২০২০ ভিয়েতনামে করোনাভাইরাসের বৈশ্বিক মহামারী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
২০২০ ভিয়েতনামে করোনাভাইরাসের বৈশ্বিক মহামারী
COVID-19 Pandemic Cases in Vietnam.svg
(২৪ এপ্রিল অনুসারে) ভিয়েতনামের মহামারী মানচিত্র
:
  Confirmed cases reported
  Suspected cases reported
রোগকোভিড-১৯
ভাইরাসের প্রজাতিসার্স-সিওভি-২
স্থানভিয়েতনাম
প্রথম সংক্রমণের ঘটনাহো চি মিন শহর
আগমনের তারিখ২৩ জানুয়ারী ২০২০
(৮ মাস, ৩ সপ্তাহ ও ৬ দিন)
উৎপত্তিউহান, হুবেই, চীন
নিশ্চিত আক্রান্ত২৭০[১][২]
সুস্থ২১৯[১]
মৃত
[১]
প্রাতিষ্ঠানিক ওয়েবসাইট
ncov.moh.gov.vn
সন্দেহভাজন আক্রান্ত৪৪৩[১]
Suspected cases have not been confirmed as being due to this strain by laboratory tests, although some other strains may have been ruled out.

চলতি ২০১৯–২০ করোনাভাইরাসের বৈশ্বিক মহামারী ( কোভিড-১৯ ), সার্স-কোভ-২ ( SARS-CoV-2 COVID-19 ) দ্বারা সৃষ্ট একটি সংক্রামক রোগ, ভিয়েতনামে যখন কোভিড-১৯ নামে প্রথম রিপোর্ট করা হয়েছিল জানুয়ারী ২০২০তে, তারপর এটি সেই দেশে ছড়িয়ে পড়ে। [৩] ২ মে ২০২০ অনুসারে দেশটিতে ২৭০ টি নিশ্চিত ঘটনা হয়েছে, ২১৯ জন সুস্থ্য হয়ে উঠেছেন এবং কোনও মৃত্যু হয়নি। ২৬১,০০০ এরও বেশি কোভিড-১৯ পরীক্ষা করা হয়েছে। হ্যানয় বর্তমানে   সর্বাধিক প্রভাবিত শহর যেখানে ১১২ টি নিশ্চিত ঘটনা রয়েছে।

বিশ্বব্যাপী সংবাদ মাধ্যমের উদ্ধৃতি অনুসারে, যে স্থানগুলিতে সংক্রমণের হার ভিয়েতনামের থেকে বেশী ছিল যথা তাইওয়ান, দক্ষিণ কোরিয়া এবং সিঙ্গাপুর, সহ ভিয়েতনামে বিশ্বের অন্যতম সেরা-সুসংগঠিত মহামারী নিয়ন্ত্রণ কার্যক্রম হয়েছে। [৪] বেশ কয়েকটি পরিসংখ্যান ভিয়েতনামের কর্মপ্রক্রিয়ার প্রশংসা করেছে এবং ২০০৩ এর সাফল্যের সাথে তুলনা করে যখন ভিয়েতনাম সার্সের প্রাদুর্ভাব থেকে মুক্ত হওয়া প্রথম দেশ হয়ে ওঠে। অর্থনৈতিক ও প্রযুক্তিগত সক্ষমতা নিম্নমানের থাকা সত্ত্বেও, এই প্রাদুর্ভাবের বিরুদ্ধে দেশটির প্রতিক্রিয়া চীনের অভিযোগযুক্ত গোপনীয়তা এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং ইউরোপীয় দেশগুলির দুর্বল প্রস্তুতির বিপরীতে এর নীতি, কার্যকারিতা এবং স্বচ্ছতার জন্য প্রশংসিত হয়েছে। [৫][৬][৭][৮]

পটভূমি[সম্পাদনা]

২০২০ সালের ১২ জানুয়ারী, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডাব্লুএইচও) নিশ্চিত করেছে যে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহরে জনগনের একটি অংশে, শ্বাসকষ্টের কারণ ছিল একটি নতুন করোনাভাইরাস , যা ডাব্লুএইচওকে ৩১ ডিসেম্বর ২০১৯ এ রিপোর্ট করা হয়েছিল। [৯][১০]

কোভিড-১৯-র ক্ষেত্রে মৃত্যুর অনুপাত ২০০৩ এর সারসের তুলনায় অনেক কম ছিল,[১১][১২] তবে সংক্রমণটি উল্লেখযোগ্য পরিমাণে বেড়েছে, মোট মৃতের সংখ্যা উল্লেখযোগ্যভাবে রয়েছে। [১৩]

সময়রেখা[সম্পাদনা]

কোভিড-১৯ - ভিয়েতনাম  ()
     মৃত্যু        সুস্থ        আক্রান্ত

জানু জানু ফেব্রু ফেব্রু মার্চ মার্চ এপ্রিল এপ্রিল মে মে জুন জুন জুলাই জুলাই গত ১৫ দিনে গত ১৫ দিনে

