মনজুর হোসেন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ড. এম. মনজুর হোসেন
Monzur Hossain by Porag 001.jpg
ড. এম. মনজুর হোসেন, (ফেব্রুয়ারি, ২০১৫)
জন্ম (1957-01-15) ১৫ জানুয়ারি ১৯৫৭ (বয়স ৬২)
জাতীয়তাবাংলাদেশী
জাতিসত্তাবাঙালি
নাগরিকত্ববাংলাদেশ Flag of Bangladesh.svg
পেশাঅধ্যাপনা
যে জন্য পরিচিতবাংলাদেশে স্ট্রবেরি চাষের উদ্ভাবক
দাম্পত্য সঙ্গীড. নাসিমা ইয়াসমিন চৌধুরী
সন্তাননাদিয়া মনজুর, সাদিয়া মনজুর
পুরস্কারআমেরিকান সরপটিমিস্ট ইন্টারন্যাশনাল অ্যাওয়ার্ড (১৯৯৫), মহাত্মা গান্ধী শামীত্ম পুরস্কার (২০১১)

প্রফেসর ড. এম. মনজুর হোসেন বাংলাদেশের একজন খ্যাতনামা বিজ্ঞানীগবেষক। বাংলাদেশে স্ট্রবেরি চাষের উদ্ভাবক হিসেবে তিনি বেশি পরিচিত।[১] তিনি সোমা ক্লোনাল ভেরিয়েশন প্রযুক্তির সাহায্যে বাংলাদেশে চাষ উপযোগী করে রাবি-১, রাবি-২, রাবি-৩ নামে তিনটি জাত উদ্ভাবন করেন।[১] রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট অব বায়োলজিক্যাল সায়েন্স (আইবিএস) এর বর্তমান পরিচালক হিসেবে কর্মরত আছেন।

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

১৯৫৭ সালের ১৫ জানুয়ারি উত্তরের অন্যতম জেলা নাটোরের সিংড়ায় জন্মগ্রহণ করেন প্রফেসর ড. এম. মনজুর হোসেন। তাঁর স্ত্রী মোসাঃ নাসিমা ইয়াসমিন চৌধুরী রাজশাহী কলেজ এর প্রাণিবিদ্যা বিভাগে সহযোগী অধ্যাপক হিসেবে কর্মরত আছেন। ব্যক্তিগত জীবনে তিনি দুই কন্যা সন্তানের জনক।

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

১৯৮৩ সালে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে উদ্ভিদবিদ্যা বিভাগে প্রভাষক হিসেবে যোগদান করেন। বর্তমানে তিনি এই বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট অব বায়োলজিক্যাল সায়েন্স অর্থাৎ জীব বিজ্ঞান বিভাগের (আইবিএস) পরিচালক। এছাড়া বর্তমানে উদ্ভিদ বিদ্যা বিভাগের উদ্ভিদ প্রজনন ও জিন প্রকৌশল গবেষণাগারে গবেষণা কর্মে নিয়োজিত রয়েছেন।

উদ্ভাবন[সম্পাদনা]

তাঁর গবেষণা কর্মের মধ্যে বাংলাদেশে চাষ উপযোগী স্ট্রবেরীর জাত উদ্ভবন সবচাইতে বেশি উল্লেখযোগ্য।[২] ২০০৭ সালে দেশে প্রথম টকটকে লাল রঙের লোভনীয় ফল স্ট্রবেরি চাষের উদ্ভাবন করেন এম মনজুর হোসেন। তিনি রাবি-১, রাবি-২ ও রাবি-৩ নামে স্ট্রবেরির জাত আবিষ্কার করে কৃষকের মাঝে ছড়িয়ে দেন। তবে সবচেয়ে লাভজনক হচ্ছে রাবি-২ জাতটি। এম মনজুর হোসেন ১৯৯৬ সালে দেশে প্রথম টিস্যু কালচারের মাধ্যমে আলুবীজ উৎপাদন করেন। রাজশাহীর পদ্মা আবাসিক এলাকার একটি বাড়িতে কম খরচের প্রযুক্তিতে রেইনবো টিস্যু কালচার নামে ল্যাব স্থাপন করে তিনি টিস্যু কালচারের মাধ্যমে রোগমুক্ত আলুবীজ বাণিজ্যিকভাবে উৎপাদন করেন। ২০১৫ সালে তিনি মাত্র ১৪ লাখ টাকা ব্যয়ে রাজশাহী নগরের নামোভদ্রা এলাকায় ৩০০ টন ধারণক্ষমতার হিমাগার তৈরি করেন যা বেশ আলোড়ন সৃষ্টি করে।[৩] প্রচলিত পদ্ধতিতে এ ধরনের একটি হিমাগার তৈরিতে প্রায় আড়াই কোটি টাকা প্রয়োজন। এতে অর্থায়ন করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক।[৪][৫]

