বাইকম বিজয়লক্ষ্মী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
বাইকম বিজয়লক্ষ্মী
Vaikom Vijayalakshmi DSW.JPG
২০১৩ সালে বিজয়লক্ষ্মী
প্রাথমিক তথ্য
স্থানীয় নামവൈക്കം വിജയലക്ഷ്മി
জন্ম নামবিজয়লক্ষ্মী মুরলিধরন
জন্ম (1981-10-07) ৭ অক্টোবর ১৯৮১ (বয়স ৩৮)
বাইকম, কেরল, ভারত
ধরননেপথ্য সঙ্গীত, কর্ণাটকীয় সঙ্গীত
বাদ্যযন্ত্রসমূহকণ্ঠ, গায়ত্রীবীণা
কার্যকাল১৯৯৫-বর্তমান

বাইকম বিজয়লক্ষ্মী (৭ অক্টোবর ১৯৮১) হলেন একজন ভারতীয় নেপথ্য সঙ্গীতশিল্পী। তিনি বিরল বাদ্যযন্ত্র গায়ত্রীবীণা বাজানোয় পারদর্শী। তিনি সেলুলয়েড (২০১২) চলচ্চিত্রে তার কাজের জন্য কেরল রাজ্য চলচ্চিত্র পুরস্কারের বিশেষ উল্লেখযোগ্য পুরস্কার লাভ করেন।[১] এছাড়া তিনি নডন (২০১৩) চলচ্চিত্রের "ওট্টাক্কু পাড়ুন্না" গানের জন্য শ্রেষ্ঠ সঙ্গীতশিল্পী বিভাগে কেরল রাজ্য চলচ্চিত্র পুরস্কার ও শ্রেষ্ঠ মালয়ালম নারী নেপথ্য সঙ্গীতশিল্পী বিভাগে ফিল্মফেয়ার পুরস্কার অর্জন করেন। বিজয়লক্ষ্মী জন্মান্ধ, তিনি কেরলের বাইকমে জন্মগ্রহণ করেন এবং পরে চেন্নাই চলে যান।[২]

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

বিজয়লক্ষ্মী ১৯৮১ সালের ৭ই অক্টোবর বিজয়া দশমীর দিনে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি মুরলিধরন ও বিমলার একমাত্র কন্যা। তারা বাইকমের উদয়নপুরম মন্দিরের নিকট বসবাস করতেন। তার অনারোগ্য অন্ধত্বের জন্য তার পিতামাতা তাকে নিয়ে চেন্নাই চলে যান। সেখানে কিশোরী বিজয়লক্ষ্মী ইলাইয়ারাজাএম. এস. বিশ্বনাথনদের তামিল চলচ্চিত্রের গান শুনে বেড়ে ওঠেন। তিনি যে কোন গান প্রথমবার শুনেই এর সুর ধরতে পারতেন এবং নিজে একই সুরে গাইতে পারতেন। পরে তার পিতামাতা তাকে কে জে যেসুদাসের শাস্ত্রীয় সঙ্গীতের টেপ কিনে দেন, যা তিনি আগ্রহ নিয়ে শুনতেন। এক বছরের কম সময়ে তিনি এক শতাধিক রাগ শিখেন এবং নিজেই সুর করা শুরু করেন। সে সময় পর্যন্ত সঙ্গীতের উপর তার কোন আনুষ্ঠানিক প্রশিক্ষণ ছিল না।

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

২০১৩ সালের এপ্রিলে গায়ত্রীবীণা বাজাচ্ছেন বিজয়লক্ষ্মী

১৯৮৭ সালে তিনি কে জে যেসুদাসের সাথে সাক্ষাৎ করেন, যেসুদাস জটিলতর রাগগুলি চিহ্নিত করার জ্ঞান ও 'তোড়ি' ও 'ভৈরবী" রাগে তার দক্ষতায় বিস্মিত হন। পরের বছর তিনি মুম্বইয়ের সম্মুখানন্দ হলে সঙ্গীত পরিবেশন করেন।