তারিখ
আক্রান্তের সংখ্যা
২০২০-০১-২৩
(+২) (প্র.না.)
(=) (=)
২০২০-০১-২৮
(=) (=)
(=) (=)
২০২০-০১-৩১
(+৩) (+১৫০%)
২০২০-০২-০১
(+১) (+২০%)
২০২০-০২-০২
(+১) (+১৭%)
২০২০-০২-০৩
(+১) (+১৪%)
২০২০-০২-০৪
১০(+২) (+২৫%)
২০২০-০২-০৫
১০(=) (=)
২০২০-০২-০৬
১২(+২) (+২০%)
২০২০-০২-০৭
১৩(+১) (+৮.৩%)
২০২০-০২-০৮
১৩(=) (=)
২০২০-০২-০৯
১৪(+১) (+৭.৭%)
২০২০-০২-১০
১৪(=) (=)
২০২০-০২-১১
১৫(+১) (+৭.১%)
২০২০-০২-১২
১৫(=) (=)
২০২০-০২-১৩
১৬(+১) (+৬.৭%)
১৬(=) (=)
২০২০-০২-১৮
১৬(=) (=)
২০২০-০২-১৯
১৬(=) (=)
২০২০-০২-২০
১৬(=) (=)
১৬(=) (=)
২০২০-০২-২৬
১৬(=) (=)
১৬(=) (=)
২০২০-০৩-০৬
১৭(+১) (+৬.৩%)
২০২০-০৩-০৭
২০(+৩) (+১৮%)
২০২০-০৩-০৮
৩০(+১০) (+৫০%)
২০২০-০৩-০৯
৩১(+১) (+৩.৩%)
২০২০-০৩-১০
৩৪(+৩) (+৯.৭%)
২০২০-০৩-১১
৩৮(+৪) (+১২%)
২০২০-০৩-১২
৪৪(+৬) (+১৬%)
২০২০-০৩-১৩
৪৭(+৩) (+৬.৮%)
২০২০-০৩-১৪
৫৩(+৬) (+১৩%)
২০২০-০৩-১৫
৫৭(+৪) (+৭.৫%)
২০২০-০৩-১৬
৬১(+৪) (+৭%)
২০২০-০৩-১৭
৬৬(+৫) (+৮.২%)
২০২০-০৩-১৮
৭৬(+১০) (+১৫%)
২০২০-০৩-১৯
৮৫(+৯) (+১২%)
২০২০-০৩-২০
৯১(+৬) (+৭.১%)
২০২০-০৩-২১
৯৪(+৩) (+৩.৩%)
২০২০-০৩-২২
১১৩(+১৯) (+২০%)
২০২০-০৩-২৩
১২৩(+১০) (+৮.৮%)
২০২০-০৩-২৪
১৩৪(+১১) (+৮.৯%)
২০২০-০৩-২৫
১৪১(+৭) (+৫.২%)
২০২০-০৩-২৬
১৫৩(+১২) (+৮.৫%)
২০২০-০৩-২৭
১৬৩(+১০) (+৬.৫%)
২০২০-০৩-২৮
১৭৪(+১১) (+৬.৭%)
২০২০-০৩-২৯
১৮৮(+১৪) (+৮%)
২০২০-০৩-৩০
২০৩(+১৫) (+৮%)
২০২০-০৩-৩১
২০৭(+৪) (+২%)
২০২০-০৪-০১
২১৮(+১১) (+৫.৩%)
২০২০-০৪-০২
২২৭(+৯) (+৪.১%)
২০২০-০৪-০৩
২৩৭(+১০) (+৪.৪%)
২০২০-০৪-০৪
২৪০(+৩) (+১.৩%)
২০২০-০৪-০৫
২৪১(+১) (+০.৪%)
২০২০-০৪-০৬
২৪৫(+৪) (+১.৭%)
২০২০-০৪-০৭
২৪৯(+৪) (+১.৬%)
২০২০-০৪-০৮
২৫১(+২) (+০.৮%)
২০২০-০৪-০৯
২৫৫(+৪) (+১.৬%)
২০২০-০৪-১০
২৫৭(+২) (+০.৮%)
২০২০-০৪-১১
২৫৮(+১) (+০.৪%)
২০২০-০৪-১২
২৬০(+২) (+০.৮%)
২০২০-০৪-১৩
২৬৫(+৫) (+১.৯%)
২০২০-০৪-১৪
২৬৬(+১) (+০.৪%)
২০২০-০৪-১৫
২৬৭(+১) (+০.৪%)
২০২০-০৪-১৬
২৬৮(+১) (+০.৪%)
২০২০-০৪-১৭
২৬৮(=) (=)
২০২০-০৪-১৮
২৬৮(=) (=)
২০২০-০৪-১৯
২৬৮(=) (=)
২০২০-০৪-২০
২৬৮(=) (=)
২০২০-০৪-২১
২৬৮(=) (=)
২০২০-০৪-২২
২৬৮(=) (=)
২০২০-০৪-২৩
২৬৮(=) (=)
২০২০-০৪-২৪
২৭০(+২) (+০.৭%)
২০২০-০৪-২৫
২৭০(=) (=)
২৭০(=) (=)
২০২০-০৫-০৩
২৭১(+১) (+০.৪%)
২০২০-০৫-০৪
২৭১(=) (=)
২০২০-০৫-০৫
