লতিফুর রহমান (বিচারপতি)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(লতিফুর রহমান থেকে পুনর্নির্দেশিত)
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
বিচারপতি লতিফুর রহমান
তত্ত্বাবধায়ক সরকার
কাজের মেয়াদ
১৫ জুলাই ২০০১ – ১০ অক্টেবর ২০০১
পূর্বসূরীশেখ হাসিনা
উত্তরসূরীখালেদা জিয়া
১০তম বাংলাদেশের প্রধান বিচারপতি
কাজের মেয়াদ
১ জানুয়ারী ২০০০ – ২৮ ফেবরুয়ারী ২০০১
পূর্বসূরীমোস্তফা কামাল
উত্তরসূরীমাহমুদুল আমিন চৌধুরী
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম(১৯৩৬-০৩-০১)১ মার্চ ১৯৩৬
যশোর জেলা, বেঙ্গল প্রেসিডেন্সি, ব্রিটিশ ভারত
মৃত্যু৬ জুন ২০১৭(২০১৭-০৬-০৬) (৮১ বছর)
ঢাকা, বাংলাদেশ
জাতীয়তাবাংলাদেশী
ধর্মইসলাম

বিচারপতি লতিফুর রহমান (জন্ম: ১লা মার্চ ১৯৩৬ - মৃত্যু: ৬ই জুন ২০১৭) ছিলেন বাংলাদেশের সাবেক প্রধান বিচারপতি ও ২০০১ সালের তত্ত্বাবধায়ক সরকারের প্রধান উপদেষ্টা।

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

লতিফুর রহমান ১লা মার্চ ১৯৩৬ সালে ঝিনাইদহ জেলার মহেশপুর উপজেলায় জন্মগ্রহণ করেন।

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

পেশাজীবনের শুরুতে লতিফুর রহমান কায়েদে আজম কলেজ (বর্তমান শহিদ সোহরাওয়ার্দি কলেজ)ও জগন্নাথ কলেজে (বর্তমান জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়) প্রভাষক হিসেবে কাজ করেন। ১৯৬০ সাল থেকে তিনি ঢাকা হাই কোর্টে আইন পেশা শুরু করেন। তিনি শুরুতেই এম.এইচ. খন্দকারের নিকট শিক্ষানবিশ ছিলেন। জনাব খন্দকার বাংলাদেশের প্রথম এটর্নি জেনারেল ছিলেন। ১৯৭৯ সালে লতিফুর রহমান সুপৃম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের অতিরিক্ত বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ লাভ করেন। ১৯৮১ সালে তার বিচারকের চাকুরি স্থায়ী হয়। ১৫ জানুয়ারি ১৯৯১ তিনি সুপৃম কোর্টের আপিল বিভাগের বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ লাভ করেন। ২০০১ সালের ১ জানুয়ারি তিনি দেশের প্রধান বিচারপতি হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন। ২৮ ফেব্রুয়ারি তিনি প্রধান বিচারপতি থাকাকালীন অবসর গ্রহণ করেন।

তত্ত্বাবধায়ক সরকার[সম্পাদনা]

সর্বশেষ অবসর প্রাপ্ত বিচাপতি হিসেবে তিনি ২০০১ সালের ১৫ জুলাই তত্ত্বাবধায়ক সরকারের প্রধান উপদেষ্টার দায়িত্ব গ্রহণ করেন। দায়িত্ব গ্রহণের ৩০ মিনিটের মধ্যে তিনি ১৩ জন সচিবকে ওএসডি করে। [১]অষ্টম জাতীয় সংসদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় ১ অক্টোবর ২০০১ সালে এবং লতিফুর রহমান ১০ অক্টোবর নতুন প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করেন। তার অধীনে অনুষ্ঠিত নির্বাচন দেশে-বিদেশে ব্যাপক প্রশংসিত হয়। বিএনপি এই নির্বাচনে দুই-তৃতীয়াংশ আসনে জয় লাভ করে এবং আওয়ামী লীগ ৫৮ টি আসন পায়। আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা এই নির্বাচনের ফলাফল প্রথমে প্রত্যাখ্যান করে এবং শপথ নিতে অস্বীকার করে। আওয়ামী লীগ বিচারপতি লতিফুর রহমান ও তার উপদেষ্টামন্ডলীর ও ব্যাপক নিন্দা করে। যদিও কিছুদিন পর আওয়ামী লীগ সংসদ সদস্যরা শপথ গ্রহণ করে ও সংসদে বিরোধী দল হিসেবে যোগ দেয়।

রচনা[সম্পাদনা]

প্রধান উপদেষ্টার দায়িত্ব হস্তান্তরের পর বিচারপতি লতিফুর রহমান তার উপদেষ্টা থাকা কালীন অভিজ্ঞতা নিয়ে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দিন গুলি ও আমার কথা নামের একটি বই লিখেন।

মৃত্যু[সম্পাদনা]

৬ই জুন ২০১৭ সালে মঙ্গলবার সকালে রাজধানীর সমরিতা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। [২] [৩]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. http://www.barta24.net/print_news.php?path=data_files/2011/06/24&news_type_id=1&menu_id=76&news_id=1049
  2. "সাবেক প্রধান বিচারপতি লতিফুর রহমান আর নেই"দৈনিক ইত্তেফাক। ৪০, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫। ০৬ জুন ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ 2017-06-06  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |তারিখ= (সাহায্য)
  3. "সাবেক প্রধান বিচারপতি লতিফুর রহমান আর নেই"দৈনিক সমকাল। ১৩৬ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮। ০৬ জুন ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ 2017-06-06  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |তারিখ= (সাহায্য)

বহি:সংযোগ[সম্পাদনা]

পূর্বসূরী:
শেখ হাসিনা
'তত্ত্বাবধায়ক সরকারের প্রধান উপদেষ্টা'
জুলাই ১৫, ২০০১-অক্টোবর ১০, ২০০১
উত্তরসূরী:
খালেদা জিয়া