২৯ 
  19. Rizvi, Sumaira (২০২০-০৩-২৮)। "Clapping to slapping — India did everything other than social distancing this week"ThePrint (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-২৯ 
  20. "'I was extremely hurt...': Key highlights of PM Modi's Mann ki Baat address"Hindustan Times (ইংরেজি ভাষায়)। ২০২০-০৩-২৯। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-২৯ 
  21. "India may see 25 crore COVID-19 cases in next 3 months: Report"https://www.outlookindia.com/। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-২৯  |website= এ বহিঃসংযোগ দেয়া (সাহায্য)
  22. Singh, Karan Deep; Goel, Vindu; Kumar, Hari; Gettleman, Jeffrey (২০২০-০৩-২৫)। "India, Day 1: World's Largest Coronavirus Lockdown Begins"The New York Times (ইংরেজি ভাষায়)। আইএসএসএন 0362-4331। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-২৭ 
  23. Mar 2020, ANI | 24; Ist, 11:13 Am, Covid-19: People flock to wholesale markets in UP, West Bengal amid lockdown, সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-২৯ 
  24. "Day 1 of coronavirus lockdown: India registers 101 new cases, 3 deaths; Govt says working to deliver essential services"India Today (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৭ মার্চ ২০২০ 
  25. "Rs 2.3 trillion for 1.3 billion: Govt to announce stimulus package to fight coronavirus, says report"India Today (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৭ মার্চ ২০২০ 
  26. "FM Nirmala Sitharaman announces Rs 1.7 lakh crore relief package for poor"The Economic Times। ২০২০-০৩-২৭। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-২৭ 
  27. Choudhury, Saheli Roy (২০২০-০৩-২৬)। "India announces $22.5 billion stimulus package to help those affected by the lockdown"CNBC (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-২৭ 
  28. "RBI cuts rates, allows moratorium on auto, home loan EMIs"The Hindu (ইংরেজি ভাষায়)। Special Correspondent। ২৭ মার্চ ২০২০। আইএসএসএন 0971-751X। সংগ্রহের তারিখ ২৮ মার্চ ২০২০