২৭১(=) (=)
২০২০-০৫-০৬
২৭১(=) (=)
২০২০-০৫-০৭
২৮৮(+১৭) (+৬.৩%)
২০২০-০৫-০৮
২৮৮(=) (=)
২৮৮(=) (=)
২০২০-০৫-১০
২৮৮(=) (=)
২০২০-০৫-১১
২৮৮(=) (=)
২০২০-০৫-১২
২৮৮(=) (=)
২০২০-০৫-১৩
২৮৮(=) (=)
২০২০-০৫-১৪
২৮৮(=) (=)
২০২০-০৫-১৫
৩১৩(+২৫) (+৮.৭%)
২০২০-০৫-১৬
৩১৮(+৫) (+১.৬%)
২০২০-০৫-১৭
৩২০(+২) (+০.৬%)
২০২০-০৫-১৮
৩২৪(+৪) (+১.৩%)
২০২০-০৫-১৯
৩২৪(=) (=)
২০২০-০৫-২০
৩২৪(=) (=)
২০২০-০৫-২১
৩২৪(=) (=)
২০২০-০৫-২২
৩২৪(=) (=)
২০২০-০৫-২৩
৩২৪(=) (=)
২০২০-০৫-২৪
৩২৫(+১) (+০.৩%)
২০২০-০৫-২৫
৩২৬(+১) (+০.৩%)
২০২০-০৫-২৬
৩২৭(+১) (+০.৩%)
২০২০-০৫-২৭
৩২৭(=) (=)
৩২৭(=) (=)
২০২০-০৫-২৯
৩২৭(=) (=)
২০২০-০৫-৩০
৩২৮(+১) (+০.৩%)
২০২০-০৫-৩১
৩২৮(=) (=)
২০২০-০৬-০১
৩২৮(=) (=)
২০২০-০৬-০২
৩২৮(=) (=)
২০২০-০৬-০৩
৩২৮(=) (=)
২০২০-০৬-০৪
৩২৮(=) (=)
২০২০-০৬-০৫
৩২৮(=) (=)
২০২০-০৬-০৬
৩২৯(+১) (+০.৩%)
২০২০-০৬-০৭
৩২৯(=) (=)
২০২০-০৬-০৮
৩৩২(+৩) (+১%)
২০২০-০৬-০৯
৩৩২(=) (=)
২০২০-০৬-১০
৩৩২(=) (=)
২০২০-০৬-১১
৩৩২(=) (=)
২০২০-০৬-১২
৩৩৩(+১) (+০.৩%)
২০২০-০৬-১৩
৩৩৪(+১) (+০.৩%)
২০২০-০৬-১৪
৩৩৪(=) (=)
২০২০-০৬-১৫
৩৩৪(=) (=)
২০২০-০৬-১৬
৩৩৪(=) (=)
২০২০-০৬-১৭
৩৩৫(+১) (+০.৩%)
২০২০-০৬-১৮
৩৪২(+৭) (+২.১%)
২০২০-০৬-১৯
৩৪৯(+৭) (+২%)
২০২০-০৬-২০
৩৪৯(=) (=)
২০২০-০৬-২১
৩৪৯(=) (=)
২০২০-০৬-২২
৩৪৯(=) (=)
২০২০-০৬-২৩
৩৪৯(=) (=)
২০২০-০৬-২৪
৩৫২(+৩) (+০.৯%)
২০২০-০৬-২৫
৩৫২(=) (=)
২০২০-০৬-২৬
৩৫৩(+১) (+০.৩%)
২০২০-০৬-২৭
৩৫৫(+২) (+০.৬%)
২০২০-০৬-২৮
৩৫৫(=) (=)
২০২০-০৬-২৯
৩৫৫(=) (=)
২০২০-০৬-৩০
৩৫৫(=) (=)
২০২০-০৭-০১
৩৫৫(=) (=)
২০২০-০৭-০২
৩৫৫(=) (=)
৩৫৫(=) (=)
২০২০-০৭-০৬
৩৬৯(+১৪) (+৩.৯%)
২০২০-০৭-০৭
৩৬৯(=) (=)
২০২০-০৭-০৮
৩৬৯(=) (=)
২০২০-০৭-০৯
৩৬৯(=) (=)
২০২০-০৭-১০
৩৬৯(=) (=)
২০২০-০৭-১১
৩৭০(+১) (+০.৩%)
২০২০-০৭-১২
৩৭২(+২) (+০.৬%)
২০২০-০৭-১৩
৩৭২(=) (=)
২০২০-০৭-১৪
৩৭৩(+১) (+০.৩%)
২০২০-০৭-১৫
৩৮১(+৮) (+২.১%)
২০২০-০৭-১৬
৩৮১(=) (=)
২০২০-০৭-১৭
৩৮২(+১) (+০.৩%)
২০২০-০৭-১৮
৩৮২(=) (=)
২০২০-০৭-১৯
৩৮৩(+১) (+০.৩%)
২০২০-০৭-২০
৩৮৪(+১) (+০.৩%)
২০২০-০৭-২১
৩৯৬(+১২) (+৩.১%)
উৎস:
ভিয়েতনামের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় (ভিয়েতনামের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে লেখচিত্র)

