১৯৮৮ যুব ক্রিকেট বিশ্বকাপ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
১৯৮৮ যুব ক্রিকেট বিশ্বকাপ
তারিখ২৮ ফেব্রুয়ারি – ১৩ মার্চ ১৯৮৮
ব্যবস্থাপকআন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল
ক্রিকেটের ধরনঅনূর্ধ্ব-১৯ ওডিআই (৫০-ওভার)
প্রতিযোগিতার ধরনরাউন্ড-রবিন
আয়োজক অস্ট্রেলিয়া
বিজয়ী অস্ট্রেলিয়া (১ম শিরোপা)
রানার-আপ পাকিস্তান
অংশগ্রহণকারী
খেলার সংখ্যা৩১
সর্বাধিক রানঅস্ট্রেলিয়া ব্রেট উইলিয়ামস (৪৭১)
সর্বাধিক উইকেটঅস্ট্রেলিয়া ওয়েন হোল্ডসওয়ার্থ
পাকিস্তান মুশতাক আহমেদ (প্রত্যেকে ১৯)

১৯৮৮ ম্যাকডোনাল্ড'স দ্বিশতবার্ষিকী যুব ক্রিকেট বিশ্বকাপ হল আন্তর্জাতিক অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেট প্রতিযোগিতা, যা অস্ট্রেলিয়াতে অনুষ্ঠিত হয়েছিল। এই প্রতিযোগিতাটি অস্ট্রেলীয় দ্বিশতবার্ষিকী উদযাপনের একটি অংশ ছিল। এটিকে অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপের প্রথম আসর রূপে গণ্য করা হয়।

প্রতিযোগিতাটিতে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কনফারেন্সের প্রথা মেনে অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেট বোর্ড একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে ফরম্যাট হিসেবে ঘোষণা করে।[১]

দল[সম্পাদনা]

নিম্নলিখিত দলগুলি অংশগ্রহণ করে:

লিগ পর্ব[সম্পাদনা]

পয়েন্ট তালিকা[সম্পাদনা]

দল খে টা ফহ র.র
 অস্ট্রেলিয়া ১২ ৪.৫৭৭
 ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১০ ৩.৭১১
 পাকিস্তান ১০ ৩.৩৭১
 ইংল্যান্ড ৩.১৯৪
 শ্রীলঙ্কা ৩.৪৭৫
 ভারত ২.৯৫১
 নিউজিল্যান্ড ৩.৫২৬
আইসিসি সহযোগী একাদশ ২.৯৬৯
উৎস: ক্রিকেট আর্কাইভ
  •      সেমি-ফাইনালে উত্তীর্ণ

ম্যাচসমূহ[সম্পাদনা]

পর্ব ১[সম্পাদনা]

২৮ ফেব্রুয়ারি
স্কোরকার্ড
অস্ট্রেলিয়া 
২৩৮/৫ (৫০ ওভার)
 ওয়েস্ট ইন্ডিজ
১৬৫ (৩৯.৫ ওভার)
অস্ট্রেলিয়া ৭৩ রানে জয়ী
মিলডুরা সিটি ওভাল, মিলডুরা, ভিক্টোরিয়া

২৮ ফেব্রুয়ারি
স্কোরকার্ড
ইংল্যান্ড 
১৭২/৮ (৫০ ওভার)
 ভারত
১৭৩/৮ (৪৯.৪ ওভার)
ভারত ২ উইকেটে জয়ী
রেনমার্ক ওভাল, রেনমার্ক, দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়া

২৮ ফেব্রুয়ারি
স্কোরকার্ড
আইসিসি সহযোগী একাদশ
১৬৩ (৪৯.২ ওভার)
 পাকিস্তান
১৬৬/৫ (৩৫.২ ওভার)
পাকিস্তান ৫ উইকেটে জয়ী
চ্যাফি পার্ক, মার্বেইন, ভিক্টোরিয়া

২৮ ফেব্রুয়ারি
স্কোরকার্ড
নিউজিল্যান্ড 
১৭৮/৯ (৫০ ওভার)
 শ্রীলঙ্কা
১৬৬ (৪৭.৪ ওভার)
নিউজিল্যান্ড ১২ রানে জয়ী
বেরি ওভাল, বেরি, দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়া

পর্ব ২[সম্পাদনা]