সেবামূলক কার্যক্রম[সম্পাদনা]

টোকাইদের পড়াশোনার কথা মাথায় রেখে এম মনজুর হোসেন ১৯৯৬ সালে রাজশাহী নগরীর দেওয়ানপাড়ায় আলো আশা স্কুল প্রতিষ্ঠা করেন। এখন এই বিদ্যালয়ে টোকাইদের পাশাপাশি ৪০০ শিশু প্রথম থেকে শুরু করে দশম শ্রেণী পর্যন্ত পড়াশোনা করে। এছাড়াও তাঁর গবেষণা কার্যক্রম নিয়ে তিনি আলো-আশা এগ্রোটেক ব্লগ নামে একটি কৃষি তথ্যভিত্তিক ব্লগ পরিচালনা করেন।

অর্জন[সম্পাদনা]

ড. এম. মনজুর হোসেন ইতোমধ্যে মহাত্মা গান্ধী শামীত্ম পুরস্কার পেয়েছেন।[৬] তিনি বাংলাদেশে সাধারণ কৃষকদের উন্নয়নে মাঠ পর্যায়ে টেকসই প্রযুক্তি উদ্ভাবন, স্ট্রবেরির জাত উদ্ভাবন, টিস্যু কালচারের বীজ আলু ও জাবেরা ফুলের চারা তৈরি এবং কৃষি গবেষণায় বিশেষ অবদান রাখার জন্য এ পুরস্কার লাভ করেন। এছাড়া ড. মনজুর হোসেন ১৯৯৫ সালে পিএইচডি গবেষণার কৃতিত্ব স্বরূপ স্বর্ণপদক অর্জন করেছেন। তিনি ১৯৯৫ সালে আমেরিকান সরপটিমিস্ট ইন্টারন্যাশনাল অ্যাওয়ার্ড ও ১৯৯৫ সালে কৃতিত্বের সঙ্গে জাপান ইয়াগামাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে উচ্চতর ডিগ্রি গ্রহণ করায় গোল্ড মেডেল, ২০০২ সালে ইংল্যান্ডে কমনওয়েলথ ফেলো, ২০১১ সালে হেলেন কেলার গোল্ড মেডেলসহ অর্ধ শতাধিক সম্মাননা ও পুরস্কার পান। দেশি-বিদেশি জার্নালে বর্তমানে তার দু’শতাধিক গবেষণা প্রকাশনা রয়েছে। তার অধীনে এখন পর্যন্ত ২৭ জন পিএইচডি ও ৯ জন শিক্ষার্থী এমফিল গবেষণা করেছেন।[১]

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসূত্র[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "বাংলানিউজকে ড. এম. মনজুর হোসেন 'স্বপ্ন ছিল ভ্যানে স্ট্রবেরি বিক্রি হবে'"বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম। ঢাকা বাংলাদেশ। মার্চ ০৪, ২০১৬।  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |তারিখ= (সাহায্য)
  2. "স্ট্রবেরির চাষ সম্পর্কীয় যাবতীয় তথ্য"কৃষি তথ্য। জাতীয় ই-তথ্যকোষ। ২০১৩-১১-১৭। ২০১৬-০২-২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৩-০৫ 
  3. "প্রাকৃতিক শস্য হিমাগার এর মান উন্নয়নমূলক গবেষণায় ২০ লক্ষ টাকা অনুদান দিলো আল-আরাফাহ্ ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড"Bangladesh Moves। Pallabi, Dhaka। ২০ অক্টোবর ২০১৫। [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  4. "বিদ্যুৎ ছাড়াই শস্য হিমাগার"দৈনিক সমকাল। ঢাকা বাংলাদেশ। ২০১৪-১২-১৫। [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  5. "কম খরচে দেশে তৈরী হচ্ছে বিকল্প 'হিমাগার'"। আইডিয়া ব্যাংক (A2i)। ১৭ মে ২০১৫। ৬ মার্চ ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ মার্চ ২০১৬ 
  6. "রাবি'র অধ্যাপক মনজুর হোসেনের মহাত্মা গান্ধী শামিত্ম পুরস্কার লাভ"দৈনিক লাল গোলাপ। বোয়ালিয়া, রাজশাহী। 2011 10:14।  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |তারিখ= (সাহায্য)