প্রথম দফা[সম্পাদনা]

জানুয়ারি[সম্পাদনা]

২৩ জানুয়ারি, ভিয়েতনামে কোভিড -১৯ এর প্রথম দুটি ঘটনা নিশ্চিত হয়েছে, একজন চীনা মানুষ (# ১) চীনের উহান থেকে ভিয়েতনামের হ্যানয়তে বসবাসকারী তাঁর ছেলের (# ২), কাছে আসেন। মনে করা হয় যে তার ছেলে, তার থেকে সংক্রমিত হয়। তারা ২২ জানুয়ারী হো চি মিন সিটির, চো রে হাসপাতালে ভর্তি হয় এবং কোয়ারান্টাইনড অঞ্চলে চিকিত্সা করা হয়েছিল। [১৪] ভিয়েতনামের স্বাস্থ্য মন্ত্রক করোনাভাইরাস রোগ সম্পর্কিত তথ্যের জন্য দুটি হটলাইন নম্বর জারি করেছে এবং নাগরিকদের লক্ষণ সন্দেহ হলে নিকটস্থ স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রে যোগাযোগ করার পরামর্শ দিয়েছে। ২৪ জানুয়ারী, ভারপ্রাপ্ত স্বাস্থ্যমন্ত্রী ভ্যাক দুরাম জরুরী মহামারী প্রতিরোধ কেন্দ্রটি সক্রিয় করার নির্দেশ দিয়েছেন। [১৫] ভিয়েতনামের চিকিত্সকরা দুটি ঘটনা মেডিকেল জার্নাল দ্য নিউ ইংল্যান্ড জার্নাল অফ মেডিসিনের কাছে নথিভুক্ত ও রিপোর্ট করেছেন, সেই সময় চীনের বাইরে এই রোগের মানুষ থেকে মানুষে সংক্রমণ সম্পর্কে বৈজ্ঞানিক সম্প্রদায়ের কাছে এটি প্রথম ঠোস প্রমাণ ছিল। [১৬] ২৯ জানুয়ারী, ছেলেটি পুরোপুরি সুস্থ হয়ে উঠলে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছিল। [১৭] তার বাবা ১২ ফেব্রুয়ারি ছুটি পেয়েছিলেন। [১৮]

২৯ জানুয়ারী, স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয় সংক্রমণগ্রস্ত স্থানগুলিকে সহায়তা, সঙ্গ নিরোধ, রোগ নির্বীজন, এবং রোগীদের পরিবহন বা সন্দেহজনক রোগীদের জন্য স্থায়ীভাবে ৪০ টি মোবাইল জরুরী প্রতিক্রিয়া দল প্রতিষ্ঠা করেছে। [১৯] প্রথম দুটি ঘটনার এক সপ্তাহ পরে , স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয় উহান থেকে ফিরে আসা ভিয়েতনামিয় নাগরিক সম্পর্কিত, তিনটি ইতিবাচক ঘটনা নিশ্চিত করেছে। থান হিয়া প্রদেশে ঘটনা নং ৩ (২৫-বছর-বয়সী মহিলা )কে পৃথক করা হয়েছে এবং নিরাময় করা হয়েছিল, অন্য দুটি ঘটনা (# ৪: ২৯-বছর বয়সী পুরুষ; # ৫: ২৩-বছর বয়সী মহিলা) হ্যানয়তে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। [২০][২১] ঘটনা নং ৫ কে ৩ ফেব্রুয়ারি ছেড়ে দেওয়া হয়েছিল, সম্পূর্ণরূপে সুস্থ্য হয়েছিল এবং ভাইরাস সংক্রমণে নেতিবাচকভাবে পরীক্ষা করা হয়েছিল। [২২]

মহামারীর সময় সুপারমার্কেটে ভিয়েতনামীদের আতঙ্কিত চটজলদি নুডলস ক্রয়।

ফেব্রুয়ারি[সম্পাদনা]

১ ফেব্রুয়ারি, খাঁ হিয়া প্রদেশে একজন ২৫ বছর বয়সি মহিলাকে (# ৬) করোনভাইরাস-ইতিবাচক ঘোষণা করা হয়েছিল। তিনি একজন রেসেপসানিস্ট এবং চীনা বাবা এবং ছেলের সাথে সরাসরি যোগাযোগ করেছেন (মামলা # ১-২)। [২৩] এই মহিলাকে ৪ ফেব্রুয়ারি হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়। [২৪] লক্ষণীয় বিষয়, এটি ভিয়েতনামের প্রথম ঘরোয়া সংক্রমণ ছিল, ফলসরূপ ভিয়েতনামের প্রধানমন্ত্রী স্বাক্ষরিত মহামারী সংক্রান্ত ঘোষণা এবং সীমানা শক্তিশালীকরণ, বিমান চলাচলের অনুমতি বাতিল এবং ভিসা নিষেধাজ্ঞার আহ্বান জানানো হয়েছিল। [২৫][২৬][২৭][২৮]