২৯ ফেব্রুয়ারি
স্কোরকার্ড
ভারত 
১৩২ (৪৫.৩ ওভার)
 অস্ট্রেলিয়া
১৩৬/৩ (৩৯.২ ওভার)
অস্ট্রেলিয়া ৭ উইকেটে জয়ী
বেরি ওভাল, বেরি, দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়া

২৯ ফেব্রুয়ারি
স্কোরকার্ড
ইংল্যান্ড 
২০৫/৮ (৫০ ওভার)
আইসিসি সহযোগী একাদশ
১৭৫ (৪৮.৩ ওভার)
ইংল্যান্ড ৩০ রানে জয়ী
মিলডুরা সিটি ওভাল, মিলডুরা, ভিক্টোরিয়া

২৯ ফেব্রুয়ারি
স্কোরকার্ড
ওয়েস্ট ইন্ডিজ 
২৩৬/৯ (৫০ ওভার)
 নিউজিল্যান্ড
২০২/৯ (৫০ ওভার)
ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৩৪ রানে জয়ী
ওয়েন্টওয়ার্থ ওভাল, ওয়েন্টওয়ার্থ, নিউ সাউথ ওয়েলস

২৯ ফেব্রুয়ারি
স্কোরকার্ড
শ্রীলঙ্কা 
১৫১ (৪৮.৩ ওভার)
 পাকিস্তান
১৫২/৩ (৩৯.২ ওভার)
পাকিস্তান ৭ উইকেটে জয়ী
বারমেরা ওভাল, বারমেরা, দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়া

পর্ব ৩[সম্পাদনা]

২ মার্চ
স্কোরকার্ড
অস্ট্রেলিয়া 
২৪৯ (৪৮.৪ ওভার)
 শ্রীলঙ্কা
২২৫ (৪৭.৪ ওভার)
অস্ট্রেলিয়া ২৪ রানে জয়ী
চ্যাফি পার্ক, মার্বেইন, ভিক্টোরিয়া

২ মার্চ
স্কোরকার্ড
ইংল্যান্ড 
১৭৪/৭ (৫০ ওভার)
 ওয়েস্ট ইন্ডিজ
১১১ (৪৩.২ ওভার)
ইংল্যান্ড ৬৩ রানে জয়ী
রেনমার্ক ওভাল, রেনমার্ক, দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়া

২ মার্চ
স্কোরকার্ড
আইসিসি সহযোগী একাদশ
১৩১ (৪১.২ ওভার)
 নিউজিল্যান্ড
১৩২/৬ (৩৭.৩ ওভার)
নিউজিল্যান্ড ৪ উইকেটে জয়ী
লক্সটন নর্থ ওভাল, লক্সটন, দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়া

২ মার্চ
স্কোরকার্ড
পাকিস্তান 
১৯৪/৭ (৫০ ওভার)
 ভারত
১২৬ (৩৯.৩ ওভার)
পাকিস্তান ৬৮ রানে জয়ী
ওয়েন্টওয়ার্থ ওভাল, ওয়েন্টওয়ার্থ, নিউ সাউথ ওয়েলস

পর্ব ৪[সম্পাদনা]

৩ মার্চ
স্কোরকার্ড
অস্ট্রেলিয়া 
৩০৩/৮ (৫০ ওভার)
আইসিসি সহযোগী একাদশ
১২৬ (৪৪.২ ওভার)
অস্ট্রেলিয়া ১৭৭ রানে জয়ী
ওয়েন্টওয়ার্থ ওভাল, ওয়েন্টওয়ার্থ, নিউ সাউথ ওয়েলস

৩ মার্চ
স্কোরকার্ড
ইংল্যান্ড 
১০২ (৪১.১ ওভার)
 শ্রীলঙ্কা
১০৩/৬ (৩৫.৫ ওভার)
শ্রীলঙ্কা ৪ উইকেটে জয়ী
বার্মেরা ওভাল, বার্মেরা, দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়া

৩ মার্চ
স্কোরকার্ড
ভারত 
১৬৪ (৪৬.৩ ওভার)
 নিউজিল্যান্ড
১২০ (৪৫.৫ ওভার)
ভারত ৪৪ রানে জয়ী
লক্সটন নর্থ ওভাল, লক্সটন, দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়া

৩ মার্চ
স্কোরকার্ড
ওয়েস্ট ইন্ডিজ 
১২১ (৪৯ ওভার)
 পাকিস্তান
১০১ (৪৩.৪ ওভার)
ওয়েস্ট ইন্ডিজ ২০ রানে জয়ী
মিলডুরা সিটি ওভাল, মিলডুরা, ভিক্টোরিয়া