প্রথম দশ বছর বিজয়লক্ষ্মী চেন্নাই, তাঞ্জোর, মাদুরাই, কোইম্বাতোর ও ভারতের অন্যান্য বড় শহরে চার শতাধিক মঞ্চে সঙ্গীত পরিবেশন করেন। ইতোমধ্যে তিনি একটি এক-তার বাদ্যযন্ত্র বাজানোয় দক্ষতা অর্জন করেন, সেটি হল গায়ত্রী তানপুরা। কর্ণাটকীয় বেহালা কুলপতি শ্রী কুন্নাকুড়ি বৈদ্যনাথন তার বীণা বাজানোয় মুগ্ধ হন এবং একে গায়ত্রীবীণা নাম দেন। তিনি এই বাদ্যযন্ত্র নিয়ে কয়েকটি কনসার্টেও সঙ্গীত পরিবেশন করেন। ১৯৯৫ সাল থেকে তিনি গুরুবায়ুরের চেম্বাই সঙ্গীতোৎসবে এটি বাজিয়ে আসছেন। ২০০১ সালে তিনি সূর্য উৎসবেও এটি বাজান।

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

২০১৬ সালের ডিসেম্বরে বাহরাইন ভিত্তিক প্রযুক্তিবিদ সন্তোষের সাথে তার বাগদান হয়, কিন্তু তার বাগদত্তা তাকে তার অন্ধত্ব নিয়ে অপমানজনক কথা বললে ও তাকে মঞ্চ সঙ্গীত পরিবেশনা থেকে বিরত থাকার অনুরোধ করলে তিনি এই বিবাহ বর্জন করেন। পরে ২০১৮ সালের ২২শে অক্টোবর তিনি বাইকম মহাদেব মন্দিরে অনুকরণশিল্পী এন. অনুপের সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন।[৩]

পুরস্কার ও মনোনয়ন[সম্পাদনা]