২ ফেব্রুয়ারি, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ভ্রমণের সময় উহান বিমানবন্দরে দুই ঘণ্টার দেরীর কারণে ভিয়েতনামের এক আমেরিকান (#৭) করোনাভাইরাসটিতে আক্রান্ত হন। [২৯]

৩-৪ ফেব্রুয়ারি, ভিয়েতনাম তাদের অষ্টম এবং নবম ঘটনার ঘোষণা করেছিল: ২৯ বছর বয়সী মহিলা (# ৮) এবং একজন ৩০ বছর বয়সী পুরুষ (# ৯)। তারা পূর্ববর্তী তিন আক্রান্তের (কেস # ৩-৫ এর মাধ্যমে) সাথে একই প্রশিক্ষণ দলে ছিলেন। [৩০][৩১]

পরে ৪ ফেব্রুয়ারি দশম ঘটনা সনাক্ত করা হয়। একজন ৪২ বছর বয়সী মহিলা চন্দ্র নববর্ষের ছুটিতে ৫ নং ঘটনার সাথে সাক্ষাত ও অভিনন্দন জানিয়েছেন। [৩২] মা (৪৯ বছর বয়সী, # ১১) এবং ৫ নং ঘটনার ছোট বোন (১৬ বছর বয়সী, # ১২) এছাড়াও ৬ ফেব্রুয়ারি সংক্রমিত হয়েছিল। [৩৩]

৭ ফেব্রুয়ারি, ভিয়েতনাম তাদের ১৩ তম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছে, ২৯ বছর বয়সী এক কর্মী, যিনি এর আগে নিশ্চিত হওয়া ৫ টি ঘটনার (প্রশিক্ষণ কর্মী ৩,৪,৫,৮,৯) একই প্রশিক্ষণ দলের সদস্য। [৩৪]

একই দিনের শুরুতে ভিয়েতনাম ল্যাবটিতে ভাইরাসটিকে সাফল্যের সাথে কালচার এবং আলাদা করার কথা ঘোষণা করে। সিঙ্গাপুর, অস্ট্রেলিয়া, জাপান এবং চীনকে বাদ দিয়ে এটি কয়েকটি দেশের মধ্যে একতী যারা এটি করতে সক্ষম হয়। [৩৫]

৯ ফেব্রুয়ারি, ১৪ তম ঘটনা, ৫ নম্বরের প্রতিবেশী, ৫৫ বছর বয়সী এক মহিলার, ইতিবাচক পরীক্ষা হয়েছে। [৩৬]

১০ ফেব্রুয়ারি, আরও তিনটি ঘটনা: # ৪, # ৫ এবং # ৯ সুস্থ্য হয়ে ওঠার খবর হয়েছিল। [৩৭]

১১ ফেব্রুয়ারি, ১৫ তম ঘটনা, ১০ নং ঘটনার ৩ মাস বয়সী নাতনী সংক্রমিত চিহ্নিত হয়েছিল। [৩৮]

দ্বিতীয় দফা[সম্পাদনা]

মার্চ[সম্পাদনা]

২৬ মার্চ, আরও ১২ টি ঘটনার বিষয় নিশ্চিত হয়েছিল। [৩৯]

১ মার্চ ভিয়েতনামে একটি নতুন ঘটনা প্রকাশিত হয়েছিল, যেটি ৬১তম রোগী হিসাবে পরিচিত। চাম সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের, রোগী মালয়েশিয়ার শ্রী পেটালিং মসজিদে তাবলিগী জামায়াতে অংশ নিয়েছিলেন, যেখানে তিনি ভিয়েতনামে ফিরে আসার আগে সংক্রামিত হয়েছিলেন এবং নিনহ থুন্নেতে বাড়ি ফেরার আগে হো চি মিন সিটির জামেউল মুসলিমিন মসজিদে যোগ দিয়েছিলেন। তিনি যেহেতু বহু মানুষের সংস্পর্শে এসেছিলেন তার কারণে রোগীর সুপার স্প্রেড রোগী হওয়ার সম্ভাবনা বাড়িয়ে তোলে। অবশেষে, ভিয়েতনামী কর্তৃপক্ষ পুরো প্রদেশকে বিচ্ছিন্ন ও পৃথক করার পাশাপাশি মসজিদটি বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নেয়। [৪০][৪১][৪২] পরবর্তী সময়ে, ব্যক্তিটির সাথে সংযুক্ত একটি নতুন ঘটনাও পরের দিনেই আবিষ্কার করা হয়েছিল। [৪৩] ২২ মার্চ, ইসলামী কর্মকাণ্ডের সাথে সম্পর্কিত আরেকটি ঘটনা হ'ল মালয়েশিয়া ফেরত ব্যক্তি যিনি একই শ্রী পেটালিং মসজিদে অংশ নিয়েছিলেন, ভিয়েতনামে ফিরে গিয়েছিলেন এবং বাড়িতে সঙ্গনিরোধের নির্দেশ অমান্য করে জামিয়ুল আনোয়ার মসজিদে দিনে পাঁচবার নামাজ পড়েছিলেন। [৪৪]

