মধুশ্রী নারায়ণ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
মধুশ্রী নারায়ণ
জন্ম (1999-02-09) ৯ ফেব্রুয়ারি ১৯৯৯ (বয়স ২১)
জাতীয়তাভারতীয়
পেশানেপথ্য সঙ্গীতশিল্পী
কর্মজীবন২০০৩–বর্তমান
পিতা-মাতারমেশ নারায়ণ (পিতা)
সঙ্গীত কর্মজীবন
ধরন
বাদ্যযন্ত্রসমূহকণ্ঠ
ওয়েবসাইটmadhushreenarayan.com

মধুশ্রী নারায়ণ (জন্ম ২ সেপ্টেম্বর ১৯৯৯) হলেন একজন ভারতীয় নেপথ্য সঙ্গীতশিল্পী। তিনি সঙ্গীতজ্ঞ রমেশ নারায়ণের কনিষ্ঠ কন্যা। শৈশব থেকেই সঙ্গীতের সাথে পরিচয় হলেও ২০১৪ সালে সুপার স্টার জুনিয়র অনুষ্ঠানের শিরোপা অর্জনের পর তিনি সঙ্গীতকে নিয়মিত পেশা হিসেবে গ্রহণ করতে আগ্রহী হন।[১] চলচ্চিত্রের গানে কণ্ঠ দিয়ে তিনি একবার শ্রেষ্ঠ নারী সঙ্গীতশিল্পী বিভাগে কেরল রাজ্য চলচ্চিত্র পুরস্কার এবং শ্রেষ্ঠ নারী নেপথ্য কণ্ঠশিল্পী বিভাগে কেরল চলচ্চিত্র সমালোচক পুরস্কার অর্জন করেন।

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

মধুশ্রী ১৯৯৯ সালের ২রা সেপ্টেম্বর কেরল রাজ্যের কণ্ণুর জেলায় এক সঙ্গীত পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা পণ্ডিত রমেশ নারায়ণ একজন প্রখ্যাত সঙ্গীত পরিচালক। মধুশ্রী মাত্র তিন বছর বয়স থেকে গান গাওয়া শুরু করেন। পাঁচ বছর বয়সে তার পিতার নিকট তার আনুষ্ঠানিকভাবে সঙ্গীতের হাতেখড়ি হয়।[২] এরপর তিনি সঙ্গীত মরতাঁদ পণ্ডিত জশরাজের নিকট সঙ্গীতের তামিল গ্রহণ করেন। মাত্র পাঁচ বছর বয়সে তার চলচ্চিত্রের গানে অভিষেক হয় মালয়ালম ভাষার মাকালকু চলচ্চিত্রের শিশুতোষ গান "পাবকলি"-এর মধ্য দিয়ে।[১]

মধুশ্রী তিরুবনন্তপুরমের কারমেল উচ্চ মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের মানবিক শাখায় পড়াশোনা করেছেন।[৩] তিনি স্নাতক পর্যায়ে সঙ্গীত নিয়ে পড়াশোনা করতে ইচ্ছুক। [২]

