বাধাই হো

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
বাধাই হো
বাধাই হো পোস্টার.jpg
থিয়েটারে মুক্তির পোস্টার
পরিচালকঅমিত রবীন্দ্রনাথ শর্মা
প্রযোজকবিনীত জৈন
আলেয়া সেন
হেমন্ত ভান্ডারী
অমিত রবীন্দ্রনাথ শর্মা
সুশীল চৌধুরী
প্রীতি সাহানী
রচয়িতাশান্তনু শ্রীবাস্তব
অক্ষত ঘিল্ডিয়াল
জ্যোতি কাপুর
চিত্রনাট্যকারঅক্ষত ঘিল্ডিয়াল
শ্রেষ্ঠাংশেআয়ুষ্মান খুরানা
নিনা গুপ্তা
গজরাজ রাও
সুরেখা সিক্রি
সান্যা মালহোত্রা
সুরকারসঙ্গীত:
তানিষ্ক বাগচি
রোচক কোহলি
জেএএম৮
সানি বাওরা-ইন্দর বাওরা
পটভূমি স্কোর:
অভিষেক অরোরা
চিত্রগ্রাহকসানু ভার্গিস
সম্পাদকদেব রাও যাদব
প্রযোজনা
কোম্পানি
জঙ্গলী পিকচার্স
ক্রোম পিকচার্স
পরিবেশকএএ ফিল্মস
মুক্তি
  • ১৮ অক্টোবর ২০১৮ (2018-10-18)
দৈর্ঘ্য১২৩ মিনিট
দেশভারত
ভাষাহিন্দি
নির্মাণব্যয়₹২৯ কোটি[১]
($৪.১৪ মিলিয়ন)
আয়₹২২১.৪৪কোটি[২]
($৩৯.০ মিলিয়ন)

বাধাই হো (অনু. Congratulations there; হিন্দুস্থানী উচ্চারণ: [bədʱaːi ɦoː]) অমিত রবীন্দ্রনাথ শর্মা পরিচালিত ২০১৮ সালের একটি ভারতীয় হিন্দি কৌতুক-কাহিনী চলচ্চিত্র। অভিনয়াংশে আছেন আয়ুষ্মান খুরানা এবং নীনা গুপ্তা এবং তাঁদের সঙ্গে আরও সহঅভিনেতা আছেন গজরাজ রাও, সুরেখা সিক্রি, এবং সান্যা মালহোত্রা। ছবিটিতে এক মধ্যবয়সী দম্পতির গল্প বলা হয়েছে যাঁর স্ত্রী গর্ভবতী হওয়ায় তাঁদের প্রাপ্তবয়স্ক ছেলের পক্ষে তা অনেকটাই হতাশার কারণ হয়ে ওঠে।[৩][৪] বিনিত জৈন, শর্মা, হেমন্ত ভান্ডারী এবং আলেয়া সেন জঙ্গলী পিকচার্স ও ক্রোম পিকচার্সের ব্যানারে প্রযোজিত এই ছবির কাহিনীকার শান্তনু শ্রীবাস্তব এবং অক্ষত ঘিল্ডিয়াল।[৫][৬] ছবিটি ১৯৯৪ সালের মালয়ালাম ছবি পভিথ্রাম দ্বারা অনুপ্রাণিত।[৭]

বাধাই হো ইতিবাচক পর্যালোচনা পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে বাণিজ্যিক সাফল্যও পেয়েছিল। ২৯ কোটি (US$৩.৯২ মিলিয়ন) টাকা বাজেটে নির্মিত ছবিটি ২২১ কোটি (US$২৯.৮৪ মিলিয়ন) টাকার উপর উপার্জনের সাথে সাথে ছবিটি ২০১৮ সালের নবম সর্বাধিক উপার্জনকারী বলিউড ছবির শিরোপা লাভ করে। এই চলচ্চিত্রটি মোট চারটি ৬৪ তম ফিল্মফেয়ার পুরস্কার জিতেছে। এর মধ্যে আছে সেরা অভিনেত্রী (সমালোচক) হিসাবে গুপ্তা, সেরা সহঅভিনেত্রী হিসাবে সিক্রি। এছাড়াও রয়েছে সেরা সহঅভিনেতা হিসাবে রাওয়ের প্রাপ্ত পুরস্কারটি।[৮] ছবিটি দুটি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারও জিতেছে: সার্বিক বিনোদনসম্পন্ন সেরা জনপ্রিয় চলচ্চিত্রের জন্য জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার এবং সেরা সহায়ক অভিনেত্রীর জন্য সিক্রির পুরস্কার।[৯]