২২ মার্চ, ভিয়েতনাম চৌদ্দরও বেশি নতুন রোগীকে নথীভুক্ত করেছিল, প্রথমবার আক্রান্তের সংখ্যা ১০০ ছাড়িয়ে যায়। এদের মধ্যে অনেকে ব্রিটেন, মালয়েশিয়া এবং ফ্রান্স সহ বিভিন্ন দেশ থেকে ফিরে এসেছিলেন; যে দেশগুলিতে তখন করোনাভাইরাসের সংক্রমণ মারাত্মক ছড়িয়েছিল। [৪৫]

এপ্রিল[সম্পাদনা]

১৭ থেকে ২৩ এপ্রিল পর্যন্ত, কোনও নতুন ঘটনা নিশ্চিত হয়নি [৪৬][৪৭] তবে, এমন অভিযোগ পাওয়া গেছে রোগী ছাড়া পাওয়ার পরে আবারও তাদের পরীক্ষা ইতিবাচক হয়েছিল। [৪৮][৪৯] ২৪ এপ্রিল, আরও দুটি ঘটনার বিষয় নিশ্চিত হয়েছিল: দুজনেই জাপান থেকে ফিরে আসা ভিয়েতনামী শিক্ষার্থী। [৫০]

সরকারের প্রতিক্রিয়া[সম্পাদনা]

ভিয়েতনামে করোনাভাইরাস বৈশ্বিক মহামারীর পর্যায়[৫১]
পর্যায় ঘটনার সংখ্যা বিবরণ
প্রথম পর্যায় (২৩ জানুয়ারী - ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০) ১৬ প্রতিবেদন করা ঘটনাগুলি হ'ল সাধারণত এমন লোকজন যাদের চীন ভ্রমণের ইতিহাস ছিল।
দ্বিতীয় পর্যায় (৬-১৯ মার্চ ২০২০) ৬৯ ভাইরাসটি বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়েছে, প্রতিবেদন করা বেশিরভাগ ক্ষেত্রে, আক্রান্তরা অন্যান্য দেশ থেকে এসেছে তবে এখনও তাদের যোগাযোগে ছড়িয়ে পড়া এবং পৃথকীকরণের সন্ধান করা সহজ।
তৃতীয় পর্যায় (২০ মার্চ ২০২০ - চলমান) ১৮৫ সম্প্রদায়গুলিতে সংক্রমণ, অনেকগুলি অংশে উচ্চ ঘনত্বযুক্ত অঞ্চলে সংক্রমণ হতে শুরু করে। সংক্রমণের উত্স সন্ধান করা যাচ্ছে না।
২০২০ সালের ১৬ মার্চ, ভিয়েতনামি সরকার নিজের এবং অন্যদের সুরক্ষার জন্য সর্বজনীন এলাকায় যাওয়ার সময় প্রত্যেককে মুখোশ পড়া বাধ্যতামূলক করে। [৫২]

টেমপ্লেট:2020 coronavirus pandemic in Vietnam statistics charts

নিশ্চিত ঘটনা, সক্রিয় ঘটনা এবং সুস্থ্য হয়ে ওঠা সংখ্যা
দ্বিতীয় পর্যায়ে ২০২০ সালের ৬ মার্চ থেকে নিশ্চিত ঘটনার বৃদ্ধির হার (phase 2) (একটি ক্রমবর্ধমান সরলরেখা তাত্পর্যপূর্ণ বৃদ্ধি নির্দেশ করে, যখন একটি অনুভূমিক রেখা রৈখিক বৃদ্ধি নির্দেশ করে)

দ্বিতীয় পর্যায়ে দিন প্রতি সক্রিয় ঘটনার সংখ্যা
দ্বিতীয় পর্যায়ে দিন প্রতি নতুন ঘটনা
দ্বিতীয় পর্যায়ে দিন প্রতি সুস্থ্য হওয়া ব্যক্তির সংখ্যা

Sources: Ministry of Health of Vietnam (ভিয়েতনামের স্বাস্থ্য মন্ত্রক থেকে প্রাপ্ত বর্ণনাচিত্র)

