ফুলকুমার

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ফুলকুমার
ফুলকুমার (২০০২).jpg
মুক্তির পোস্টার
পরিচালকআশিক মোস্তফা
প্রযোজকআশিক মোস্তফা
চিত্রনাট্যকারনুরুল আলম আতিক
উৎসশহীদুল জহির কর্তৃক 
"এই সময়" (১৯৯৩)
শ্রেষ্ঠাংশে
সুরকাররাহুল আনন্দ
চিত্রগ্রাহকসমিরণ দত্ত
সম্পাদকসামির আহমেদ
প্রযোজনা
কোম্পানি
জলছবি মুভি ফ্যক্টরি
মুক্তি
  • ১২ জুন ২০০২ (2002-06-12) (বাংলাদেশ)
দৈর্ঘ্য৫৮ মিনিট
দেশবাংলাদেশ
ভাষাবাংলা

ফুলকুমার ২০০২ সালের বাংলাদেশি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র। এটি পরিচালনা ও প্রযোজনা করেছেন আশিক মোস্তফা। ১৯৯৩ সালে রচিত শহীদুল জহিরের "এই সময়" গল্প অবলম্বনে চিত্রনাট্য রচনা করেছেন নুরুল আলম আতিক। অভিনয়ে ছিলেন জাইন জাফর, কৃষ্ণেন্দু চট্টোপাধ্যায়, পারভিন কনা, সুমিতা দেবী প্রমুখ। চলচ্চিত্রে ফুলকুমার চরিত্রটি আবেগের সূক্ষ্মতার প্রতি লক্ষ্য রেখেছিলেন। এটি একটি আধিকারিক পেটি বুর্জোয়া ঘোরে শিশুদের আগত বয়সের একটি দর্শনীয় ও অবিচ্ছিন্ন অধ্যয়ন। এটি সুমিতা দেবী অভিনীত সর্বশেষ চলচ্চিত্র।[১]

অভিনয়ে[সম্পাদনা]

নির্মাণ ও মুক্তি[সম্পাদনা]

পরিচালক আশিক মোস্তফা নিউ ইয়র্কের স্কুল অব ভিজ্যুয়াল আর্টসে অধ্যয়নকালীন স্নাতক পর্বের অংশ হিসেবে ১৬ মিমি প্রযুক্তিতে চলচ্চিত্রটি নির্মাণ করেন।[২]

চলচ্চিত্রটি ২০০২ সালের ১২ জুন বাংলাদেশে মুক্তি পায়। পরবর্তীতে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে প্রদর্শিত হয়। ২০০৩ সালের ১২ মার্চ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের টিবুরন আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে, ১৯ এপ্রিল গার্ডেন স্টেট চলচ্চিত্র উৎসবে, ২৯ এপ্রিল অ্যাথেন্স আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র ও ভিডিও উৎসবে এবং ডালাসের এশিয়ান চলচ্চিত্র উৎসবে চলচ্চিত্রটি প্রদর্শিত হয়। একই বছর ঢাকা আন্তর্জাতিক স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র উৎসবে এটি প্রদর্শিত হয়।[৩]

মনোনয়ন[সম্পাদনা]

পুরস্কার
আয়োজক বছর বিভাগ প্রাপক ও মনোনীত ফলাফল সূত্র.
অ্যাথেন্স আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র ও ভিডিও উৎসব ২০০২ শ্রেষ্ঠ স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র আশিক মোস্তফা মনোনীত
এরা মোশন পিকচার্স মনোনীত
গার্ডেন স্টেট চলচ্চিত্র উৎসব ২০০২ শ্রেষ্ঠ স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র আশিক মোস্তফা মনোনীত
এরা মোশন পিকচার্স মনোনীত
টিবুরন আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব ২০০২ শ্রেষ্ঠ স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র আশিক মোস্তফা মনোনীত
এরা মোশন পিকচার্স মনোনীত

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. মারিয়া, শান্তা। "সেই শ্যামলবরণ মেয়েটি"বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম। সংগ্রহের তারিখ ৯ জানুয়ারি ২০২১ 
  2. হালদার, মিঠু (১০ মার্চ ২০১৮)। "ট্যাম্পেয়ার উৎসবে 'ইন্টেরিয়র্স এন্ড এক্সটেরিয়র্স'"। প্রিয়। সংগ্রহের তারিখ ৯ জানুয়ারি ২০২১ 
  3. "Phulkumar (2002)" (ইংরেজি ভাষায়)। আইএমডিবি। ২০০২। সংগ্রহের তারিখ ৯ জানুয়ারি ২০২১ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]