শ্বসন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
Jump to navigation Jump to search

শারীরবৃত্তীয় শ্বসন হল বাতাস হতে জীবের কলাতন্ত্রে অক্সিজেনের সরবরাহের এবং বিপরীত প্রক্রিয়ায় কার্বন-ডাই-অক্সাইডের নির্গমন প্রক্রিয়া। শারীরবৃত্তীয় শ্বসন প্রাণরসায়ন সংআয়িত কোষীয় শ্বসন হতে আলাদা যা জীবের কোষে সংঘটিত হয় এবং এক্ষেত্রে অক্সিজেনের সাথে গ্লুকোজের রাসায়নিক বিক্রিয়ার মাধ্যমে কোষ তার প্রয়োজনীয় শক্তি লাভ করে। শারীরবৃত্তীয় শ্বসন এবং কোষীয় শ্বসন উভয়েই জীবের জীবন ধারণের জন্য অপরিহার্য।

সরল এককোষী জীবের ক্ষেত্রে গ্যাস আদান-প্রদানের জন্য সাধারণ ব্যাপন প্রক্রিয়া যথেষ্ট কেননা প্রতিটি কোষ বাইরের সরাসরি বাইরের পরিবেশের সংস্পর্শে থাকে, কিন্তু জটিল বহুকোষী জীবের ক্ষেত্রে পরিবেশ এবং একদম ভেতরের কোষগুলোর মাঝে দূরত্ব অনেক বেশি, কাজেই আলাদা শ্বসনতন্ত্রের প্র‌য়োজন হয়।

শ্বসনের প্রভাবকসমুহ[সম্পাদনা]

  • বাহ্যিক প্রভাবক
    • তাপমাত্রা
    • অক্সিজেন
    • পানি
    • আলো
    • কার্বন ডাই অক্সাইড
  • অভ্যন্তরীন প্রভাবক
    • জটিল খাদ্যদ্রব্যের পরিমাণ
    • উৎসেচক
    • কোষের বয়স
    • কোষের অজৈব লবণ
    • মাটিস্থ অজৈব লবণ
    • কোষ মধ্যস্থ পানি

শ্বসনের প্রকারভেদ[সম্পাদনা]

(ক) সবাত শ্বসন (খ) অবাত শ্বসন

ক) সবাত শ্বসনঃ যে শ্বসন প্রক্রিয়ায় মুক্ত অক্সিজেনের প্রয়োজন হয় এবং শ্বসনিক বস্তু সম্পূরনোভাবে জারিত হয়ে কারবন-ডাই-অক্সাইড,পানি ও বিপুল পরিমাণ শক্তি উৎপন্ন করে তাকে সবাত শ্বসন বলে।

(খ)অবাত শ্বসনঃ যে শ্বসন প্রক্রিয়া মুক্ত অক্সিজেনের অনুপস্থিতিতে সংঘটিত হয়,তাকে অবাত শ্বসন বলে।