পটভূমি[সম্পাদনা]

নকুল কৌশিক (আয়ুষ্মান খুরানা) একজন পঁচিশ বছর বয়সী কর্মঠ ব্যক্তি এবং তার সহকর্মী রিনি (সন্যা মালহোত্রা) এর সাথে একটি সম্পর্ক রয়েছেন। তার মা সংগীতা (শিবা চন্দা) তাকে পছন্দ করেন এবং তাদের সম্পর্ক মেনে নিয়েছেন। তার বাবা জিতেন্দ্র কৌশিক (গজরাজ রাও) রেলওয়েতে কর্মরত এক মাঝবয়সী ব্যক্তি। তার মা প্রিয়ম্বদা (নীনা গুপ্তা) একজন সাধারণ গৃহিনী। তার ছোট ভাই গুল্লার (শারদুল রানা) উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। তার ঠাকুমা দুর্গা (সুরেখা সিক্রি) সর্বদা প্রিয়ম্বদার সাথে ঝগড়া করেন এবং পুত্র জিতুর উপরে আধিপত্য বিস্তার করেন। একদিন তিনি প্রিয়ম্বদাকে কটূক্তি করলে তিনি বিরক্ত হন। জিতু তাঁর স্ত্রীকে সান্ত্বনা দেন এবং তাঁরা খুব অন্তরঙ্গ সম্পর্কে লিপ্ত হন।

১৯ সপ্তাহ পরে প্রিয়ম্বদা বুঝতে পারেন যে তিনি গর্ভবতী। তিনি সন্তানের গর্ভপাত করা পাপ মনে করেন। জিতু পরিবারকে প্রিয়ম্বদার তৃতীয় গর্ভাবস্থা ঘোষণা করেন। দুই পুত্র বিব্রত হয় এবং তারা তাদের বাবা-মা, বন্ধু এবং সমাজকে এড়িয়ে চলতে শুরু করে। দুর্গাও হতবাক এবং বিপর্যস্ত।

খবরটি ভাইরাল হয়ে যায় এবং পরিবার, বন্ধুবান্ধব, আত্মীয়স্বজন এবং সমাজের কাছে তাঁরা কৌতূকের বিষয় হয়ে ওঠেন। নকুল রিনিকে এড়াতে শুরু করে। জিতু ও প্রিয়ম্বদা নকুল ও গুল্লারকে খুঁড়তুতো ভাইয়ের বিয়ের জন্য তাঁদের সাথে মীরাটে যেতে বলেন। দুজনেই অজুহাত দেখিয়ে যেতে অস্বীকার করে। এতে জিতু তাদের উপর রেগে যান এবং তিনি প্রিয়ম্বদা ও দুর্গার সাথে চলে যান। এদিকে রিনি নকুলকে খুশি করার জন্য একটি তারিখের ঘর প্রদান করে। কিন্তু নকুল তার সাথে ঘনিষ্ঠ হতে পারে না। কারণ এটি তাকে প্রিয়ম্বদার গর্ভাবস্থার কথা মনে করিয়ে দেয়। সংগীতা রিনির কাছ থেকে প্রিয়ম্বদার গর্ভাবস্থা সম্পর্কে জানতে পারেন। তিনি হতবাক হয়ে কৌশিক পরিবার সম্পর্কে আপত্তিকর মন্তব্য করেন। নকুল এটি শুনে সংগীতার সাথে রূঢ় আচরণ করে এবং রিনির সাথে সম্পর্ক ছিন্ন করে।