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "TRANG TIN VỀ DỊCH BỆNH VIÊM ĐƯỜNG HÔ HẤP CẤP COVID-19" (ভিয়েতনামী ভাষায়)। BỘ Y TẾ (Ministry of Health)। 
  2. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; Vietnam Cases নামের সূত্রের জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  3. Coleman, Justine (২৩ জানুয়ারি ২০২০)। "Vietnam reports first coronavirus cases"The Hill। ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 
  4. "Archived copy"। ২৪ মার্চ ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৪ মার্চ ২০২০ 
  5. Le, Trien Vinh; Nguyen, Huy Quynh (১৭ এপ্রিল ২০২০)। "How Vietnam Learned From China's Coronavirus Mistakes"The Diplomat। সংগ্রহের তারিখ ১৭ এপ্রিল ২০২০ 
  6. "[Op-ed] Why Vietnam has been the world's number 1 country in dealing with coronavirus"। ৪ মার্চ ২০২০। 
  7. Humphrey, Chris; Pham, Bac (১৪ এপ্রিল ২০২০)। "Vietnam's response to coronavirus crisis earns praise from WHO"7News। সংগ্রহের তারিখ ১৭ এপ্রিল ২০২০ 
  8. Sullivan, Michael (১৬ এপ্রিল ২০২০)। "In Vietnam, There Have Been Fewer Than 300 COVID-19 Cases And No Deaths. Here's Why"National Public Radio। সংগ্রহের তারিখ ১৭ এপ্রিল ২০২০ 
  9. Elsevier। "Novel Coronavirus Information Center"Elsevier Connect। ৩০ জানুয়ারি ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৫ মার্চ ২০২০ 
  10. Reynolds, Matt (৪ মার্চ ২০২০)। "What is coronavirus and how close is it to becoming a pandemic?"Wired UKআইএসএসএন 1357-0978। ৫ মার্চ ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ মার্চ ২০২০ 
  11. "Crunching the numbers for coronavirus"Imperial News। ১৯ মার্চ ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৫ মার্চ ২০২০ 
  12. "High consequence infectious diseases (HCID); Guidance and information about high consequence infectious diseases and their management in England"GOV.UK (ইংরেজি ভাষায়)। ৩ মার্চ ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৭ মার্চ ২০২০ 
  13. "World Federation Of Societies of Anaesthesiologists – Coronavirus"www.wfsahq.org। ১২ মার্চ ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৫ মার্চ ২০২০ 
  14. Phương, Lê (২৩ জানুয়ারি ২০২০)। "Hai người viêm phổi Vũ Hán cách ly tại Bệnh viện Chợ Rẫy"VnExpress (Vietnamese ভাষায়)। ২৩ জানুয়ারি ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৩ জানুয়ারি ২০২০ 
  15. "Yêu cầu kích hoạt ngay trung tâm phòng chống dịch khẩn cấp bệnh viêm phổi do virus corona"Người Lao Động (Vietnamese ভাষায়)। ২৪ জানুয়ারি ২০২০। সংগ্রহের তারিখ ২৪ জানুয়ারি ২০২০ 
  16. https://www.nejm.org/doi/full/10.1056/NEJMc2001272
  17. Phương, Lê (২৮ জানুয়ারি ২০২০)। "One of Vietnam's first confirmed coronavirus patients recovers"VnExpress। ২৯ জানুয়ারি ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৯ জানুয়ারি ২০২০ 
  18. Phương, Lê (১২ জানুয়ারি ২০২০)। "Bệnh nhân viêm phổi corona thứ hai ở TP HCM xuất viện"VnExpress (Vietnamese ভাষায়)। ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১২ জানুয়ারি ২০২০ 
  19. http://nld.com.vn/suc-khoe/40-doi-phan-ung-nhanh-ung-pho-virus-corona-san-sang-cho-tinh-huong-xau-nhat-20200128224950267.htm
  20. "3 người Việt đầu tiên nhiễm nCoV đã đi qua những đâu?"Thanh Niên (Vietnamese ভাষায়)। ৩১ জানুয়ারি ২০২০। সংগ্রহের তারিখ ৩১ জানুয়ারি ২০২০ 
  21. Thùy, Hoàng (৩০ জানুয়ারি ২০২০)। "Ba người Việt Nam nhiễm viêm phổi Vũ Hán"VnExpress (Vietnamese ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 
  22. Quỳnh, Thúy; Hoàng, Lê (৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০)। "Bệnh nhân nhiễm virus corona đầu tiên xuất viện"VnExpress (Vietnamese ভাষায়)। ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১১ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 
  23. Ngọc, Xuân (১ ফেব্রুয়ারি ২০২০)। "Ca thứ 6 Việt Nam nhiễm virus corona"VnExpress (Vietnamese ভাষায়)। ১ ফেব্রুয়ারি ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 
  24. Ngọc, Xuân (৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০)। "Bệnh nhân viêm phổi thứ ba xuất viện"VnExpress (Vietnamese ভাষায়)। ৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১১ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 
  25. "Vietnam declares novel coronavirus epidemic"। Vietnam News Agency। ১ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ১ ফেব্রুয়ারি ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১ ফেব্রুয়ারি ২০২০ – Vietnam+-এর মাধ্যমে। 
  26. Khang, Minh; Huệ, Nguyễn (৩১ জানুয়ারি ২০২০)। "Quảng Ninh đóng cửa các điểm xuất hàng trên tuyến biên giới giáp Trung Quốc"VTC News (Vietnamese ভাষায়)। ১ ফেব্রুয়ারি ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩১ জানুয়ারি ২০২০ 