পর্ব ৫[সম্পাদনা]

৬ মার্চ
স্কোরকার্ড
অস্ট্রেলিয়া 
২০৬/৭ (৫০ ওভার)
 ইংল্যান্ড
১৪৬ (৪৯ ওভার)
অস্ট্রেলিয়া ৬০ রানে জয়ী
রেনমার্ক ওভাল, রেনমার্ক, দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়া

৬ মার্চ
স্কোরকার্ড
শ্রীলঙ্কা 
২৩১/৭ (৫০ ওভার)
আইসিসি সহযোগী একাদশ
১৮৪/৭ (৫০ ওভার)

৬ মার্চ
স্কোরকার্ড
ওয়েস্ট ইন্ডিজ 
১৯৩/৬ (৫০ ওভার)
 ভারত
১২৩ (৪৬ ওভার)
ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৭০ রানে জয়ী
চ্যাফি পার্ক, মার্বেইন, ভিক্টোরিয়া

৬ মার্চ
স্কোরকার্ড
নিউজিল্যান্ড 
১৯৮/৭ (৫০ ওভার)
 পাকিস্তান
১৯৯/৩ (৪৬ ওভার)
পাকিস্তান ৭ উইকেটে জয়ী
লক্সটন নর্থ ওভাল, লক্সটন, দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়া

পর্ব ৬[সম্পাদনা]

৭ মার্চ
স্কোরকার্ড
অস্ট্রেলিয়া 
২৫৪ (৪৯.৩ ওভার)
 নিউজিল্যান্ড
২০৬/৮ (৫০ ওভার)
অস্ট্রেলিয়া ৪৮ রানে জয়ী
ওয়েন্টওয়ার্থ ওভাল, ওয়েন্টওয়ার্থ, নিউ সাউথ ওয়েলস

৭ মার্চ
স্কোরকার্ড
ইংল্যান্ড 
১২৬ (৪৬.৩ ওভার)
 পাকিস্তান
৭০ (২৪.১ ওভার)
ইংল্যান্ড ৫৬ রানে জয়ী
চ্যাফি পার্ক, মার্বেইন, ভিক্টোরিয়া

৭ মার্চ
স্কোরকার্ড
আইসিসি সহযোগী একাদশ
১১১ (৪৫ ওভার)
 ভারত
১১২/৩ (২৯ ওভার)

৭ মার্চ
স্কোরকার্ড
ওয়েস্ট ইন্ডিজ 
২০১/৮ (৫০ ওভার)
 শ্রীলঙ্কা
১০১ (৩৯.৪ ওভার)
ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১০০ রানে জয়ী
বার্মেরা ওভাল, বার্মেরা, দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়া

পর্ব ৭[সম্পাদনা]

৮ মার্চ
স্কোরকার্ড
পাকিস্তান 
১৯৯ (৪৯.৪ ওভার)
 অস্ট্রেলিয়া
১৬৭ (৪৭.২ ওভার)

৮ মার্চ
স্কোরকার্ড
ইংল্যান্ড 
১৯৩/৬ (৫০ ওভার)
 নিউজিল্যান্ড
১৫৪ (৪৪.৩ ওভার)
ইংল্যান্ড ৩৯ রানে জয়ী
রেনমার্ক ওভাল, রেনমার্ক, দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়া

৮ মার্চ
স্কোরকার্ড
ওয়েস্ট ইন্ডিজ 
২৭২/৬ (৫০ ওভার)
আইসিসি সহযোগী একাদশ
১৪৯/৭ (৫০ ওভার)
ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১২৩ রানে জয়ী
ওয়েন্টওয়ার্থ ওভাল, ওয়েন্টওয়ার্থ, নিউ সাউথ ওয়েলস

৮ মার্চ
স্কোরকার্ড
শ্রীলঙ্কা 
১৯০/৯ (৫০ ওভার)
 ভারত
১৪০ (২৮.২ ওভার)
শ্রীলঙ্কা ৫০ রানে জয়ী
বেরি ওভাল, বেরি, দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়া

নক-আউট পর্ব[সম্পাদনা]

বন্ধনী[সম্পাদনা]

সেমি-ফাইনাল[সম্পাদনা]

ফাইনাল[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. (13 December 2013). "1988: The First Step" ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৫ তারিখে – ICC. Retrieved 9 November 2015.