মীরাট এবং মুজাফ্ফরনগরে জিতুর বড় শ্যালিকা (আলকা আমিন) এবং বোন (আলকা কাউশাল) অধিক বয়সে প্রিয়ম্বদার গর্ভবতী হওয়ায় কটূ কথা বলেন। প্রথমবারের মতো দুর্গা তাঁর কর্তব্যপরায়ণতা দেখিয়ে প্রিয়ম্বদাকে রক্ষা করেন এবং তাঁদের স্বার্থপরতা ও হীন মনোভাবাপন্ন দৃষ্টিভঙ্গী উপলব্ধি করান।

গুল্লার নকুলকে জানায় যে কিছু ছেলে স্কুলে তাকে ঠাট্টা করে এবং যখন সে তাদের প্রতিক্রিয়া জানায় তখন তাদের মধ্যে এক জন তাকে আঘাত করেছে। নকুল পরের দিন স্কুলে যায় এবং গুল্লার ছেলেটিকে তিনবার চড় মারে। নকুল নিজের বন্ধুদের সাথে দেখা করলে তাদের মধ্যে কেউ যখন তাকে তামাশা করে তখন সেও উপযুক্ত উত্তর ফিরিয়ে দেয়। নকুলের সাথে পিতামাতার পুনর্মিলন হয় এবং পুত্র হিসাবে তার দায়িত্ব পালন শুরু করে। প্রিয়ম্বদা বুঝতে পারেন যে নকুল রিনির সাথে সম্পর্ক ছিন্ন করেছে। তিনি তাকে রিনির মায়ের কাছে ক্ষমা চাইতে বলেন। নকুল অনিচ্ছায় রাজি হয়।

প্রিয়ম্বদার গর্ভযন্ত্রণা শুরু হলে সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সংগীতা রিনিকে নকুলের ক্ষমা চাওয়ার কথা বলেন এবং তিনিও নকুলকে ক্ষমা করেছেন বলে জানান। রিনি ছুটে যায় নকুলের বাড়িতে এবং তারপরে হাসপাতালে। প্রসবের পরে ডাক্তার ঘোষণা করেন যে একটি মেয়ে জন্মেছে।

এর ১৫ মাস পরে নকুল এবং রিনির বাগদান সম্পন্ন হয়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Badhaai Ho – Movie – Box Office India"Box Office India। সংগ্রহের তারিখ ৩০ অক্টোবর ২০১৮ 
  2. "Badhaai Ho Box Office collection till Now – Bollywood Hungama"Bollywood Hungama। সংগ্রহের তারিখ ১০ ডিসেম্বর ২০১৮ 
  3. "Ayushmann Khurrana commences shooting of Junglee Pictures' 'Badhaai Ho' – Bollywood films to look forward in 2018 – The Times of India"The Times of India 
  4. "Badhaai Ho: Ayushmann Khurrana, Sanya Malhotra begin shoot for Amit Sharma's upcoming film- Entertainment News, Firstpost"। ২০১৮-০১-৩১। 
  5. "Amit Sharma on Twitter"Twitter (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০৮-১৮ 
  6. "Badhaai Ho Movie Wiki, News, Trailer, Songs, Cast and Crew and Release Date – Movie Alles"Movie Alles (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৮-০৮-১৮। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০৮-১৮ 
  7. "Malayalam film 'Pavithram' to be remade in Tamil?"Sify। ১৪ জানুয়ারি ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ৩০ নভেম্বর ২০১৯ 
  8. "Winners of the 64th Vimal Filmfare Awards 2019"Filmfare। ২৩ মার্চ ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ২৩ মার্চ ২০১৯ 
  9. "National Film Awards 2019: 'Andhadhun', 'Uri:The Surgical Strike' bag awards"The Hindu। ৯ আগস্ট ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ৯ আগস্ট ২০১৯