  • ২০১২: কেরল রাজ্য চলচ্চিত্র পুরস্কার বিশেষ উল্লেখ - সেলুলয়েড চলচ্চিত্রের "কাট্টে কাট্টে" গান[৪][৫]
  • ২০১৩: শ্রেষ্ঠ সঙ্গীতশিল্পী বিভাগে কেরল রাজ্য চলচ্চিত্র পুরস্কার - নডন চলচ্চিত্রের "ওট্টাক্কু পাড়ুন্না" গান
  • ২০১৪: শ্রেষ্ঠ মালয়ালম নারী নেপথ্য সঙ্গীতশিল্পী বিভাগে ফিল্মফেয়ার পুরস্কার - নডন চলচ্চিত্রের "ওট্টাক্কু পাড়ুন্না" গান
  • ২০১৪: বর্ষসেরা উদীয়মান নারী কণ্ঠশিল্পী বিভাগে মির্চি সঙ্গীত পুরস্কার দক্ষিণ - নডন চলচ্চিত্রের "ওট্টাক্কু পাড়ুন্না" গান[৬]
  • ২০১৪: মনোনীত - শ্রেষ্ঠ নারী নেপথ্য সঙ্গীতশিল্পী বিভাগে এশিয়ানেট চলচ্চিত্র পুরস্কার - নডন চলচ্চিত্রের "ওট্টাক্কু পাড়ুন্না" গান
  • ২০১৪: শ্রেষ্ঠ সঙ্গীতশিল্পী বিভাগে জেসি পুরস্কার - নডন চলচ্চিত্রের "ওট্টাক্কু পাড়ুন্না" গান[৭]
  • ২০১৪: মনোনীত - শ্রেষ্ঠ নারী নেপথ্য সঙ্গীতশিল্পী বিভাগে দক্ষিণ ভারতীয় আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র পুরস্কার - নডন চলচ্চিত্রের "ওট্টাক্কু পাড়ুন্না" গান
  • ২০১৪: বর্ষসেরা গান বিভাগে এনাম সরল্যা পুরস্কার - নডন চলচ্চিত্রের "ওট্টাক্কু পাড়ুন্না" গান
  • ২০১৪: মনোনীত - শ্রেষ্ঠ নারী সঙ্গীতশিল্পী বিভাগে এশিয়াভিশন পুরস্কার - নডন চলচ্চিত্রের "ওট্টাক্কু পাড়ুন্না" গান
  • ২০১৪: মনোনীত - শ্রেষ্ঠ নারী সঙ্গীতশিল্পী বিভাগে বিজয় পুরস্কার - যেন্নামো যেদো চলচ্চিত্রের "পুতিয়া উলিগাই" গান
  • ২০১৪: শ্রেষ্ঠ নারী সঙ্গীতশিল্পী বিভাগে সি. কে. এম. এ. পুরস্কার
  • ২০১৬: শ্রেষ্ঠ নারী সঙ্গীতশিল্পী বিভাগে বনিতা চলচ্চিত্র পুরস্কার - ওরু বাদক্কন সেলফি চলচ্চিত্রের "কাইকোট্টুম"
  • ২০১৭: যুক্তরাজ্যের ওয়ার্ল্ড রেকর্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রেকর্ড ভাঙ্গার জন্য সম্মানসূচক ডক্টরেট[৮][৯]
  • ২০১৭: মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আন্তর্জাতিক তামিল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সম্মানসূচক ডক্টরেট (ডি. লিট.)[১০][১১]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Celluloid dreams"দ্য হিন্দু (ইংরেজি ভাষায়)। ২৪ জানুয়ারি ২০১৩। সংগ্রহের তারিখ ১৫ মার্চ ২০২০ 
  2. "She sings to conquer"দ্য হিন্দু (ইংরেজি ভাষায়)। ২৭ মে ২০০২। সংগ্রহের তারিখ ১৫ মার্চ ২০২০ 
  3. "Vaikom Vijayalakshmi calls off wedding - ChennaiVision"চেন্নাই ভিশন (ইংরেজি ভাষায়)। ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ১৫ মার্চ ২০২০ 
  4. "Prithviraj, Rima steal the show at State Film Awards" (ইংরেজি ভাষায়)। দ্য টাইমস অব ইন্ডিয়া। সংগ্রহের তারিখ ১৫ মার্চ ২০২০ 
  5. "Celluloid, Reema and Prithvi win the state awards" (ইংরেজি ভাষায়)। ইন্ডিয়াগ্লিটজ। সংগ্রহের তারিখ ১৫ মার্চ ২০২০ 
  6. "Mirchi Music Awards - Malayalam winners"। মির্চি সঙ্গীত পুরস্কার। ২৪ আগস্ট ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৫ মার্চ ২০২০ 
  7. "Mammootty Meena win awards" (ইংরেজি ভাষায়)। দ্য হিন্দু। সংগ্রহের তারিখ ১৫ মার্চ ২০২০ 
  8. "Honorary doctorate from the UK for Vaikom Vijayalakshmi"দ্য নিউ ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৭-০৪-০৬। সংগ্রহের তারিখ ১৫ মার্চ ২০২০ 
  9. "Vaikom Vijayalakshmi gets twin record, doctorate in Gayathri veena"মাতৃভূমি (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৭-০৪-০৬। সংগ্রহের তারিখ ১৫ মার্চ ২০২০ 
  10. "Vaikom Vijayalakshmi honoured with D. Litt degree"ইউটিউব। ২০১৭-০৭-০৫। সংগ্রহের তারিখ ১৫ মার্চ ২০২০ 
  11. মধু, বিগনেশ (২০১৭-০৭-০৬)। "Honorary doctorate for Vaikom Vijayalakshmi" (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১৫ মার্চ ২০২০ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]