  27. Thắng, Tiến (৩১ জানুয়ারি ২০২০)। "Người dân lên Móng Cái để sang Trung Quốc được yêu cầu quay về"Tuổi Trẻ (Vietnamese ভাষায়)। ১ ফেব্রুয়ারি ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩১ জানুয়ারি ২০২০ 
  28. Phùng, Tuấn (১ ফেব্রুয়ারি ২০২০)। "Dừng toàn bộ chuyến bay giữa Việt Nam và Trung Quốc từ chiều nay"Tuổi Trẻ (Vietnamese ভাষায়)। ১ ফেব্রুয়ারি ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 
  29. Nga, Lê (২ ফেব্রুয়ারি ২০২০)। "Ca thứ 7 ở Việt Nam nhiễm virus corona"VnExpress (Vietnamese ভাষায়)। ২ ফেব্রুয়ারি ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 
  30. Nga, Lê (৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০)। "Ca thứ 8 mắc virus corona ở Việt Nam"VnExpress (Vietnamese ভাষায়)। ৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 
  31. Lê, Chi (৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০)। "Ca thứ 9 ở Việt Nam nhiễm virus corona"VnExpress (Vietnamese ভাষায়)। ৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 
  32. Nga, Lê (৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০)। "Ca nhiễm virus thứ 10 ở Việt Nam"VnExpress (Vietnamese ভাষায়)। ৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 
  33. Nga, Lê (৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০)। "Thêm 2 người Vĩnh Phúc dương tính nCoV"VnExpress (Vietnamese ভাষায়)। ৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 
  34. Lê, Chi (৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০)। "Ca dương tính nCoV thứ 13 tại Việt Nam"VnExpress (Vietnamese ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 
  35. Nga, Lê (৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০)। "Việt Nam nuôi cấy thành công nCoV"VnExpress (Vietnamese ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 
  36. Nga, Lê (৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০)। "Thêm một người Vĩnh Phúc dương tính nCoV"VnExpress (Vietnamese ভাষায়)। ৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 
  37. Quỳnh, Thúy; Lê, Chi (১০ ফেব্রুয়ারি ২০২০)। "Ba bệnh nhân viêm phổi corona xuất viện"VnExpress (Vietnamese ভাষায়)। ১০ ফেব্রুয়ারি ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১১ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 
  38. Lê, Chi (১১ ফেব্রুয়ারি ২০২০)। "Bé gái Vĩnh Phúc 3 tháng tuổi dương tính nCoV"VnExpress (Vietnamese ভাষায়)। ১১ ফেব্রুয়ারি ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১১ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 
  39. "COVID-19 cases in Vietnam stand at 153"en.vietnamplus.vn (English ভাষায়)। ২৬ মার্চ ২০২০। 
  40. "Saigon mosque closed after followers' contact with Covid-19 patient"VnExpress। ১৬ মার্চ ২০২০। 
  41. "Việt Nam records 61st COVID-19 patient"Viet Nam News। ১৬ মার্চ ২০২০। সংগ্রহের তারিখ ১৭ মার্চ ২০২০ 
  42. "Ninh Thuận phong tỏa khu dân cư Văn Lâm 3"thanhnien.vn (Vietnamese ভাষায়)। ১৬ মার্চ ২০২০। 
  43. "Ninh Thuan man confirmed 67th COVID-19 patient"VGP News (English ভাষায়)। ১৮ মার্চ ২০২০। 
  44. "Cách ly tại nhà, bệnh nhân thứ 100 mắc Covid-19 vẫn đi lễ 5 lần/ngày"baomoi.com (Vietnamese ভাষায়)। ২২ মার্চ ২০২০। 
  45. "Thêm 14 người mắc Covid-19, cả nước có 113 bệnh nhân"news.zing.vn (Vietnamese ভাষায়)। ২২ মার্চ ২০২০। 
  46. "Chiều nay không ghi nhận thêm ca nhiễm nCoV"। Vnexpress। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ৯, ২০২০ 
  47. "Việt Nam liên tục không có ca COVID-19 mới, nhưng người dân không nên chủ quan"। Tuổi Trẻ। ১৯ এপ্রিল ২০২০। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ১৯, ২০২০ 
  48. "'Bệnh nhân 188' tái dương tính sau khi xuất viện"। Vnexpress। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ১৯, ২০২০ 
  49. "Bệnh nhân Covid-19 thứ 22 tái dương tính lại… âm tính sau khi về Anh"। Thanh Niên। ১৭ এপ্রিল ২০২০। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ১৯, ২০২০ 
  50. "Vietnam cofirmed 270 cases"। Dan Tri। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ২৪, ২০২০ 
  51. "Toàn cảnh 3 giai đoạn dịch Covid-19 tại Việt Nam" [3 COVID-19 pandemic phases in Vietnam] (Vietnamese ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ৮ এপ্রিল ২০২০Thanh Nien-এর মাধ্যমে। 
  52. "All in Vietnam must wear face mask in public places for coronavirus prevention"The Star। ১৬ মার্চ ২০২০। সংগ্রহের তারিখ ২১ মার্চ ২০২০ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]