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

পূর্ণাঙ্গ নেপথ্য সঙ্গীতশিল্পী হিসেবে মধুশ্রীর কর্মজীবন শুরু হয় তার পিতা রমেশ নারায়ণের সুরে তামিল চলচ্চিত্র অডুতালম (২০১১) দিয়ে। ২০১৪ সালে তিনি অমৃতা টেলিভিশনের সঙ্গীত প্রতিযোগিতামূলক অনুষ্ঠান সুপার স্টার জুনিয়র-এর শিরোপা অর্জন করেন। ফাইনালে তিনি ক্রিস্টিনা অগুইলেরা "দ্য ভয়েস উইদিন" গান গেয়েছিলেন, অগুইলেরা তার প্রিয় সঙ্গীতশিল্পীদের একজন।[৪] তিনি রমেশের সুরে ওট্টমন্ডরম (২০১৪) চলচ্চিত্রে বিজয় যেসুদাসের বিপরীতে "আরু বঙ্গুম" কবিতায় কণ্ঠ দেন, যা সঙ্গীত সমালোচকদের নিকট প্রশংসিত হয়।[১] এই চলচ্চিত্রের গানে কণ্ঠ দিয়ে তিনি শ্রেষ্ঠ নারী নেপথ্য কণ্ঠশিল্পী বিভাগে কেরল চলচ্চিত্র সমালোচক সমিতি পুরস্কার অর্জন করেন।[৫] এরপর তিনি তার পিতা রমেশের সুরে আলিফ (২০১৫) এবং আর এস বিমল পরিচালিত জীবনীমূলক এন্নু নিন্টে ময়দিন (২০১৫) চলচ্চিত্রে "প্রিয়ামুল্লাভানে" গানে কণ্ঠ দেন।[২] "প্রিয়ামুল্লাভানে" চলচ্চিত্রে তার গাওয়া প্রথম একক গান।[১] তার সুমিষ্ট কণ্ঠ ও ভাবপূর্ণ নোট গানটিকে পরিপূর্ণতা প্রদান করে।[২] ২০১৫ সালে তিনি এডাবাপতি চলচ্চিত্রের "পাশিয়াতি দিশি দিশি" গানে কণ্ঠ দিয়ে শ্রেষ্ঠ নারী সঙ্গীতশিল্পী বিভাগে কেরল রাজ্য চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করেন।[৬]

২০১৭ সালে মনোজ জর্জের সুরে[৭] ঊর্বি চলচ্চিত্রের "তিলি প্রেমা" গান গাওয়ার মধ্য দিয়ে কন্নড় ভাষার চলচ্চিত্রে তার অভিষেক ঘটে।

পুরস্কার ও মনোনয়ন[সম্পাদনা]

কেরল রাজ্য চলচ্চিত্র পুরস্কার
  • ২০১৫: শ্রেষ্ঠ নেপথ্য সঙ্গীতশিল্পী - এডাবাপতি[৮]
কেরল চলচ্চিত্র সমালোচক সমিতি পুরস্কার
  • ২০১৪: শ্রেষ্ঠ নারী নেপথ্য সঙ্গীতশিল্পী - "ওট্টমন্ডরম"
অন্যান্য
  • ২০১৫: রেড এফএম শ্রেষ্ঠ নেপথ্য সঙ্গীতশিল্পী
  • ২০১৪: সুপার স্টার জুনিয়র (অমৃতা টেলিভিশন)

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. সোমন, দীপা (১৬ জানুয়ারি ২০১৭)। "Music is all I think about: Madhushree Narayan"দ্য টাইমস অব ইন্ডিয়া (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ৯ মার্চ ২০২০ 
  2. নাগরাজন, সরস্বতী (১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৫)। "On a musical high"দ্য হিন্দু (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ৯ মার্চ ২০২০ 
  3. "Madhushree Narayan shines bright in light music at School Arts Festival"মাত্রুভূমি। ১৮ জানুয়ারি ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ৯ মার্চ ২০২০ 
  4. এম., অতিরা (৩১ জানুয়ারি ২০১৪)। "Winning notes"দ্য হিন্দু (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ৯ মার্চ ২০২০ 
  5. "Atlas-Film Critics Awards Announced"দ্য নিউ ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস। ৫ এপ্রিল ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ৯ মার্চ ২০২০ 
  6. জয়ন, অরুণ (২০ জুন ২০১৬)। "This Music Day, a visit to a home of Hindustani music"মাত্রুভূমি। সংগ্রহের তারিখ ৯ মার্চ ২০২০ 
  7. "Urvi (2017) | Urvi Movie | Urvi Kannada Movie Cast & Crew, Release Date, Review, Photos, Videos"ফিল্মি বিট (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ৯ মার্চ ২০২০ 
  8. "Film Awards 2015 - Kerala Chalachitra Academy"কেরল রাজ্য চলচ্চিত্র অকাদেমি। সংগ্রহের তারিখ ৯ মার্চ ২০২০ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]